আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

বাড়িতেই সিজার করা সেই পশু ডাক্তার গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | ৭৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নেত্রকোনার বারহাট্টায় প্রসূতিকে সিজার করা সেই পশু চিকিৎসক আবুল কাশেমকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে নেত্রকোনা আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ বিচারক জেল হাজতে পাঠান।বিকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বারহাট্টা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লুৎফুল হক।

তিনি আরও জানান, এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতেই থানায় মামলা হয়েছে। মৃত প্রসূতির স্বামী মহসিন মিয়া বাদী হয়ে থানায় মামলাটি করেন। অভিযুক্ত পশু চিকৎসক একই উপজেলার জীবনপুর গ্রামের বাসিন্দা। ওসি বলেন, রাতেই ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

এর আগে উপজেলা প্রশাসন নিজ উদ্যোগে অভিযোগ ছাড়াই বৃহস্পতিবার তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে সন্ধ্যায় ওই এলাকা পরিদর্শন করেন।

গত বুধবার চন্দ্রপুর গ্রামে বাবার বাড়িতে শরীফা আক্তার নামের প্রসূতির সিজার করলে নবজাতকসহ তিনি মারা যান। শরীফা বারহাট্টা সরকারি কলেজ থেকে এবার এইচএসসি পাস করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বছর সুনামগঞ্জ জেলার তাহেরপুর এলাকায় বিয়ে হয় তার। সন্তান প্রসবের সময় ঘনিয়ে এলে ঈদের আগে গত সপ্তাহে চন্দ্রপুর বাবার বাড়িতে নিয়ে আসা হয় তাকে। চন্দ্রপুর গ্রামের বাবার বাড়ি দক্ষিণপাড়ায় পশু ডাক্তারের করা সিজারের পর নবজাতকসহ মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

পরদিন বৃহস্পতিবার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন- সহকারী কমিশনার (ভূমি) সানজিদা চৌধুরী ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. শিহাব উদ্দিন। প্রসূতি ও নবজাতকের মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম মাজহারুল ইসলাম এ তদন্ত কমিটি গঠন করেন। কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান তদন্ত কমিটির সদস্যরা। সেখানে উপস্থিত এলাকাবাসী, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন তারা।


আরও খবর



২ শিশুকে হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা করেন মা: পুলিশ

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পারিবারিক কলহের জের ধ‌রে দুই শিশু সন্তান‌কে হত্যার পর আত্মহত‌্যার চেষ্টা করেন মা। চি‌কিৎসারত অবস্থায় পুলিশের কাছে ঘাতক মা হত্যার কথা শিকার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

র‌বিবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে টাঙ্গাইলের ভুঞাপু‌র উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের ১নং পুনর্বাসন এলাকা থেকে ইউসুফের দুই শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে।

বর্তমানে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে ঘাতক মা সা‌হিদা বেগম।

জেলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জেরে সাহিদা বেগম তার দুই শিশু সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে তিনি নিজে চলন্ত ফ্যানের সাথে কাটা পড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এ জন্য নিহত দুই শিশুর শরীরের কোন আঘাতের চিহ্ন নেই।

তিনি আরও বলেন, সাহিদা বেগম হাসপাতালের পুলিশের কাছে নিজে হত্যা করার ঘটনা স্বীকার করেন। বর্তমানে তিনি পুলিশ পাহারায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।


আরও খবর



মাহিন্দা রাজাপাকসে ও ১৫ সহযোগীকে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শ্রীলঙ্কার সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। একইসঙ্গে তার রাজনীতিবিদ ছেলে নমল ও ১৫ সহযোগির ওপরও একই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর সহিংসতার ঘটনায় এই আদেশ দিয়েছে আদালত।

রাজধানী কলম্বোর আদালতের এক বিচারক গত সোমবার শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের ওপর সংঘবদ্ধ হামলার ঘটনা তদন্ত করতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন। এই হামলার জেরে অন্তত নয় জন নিহত এবং ব্যাপক সহিংস ঘটনা ঘটে।

আদালতের এক কর্মকর্তা জানান, ওই ঘটনায় মাহিন্দা রাজাপাকসে এবং তার সহযোগিদের গ্রেফতারের দাবিতে আদালতে আবেদন জানানো হয়। তবে বিচারক ওই আবেদন বাতিল করে দেন কারণ যেকোনও সন্দেহভাজনকে আটকের ক্ষমতা পুলিশের রয়েছে।

সোমবারের সহিংসতায় আক্রান্তরা বলছেন রাজাপাকসে এবং তার ঘনিষ্ঠ সহযোগীরা বাসে করে প্রায় তিন হাজার সমর্থক রাজধানীতে নিয়ে আসেন। আর তাদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলা চালাতে উসকে দেন।

অনুগত সমর্থকেরা লাঠি নিয়ে রাজাপাকসের বাড়ির বাইরে সমবেত বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলে পড়েন। হামলার পর অন্তত ২২৫ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হামলার জেরে তৈরি হওয়া ক্ষোভ দ্রুত দেশ জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। বিভিন্ন স্থানে রাজাপাকসের অনুগতদের বাড়িঘরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। পদত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে। পরে তাকে পরিবারসহ একটি নৌঘাঁটিতে নিয়ে যাওয়া হয়।


আরও খবর



নগরজুড়ে কৃষ্ণচূড়া-সোনালুর রূপের অঞ্জলি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তপ্ত গ্রীষ্মের এক পশলা বৃষ্টিতে প্রাণ ফিরছে গাছে গাছে। নগরীর রুক্ষ প্রকৃতিতেও যেন এখন জীবনের স্পন্দন। কৃষ্ণচূড়া, রাঁধাচূড়া, সোনালু, জারুলে সেজেছে রাজধানী ঢাকা। কোটি মানুষের বোঝা হালকা হয়ে কয়েকটা দিন যেন হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে প্রকৃতি। সেজেছে আপন ঢঙে, আপন রঙে। ছুটি শেষে নগরবাসী যখন ফিরছে তখন গাছে গাছে মন রাঙানো কৃষ্ণচূড়া, বকুল, জারুল যেন স্বাগত জানাচ্ছে প্রাণ খুলে।