আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম
দিনাজপুরে সড়ক বিভাগের

আঞ্চলিক সড়ক পরিদর্শন করলেন প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৬২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দিনাজপুর থেকে মনজিদ আলম শিমুল

দিনাজপুরে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর সড়ক বিভাগের উন্নয়ন ও রক্ষনাবেক্ষণ কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় অংশগ্রহন, বঙ্গবন্ধু কর্ণারের উদ্বোধন, দিনাজপুর সড়ক ভবনের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কার্যক্রমের উদ্বোধন, অসহায় ও দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, বৃক্ষরোপন ও ফুলবাড়ী-গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহা সড়কের নির্মান কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন।

সড়ক ভবনের সম্মেলন কক্ষে দিনাজপুর সড়ক বিভাগের উন্নয়ন ও রক্ষনাবেক্ষণ কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর বলেন, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে রাস্তার গুনগত মান বজায় রেখে কাজ করতে হবে। সড়ক নির্মানে কোনো রকমের খাম খেয়ালী বা গরিমসি বরদাস্ত করা হবে না। মেটিরিয়ালসের মান যাচাই করে কাজ করতে হবে। সবসময় কাজের পরিবেশ ভালো রাখতে হবে। অনুষ্ঠানে দিনাজপুর সড়ক সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ মাহবুবুল আলম খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন রংপুর জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোঃ মনিরুজ্জামান।

 বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুনীতি চাকমা, ঠাকুরগাঁও এর নির্বাহী প্রকৌশলী মনসুরুল আজিজ তারেক সহ রংপুর জোনের সড়ক বিভাগের বিভিন্ন জেলার নির্বাহী প্রকৌশলীবৃন্দ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ কামরুল হাসান সরকার, প্রকৌশলী সমীর কুমার বণিক, সহকারী প্রকৌশলী মোঃ মমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

নিউজ ট্যাগ: দিনাজপুর

আরও খবর



নতুন সম্পর্কে জড়িয়েছেন সাল্লু

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নিজেকে যেন চিরকুমার রাখার পণ করেছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ৫৭ বছর বয়সে এসেও এখনো বিয়ে করেননি। কিন্তু স্ত্রী না আসলেও সালমানের জীবনে এসেছে বহু প্রেমিকা। সেই নব্বই দশক থেকে বহু নায়িকা, মডেলের সঙ্গে জড়িয়েছে ভাইজানের নাম।

সর্বশেষ রোমানিয়ান গায়িকা ইউলিয়া ভান্তুরের সঙ্গে প্রেম ছিল সালমানের। বছর কয়েক আগে দুজনকে অনেকবার একসঙ্গে দেখা গেছে। কিন্তু সেই সম্পর্ক এখন অতীত। গুঞ্জন ছড়িয়েছে, নতুন সম্পর্কে জড়িয়েছেন সাল্লু।

কে সেই নারী? যার রূপে-গুণে মজলেন সালমান খান? নাম তার সামান্থা লকউড। তিনি একজন মার্কিন মডেল-অভিনেত্রী। গত ২৭ ডিসেম্বর সালমানের জন্মদিনের আয়োজনকে কেন্দ্র করেই সামান্থার সঙ্গে তার প্রেমের গুঞ্জন চাউর হয়েছে।

ওইদিন সালমানের ফার্মহাউজে জন্মদিনের বিশেষ পার্টি ছিল। সেই অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন সামান্থা। তাদের একটি ঘনিষ্ঠ ছবিও ভাইরাল হয়েছে। যদিও সালমানের সঙ্গে সম্পর্ককে স্রেফ গুজব বলে দাবি করেছেন অভিনেত্রী।

সামান্থা বলেন, মানুষ অকারণে এই গুজব রটাচ্ছে। হ্যাঁ, সলমনের সঙ্গে দেখা হয়েছে তার জন্মদিনে। তিনি খুবই ভালো একজন মানুষ। আমি সবাইকে অনুরোধ করব এই গুজব যাতে বিশ্বাস না করেন।

বলে রাখা প্রয়োজন, সামান্থা লকউডের জন্ম ১৯৮২ সালে। তিনি জনপ্রিয় মার্কিন তারকা গ্যারি লকউড ও অভিনেত্রী ডেনিস ডুব্যারির মেয়ে। নিউইয়র্ক ফিল্ম অ্যাকাডেমি থেকে পড়াশোনা করেছেন এই সুন্দরী। শ্যুট দ্য হিরো, হাওয়াই ফাইভ-ও ইত্যাদি সিনেমায় অভিনয় করেছেন ৩৯ বছরের সামান্থা।

