আজঃ মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

আবারও ময়লার গাড়ির ধাক্কায় রাজধানীতে ঝরলো প্রাণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর পান্থপথে উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) একটি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় আহমেদ কবির নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী মারা গেছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পান্থপথে একটি ফার্নিচারের দোকানের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনাস্থল থেকে কলাবাগান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) আসাদুজ্জামান গণমাধ্যমকে বলেন, ঘটনার পরপরই ময়লার গাড়ি জব্দ করা হলেও চালক পালিয়েছেন। বিস্তারিত জানার জন্য চেষ্টা চলছে।

এর আগে, গতকাল বুধবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) একটি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় রাজধানীর গুলিস্তান এলাকায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হয়। এ নিয়ে আজ দিনভর আন্দোলন চলে রাজধানীতে।


আরও খবর
মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৬

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




কক্সবাজারে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের পরিবেশক সম্মেলন

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ৪৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বসুন্ধরা এলপি গ্যাস দুই দশকের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে দেশের এলপিজি বাজারকে শক্তিশালী করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে

কক্সবাজারে আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের পরিবেশক সম্মেলন অটুট এক বন্ধনে।

শনিবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ইনানীর হোটেল রয়েল টিউলিপ সি পার্ল বিচ রিসোর্টের সাফিনাহ ব্যাঙ্কুয়েট হল রুমে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সম্মেলনে ২০২০ সালের নভেম্বর থেকে ২০২১ সালের অক্টোবর পর্যন্ত বিক্রয় বিবেচনায় সেরা পরিবেশক এবং অন্যান্য পুরস্কার জয়ী বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

সম্মেলনে বসুন্ধরা গ্রুপের দেড় শতাধিক কর্মকর্তা ও সারাদেশ থেকে প্রায় সাড়ে তিন শতাধিক পরিবেশক অংশগ্রহণ করেন।

সম্মেলনে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার মাহাবুব আলম বলেন, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস একের পর এক সম্মাননা অর্জন করে চলেছে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসকে দেশ সেরা উপাধি দিয়েছে গ্লোবাল বিজনেস এবং বিজনেস টেবলয়ের মতো স্বনামধন্য পাবলিকেশন্স। এ অর্জনগুলোর পেছনের কারিগর কিন্তু পরিবেশকরাই। আপনাদের সহযোগিতায় আমরা ভোক্তার কাছে সঠিক সময়ে পৌঁছাতে পেরেছি, করোনা মহামারির মধ্যেও আপনাদের সহযোগিতা আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে আরও সামনে এগিয়ে যাওয়ার।

এম এম জসীম উদ্দীন (সিওও ব্র্যান্ড অ্যান্ড মার্কেটিং, সেক্টর-এ) বলেন, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস দুই দশকের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে দেশের এলপিজি বাজারকে শক্তিশালী করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। আমাদের এ ধারাবাহিক অগ্রগতি যেন আমরা বজায় রাখতে পারি, সেজন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি।

তিনি বলেন, যারা দীর্ঘদিন ধরে বসুন্ধরা গ্রুপের সঙ্গে ব্যবসা করে আসছেন তারা অবশ্যই জানেন শুধু ব্যবসা নয়, সবার সঙ্গে সুদৃঢ় সম্পর্ক স্থাপনে বসুন্ধরা বদ্ধ পরিকর। পরিবেশকদের সব ধরনের সমস্যা সমাধানে বসুন্ধরা গ্রুপ আন্তরিকভাবে কাজ করে আসছে এবং ভবিষ্যতেও করবে।

সম্মেলন সঞ্চালনা করেন বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের হেড অব সেলস প্রকৌশলী জাকারিয়া জালাল।

তিনি বলেন, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস আজ সর্বদিক দিয়েই নাম্বার ওয়ান, এর পেছনের মূল কারণ এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাই নিজ নিজ জায়গায় নাম্বার ওয়ান। দীর্ঘ দুই যুগের এ ব্যবসায়িক সম্পর্ক এখন আর ব্যবসায়িক সম্পর্কেই সীমাবদ্ধ নেই, পারিবারিক বন্ধনের মতোই এক অটুট বন্ধনে আমরা আবদ্ধ। আমরা বিশ্বাস রাখি মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও পরিবেশকদের সঙ্গে সু-সম্পর্ক বজায় রাখার মধ্য দিয়ে আমাদের বিপণন ব্যবস্থা আরও শক্তিশালী এবং সুদৃঢ় হবে।

