আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

১ হাজার টাকার লাল নোট অচলের খবর গুজব

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৪৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১ হাজার টাকা মূল্যমানের লাল নোট বা অন্য কোনো নোটই অচল করেনি বাংলাদেশ ব্যাংক। এ নোট অচল করার যে তথ্য ছড়িয়েছে, তা মিথ্যা।

বুধবার (১১ মে) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী মুখপাত্র জী এম আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ১০০০ টাকা মূল্যমানের লাল নোট আগামী ৩০ মে ২০২২ তারিখের পর অচল হিসেবে গণ্য হবে মর্মে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং অন্যান্য অনলাইন প্লাটফর্মে গুজব/বিভ্রান্তিকর যে তথ্য প্রচারিত হচ্ছে, তা বাংলাদেশ ব্যাংকের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, জনসাধারণের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ১০০০ টাকা মূল্যমানের লাল নোট বা অন্য কোনো নোট অচল ঘোষণা করা হয়নি। জনসাধারণকে এ ধরনের গুজব/বিভ্রান্তিকর তথ্য আমলে না নেওয়ার অনুরোধ করা হচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: বাংলাদেশ ব্যাংক

আরও খবর



ফের পেছালো সোহেল চৌধুরী হত্যা মামলার রায়

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চিত্রনায়ক সোহেল চৌধুরী হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ আবারও পিছিয়েছে। দুষ্কৃতকারীদের হাতে নিহত জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সোহেল চৌধুরী হত্যা মামলার কেস ডকেট (মামলার যাবতীয় তথ্যাদির সংরক্ষিত নথিপত্র) পাওয়া যায়নি। এই কারণে মামলা বিচারের জন্য এখনো প্রস্তুত করা সম্ভব হচ্ছে না। আর এই অবস্থায় ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জাকির হোসেন মামলার শুনানি ফের পিছিয়ে আগামী ১২ মে দিন ধার্য করেন।

ঢাকার মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০০৫ সালের ২ জুন তৎকালীন ডিবির এসআই ফরিদ উদ্দিন কেস ডকেট গ্রহণ করেন। গত ১১ এপ্রিল ফরিদ উদ্দিনকে কেস ডকেটের বিষয়ে অবহিত করার জন্য ট্রাইব্যুনালের নির্দেশ দেন। গত ২৭ এপ্রিল চকবাজার থানা থানার সাবেক পরিদর্শক ফরিদ উদ্দিন ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে ট্রাইব্যুনালকে জানান তিনি যেদিন কেস ডকেট গ্রহণ করেছেন সেদিনই তৎকালীন ডিবির ডিসি শহিদুল ইসলামের কাছে হস্তান্তর করেন। শহিদুল ইসলাম উক্ত কেস ডকেট কি করেছেন এরপর আর তিনি জানেন না।

ট্রাইব্যুনাল ফরিদ উদ্দিনকে বলেন, কেস ডকেট আপনি গ্রহণ করেছেন আগামী সাত দিনের ভিতর আপনি সেটা সংগ্রহ করে ট্রাইব্যুনালে জমা দেবেন। কীভাবে সংগ্রহ করবেন সেটা আপনি জানেন।

আজ ফরিদ উদ্দিন আদালতে হাজির হয়ে বলেন, কেস ডকেট এখনো পাওয়া যায়নি। তিনি আরও কিছুদিন সময় চান। ট্রাইব্যুনাল এ সময় শরিফ আমিনকে বলেন, আপনি কেস ডকেট নেওয়া এবং অন্য কাউকে হস্তান্তর করে রেজিস্ট্রার আগামী তারিখে ট্রাইব্যুনালে হাজির করবেন। আপনি কেস ডকেট দিয়েছেন এবং তা কাউকে হস্তান্তর করেছে এসব তথ্য প্রমাণ আপনি ট্রাইব্যুনালের দাখিল করবেন। এরপর আদালত নতুন তারিখ ধার্য করেন।

