আজঃ মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

আজ আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিরোধ দিবস আজ। ১৯৬০ সালের ২৫ নভেম্বর ক্যারিবিয়ান দেশ ডোমিনিকান রিপাবলিকের স্বৈরাচারী সরকারবিরোধী মিরাবেল ভগ্নিত্রয়কে সেনা সদস্যরা ধর্ষণ ও হত্যা করেন।

এই নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য ১৯৮১ সালে লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় নারী সম্মেলন এই হত্যাকাণ্ডকে স্মরণ করে ২৫ নভেম্বরকে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিরোধ দিবস ঘোষণা করে।

দিবসটি উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন সংগঠন আজ নানা কর্মসূচি পালন করবে। নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিরোধ দিবস উদযাপন কমিটি এবারের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ। কমিটি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল জানিয়েছে, আজ সন্ধ্যায় ঢাকার মোহাম্মদপুরে নারী পক্ষের কার্যালয় থেকে লাঠি খেলা, স্লোগানসহ প্রতিরোধের আগুন শিরোনামে মশাল মিছিল বের করা হবে। মিছিলটি সাতমসজিদ সড়ক, বঙ্গবন্ধু সড়ক ও মানিক মিয়া এভিনিউ হয়ে সংসদ ভবনের সামনে শেষ হবে।

আরেকটি সংগঠন আমরাই পারি জোট আজ দেশজুড়ে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে ৯টি দাবি নিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালনের পাশাপাশি জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেবে। আগামী ২৭ নভেম্বর ঢাকার মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত আমরাই পারি পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াও একসাথে স্লোগান সামনে রেখে জাতীয় সম্মেলনের আয়োজন করেছে।

এছাড়া আগামী রোববার সিবিসিবি সেন্টারে দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত এবং আমরাই পারি জোটের সঙ্গে সম্পৃক্ত শতাধিক শিক্ষার্থীকে নিয়ে স্টুডেন্ট চেঞ্জমেকার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



বিদেশী সকল ভ্রমণকারীর ওপর নিষেধাজ্ঞা জাপানের

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ১৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন মোকাবেলায় জাপান সীমান্তে আবারো কড়াকড়ি আরোপ করেছে। যদিও মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে দেশটি সীমান্তে কড়াকড়ি শিথিল করেছিল। এ ছাড়া দেশটি বিদেশী সকল ভ্রমণকারীর ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা সোমবার এক ঘোষণায় এ সব কথা বলেন।

কিশিদা সাংবাদিকদের আরো বলেন, আমরা জাপানে সকল বিদেশীর প্রবেশ নিষিদ্ধ করছি। ৩০ নভেম্বর থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হচ্ছে।

তবে শুধু জাপানই নয়, করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন মোকাবেলায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ইতিমধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কানাডা এর মধ্যে অন্যতম। দেশটিতে সম্প্রতি করোনার ওমিক্রন ধরন শনাক্ত হয়েছে। নাইজেরিয়া ভ্রমণ করেছেন এমন দুব্যক্তির শরীরে নতুন এ ধরন শনাক্ত হয়।


আরও খবর



টিকা তৈরি করে অন্য দেশকে দেওয়ার সক্ষমতা আছে

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে বিজ্ঞান-প্রযুক্তিতে আওয়ামী লীগ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপও তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এখন আমরা পিছিয়ে নেই। আমি ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশের জনগণকে

টিকা উৎপাদন করে অন্য দেশকে দেওয়ার সক্ষমতা বাংলাদেশের রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার একাদশ জাতীয় সংসদের পঞ্চদশ অধিবেশনে এক সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মোকাবিলায় আমাদের যে সাফল্য, তার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আমরা পেয়েছি। জলবায়ু সম্মেলনে গিয়ে আমি এটাও বলে এসেছি, আমরা নিজেরা টিকা তৈরি করতে চাই। টিকা তৈরিতে যে বাধাগুলো আছে, সেগুলো সরিয়ে দিতে হবে। এটি উন্মুক্ত করতে হবে।

টিকা জনগণের প্রাপ্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বের কোনো মানুষ করোনার টিকা থেকে দূরে না থাকে। আমাদের সুযোগ দিলে আমরাও টিকা উৎপাদন করবো। আমাদের সেই সক্ষমতা আছে। সেজন্য জমিও কিনে রেখেছি। আমরা কিন্তু উদ্যোগ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে পুরস্কার চালু করায় ইউনেস্কোকে ধন্যবাদ জানাতে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য সাবেক প্রধান হুইপ আব্দুস শহীদ সাধারণ আলোচনার জন্য জাতীয় সংসদে একটি প্রস্তাব তোলেন।