উল্লেখ্য, ইউলিয়া ভান্তুরের আগে সালমানের প্রেম ছিল ক্যাটরিনা কাইফের সঙ্গে। বর্তমানে অভিনেতা ভিকি কৌশলের স্ত্রী ক্যাটরিনা। গত বছরের ৯ ডিসেম্বর তারা বিয়ে করেছেন। 


আরও খবর



দিনাজপুরের হিলিতে তাপমাত্রা বেড়েছে

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দিনাজপুরের হিলিতে বেড়েছে তাপমাত্রা। এ সময় কমেছে শীতের প্রকোপ। দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের বিরাজমান মৃদু শৈত্যপ্রবাহটি প্রশমিত হয়েছে। ধীরে ধীরে আবহাওয়া পরিস্থিতির আরও উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে ঘন কুয়াশা এখনো বিরাজ করছে। তীব্র শীত আর ঠাণ্ডা থেকে রক্ষায় আগুন জ্বালানোসহ নানা উপায় খুঁজছেন নিম্ন আয়ের মানুষ।

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ইনচার্জ তোফাজ্জল হোসেন জানান, শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় দিনাজপুরে চূড়ান্ত সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেতুলিয়াতে ৯.৮ ডিগ্রী সে: রেকর্ড করা হয়েছে।


আরও খবর



পদত্যাগ করলেন সুদানের প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সুদানের প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লাহ হামদোক পদত্যাগ করেছেন। স্থানীয় সময় রোববার সামরিক শাসনবিরোধী বিক্ষোভে হতাহতের পর রাতে এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দেন। আবদাল্লাহ হামদোক বলেন, সুদানের গণতন্ত্রে উত্তরণের জন্য একটি নতুন চুক্তির প্রয়োজন ছিল, যেটি আমরা করেছিলাম।

তবে চুক্তি অনুযায়ী প্রাপ্ত দায়িত্ব আমি ফিরিয়ে দিচ্ছি। আমি প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করছি। দেশের নেতৃত্বের জন্য অন্য কোনো পুরুষ বা নারীকে সুযোগ করে দিচ্ছি, যিনি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করে সুদানকে একটি বেসামরিক গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করার পথে বাকি কাজটুকু সম্পন্ন করতে পারেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, রোববার রাজধানী খার্তুমে কয়েক হাজার মানুষ সেনাশাসনবিরোধী বিক্ষোভ শুরু করেন।

এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা প্রথমে টিয়ার গ্যাস এবং পরে অতর্কিত গুলি চালায়। এতে মাথায় গুলিবিদ্ধ এক তরুণ নিহত হন। এ ছাড়া পার্শ্ববর্তী শহর ওমদুরমানেও বিক্ষোভে গুলি চালায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। 

এ সময় বুকে গুলিবিদ্ধ হয়ে আরেকজনের মৃত্যু হয়। কিন্তু সেনাশাসনের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে রাস্তায় নামেন সাধারণ মানুষ। এখনও পর্যন্ত সহিংসতায় প্রাণ গেছে অন্তত ৫৬ জনের।

গত ২৫ অক্টোবর দেশটির শীর্ষ রাজনৈতিক নেতাদের বন্দি করে ক্ষমতা দখল করেন জেনারেল ফাত্তাহ আল-বুরহান। প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লাহ হামদোককে গৃহবন্দি ও বেশ কয়েকজন মন্ত্রীকে গ্রেফতারের পাশাপাশি দেশব্যাপী জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন তিনি।

সুদানিদের বিক্ষোভ ও বৈশ্বিক চাপের মুখে গত ২২ নভেম্বর ক্ষমতাচ্যুত সুদানের প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লাহ হামদোককে স্বপদে ফিরিয়ে আনেন দেশটির সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান।

দেশটির সেনাপ্রধানের সঙ্গে ক্ষমতাচ্যুত বেসামরিক সরকারের চুক্তিও হয়। তবে বেসামরিক সরকারকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না অভিযোগ তুলে দেশটিতে এখনও সামরিক শাসনবিরোধী বিক্ষোভ করছেন সুদানিজরা।