এ আয়োজনে দুই রাত তিন দিনব্যাপী রয়েল টিউলিপের নিজস্ব সাগর পাড়ে পরিবেশকরা বিভিন্ন বিনোদনমূলক কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ করেন। সেরা পরিবেশক ২০২০ অর্জনকারীকে সর্বোচ্চ পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হয় একটি ব্র্যান্ড নিউ কার। এ পুরস্কার জিতেছেন কুমিল্লার এম কে ট্রেডার্সের মালিক কামাল ভূইয়া।

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন এম নাসিমুল হাই এফসিএস (কোম্পানি সেক্রেটারি, সেক্টর এ এবং ইডব্লিউপিডি, বসুন্ধরা গ্রুপ), শওকত আকবর (সিওও, ব্যাম্বিং, সেক্টর- এ, বসুন্ধরা গ্রুপ), সাদ তানভীর (হেড অব এইচ আর, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেড), চৌধুরী শামসুজ্জামান আহমেদ (হেড অব অপারেশন, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেড), মাকসুদ আলম (ডিজিএম, অডিট, সেক্টর এ, বসুন্ধরা গ্রুপ), মুশফিকুর রহমান (সেক্রেটারি টু ভাইস চেয়ারম্যান, বসুন্ধরা গ্রুপ) ও বসুন্ধরা গ্রুপের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।


আরও খবর



খালেদাকে বাসায় রেখেছি, এটাই কি বেশি নয়?

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | ৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আমরা অমানুষ নই। অমানুষ নই দেখেই আমার এক্সিকিউটিভ অথরিটি দিয়ে তাকে বাসায় থাকার, চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। বাকিটা আইনগত ব্যপার

খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে নিয়ে বাসায় থাকতে দিয়েছি, এটাই কি বেশি নয়? আপনাকে যদি কেউ হত্যার চেষ্টা করত, আপনি কি তাকে গলায় ফুলের মালা দিয়ে নিয়ে আসতেন?

বুধবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে এক সাংবাদিক বিদেশে নিয়ে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে এসব কথা বলেন।

তিনি প্রশ্ন রাখেন, আপনার পরিবারকে যদি কেউ হত্যা করত, আর সেই হত্যাকারীকে যদি কেউ বিচার না করে পুরস্কৃত করে বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিত, তার জন্য আপনি কী করতেন?

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গ্রেনেড হামলার পর খালেদা জিয়া বলল, আমি নাকি ভ্যানিটি ব্যাগে করে গ্রেনেড নিয়ে আত্মহত্যা করতে গিয়েছিলাম। কোটালিপাড়ায় বোমা যখন পুঁতে রাখে, এর আগে তার বক্তব্য কী ছিল- শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী তো দূরের কথা, বিরোধীদলীয় নেতাও হতে পারবে না। ভেবেছিল মরেই তো যাব। রাখে আল্লাহ, মারে কে; মারে আল্লাহ, রাখে কে? আমার বেলায় হচ্ছে, রাখে আল্লাহ, মারে কে। তারপরও আবার খালেদা জিয়ার জন্য এত দয়া দেখাতে বলেন? কেউ এই প্রশ্ন করলে আমার মনে হয় অন্তত একটু লজ্জা হওয়া উচিত।

তিনি বলেন, আমরা অমানুষ নই। অমানুষ নই দেখেই আমার এক্সিকিউটিভ অথরিটি দিয়ে তাকে বাসায় থাকার, চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। বাকিটা আইনগত ব্যপার। তারপরও দুর্নীতি করে দেশটাকে একেবারে ধ্বংসের দিকে নিয়ে গেছে। গ্রেনেড হামলায় আমাদের এতজন আহত হন, ২২ জন মারা যান, সংসদে বিষয়টি নিয়ে একদিনও আলোচনা করতে দেয়নি।