এ মামলায় কারাগারে রয়েছেন আসামি তারিক সাঈদ মামুন ও আশীষ রায় চৌধুরী ওরফে বোতল চৌধুরী। আসামি ফারুক আব্বাসী ও আদনান সিদ্দিকী জামিনে আছেন। হাইকোর্ট থেকে জামিনে থাকা আসামি হারুন অর রশীদ ওরফে লেদার লিটন ও আশীষ রায় চৌধুরী ওরফে বোতল চৌধুরী কোনোরকম পদক্ষেপ ছাড়া কয়েকটি তারিখ অনুপস্থিত থাকায় গত ২৮ মার্চ তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়। পরে আশীষ চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে এ মামলার অন্যতম আসামি ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাই ওরফে আব্দুল আজিজ, ট্রাম্পস ক্লাবের মালিক আফাকুল ইসলাম ওরফে বান্টি ইসলাম ও সেলিম খান অনুপস্থিত থাকার কারণে তাদের বিরুদ্ধে গত ২০ মার্চ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল। শীর্ষ সন্ত্রাসী সানজিদুল ইসলাম ইমন এই মামলায় প্রথম থেকেই পলাতক রয়েছেন।

১৯৯৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর বনানীর ট্রাম্পস ক্লাবের সামনে গুলি করে হত্যা করা হয় সোহেল চৌধুরীকে। ঘটনার পর সোহেলের ভাই তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হয়ে গুলশান থানায় হত্যা মামলা করেন। ১৯৯৯ সালের ৩০ জুলাই ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার আবুল কাশেম ব্যাপারী ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ নয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। বিতর্কিত ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের সঙ্গে বাদানুবাদই এ হত্যার নেপথ্য কারণ বলে মামলার অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়।


আরও খবর



ইসরায়েলির মিসাইল হামলায় সিরিয়ায় তিনজন নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের কাছে ইসরায়েলের সারফেস টু সারফেস ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় তিনজন নিহত হয়েছে। শুক্রবার (২০ মে) রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সানা একটি সামরিক সূত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে। সামরিক সূত্র জানায়, মিসাইলগুলো ইসরায়েল অধিকৃত গোলান এলাকা থেকে ছোড়া হয়েছে এবং সিরিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দ্বারা প্রতিহত করা হয়েছে। 

সিরিয়ান অবসারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, ৩ জন সামরিক কর্মকর্তা ছাড়াও ৪ জন বিমান ক্রু এ হামলায় আহত হয়েছে। সংস্থাটি আরও জানায়, হামলাটি সিরিয়ার বিমানবন্দরের খুব কাছে ইরানি গোলাবারুদের ডিপোগুলোকে লক্ষ্য করে করা হয়েছে এবং সেখানে আগুন জ্বলতে দেখা গেছে।

এর আগে সর্বশেষ ১৩ মে ইসরায়েল সিরিয়ায় হামলা চালায় যেখানে ৫ জন নিহত হয়। যদিও ইসরায়েল তাদের হামলার বিষয়ে খুব কম মন্তব্য করে কিন্তু তারা এ পর্যন্ত সিরিয়ায় চালানো শত শত হামলার কথা স্বীকার করেছে।


আরও খবর



শ্রীলঙ্কায় বিক্ষোভকারীদের দিকে গুলি ছোড়ার পর এমপির আত্মহত্যা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৩৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শ্রীলঙ্কায় চলমান অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলায় ব্যর্থতার অভিযোগে দেশটির সরকারের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনের সময় বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালানোর পর ক্ষমতাসীন দলের এক আইনপ্রণেতার লাশ উদ্ধার হয়েছে। পুলিশের মতে, ওই আইনপ্রণেতা উত্তেজিত জনতার গণপিটুনি থেকে বাঁচতে আত্মহত্যা করেছেন।

