আজঃ শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

বেড়েছে ডিম-আটা ও তেলের দামও

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আরেক দফা হালিপ্রতি মুরগির ডিমের দাম বেড়েছে ২ টাকা। ডিমের পাশাপাশি আটা ও তেলের দাম বেড়েছে। রাজধানীতে লিটারপ্রতি সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ৪ টাকা আর আটার দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ২ টাকা। এছাড়া চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে চাল, ডাল এবং চিনিও।

নতুন করে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ায় ক্রেতারা চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, করোনার কারণে আয় নেই। আর এ সময়ে একের পর এক জিনিসিপত্রের দাম পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। মাছ-মাংস, চাল-ডালের পর এখন ডিমের দাম বাড়ছে। আমাদের এখন না খেয়ে থাকতে হবে।

রাজধানীর বাজারগুলোতে দেখা গেছে, হালিপ্রতি লেয়ার মুরগির লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ৩৯-৪০ টাকায়। আর ডজন বিক্রি হচ্ছে ১১৫ টাকায়। আর হাঁস কিংবা দেশি মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ৫৮-৬০ টাকা হালিতে। তবে ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৬৫-১৭৫ টাকায়।

বাজারে খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ৩৩-৩৫ টাকা কেজিতে। আগের সপ্তাহে বিক্রি হয়েছিল ৩০-৩২ টাকা কেজিতে। আর প্যাকেট জাত আটা বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৪০ টাকা করে।

বোতলের লিটারপ্রতি সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৫২-১৫৩ টাকায়, যা আগের সপ্তাহে বিক্রি হয়েছিল ১৪৮-১৪৯ টাকায়। আর প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১২৮-১৩০ টাকায়। আগের সপ্তাহে খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছিল ১২৫ টাকায়।

অন্যদিকে লিটারপ্রতি খোলা পাম অয়েল তেল বিক্রি হচ্ছে ১১৮-১১৬ টাকায়। আগে খোলা পাম অয়েল বিক্রি হতো ১০৮ থেকে ১১০ টাকায়।

বাজারে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪৫-১৫০ টাকা কেজি দরে। ব্রয়লার মুরগি ছাড়াও সোনালী মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২২০ থেকে ২৪০ টাকায় দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৪২০ থেকে ৪৪০ টাকা দরে। আর গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬০০ টাকা কেজি দরে। আর খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৮০০-৮৫০ টাকা কেজিতে। অর্থাৎ আগের সপ্তাহের দরে বিক্রি হচ্ছে গরু ও খাসির মাংস।

পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকা কেজিতে। রসুন বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১২০ টাকায়। এর মধ্যে দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা কেজিতে। প্রকারভেদে ৯০ টাকা কেজিতেও বিক্রি হচ্ছে। আর আমদানি করা বড় দানার রসুন বিক্রি হচ্ছে ১২০-১২৫ টাকা কেজিতে। প্রতি কেজি দেশি আদা বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়। বিদেশি আদা বিক্রি হচ্ছে ১১০-১১৫ টাকা কেজিতে।

কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা কেজিতে। কেজিপ্রতি টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকায়। বেগুন ৫০ টাকা, কচুর লতি ৪০ টাকা, বরবটি, চিচিঙ্গা, ঝিঙ্গা, ঢ্যাঁড়স ও ধুন্দল ৫০ টাকা, দেশি শসা ৫০ টাকা, পেঁপে ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মাছের মধ্যে সবচেয়ে কম দামে বিক্রি হচ্ছে পাঙাশ মাছ। এ মাছ রাজধানীতে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তেলাপিয়া বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৮০ টাকা কেজিতে। রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৪০-৩০০ টাকা কেজিতে। আর মৃগেল মাছ বিক্রি হচ্ছে ২২০-২৬০ টাকা কেজিতে। এছাড়া শিং মাছ কেজিপ্রতি ৫৫০-৭০০ টাকা, চিংড়ি মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০০-৭৫০ টাকা কেজিতে।

