আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

আইপিএলে মুস্তাফিজদের দলে করোনার হানা

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ এপ্রিল ২০২২ | ২১৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আইপিএলের ১৫তম আসর নিজেদের ঘরের মাঠেই আয়োজন করেছে ভারত। তবে তাতেও শুনতে হচ্ছে দুঃসংবাদ। হঠাৎ করেই আইপিএলে চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা। এর মধ্যেই আইপিএলে মুস্তাফিজুর রহমানদের দল দিল্লি ক্যাপিটালসে হানা দিয়েছে করোনা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, প্রথমে দিল্লি ক্যাপিটালসের ফিজিও প্যাট্রিক ফারহার্ট এবং এক সাপোর্ট স্টাফ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এবার শোনা যাচ্ছে, দলটির এক বিদেশি ক্রিকেটার ও  আরেকজন সাপোর্ট স্টাফ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সবমিলিয়ে দিল্লি শিবিরে মোট চার জন করোনায় আক্রান্ত।

দলে এতজন করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কারণে আজ পুনেতে যাওয়ার পরিকল্পনা বাদ দিয়েছে দিল্লি। আগামী বুধবার পাঞ্জাবের বিপক্ষে খেলতে আজই পুনাতে যাওয়ার কথা ছিল দিল্লির। তবে আজ যাওয়ার কথা থাকলেও যাচ্ছে না দিল্লি শিবিরের।

করোনার প্রভাব পড়ায় আজ সোমবার এবং মঙ্গলবার পুরো দলকে হোটেলের রুমে থাকতে বলা হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে অনুশীলনও। এই দুদিনই ক্রিকেটারদের পরীক্ষা করা হবে। এরপর পরবর্তী ম্যাচের ভবিষ্যৎ ঠিক করা হবে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে দৈনিক কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ১৮৩ জন। যা গতকালের তুলনায় ৯০ শতাংশ বেশি। গতকাল রোববার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১,১৫০।

 


আরও খবর



নওগাঁয় বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন

Image

নওগাঁ প্রতিনিধি:

নওগাঁর পোরশায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন স্থানীয় পশ্চিম দুয়ারপাল ইসলামপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুস সামাদ (৩৫) ও রঘুনাথপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর নূহ (৫৫)।

শুক্রবার (১৩ মে) সকাল ১০ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, সকাল থেকে আব্দুস সামাদ ও আব্দুর নূহ ভারতীয় সীমান্ত এলাকায় পুনর্ভবা নদীর ধারে পাশাপাশি জমিতে ধান কাটছিলেন। এসময় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি মধ্যে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তারা। পরে মাঠের অন্যান্য কৃষক ও শ্রমিকরা মৃতদেহ উদ্ধার করে।

পোরশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) হামিদ রেজা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারী সহযোগিতা প্রদান করা হয়। সেই ধারাবাহিকতায় নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা দেওয়া হবে।


আরও খবর
সাপাহারে আমের কেজি ২ টাকা

শুক্রবার ২০ মে ২০22




জয়ের ফিফটি, সেঞ্চুরির পথে তামিম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টেস্টে বরাবর বাংলাদেশের আক্ষেপের নাম ওপেনিং জুটি। থিতু হওয়ার পাশাপাশি বড় রান খুব একটা আসতে দেখা যায় না। সেখানে সুবাস ছড়াচ্ছেন তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল হাসান। দুজনের ছড়ি ঘোরানো ব্যাটিংয়ে ৬১ ইনিংস পর দেখা মিললো শতরানের ওপেনিং জুটি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ৪৭ ওভারে ১৫৭ রান। তামিম ব্যাট করছেন ৮৯ রানে। সঙ্গে জয় ক্রিজে রয়েছেন ৫৮ রানে। বাংলাদেশ পিছিয়ে ২৪০ রানে।

তৃতীয় দিনের শুরু থেকেই লঙ্কান বোলারদের শাসন করেছেন দুই ওপেনার। তামিম দ্রুত ব্যাট চালিয়ে ৩২তম ফিফটি তুলে নিয়েছেন। তুলনায় মাহমুদুল ছিলেন ধীর স্থির। দেখে শুনে টেস্ট মেজাজে খেলে তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি। তবে ৩৯তম ওভারে অল্পের জন্য জীবন পেয়েছেন তরুণ ব্যাটার। হুক করতে গিয়ে বল বাতাসে তুলে দিয়েছিলেন। কিন্তু আসিথা ফার্নান্ডো বাউন্ডারির কাছে তার ক্যাচ হাতে জমাতে পারেননি ঠিকমতো। পরে সেই বল ছুঁয়েছে বাউন্ডারি।

চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কাকে প্রথম ইনিংসে ৩৯৭ রানে গুটিয়ে দেওয়ার পর দারুণ জবাব দিচ্ছে দুই ওপেনার। এক কথায় আধিপত্য বিস্তার করা ব্যাটিং। রান রেট বিবেচনায় নিলে প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার তুলনায় রান তোলার গতিও বেশি। যেখানে ২৫ ওভারে ২ উইকেট হারানো লঙ্কানদের ৩.০৪ রান রেটে সংগ্রহ ছিল ৭৬। তুলনায় সমান পর্যায়ে (২৫ ওভার) বাংলাদেশের দুই ওপেনার ৪.১৬ রান রেটে তুলে ফেলে ১০৪ রান! সেই ধারা ধরে রাখার চেষ্টা দেখা যাচ্ছে এখনও।


আরও খবর



বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে ২৪ ঘণ্টা চলবে ফেরি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) থেকে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা ৬টি ফেরি চলাচল করবে। এর আগে বুধবার (২৭ এপ্রিল) থেকে এ নৌরুটে পাঁচটি ফেরি চলাচল শুরু করে।

বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ঘাট সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (২৭ এপ্রিল) সকাল থেকেই ঈদকে সামনে রেখে ঘরমুখো যাত্রীদের ভিড় রয়েছে ঘাটে। নৌরুটে ৮৭টি লঞ্চ চলাচল করছে। যাত্রীদের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে লঞ্চের পাশাপাশি ফেরি কুমিল্লা, কুঞ্জলতা, ক্যামেলিয়া, মিনি রো-রো সুফিয়া কামাল ও বেগম রোকেয়া এ ৫টি ফেরি বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে চলাচল করছে। আরও একটি ফেরি যুক্ত হবে এ নৌরুটে।

আপাতত ঈদের আগে ৫ দিন এবং পরে ৫ দিন ২৪ ঘণ্টা শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে পদ্মা সেতুর নীচ দিয়ে আগের নিয়মে ফেরি চলাচল করবে বলে নিশ্চিত করছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বিআইডব্লিউটিএর বাংলাবাজার ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, ঈদগামী যাত্রীদের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে ফেরি কুমিল্লা, কুঞ্জলতা, ক্যামেলিয়া, বেগম সুফিয়া কামাল ও বেগম রোকেয়া এ ৫টি ফেরিসহ মোট ৬টি ফেরি বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে আগামীকাল শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) থেকে ২৪ ঘণ্টাই চলবে।


আরও খবর



এপ্রিলে সড়কে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি মোটরসাইকেলে

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত এপ্রিল মাসে সারাদেশে ৪২৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৪৩ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ৬৭ জন নারী ও ৮১ জন শিশু। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৬১২ জন। এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে ছিল ঈদযাত্রার সময়। এ মাসে সড়কে সবচেয়ে বেশি প্রাণ হারিয়েছেন মোটরসাইকেল চালক ও আরোহী। ১৮৯টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ২০৬ জন, যা এপ্রিলে সড়ক দুর্ঘটনায় মোট মৃত্যুর ৩৭ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

দুর্ঘটনায় এপ্রিলে প্রতিদিন গড়ে নিহত হয়েছেন ১৮ জন। এর আগের মাস মার্চে প্রতিদিন গড় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৯ জন। এ হিসাবে মার্চের তুলনায় এপ্রিলে প্রাণহানি কমেছে ৪ দশমিক ৭৩ শতাংশ। তবে এটা উন্নতির কোনো টেকসই সূচক নির্দেশ করে না। দুর্ঘটনায় ৪৩১ জন ১৮-৬৫ বছর বয়সী কর্মক্ষম মানুষ নিহত হয়েছেন।