সোমবার রাজধানী কলম্বোর কাছের নিত্তামবুয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। কলম্বোয় প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের কাছে হওয়া ওই সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। অন্যদিকে, স্থানীয় হাসপাতালের ভাষ্য অনুযায়ী, সোমবারের এ সহিংসতায় অন্তত ৭৮ জন আহত হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি শ্রীলঙ্কা পুলিশের বরাত দিয়ে জানায়, অমরাকীর্থি আথুকোরালা নামের ওই এমপি নিত্তামবুয়া এলাকায় বিক্ষোভকারীদের সামনে পড়েন। এ সময় তার গাড়ির পথরোধ করলে তিনি গুলিবর্ষণ করেন। এতে দুইজন গুরুতর আহত হন এবং পরে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন মারা যান। পরে উত্তেজিত জনতার রোষ থেকে বাঁচতে কাছের একটি ভবনে আশ্রয় নেন। কিন্তু বিক্ষোভকারীরা ভবনটি ঘিরে ফেললে তিনি নিজের রিভালবার দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের সামনে ক্ষমতাসীন দলের একদল সমর্থক জড়ো হয়ে প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগ না করার জন্য অনুরোধ জানিয়ে শ্লোগান দিতে থাকে। এরপর প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দার সঙ্গে তাদের বৈঠক হয়। এই বৈঠক শেষ করে মিছিল করে গিয়ে প্রেসিডেন্ট দপ্তরের সামনে অবস্থানরত সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলা চালায় তারা।

সরকার সমর্থকরা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ওপর লাঠি ও লোহার পাইপ নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। হামলাকারীদের সেখান থেকে সরাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান ব্যবহার করে।

হামলার কিছুক্ষণ পরেই প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন মাহিন্দা রাজাপক্ষে। ক্ষমতাসীন দলের সমর্থকদের এ হামলার ঘটনার পর দেশজুড়ে কারফিউ জারি করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়ে রাজাপক্ষে।


আরও খবর



স্বজনদের কবর জিয়ারত করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নিহত স্বজনদের কবর জিয়ারত করেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দুই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। ঈদুল ফিতরের মধ্যে বুধবার সকালে তারা রাজধানীর বনানী কবরস্থানে যান এবং সেখানে তারা পরিবারের সদস্যদের কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে এ তথ্য জানোনো হয়।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব-১ এম এম ইমরুল কায়েস জানান, বোনকে নিয়ে বুধবার সকালে বনানী কবরস্থানে যান শেখ হাসিনা। তারা পরিবারের সদস্যদের কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন।

এরপর তারা ১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট নিহত জাতির পিতার পরিবারের সদস্যদের কবরে গোলাপের পাপড়ি ছিটিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সেনাবাহিনীর একদল বিপথগামী কর্মকর্তার হাতে সপরিবারে জীবন দিতে হয় তৎকালীন রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

সেই রাতে ঘাতকরা বঙ্গবন্ধু ছাড়াও তার স্ত্রী ফজিলাতুন নেছা মুজিব, তিন ছেলে শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রাসেল, শেখ কামালের স্ত্রী সুলতানা কামাল, শেখ জামালের স্ত্রী রোজী জামাল, বঙ্গবন্ধুর ছোট ভাই শেখ নাসেরসহ পরিবারের ১৮ সদস্যকে হত্যা করে। এদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাকি সবার কবর বনানী কবরস্থানে। বঙ্গবন্ধুকে সমাহিত করা হয় গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায়। তখন বিদেশে থাকায় বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই মেয়ে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা।


আরও খবর



ইপিবি প্রতিনিধিদলের ওয়ালটন হেড কোয়ার্টার পরিদর্শন

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ২১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রপ্তানিমুখী ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদনে ব্যাপক সাফল্য দেখাচ্ছে ওয়ালটন তথা বাংলাদেশ। বাংলাদেশে নিজস্ব কারখানায় তৈরি ওয়ালটন পণ্য বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হচ্ছে। বর্তমানে ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদন শিল্প বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অন্যতম সম্ভাবনাময় খাত হয়ে উঠেছে। এক্ষেত্রে পণ্য রপ্তানিতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)।

উচ্চ মানের ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদন ও রপ্তানিতে বাংলাদেশের সাফল্য ও সম্ভাবনা স্বচক্ষে দেখতে ওয়ালটনের হেড কোয়ার্টার পরিদর্শন করেছে ইপিবির একটি প্রতিনিধিদল। শনিবার (২১ মে) ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান ও সিইও এ এইচ এম. আহসানের নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদলটি গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হেড কোয়ার্টার পরিদর্শন করে।