শেখ হাসিনা বলেন, এত বড় অমানবিক যে তাকেও আমি মানবতা দেখিয়েছি। আমার হাতে যেটুকু পাওয়ার, সেটুকু আমি দেখিয়েছি। আর কত চান, এখন সে অসুস্থ, এই আমি বললাম না, রাখে আল্লাহ মারে কে; মারে আল্লাহ রাখে কে। সেটিই মনে করে বসে থাকুন। এখানে আমার কিছু করার নেই। আমার যতটুকু করার আমি করেছি। বাকিটা আইনের ব্যাপার।’

প্রধানমন্ত্রী ৩১ অক্টোবর থেকে ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত গ্লাসগো, লন্ডন ও প্যারিস সফর করেন। সফরকালে তিনি কপ২৬ সম্মেলন, বাংলাদেশ বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলন ২০২১, ইউনেস্কো সদর দফতরে সৃজনশীল অর্থনীতির জন্য ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান, ইউনেস্কোর ৪১তম সাধারণ সম্মেলন, প্যারিস শান্তি ফোরাম, ইউনেস্কোর ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী এবং অন্যান্য উচ্চ পর্যায়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

প্রায় দুই সপ্তাহের সফর শেষে গত ১৪ নভেম্বর দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী। ওই সফরের বিভিন্ন দিক নিয়ে সাংবাদিকদের মাধ্যমে দেশবাসীকে জানাতে আজ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।


আরও খবর



তুরস্ক পরিচালিত আফগানিস্তানে ১০ স্কুল পুনরায় চালু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ নভেম্বর ২০২১ | ৬৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর থেকে মেয়েদের স্কুল বন্ধ হয়ে যায়। এখনও মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি দেশটির নতুন সরকার। তবে এত সংকটের মধ্যেও তুরস্ক পরিচালিত ১৪ স্কুলের মধ্যে ১০টি পুনরায় খোলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসগ্লু সংসদীয় বৈঠকে এ তথ্য জানান। খবর মিডল ইস্ট আইয়ের।

চাভুসগ্লু বলেন, কূটনীতির মাধ্যমে তুরস্ক আফগান নারীদের সহযোগিতা করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। একই সঙ্গে অন্তর্বর্তী সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মোত্তাকিকে অনুরোধ জানিয়েছি, দেশ পরিচালনায় যেন আফগানিস্তানের সব পক্ষের অংশগ্রহণ থাকে।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের পরামর্শই শুধু যথেষ্ট নয়।  এ জন্য আমরা ১৪ স্কুলের মধ্যে ১০টি খুলে দিয়েছি, যা পরিচালনা করবে মারিফ ফাউন্ডেশন।

তুরস্কের অর্থায়নে আফগানিস্তানে ৮০ স্কুল পরিচালিত হয়।  এর মধ্যে ১৪টি মেয়েদের জন্য।

তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর কাবুলে ন্যাটো জোটের একমাত্র দেশ হিসেবে তুরস্কের দূতাবাস কার্যকর রয়েছে।

চাভুসগ্লু বলেন, তুরস্ক আফগানিস্তানের এক মেয়েশিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিয়েছে। যিনি আফগানিস্তানের বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে। সেলগেই ইসমাইল তুরস্কের রাষ্ট্রীয় স্কলারশিপের আওতায় মেডিকেল স্কুলে প্রশিক্ষণ পাবেন। আমরা তালেবান সরকারের কাছ থেকে তার জন্য পাসপোর্ট সংগ্রহ করেছি।

তুরস্ক সম্প্রতি কাবুলে মানবিক সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।  সম্প্রতি দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে ৩৩ টন খাদ্য দেওয়া হয়েছে।

চাভুসগ্লু বলেন, আমাদের সহায়তা কার্যক্রম চলমান।

আফগানিস্তান বর্তমানে খাদ্য সংকট পার করছে।  যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের পর থেকে তালেবানশাসিত দেশটিতে পশ্চিমা দেশগুলো আর্থিক ও মানবিক সহায়তা বন্ধ করার ফলে সংকট ঘনীভূত হয়েছে।

 