‘রোড সেফটি ফাউন্ডেশন’র এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। এ সংস্থাটি দেশের সাতটি জাতীয় দৈনিক, পাঁচটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার তথ্যের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদন করেছে। শনিবার (৭ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিবেদনের তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার পরই বেশি হতাহত হয়েছেন সাধারণ পথচারী। এপ্রিলে নিহতদের মধ্যে পথচারী ১১৬ জন, যা মোট নিহতের ২১ দশমিক ৩৬ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ৮৭ জন, যা মোট নিহতের ১৬ শতাংশ। এসময়ে ছয়টি নৌ-দুর্ঘটনায় আটজন নিহত হয়েছেন। নিখোঁজ হয়েছেন ছয়জন। রেলপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে ২১টি। এতে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের। আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন।

এছাড়া সড়ক দুর্ঘটনায় বাসের যাত্রী নিহত হয়েছেন ১৩ জন, যা একমাসে মোট নিহতের ২ দশমিক ৩৯ শতাংশ। ট্রাক-পিকআপ-ট্রাক্টর-ট্রলি আরোহী নিহত হয়েছেন ৬৩ জন, যা মোট নিহতের ১১ দশমিক ৬০ শতাংশ। মাইক্রোবাস-প্রাইভেটকার-অ্যাম্বুলেন্স-পুলিশের গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে নিহত হয়েছেন ১৪ জন, যা মোট মৃত্যুর ২ দশমিক ৫৭ শতাংশ। ইজিবাইক-সিএনজি-অটোরিকশা-অটোভ্যান-মিশুক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন ১০০ জন, যা মোট মৃত্যুর ১৮ দশমিক ৪১ শতাংশ।

নসিমন-ভটভটি-আলমসাধু-টমটমের ১৯ যাত্রী নিহত হয়েছেন, যা মোট মৃত্যুর ৩ দশমিক ৪৯ শতাংশ। এছাড়া বাইসাইকেল-প্যাডেল রিকশা-রিকশাভ্যানের ১২ জন আরোহী নিহত হয়েছেন, যা মোট মৃত্যুর ২ দশমিক ২০ শতাংশ।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ অনুযায়ী, দুর্ঘটনাগুলোর মধ্যে ১৮৭টি সংঘটিত হয়েছে জাতীয় মহাসড়কে, যা এপ্রিলের মোট দুর্ঘটনার ৪৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ। আঞ্চলিক মহাসড়কে ঘটেছে ১২৩টি দুর্ঘটনা, যা মোট দুর্ঘটনার ২৮ দশমিক ৮০ শতাংশ। গ্রামীণ সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৬৫টি, যা মোট দুর্ঘটনার ১৫ দশমিক ৪২ শতাংশ, শহরের সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪৬টি, যা মোট দুর্ঘটনার ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ। আর অন্যান্য স্থানে ছয়টি দুর্ঘটনা ঘটেছে, যা আলোচিত মাসের মোট দুর্ঘটনার ১ দশমিক ৪০ শতাংশ।

এসব দুর্ঘটনা ৮৪টি মুখোমুখি সংঘর্ষ, ১৬৭টি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে, ১১৩টি পথচারীকে চাপা বা ধাক্কা দেওয়া, ৫২টি যানবাহনের পেছন থেকে ধাক্কা দেওয়া এবং ১১টি অন্যান্য কারণে সংঘটিত হয়েছে। দুর্ঘটনায় সম্পৃক্ত যানবাহনের সংখ্যা ৭৫৭টি। এরমধ্যে ট্রাক ১৪৪, বাস ৭৯, কাভার্ডভ্যান ২৬, পিকআপ ৫৮, ট্রলি ৯, লরি ১০, ট্রাক্টর ১৭, তেলবাহী ট্যাঙ্কার তিনটি, গ্যাস সিলিন্ডারবাহী ট্যাঙ্কার একটি, ডিএনসিসির ময়লাবাহী ট্রাক একটি, ড্রাম ট্রাক সাতটি, মাইক্রোবাস ১৭, প্রাইভেটকার ১৪, অ্যাম্বুলেন্স তিনটি, পুলিশ জিপ একটি, মোটরসাইকেল ১৯৭, থ্রি-হুইলার ১১৬। এছাড়া স্থানীয়ভাবে তৈরি যানবাহন ৪৩ এবং বাইসাইকেল-প্যাডেল রিকশা-রিকশাভ্যান ১১ টি।