এরই মধ্যে রোববার ২ জানুয়ারি রাতে সুদানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন আবদাল্লাহ হামদোক। ক্ষমতায় ফেরার কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই পদত্যাগ করলেন তিনি। পদত্যাগের ঘোষণা দেওয়া এক ভাষণে তিনি বলেন, আমি দায়িত্ব ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিচ্ছি।

উল্লেখ্য, সুদানে তিন দশক ধরে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতায় ছিলেন ওমর আল-বশির। ২০১৯ সালে ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে দীর্ঘদিনের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশির ক্ষমতাচ্যুত হন।

তার পর বেসামরিক ও সামরিক নেতারা দেশটিতে গণতন্ত্র ফেরাতে ক্ষমতা ভাগাভাগির চুক্তি করেন। অক্টোবরের অভ্যুত্থানের নেতা জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান দাবি করেছেন সুদান এখনও বেসারিক শাসনে ফিরে যেতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

২০২৩ সালের জুলাইতে পরিকল্পনা অনুযায়ী নির্বাচন হবে বলেও জানান তিনি। তবে বিক্ষোভকারীরা বলছেন তারা সেনাবাহিনীকে বিশ্বাস করেন না।


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




‘চট্টগ্রাম বন্দরের নতুন চার প্রকল্পের বাড়লো সক্ষমতা’

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | ২৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আধুনিক যন্ত্রপাতির সংযোজন ও আধুনিকায়নের ছোঁয়ায় এগিয়ে যাচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর। ফলাফল হিসেবে অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে ইতোমধ্যে ৩১ লাখ ৬৯ হাজার টিইইউএস কনটেইনার হ্যান্ডলিং করেছে প্রতিষ্ঠানটি। বন্দরের সংক্ষমতা আরও বাড়াতে সার্ভিস জেটি, ওভার ফ্লো ইয়ার্ড নির্মাণের পাশাপাশি নতুন টাগ বোট সংগ্রহ করেছে বন্দর। ক্রীড়াঙ্গনে অবকাঠামোগত সংকট দূর করতে এবং প্রশিক্ষণ ও অনুশীলন বাড়াতে নিজস্ব অর্থায়নে আর্ন্তজাতিক মানের সুইমিং কমপ্লেক্স তৈরি করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে শুধু চট্টগ্রাম নয়, পুরো দেশকে এর মধ্য দিয়ে সক্ষমতার বার্তা জানিয়ে দিচ্ছে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ এ প্রতিষ্ঠানটি।

বহুল প্রতিক্ষীত এ চার প্রকল্পের উদ্বোধনের অপেক্ষায় ছিল বন্দর কর্তৃপক্ষ। অবশেষে আজ রোববার সকাল বারিক বিল্ডিং মোড় এলাকায় ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে চট্টগ্রাম বন্দরের সার্ভিস জেটি উদ্বোধন করেছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান, সদস্য মো. জাফর আলম, সচিব মো. ওমর ফারুকসহ নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয় ও বন্দরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

দিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে ছিল বন্দরের জন্য ওয়েস্টার্ন মেরিন থেকে কেনা টাগবোট কাণ্ডারী ৬ হস্তান্তর, ওভার ফ্লো ইয়ার্ড ও সুইমিং কমপ্লেক্স উদ্বোধন।

নবসংগৃহীত টাগবোট হস্তান্তর ও নবনির্মিত সার্ভিস জেটি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বন্দরে গতিশীলতা বেড়েছে, এটা আমাদের জন্য সুখবর। প্রধানমন্ত্রী গত ১২ বছর ধারাবাহিকভাবে দেশ চালিয়ে যাচ্ছেন। এর মাধ্যমে শুধু চট্টগ্রাম বন্দর নয়, পুরো দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ধারা বজায় আছে। পৃথিবীর অনেক দেশ নেতৃত্বের কারণে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে মুখ থুবড়ে পড়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব না থাকলে আমরা এ স্বাধীন দেশ পেতাম না। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের অগ্রগতির মূল গেটওয়ে চট্টগ্রাম বন্দর। করোনার মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দরে প্রতিদিন ১২টি করে জাহাজ খালাস করা হয়েছে। চট্টগ্রামের যেখানে সামাজিক দুর্বলতা আছে চট্টগ্রাম বন্দর সেখানে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। এখানেই শেষ নয়। এখন থেকে আরও বেশি উদ্যমী হয়ে কাজ করতে হবে। চট্টগ্রাম বন্দরের শ্রমিকরা সবচেয়ে বেশি আন্তরিক। এটা আমার খুব ভাল লাগে, আমাকে প্রেরণা জোগায়। এই চট্টগ্রাম বন্দরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বিনিয়োগ করতে চায়। দেশ যত এগিয়ে যাবে, ততো বেশি ষড়যন্ত্র তৈরি হবে। তাই আমাদেরকে ষড়যন্ত্র রুখে দিতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। সামনে চট্টগ্রাম বন্দরের অনেক কাজ। বেটারমিনাল, মাতারবাড়িসহ অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ আছে। সেটা নিয়ে কাজ করতে হবে।