প্রস্তাবে বলা হয়, জাতীয় সংসদে বিশেষ আলোচনার মাধ্যমে ইউনেস্কোকে বাংলাদেশের সকল জনগণের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানানো হোক। এ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেন সরকারি ও বিরোধীদলের সংসদ সদস্যরা। আলোচনা শেষে সংসদে তা সর্বসম্মতিক্রমে গ্রহণ করা হয়।

সাধারণ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় বঙ্গবন্ধুর শাসনামলে দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে জাতির পিতার গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু হত্যা পরবর্তী সময়কালের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ৭৫ এর পর আমরা কী দেখেছি? ১৯টি ক্যু হয়েছে। হাজার হাজার সেনাবাহিনীর অফিসার ও সৈনিক, বিমানবাহিনীর অফিসার ও সৈনিক এবং সাধারণ মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হয়েছে। কারাগারে ফেলে রাখা হয়েছে, নির্যাতন চলেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, সে সময় গুলি-অস্ত্র, দুর্নীতি এটাই ছিল জননীতি। এর বাইরে একটা দেশকে যে উন্নত করা যায়, সেদিকে কোনো আন্তরিকতাই আমরা দেখিনি। আমি বাংলাদেশে আসার পর কী দেখেছি। বিজ্ঞান পড়েই না মানুষ। বিজ্ঞানের প্রতি কোনো আগ্রহ নেই। গবেষণা তো ছিলই না। কোনো বিশেষ বরাদ্দও ছিল না।

১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে বিজ্ঞান-প্রযুক্তিতে আওয়ামী লীগ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপও তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এখন আমরা পিছিয়ে নেই। আমি ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশের জনগণকে। তারা বারবার আমায় ভোট দিয়েছে। সেবা করার সুযোগ দিয়েছে। আমরা সাধ্যমত চেষ্টা করেছি। এক দশকের ভেতরে বাংলাদেশের পরিবর্তন সারাবিশ্বে মর্যাদা পেয়েছে। বাংলাদেশের কাউকে বিদেশে গিয়ে কথা শুনতে হয় না।

উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় এবং রেহানার ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকসহ আমাদের কিছু ইয়ং সংসদ সদস্য মিলে ইয়ংবাংলা স্টার্টআপ প্রোগ্রাম নিয়েছে। এ প্রোগ্রামের জন্য আমরা বিশেষ বরাদ্দও রেখেছি। ছেলেমেয়েরা যদি কেউ উদ্যোগ নিতে চায় আমরা তাদের পাশে দাঁড়াব। অনলাইনে কেনাবেচা, ই-কমার্স, টেন্ডার এগুলোতো হয়েছে বাংলাদেশে। সামনে আরও সময় আছে। আরও হবে। এক দিনেতো হয় না। ধাপে ধাপে করতে হয়।


আরও খবর



করোনায় বিশ্বজুড়ে মৃত্যু-শনাক্ত কমেছে

প্রকাশিত:সোমবার ০১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ নভেম্বর ২০২১ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় চার হাজার ৫৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন তিন লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন দুই লাখ ৫৮ হাজার ১৯০ জন।

এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ছয় হাজার ৯৩ জনের মৃত্যু হয়। একই সময়ে নতুন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয় তিন লাখ ৮৭ হাজার ১১১ জন।

সোমবার (১ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০ লাখ ১৪ হাজার ৯৪০ জনে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত বেড়ে দাঁড়ালো ২৪ কোটি ৭৬ লাখ ৬০ হাজার ৪৬৭ জনে। এছাড়া করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২২ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৪১৭ জন।

করোনায় এখন পর্যন্তসবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছেন চার কোটি ৬৮ লাখ ২৩ হাজার ৯৩৮ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন সাত লাখ ৬৬ হাজার ২৯৯ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিন কোটি ৬৭ লাখ ১৫ হাজার ৩১৩ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন তিন কোটি ৪২ লাখ ৮৫ হাজার ৬১২ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ৫৮ হাজার ৪৭০ জন।

তৃতীয় অবস্থানে থাকা ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই কোটি ১৮ লাখ ১০ হাজার ৮৫৫ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ সাত হাজার ৮৬০ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন দুই কোটি নয় লাখ ৯৬ হাজার ৭৭২ জন।

তালিকায় এরপরের স্থান গুলোতে রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, আর্জেন্টিনা,স্পেন, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৩০ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৯ হাজার ৫৩৯ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৭ হাজার ৮৬৮ জন। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সেরে উঠেছেন ১৫ লাখ ৩৩ হাজার ৪২৩ জন।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়া নিতে রাজি রাইদা

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
শিক্ষার্থীরা রাইদা পরিবহনের কাছে দাবি করে, নিয়ম অনুযায়ী ঢাকা শহরের যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা তাদের পরিচয়পত্র দেখালে তাদের হাফ ভাড়া নিতে হবে