বিভাগওয়ারী পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এপ্রিলে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি হয়েছে ঢাকা বিভাগে। এ মাসে সংঘটিত মোট দুর্ঘটনার ৩০ দশমিক ৬৭ শতাংশ ঢাকা বিভাগে। এপ্রিলে সড়কে প্রাণহানির ২৮ দশমিক ৭২ শতাংশ ঢাকায়। মোট দুর্ঘটনার ১২ দশমিক ৪১ শতাংশ রাজশাহী বিভাগে। এছাড়া চট্টগ্রামে ২৪ দশমিক ১২ শতাংশ, খুলনায় ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ, বরিশালে ৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ, সিলেটে ৪ দশমিক ৪৪ শতাংশ, রংপুরে ৬ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং ময়মনসিংহে ৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী। এপ্রিলে সড়কে প্রাণ ঝরেছে ৬৩ জন শিক্ষার্থীর। এছাড়া রাজনৈতিক নেতা ১২ জন, ব্যবসায়ী ৩১ জন, শিক্ষক ১৩ জন, পুলিশ সদস্য চারজন, সেনাসদস্য একজন, র‌্যাব সদস্য একজন, বিজিবি সদস্য একজন, গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য দুজন, ফায়ার সার্ভিসের সদস্য একজন, চিকিৎসক দুজন, সাংবাদিক তিনজন, আইনজীবী চারজন, প্রকৌশলী দুজন, সংগীত শিল্পী একজন, ব্যাংক কর্মকর্তা ৯ জন, এনজিও কর্মকর্তা ১১ জন, ওষুধ ও বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী বিক্রয় প্রতিনিধি ১৯ জন, পোশাকশ্রমিক সাতজন, চালকল শ্রমিক দুজন, ইটভাটা শ্রমিক চারজন, ধানকাটা শ্রমিক ছয়জন, মাটিকাটা শ্রমিক চারজন।

যেসব কারণে দুর্ঘটনা: সংস্থাটি বলছে ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন, বেপরোয়া গতি, চালকদের বেপরোয়া মানসিকতা, অদক্ষতা ও শারীরিক-মানসিক অসুস্থতার কারণে সড়কে বেশি দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়া বেতন ও কর্মঘণ্টা নির্দিষ্ট না থাকা, মহাসড়কে স্বল্পগতির যানবাহন চলাচল, তরুণ ও যুবদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো, জনসাধারণের মধ্যে ট্রাফিক আইন না জানা ও না মানার প্রবণতা, দুর্বল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা, বিআরটিএ’র সক্ষমতার ঘাটতি, গণপরিবহন খাতে চাঁদাবাজি সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ।

নিউজ ট্যাগ: সড়ক দুর্ঘটনা

আরও খবর



মাধ্যমিকে ৪৭১ জন শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাধ্যমিকের শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরএ) বিশেষ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আওতায় ৪৭১ জন প্রার্থীকে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। সোমবার (২৫ এপ্রিল) রাতে এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান মো. এনামুল কাদের খান সই করা অফিস আদেশ জারি করা হয়।

আদেশে বলা হয়, সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (সেসিপ)ভোকেশনাল কর্মসূচির জন্য বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যায়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরএ) বিশেষ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আওতায় প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত ৫৯১ জন প্রার্থীর পুলিশ নিরাপত্তা ভেরিফিকেশন চলমান অবস্থায় নিয়োগ সুপারিশ প্রদানের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ হতে গত ১৮ এপ্রিলের নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে ৪৭১ জন প্রার্থীকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে। প্রার্থীদের এবং সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ইতোমধ্যে জানানো হয়েছে।

১২০ জন প্রার্থীর পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য ভিআর ফরম জমা না দেওয়ায় নিয়োগ সুপারিশ করা হয়নি। আগামী ১২ মে’র মধ্যে ভিআর ফরম জমা দিলে তাদের নিয়োগের সুপারিশ করা হবে। এ সময়ের মধ্যে ভিআর ফরম জমা না দিলে প্রাথমিক নির্বাচন বাতিল বলে গন্য হবে। আর নিয়োগ সুপারিশ পাওয়া ৪৭১ জন প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট ম্যানেজিং কমিটি নিয়োগ দেবে।


আরও খবর