নিউজ ট্যাগ: বাজার দর

আরও খবর
সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে সবজির

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১




আজ ৪২তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ বৃহস্পতিবার (০৯ সেপ্টেম্বর) ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগে ৪২তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে। সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। করোনা মহামারির মধ্যে এই বিসিএসের মাধ্যমে প্রথমে ২ হাজার, পরে আরও ২ হাজারসহ মোট ৪ হাজার চিকিৎসক নেওয়ার কথা রয়েছে। এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে দিন-রাত এমনকি ছুটির দিনেও কাজ করছে পিএসসি। জানা গেছে, আজ বৃহস্পতিবার পিএসসির বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় ৪২তম বিশেষ বিসিএসের ফল অনুমোদন দেওয়া হতে পারে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, প্রথমে ৪২তম বিসিএস থেকে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের কথা থাকলেও সরকারের বিশেষ ক্ষমতায় এখান থেকে আরও দুই হাজার অর্থাৎ মোট চার হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সরকারের ইচ্ছা দ্রুত সময়েই এই চিকিৎসকদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করে তাদের পদায়ন করা। এ বিষয়েও সরকারের বিভিন্ন দপ্তর কাজ করে যাচ্ছে।

করোনার সময় দফায় দফায় পেছানো হয় ৪২তম বিসিএসের ভাইভা। পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও করোনার সময় বিশেষভাবে চিকিৎসক নিয়োগ দিতে কাজ করে পিএসসি। এ সময় জরুরি অবস্থাতেও সরকারের কাছে বিশেষ অনুমতি নিয়ে কাজ করে পিএসসি।

করোনার প্রেক্ষাপটে দুই হাজার চিকিৎসককে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ দিতে গত বছর ৪২ তম বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় (লিখিত টাইপ) ৩১ হাজার চিকিৎসক অংশ নেন। পরীক্ষার এক মাস পর ২৯ মার্চ এই বিসিএসের ফল প্রকাশ করে পিএসসি। এতে উত্তীর্ণ হন ৬ হাজার ২২ জন।


আরও খবর
১৪ নভেম্বর থেকে দাখিল পরীক্ষা শুরু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




সাংবাদিক দিদারুল আলমের পরিবারের পাশে বসুন্ধরা গ্রুপ

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
চট্টগ্রামের মাটি ও মানুষের সাথে থাকবে বসুন্ধরা গ্রুপ। ক্রমশ নতুনতর উদ্যোগে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নে কাজ করছে

চট্টগ্রামের সদ্যপ্রয়াত আলোকচিত্র সাংবাদিক দিদারুল আলমের পরিবারের পাশে দাঁড়ালো বসুন্ধরা গ্রুপ। বাংলাদেশ প্রতিদিন চট্টগ্রাম অফিসের সিনিয়র এই ফটো সাংবাদিকের একমাত্র কন্যার হাতে ১০ লক্ষ টাকার সহায়তা চেক তুলে দিয়েছেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। ‌

এ সময় তিনি চট্টগ্রামের সংবাদমাধ্যম কর্মীদের কাজের প্রশংসা করে বলেন, চট্টগ্রামের মাটি ও মানুষের সাথে থাকবে বসুন্ধরা গ্রুপ। ক্রমশ নতুনতর উদ্যোগে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নে কাজ করছে দেশের এই বৃহৎ শিল্প পরিবার। '

তিনি বলেন, চট্টগ্রামের সম্পদের সঠিক ব্যবহার ও সম্ভাবনার সবটুকু অর্জনে গণমাধ্যমকর্মীদের বিশেষ ভূমিকা ও সহযোগিতা গুরুত্বপূর্ণ। গণমাধ্যম কর্মীদের ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি জাতীয় অগ্রগতিও ত্বরান্বিত করে। সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে সংবাদমাধ্যম কর্মীদের এমন দৃষ্টিভঙ্গি প্রণোদনার মতই ।‌ '