সুইমিংপুল উদ্বোধনকালে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম সবক্ষেত্রে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করছে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন ক্রীড়াবান্ধব মানুষ। আমরা আশা করি আমাদের নতুন প্রজন্মরা নিজেদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবে। দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, আজ চট্টগ্রাম বন্দরে একটি আন্তর্জাতিক মানের সুইমিংপুল,টেনিস কোড ও বাস্কেট বল উদ্বোধন করা হয়েছে। এরমধ্য দিয়ে বিভিন্ন খেলাধুলার সুযোগ তৈরি হবে। ১ দশমিক ৩ একর জায়গার উপর ৮ লেইন বিশিষ্ট সুইমিংপুলটি তৈরি করা হয়েছে। এখানে সবাই সাঁতার শিখতে পারবে। পাশাপাশি একটি সুপরিসর গ্যালারীও রয়েছে এখানে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব ওমর ফারুক বলেন, দিন দিন বন্দর সফলতার সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে। বন্দর কর্মকর্তা, কর্মচারি ও ব্যবহারকারীদের আন্তরিক চেষ্টা ও সহযোগিতায় বন্দর এগিয়ে যাচ্ছে, সামনে আরও এগিয়ে যাবে। বন্দরে নতুন নতুন যন্ত্রপাতি সংযোজন হয়েছে। এতে করে বন্দরের সক্ষমতা আরো বাড়বে। জাহাজের সুরক্ষা বাড়বে, কনটেইনার জটের ঝামেলাও কমে যাবে। নতুন বছরে নতুন টাগ বোট, সার্ভিস জেটি, ওভার ফ্লো ইয়ার্ড সংযোজন হওয়া এটি বন্দরের পক্ষ থেকে নগরবাসীর জন্য এক ধরনের চমকপ্রদ উপহার।

চট্টগ্রাম বন্দর সূত্রে জানা যায়, সার্ভিস জেটির সমস্যা সমাধানে ৮৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭২২ ফুট লম্বা সার্ভিস জেটি নির্মাণ করা হয়েছে। এর ফলে এখন থেকে চট্টগ্রাম বন্দরের মালিকানাধীন বিভিন্ন ধরনের প্রায় ৩৫টি ভেসেল পরিচালনা করা হবে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে বন্দরে জাহাজের সুরক্ষা ও অপারেশনাল কার্যক্রমে গতি আসবে। এই প্রকল্পকে কেন্দ্র করে দুই হাজার ৬৫০ বর্গফুটের তিনতলা একটি অফিস ভবন, ৩ হাজার বর্গফুটের স্টিল কাঠামোর একটি ওয়্যারহাউস, ২ হাজার ১০০ কিউবিক মিটারের একটি আন্ডারগ্রাউন্ড পানির রিজার্ভার, ২২২ মিটার লম্বা ৮ ফুট উঁচু রিটেইনিং ওয়াল, রিভার ব্যাংক ও শোর প্রোটেকশন, ড্রেনেজ সিস্টেম, ৫০০ কেভির বৈদ্যুতিক সাব স্টেশন, ১০০ ফুট উঁচু সিগন্যাল টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে।