আরও খবর



লাগামহীনভাবে বাড়ছে রডের দাম

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জ্বলানি তেলের দাম বাড়ার পর এবার বাড়িঘরসহ স্থাপনা নির্মাণের অন্যতম প্রধান উপকরণ রডের দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে। মাত্র ১৪ দিনের ব্যবধানে প্রতি টনে ৮ হাজার টাকা বেড়েছে। এতে চরম বিপাকে পড়েছেন বাড়ি নির্মাণকারী ও আবাসন ব্যবসায়ীরা।

রাজধানীর অধিকাংশ স্থানে ভালো মানের (৬০ গ্রেডের ওপরে) রড বিক্রি হচ্ছে প্রতি টন ৮০ থেকে ৮১ হাজার টাকায়, যা ১৫ থেকে ১৬ দিন আগেও বিক্রি হয় ৭২ থেকে ৭৩ হাজার টাকায়। এক মাস আগে দাম ছিল ৬৯ থেকে ৭০ হাজার টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বিশ্ববাজারে কাঁচামালের দাম এবং জাহাজ ভাড়া ব্যাপকভাবে বেড়েছে। কাঁচামালের দাম না কমলে সামনের মাসগুলোতে দাম আরও বাড়তে পারে। এরমধ্যে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার কারণে স্থানীয়ভাবে পরিবহন ও উৎপাদন ব্যয় বেড়েছে। ফলে সামনে রডের দাম আরও বাড়বে।

বিএসআরএম স্টিলের কোম্পানি সচিব শেখর রঞ্জন কর গণমাধ্যমকে বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে স্ক্র্যাপের দাম বাড়ার কারণে রডের দামও বেড়েছে। সামনে দাম আরও বেড়ে যেতে পারে। এটা সম্পূর্ণ আন্তর্জাতিক বাজারের ওপর নির্ভর করছে।

নিউজ ট্যাগ: রডের দাম

আরও খবর
আগামীকাল জাতীয় আয়কর দিবস

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




পাকিস্তানকে ১০৯ রানের লক্ষ্য দিলো বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টির প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে হারের পর ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন নিয়ে আজ দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামলে তাদের সেই কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য তেমন কোনো রান তুলতে পারলো না মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১০৮ রানেই থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

শনিবার (২০ নভেম্বর) মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়ে বাংলাদেশ। তবে শুরুতেই একের পর এক উইকেট হারিয়ে চিরচেনা রূপেই টাইগার বাহিনী।

প্রথম ম্যাচে ৪ উইকেটে হেরে মাহমুদউল্লাহর দল পিছিয়ে আছে ১-০ তে। আজ জয়ের দেখা পেলে সিরিজে আসবে সমতা, না হয় এক ম্যাচ বাকি থাকতেই হারতে হবে সিরিজ।

টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলপতি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে টপ অর্ডারের ব্যাটাররা প্রতিদিনের মতো তা যেনো আজও  ভুল প্রমাণ করেছে। বাংলাদেশ দলের টপ অর্ডার ব্যাটাররা রান করা ভুলেই গেছে।

ইনিংসের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলে প্রথম ম্যাচে একরান করা সাইফ হাসান আজও শূন্য রানেই প্যাভিলিওনের পথ ধরেন। তার কিছুক্ষণ পরই নাঈম শেখও দুই রানে ফিরে গেলে বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ শিবির।

তাদের বিদায়ের পর নাজমুল হোসেন শান্ত ও আফিফ হোসেন দলের হাল ধরার চেষ্টা করলেও আফিফ হোসেন বাজে শটের কারণে আউট হয়ে মাঠে ছাড়েন। ৩৪ বলে সর্বোচ্চ ৪০ রানের ইনিংস খেলেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

পাকিস্তানের পক্ষে সাদাব খান ও শাহীন শাহ আফ্রিদী দুটি করে এবং মোহাম্মদ ওয়াসিম, হারিস রউফ ও মোহাম্মদ নেওয়াজ একটি করে উইকেট পান।

নিউজ ট্যাগ: টি-টোয়েন্টি

আরও খবর
হারের শঙ্কায় টাইগাররা

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১