তিনি মরহুম সাংবাদিক দিদারুল আলমের নিবেদিত ভূমিকার কথাও উল্লেখ করেন।‌ দিদারুল আলমের স্ত্রী দিলরুবা বেগম দীপ্তি ও স্কুল পড়ুয়া কন্যা সামান্তা দিদার  দীঘিকে সান্ত্বনা দেন এবং কন্যার ভবিষ্যৎ সাফল্য কামনা করেন।

বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক ও নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান নির্বাহী সিনিয়র সাংবাদিক নঈম নিজাম বলেন, যেকোন মূল্যে বসুন্ধরা গ্রুপ গণমাধ্যম কর্মীদের পাশে ছিল এবং থাকবে।

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় বসুন্ধরা এমডি হাউসে এই সহায়তা চেক তুলে দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিক, বসুন্ধরা গ্রুপের মিডিয়া অ্যাডভাইজর মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, কালের কন্ঠের সম্পাদক এমদাদুল হক মিলন, নিউজ টোয়েন্টিফোরের বার্তা প্রধান রাহুল রাহা, বাংলা নিউজ টোয়েন্টিফোরের সম্পাদক জুয়েল মাজহারসহ ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের কমকর্তারা। চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাধারণ সম্পাদক ম শামসুল ইসলাম প্রমুখ ও উপস্থিত ছিলেন।‌

উল্লেখ্য, দিদারুল আলম বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও চট্টগ্রাম ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছিলেন। ‌

নিউজ ট্যাগ: বসুন্ধরা গ্রুপ

আরও খবর
১০টি দৈনিক পত্রিকার ঘোষণাপত্র বাতিল

মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১




আজ সিলেটে যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিলেট নগরীর ৬৬টি এলাকায় জরুরি মেরামত ও সংরক্ষণ কাজের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) টানা ৩ ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে। এর আগে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সিলেটের বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিউবো) বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২ এ তথ্য জানিয়েছে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সিলেটের কুমারগাঁও ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিড উপ-কেন্দ্রের ৩৩ কেভি টি-১ ইনকামিংয়ের জরুরি মেরামত ও সংরক্ষণ কাজের জন্য সকাল ৭টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

এলাকাগুলো হচ্ছে, ৩৩/১১ কেভি উপশহর উপ-কেন্দ্রের ফিডারের আওতাধীন উপশহর, সোবহানীঘাট, হাফিজ কমপ্লেক্স, যতরপুর, মিরাবাজার, আগপাড়া, ঝেরঝেরীপাড়া, চালিবন্দর, পুলিশ কমিশনার অফিস, নির্বাচন কমিশন অফিস, কাস্টঘর, হকার্স মাকেট, কালীঘাট, মহাজনপট্রি, বটেরতল, মাছিমপুর, ছড়ারপার, সোনারপাড়া, মজুমদারপাড়া, দর্জিপাড়া, খারপাড়া, মীরাপাড়া, শাপলাবাগ, তেররতন, শিবগঞ্জ, সেনপাড়া, টিলাগড়, লামাপাড়া, সবুজবাগ, হাতিমবাগ, রাজপাড়া, নাইওরপুল, ধোপাদিঘীরপাড়, মুক্তিরচক, কল্যানপুর, টুলটিকর, মিরেরচক, মুরাদপুর, পীরেরচক, মেন্দিবাগ, কুশিঘাট, শাহপরাণ থানা, সাদাটিকর, সোনাপুর, নয়াবস্তি ও তৎসংলগ্ন এলাকাসমূহ।

এছাড়া ৩৩/১১ কেভি এমসি কলেজ উপকেন্দ্রের ফিডারের আওতাধীন টিবি হাসপাতাল, বালুচর পয়েন্ট, উত্তর বালুচর, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, কাজীটুলা, মিরবক্সটুলা, জিন্দাবাজার, হাওয়াপাড়া, বারুতখানা, কুমারপাড়া, মিতালিটিলা, খরাদিপাড়া, রাজবাড়ী, দর্জিপাড়া, নাইওরপুল, চারাদিঘীরপাড় আরামবাগ, দূর্গাবাড়ী, নয়াসড়ক, জেলরোড ও তৎসংলগ্ন এলাকাসমূহ।