ইপিবির প্রতিনিধিদলে আরও ছিলেনমহাপরিচালক মাহবুবুর রহমান, সচিব ইফতিখার আহমেদ চৌধুরী, ডিরেক্টর মোহাম্মদ শাহজালাল ও কুমকুম সুলতানা, ডেপুটি ডিরেক্টর রাখী আহমেদ, অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মুনিরা শারমিন ও নজিবুর রহমান এবং স্টাফ অফিসার মইনুল ইসলাম।

সকালে হেড কোয়ার্টার কমপ্লেক্সে পৌঁছালে অতিথিদের ফুল দিয়ে স্বাগত জানান ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসির অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর আবুল বাশার হাওলাদার এবং ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর হুমায়ূন কবীর।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনওয়ালটনের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও গ্লোবাল বিজনেস ডিভিশনের প্রেসিডেন্ট এডওয়ার্ড কিম, চিফ টেকনিক্যাল অফিসার মগ ইয়াং, জ্যেষ্ঠ নির্বাহী পরিচালক তাপস কুমার মজুমদার, আনিসুর রহমান মল্লিক ও ইয়াসির আল ইমরান, নির্বাহী পরিচালক আজিজুল হাকিম প্রমুখ।

পরিদর্শন শেষে ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান এ এইচ এম আহসান বলেন, ওয়ালটনের কারখানার কথা অনেক শুনেছি। জানতাম, এটা অনেক বড়। কিন্তু, এত বড় তা জানতাম না। আজকে এখানে এসে ওয়ালটন সম্পর্কে আমাদের ধারণা আরও পাকাপোক্ত হলো।

তিনি আরও বলেন, ওয়ালটন বাংলাদেশের বাজারে শীর্ষস্থানে আছে। এখন তাদের লক্ষ্য বিশ্ববাজার। এক্ষেত্রে আমাদের প্রয়োজন বাংলাদেশের ব্র্যান্ড, বাংলাদেশে তৈরি পণ্য বিশ্ববাজারে তুলে ধরা। অর্থাৎ বৈশ্বিক বাজারে আমাদের দেশের ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ব্র্যান্ডিং প্রয়োজন। দরকার আন্তর্জাতিক মেলাগুলোতে বেশি করে অংশ নেওয়া। এক্ষেত্রে ওয়ালটনসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে ইপিবি প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে।

ইপিবির মহাপরিচালক মাহবুবুর রহমান বলেন, ইলেকট্রনিক্স খাতে বাংলাদেশের রপ্তানি শুরু হয়েছে ওয়ালটনকে দিয়ে। অন্যরা তাদের অনুসরণ করার চেষ্টা করছে। এ খাতে আমাদের সম্ভাবনা অনেক। বাংলাদেশে ওয়ালটনের মার্কেট শেয়ার ৭০ শতাংশেরও বেশি। এখন ওয়ালটনের দরকার বৈশ্বিক বাজারে উপস্থিতি বৃদ্ধি করা, বিদেশে তাদের পণ্যের রপ্তানি বাড়ানো। ওয়ালটন ঠিক সে কাজটাই করছে। বিশ্ববাজারে বাংলাদেশে তৈরি ইলেকট্রনিক্স পণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধিতে ওয়ালটনসহ এ খাতের সবাইকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিতে আমরা প্রস্তুত।

এর আগে হেড কোয়ার্টার প্রাঙ্গণে পৌঁছে অতিথিরা প্রথমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ওয়ালটনের বেটার বাংলাদেশ টুমরো উদ্যোগে নেওয়া বিভিন্ন কার্যক্রম এবং নানা পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়ার ওপর নির্মিত ভিডিও ডকুমেন্টারি উপভোগ করেন। এরপর তারা ওয়ালটনের সুসজ্জিত প্রোডাক্ট ডিসপ্লে সেন্টার ঘুরে দেখেন। পরে তারা ওয়ালটনের বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়া সরেজমিনে পর্যবেক্ষণে যান। পর্যায়ক্রমে অতিথিরা ওয়ালটনের রেফ্রিজটারেটর, কম্প্রেসর, এয়ার কন্ডিশনার, টেলিভিশন, পিসিবি, মোল্ড অ্যান্ড ডাইসহ বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়া ঘুরে দেখেন।


আরও খবর