প্রায় ৩৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকার ৪০টি বিপি (বলর্ড পুল-জাহাজের শক্তির একক) ক্ষমতার একটি টাগবোট সংযোজন হয়েছে বন্দরের বহরে। সবমিলিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে এখন আটটি টাগ বোট রয়েছে। এর গভীরতা ৩ দশমিক ৭৫ মিটার এবং লম্বায় ৩৩ মিটার। ২০১৭ সালে টাগবোটটি বানানোর জন্য ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপ ইয়ার্ডের চুক্তি করে চট্টগ্রাম বন্দর। ২০১৯ সালের ৩০ জুন এই প্রকল্পের পুরোপুরি কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাসের কারণে সব ভেস্তে যায়। ফলে এই প্রকল্পের কাজ পিছিয়ে যায়। তবে আগামী ২ জানুয়ারি টাগ বোটটি ওয়েস্টার্ন মেরিন কর্তৃপক্ষ বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে আনুষ্ঠানিক হস্তান্তর করবে। পাশাপাশি নগরের ফ্রিপোর্ট মোড় পুরাতন লেবার কলোনির জায়গায় নিউমুরিং ওভারফ্লো কনটেইনার ইয়ার্ড নির্মাণ করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। এই ইয়ার্ডে প্রায় ১২ হাজার কনটেইনার রাখা যাবে। ফলে বন্দরের প্রয়োজনে ও বিভিন্ন সময়ে কনটেইনার চাপ বেড়ে গেলেও জট তৈরির সম্ভাবনা অনেকাংশেই কমে যাবে বলে মনে করছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

অন্যদিকে বন্দর স্টেডিয়ামের পাশে অত্যাধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত আরেকটি আর্ন্তজাতিক মানের সুইমিং কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়েছে। এর পুরো ব্যয়ভার বহন করেছে ব্ন্দর কর্তৃপক্ষ। প্রায় ১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে সোয়া একর জায়গার উপর নির্মাণ করা হয়েছে সুইমিং কমপ্লেক্সটি। এখানে আলাদা দুইটি সুইমিং পুল রয়েছে। আর্ন্তজাতিক মানের তৈরি ১২৫০ বর্গমিটার (দৈর্ঘ্যে ৫০ মিটার ও প্রস্তে ২৫ মিটার) আয়তনের প্রধান পুলে রয়েছে ৮টি লেন। যার একপাশের গভীরতা সাড়ে চার ফুট এবং অপরপ্রান্তের গভীরতা সাড়ে তের ফুট। যাতে একসাথে ৮ জন সাঁতারু লো ডাইভিং দিতে পারবেন। এছাড়া কমপ্লেক্সের প্রধান পুলের পাশে ৫০ ফুট দৈর্ঘ্য লম্বা ও ২০ ফুট প্রস্তের আরো একটি ক্ষুদে সুইমিং পুল। যাতে ক্ষুদে ও শিক্ষানবীশরা সাঁতার শিখতে পারবেন। যার একদিকের গভীরতা দুই ফুট ও অপরপ্রান্তে ৪ ফুট। এছাড়া পুরুষ, মহিলা ও শিশুদের জন্য আলাদা আলাদভাবে ড্রেসিংরুম, শাওয়ার জোন ও টয়লেটের ব্যবস্থা। সুইমিং কমপ্লেক্সটি চালু হলে পেশাদার সাঁতারুরা যেমন প্রশিক্ষণ ও অনুশীলন করতে পারবেন। তেমনি দক্ষ ট্রেনারে মাধ্যমে সাঁতারও শিখতে পারবেন নতুনরা।


আরও খবর



চুয়াডাঙ্গায় ঘুমন্ত অবস্থায় বিজিবির সোর্সকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চুয়াডাঙ্গায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে হযরত আলী (৫৬) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ৩টায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এর আগে দিনগত রাত রাত ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তি দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুর গ্রামের মৃত রইচ উদ্দীনের ছেলে হযরত আলী (৫৫)।

নিহতের ছেলে তৌফিক হোসেনের অভিযোগ, তার বাবা হযরত আলী বাংলাদেশ বর্ডার গার্ডের (বিজিবি) সোর্স হিসেবে কাজ করতেন। সীমান্ত এলাকায় চোরাকারবারিরা তার বাবাকে হত্যা করেছে।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১টার দিকে বিকট শব্দে আমার ঘুম ভেঙে যায়। পরে পাশের কক্ষে আমার বাবার গোঙানি আওয়াজ শুনতে পেয়ে সেখানে গিয়ে দেখি বাবার মাথা থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পরে বাবাকে দ্রুত উদ্ধার করে চাচাতো ভাইকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের নিয়ে আসি। পরে রাত ৩টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সোহরাব হোসেন বলেন, রাত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে রক্তাক্ত অবস্থায় এক বৃদ্ধকে তার স্বজনরা নিয়ে আসে। মাথায় গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ বিষয়ে দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লুৎফুল কবীর জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তবে কি কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে। তার মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: গুলি করে হত্যা

আরও খবর