রাজধানীর রামপুরায় রাইদা পরিবহনের একটি বাসে অর্ধেক ভাড়া না নিয়ে এক শিক্ষার্থীকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে নামিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে পরিবহনটির প্রায় ৫০টি বাস আটকে রাখা হয়। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে দীর্ঘসময় আলোচনা শেষে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া নিতে রাজি হয়েছে রাইদা পরিবহনের মালিকপক্ষ।

শিক্ষার্থীরা পরিচয়পত্র দেখানো মাত্র তাদের অর্ধেক ভাড়া নেবে বলে রাইদা কর্তৃপক্ষ মেনে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন রামপুরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) বিকেল ৩টা ৫০ মিনিটে তথ্য নিশ্চিত করে সাইফুল ইসলাম বলেন, ঢাকা ইম্পিরিয়াল কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে রাইদা পরিবহনের সমঝোতা প্রায় শেষ দিকে। শিক্ষার্থীদের সব দাবি রাইদা পরিবহন কর্তৃপক্ষ মেনে নিয়েছে। শিক্ষার্থীরা রাইদা পরিবহনের কাছে দাবি করে, নিয়ম অনুযায়ী ঢাকা শহরের যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা তাদের পরিচয়পত্র দেখালে তাদের হাফ ভাড়া নিতে হবে। এছাড়া প্রতিটি বাসে নারীদের জন্য যে ৯টি আসন সংরক্ষিত থাকে সেখানে কোনোভাবেই নারীরা ছাড়া পুরুষ বসতে পারবেন না।

তিনি বলেন, রাইদা পরিবহনের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এসব দাবি মেনে নিয়েছেন এবং আমাদের এসব বাস্তবায়নের বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছেন। সমঝোতা প্রায় শেষ দিকে। সমঝোতা শেষে এই রাস্তায় আটকে থাকা বাসগুলো ছেড়ে দেওয়া হবে।

ডিএমপির মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের রামপুরা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) তানভীর রহমান বলেন জানান, এই ঘটনার পর শিক্ষার্থী ও রাইদা পরিবহন কর্তৃপক্ষ সমঝোতা করছে রামপুরা থানায়। সেখানে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বিষয়টি তদারকি করছেন। ঘটনার শুরুতে শিক্ষার্থীরা পঞ্চাশটির মতো বাস রাস্তায় আটকে রাখে। আটকানো বাসগুলোর মধ্যে ৩০টি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে, আর ২০টি এখনো আটকানো রয়েছে। সমঝোতা শেষে বাসগুলো ছেড়ে দেওয়া হবে।

এর আগে দুপুর ১টা ২০ মিনিটের দিকে রাজধানীর রামপুরায় বিটিভি ভবনের সামনে রাইদা পরিবহনের একটি বাস থেকে এক শিক্ষার্থীকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে নামানোর অভিযোগে পরিবহনটির প্রায় ৫০টি বাস আটক করেন শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় ওই সড়কে প্রায় এক ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ এসে শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে নিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

এ বিষয়ে ঘটনার পর রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, রাইদা পরিবহনের একটি বাস যখন বিটিভি ভবনের সামনে আসে তখন বাসে থাকা এক শিক্ষার্থী চেকারকে হাফ ভাড়া নেওয়ার কথা বলে। চেকার তা না নিতে অস্বীকৃতি জানায় এবং তাকে বাস থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে নামিয়ে দেয়। এ সময় ওই শিক্ষার্থী তার আশপাশের বন্ধুদের ফোন দিয়ে বিষয়টি জানালে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী এসে রাইদা পরিবহনের প্রায় ৫০টি বাস আটক করে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করলে তারা সড়ক থেকে সরে যায় এবং সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। অভিযুক্ত বাসটি আটক করা হয়েছে। বাস কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিষয়টি সমাধানে আলোচনা চলছে বলেও জানান ওসি।

নিউজ ট্যাগ: রাইদা পরিবহন

আরও খবর
মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৬

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




চট্টগ্রামে কেমিক্যাল কারখানায় ভয়াবহ আগুন

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের সাগরিকায় কেমিক্যাল গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট ৪৫ মিনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে আগুন লাগে। এরপরই আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট। পরে আরও ৬টি ইউনিট যুক্ত হয়।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আনিসুর রহমান বলেন, প্রাথমিক অবস্থায় আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। এখানে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল ছিল। সেগুলোর বৈধ কাগজ ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

হোমল্যান্ড কেমিক্যালের মালিক শামসুন্নাহার রুমা বলেন, প্রতিষ্ঠানটিতে গ্রিজ তৈরি হতো। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের ঘটনা ঘটতে পারে। আগুনে প্রায় ২ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।


আরও খবর