আরও খবর



চাঁদপুরে পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ-ভাঙচুর, বাস চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত বাসচালক মিজান মোল্লার চিকিৎসায় শ্রমিক ইউনিয়নের অবহেলাজনিত মৃত্যু এবং পৌর বাস টার্মিনালের অবকাঠামোগত সমস্যা নিরসনে বিক্ষোভ ঢাকা, চট্টগ্রাম কুমিল্লাসহ কয়েকটি রুটে বাস চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাস শ্রমিকরা।

সোমবার সকাল থেকে বিক্ষোভ চালু করে শ্রমিকরা। পরে বেলা এগারোটা থেকে সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে তারা। বিক্ষোভকারীরা এসময় সড়ক অবরোধ শ্রমিক ইউনিয়নের অফিসের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

রবিবার ভোর ছয়টায় চাঁদপুর সদর উপজেলার চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়কের চানখার দোকান এলাকায় চাঁদপুর থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি গাছে মুখোমুখি আঘাত করে। এসময় বাসে থাকা সুমনা নামের একশিশু নিহত হয় এবং গুরুতর আহত হয় আরও পাঁচজন। আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বাসচালক মিজান মোল্লাকে দ্রুত ঢাকায় রেফার করেন চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক। পরে রাতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তাকে ঢাকায় রেফার করা হলেও উন্নত চিকিৎসার জন্য শ্রমিক ইউনিয়ন এর পক্ষ থেকে কোন প্রকার সাহায্য সহযোগিতা না করায় ক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে জেলায় কর্মরত বাস শ্রমিকরা।

পরে সোমবার সকাল থেকেই তারা বিক্ষোভ শ্রমিক ইউনিয়নের অফিস ভাঙচুর করে। জন শ্রমিক জানায়, পৌর বাস টার্মিনালের অবকাঠামোগত উন্নতি শ্রমিকের বিপদে পাশে দাঁড়ানোর দাবি নিয়ে সকাল থেকেই বিক্ষোভ চালিয়ে যান তারা।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ জানান, বিক্ষোভকারীদের শান্ত করতে এগিয়ে আসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং তাদেরকে একটি সুষ্ঠু সমাধানের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের পরামর্শ দেন কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, রবিবার ওই সড়ক দুর্ঘটনায় অন্যান্য গুরুতর আহত ব্যক্তিরা হলেন নিহত শিশু সুমনার বাবা মোঃ সুমন (৩৭) মা শাম্মী (৩৩), ইউনুস (৫০), মাহবুব (২৩)

বাস চলাচল বন্ধ থাকায় এসব রুটের যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েছে।


আরও খবর
স্কুলের তালা খুললেই খুন করার হুমকি

শনিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১




ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রলারডুবি : নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৭

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৭ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ আগস্ট ২০২১ | ৭৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বালুবোঝাই ট্রলারের ধাক্কায় যাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৭ জনে দাঁড়িয়েছে। এখনো অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান জানান, এ পর্যন্ত ১৭ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। এছাড়া মুমূর্ষু অবস্থায় পাঁচজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন জানান, বালুবোঝাই ট্রলারটি আটক করা হয়েছে। ডুবে যাওয়া ট্রলারটি পানির নিচে আছে। ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জেলার বিজয়নগর উপজেলার চম্পকনগর ঘাট থেকে শতাধিক যাত্রী নিয়ে ট্রলারটি সদর উপজেলার আনন্দবাজার ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টার দিকে সদর উপজেলার লইসকা বিল এলাকায় বিপরীত দিকে থেকে আসা একটি বালুবোঝাই ট্রলারের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে যাত্রীবাহী ট্রলারটি ডুবে যায়

আরও পড়ুন: ট্রলারের ধাক্কায় ডুবল যাত্রীবোঝাই নৌকা: ১২ জনের মরদেহ উদ্ধার


আরও খবর
ঘরজামাই বলায় সংঘর্ষ, শিশুসহ আহত ২৬

বৃহস্পতিবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২1