আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

চা বাগান ম্যানেজার যোগসূত্রে বন কেটে উজাড়

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বন বিভাগের অনুমতি ছাড়াই উপজেলার সাতগাঁও ইউপি সাতগাও চা বাগান কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শত শত গাছ কাটার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত কয়েক দিনের ব্যবধানে এসব গাছ কেটে ফেলা হলেও বন বিভাগ জানিয়েছে, এ বিষয়ে তারা কিছুই জানেনা। আর বাগান কর্তৃপক্ষ বলেছে, গাছ কাটার অনুমতি না নিলেও গাছগুলো স মিলে চিরাই করার জন্য যথাযথ প্রক্রিয়ায় বন বিভাগে আবেদন করা হয়েছে।

গতকদিনের অনুসন্ধানে জানা যায় দীর্ঘ দিন থেকে গাছ কেটে অবৈধ ভাবে ব্যবসা চালিয়ে আসছে। উপজেলার সাতগাঁও চা বাগানে  সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, চা বাগানের বিভিন্ন সেড ট্রি কেটে ম্যানেজার বাংলোর আশেপাশে স্তুপাকার করে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে অর্জুন,আদুরী, বেনজিয়াম, শীল কড়ইসহ বিভিন্ন প্রজাতির ও ঔষধি গাছ রয়েছে। ছোট বড় সব বয়সের গাছ রয়েছে।

বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক ইফতেখার আলম জানান, শ্রমিক কলোনির ঘর নির্মাণ ও রিপিয়ারিং কাজের জন্য এসব গাছ কাটা হয়েছে। তিনি বলেন, বিভিন্ন সময় ঝড়ে এসব গাছ পড়ে গিয়েছিল। মৃত গাছে উলু পোকা আক্রমন করে থাকে। চা গাছের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে-এমন আশংকা থেকে এসব গাছ কাটা হয়েছে। তবে গাছ কাটতে বন বিভাগের কোন অনুমতি নেয়া হয়নি স্বীকার করে ইফতেখার আলম বলেন, গাছ কাটার জন্য বন বিভাগের অনুমতি না থাকলেও সমিলে গাছ চিরাই করার জন্য অনুমতি চেয়ে বন বিভাগে আবেদন করা হয়েছে।

সাতগাঁও চা বাগানের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ করলে বলেন, বাগানের বিভিন্ন স্থানে ঝড়ের কবলে প্রায় ৭০টি গাছ পড়ে যায়। এগুলোই কাটা হয়েছে ও সংবাদ কর্মী পরিচয়ের পর ওনার অফিসে চা দাওয়াত দিয়ে চা পানের পাশাপাশি চায়ের টেবিলে কথা বলবেন বলে রেখে দেন।

বন বিভাগের এসিএফ আবু বক্কর বলেন, সাতগাঁও চা বাগান কর্তৃক গাছ কাটার বিষয়টি তিনি জানেন না। তিনি বলেন, চা বাগানের গাছ কাটতে বন বিভাগ ছাড়াও চা বোর্ড, জেলা ও উপজেলা প্রশাসনকে লিখিত অবহিত করার নিয়ম রয়েছে। সংশ্লিষ্টদের নিয়ে গঠিত কমিটি এবিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন বলেও তিনি জানান।


আরও খবর



টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের টিকেট বিক্রি শুরু

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মাঠে বসে দর্শকরা খেলা দেখতে পারবেন। এর অনুমতিও দিয়েছে আইসিসি।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বিশ্বকাপের মূল আসরে স্টেডিয়ামের ধারন ক্ষমতার ৭০ শতাংশ দর্শক মাঠে বসে খেলা দেখতে পারবেন। বাছাই পর্বে ওমানের রাজধানী মাস্কাটের ম্যাচগুলোতে ৩ হাজার করে দর্শক মাঠে বসে খেলা দেখার সুযোগ পাবেন।

গতকাল রোববার থেকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ৪৫ ম্যাচের টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে আইসিসি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ওয়েবসাইট থেকে (https://www.t20worldcup.com/tickets) টিকেট কেনা যাবে।

টুর্নামেন্টের বাছাই পর্বে ওমানের ম্যাচগুলোর টিকেটের মূল্য ১০ ওমানি রিয়াল দিয়ে শুরু হচ্ছে। আরব আমিরাতের মূল পর্বে টিকেটের মূল্য শুরু হচ্ছে ৩০ দিরহাম দিয়ে।

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দর্শক উপস্থিতি নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই আলোচনা চলছিল। অবশেষে সবকিছু বিবেচনা করে মাঠে বসে খেলা দেখার অনুমতি দিয়েছে আইসিসি।

এ ব্যাপারে আইসিসির ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী জিওফ এলারডিস বলেন, ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে দর্শক ফিরতে যাচ্ছে, তাই আমরা খুবই আনন্দিত। দর্শকদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরিতে সহায়তা করায় আয়োজক বিসিসিআই, এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ড ও ওমান ক্রিকেটের পাশাপাশি দেশগুলোর সরকারকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

বিসিসিআইয়ের সচিব জয় শাহ বলেন, আমি আনন্দিত যে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দর্শকদের উপস্থিতিতে খেলা হবে। ক্রিকেট ভক্তদের মাঠে ফেরার পথ সুগম করার জন্য আমি সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমান সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। আমি নিশ্চিত, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে দর্শকরা তাদের দলকে সমর্থন করার জন্য যাবেন। তাদের এই সমর্থন দলকেও মাঠে ভালো খেলার জন্য অনুপ্রেরণা দিবে।

আগামী ১৭ অক্টোবর ওমানের রাজধানী মাস্কাটে শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বিশ্বের সেরা ১৬টি দল এবারের বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে। ১৪ নভেম্বর হবে ফাইনাল।

করোনার কারণে ভারতের বদলে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে। তবে মূল আয়োজক দেশ হিসেবে রয়েছে ভারত।


আরও খবর
অজিদের কষ্টার্জিত জয়

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




মাদক নেওয়ার কথা স্বীকার শাহরুখপুত্র আরিয়ানের

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ অক্টোবর ২০২১ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিলাসবহুল এক প্রমোদতরীর মাদক পার্টি থেকে আটকের পর টানা ৬ ঘণ্টা জেরার পর মাদক গ্রহণের কথা স্বীকার করেছেন বলিউড স্টার শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খান।

শনিবার রাতে শাহরুখপুত্রকে মুম্বাইয়ের কর্ডেলিয়া নামে এক প্রমোদতরী থেকে আটক করে ভারতের মাদকবিরোধী সংস্থা-এনসিবি।

রবিবার সকাল থেকেই তাকে জেরা করা হয়। এনসিবি কর্মকর্তাদের প্রায় ছয় ঘণ্টা জেরার পর আরিয়ান স্বীকার করে নেন, প্রমোদতরীর মাদক পার্টিতে তিনি মাদক নিয়েছেন।

এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো বিবৃতি জারি করেনি এনবিসি। কিছু জানানো হয়নি শাহরুখের পরিবারের পক্ষ থেকেও।

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটি জানিয়েছে, এই পার্টিতে ভিভিআইপি তালিকায় নাম থাকায় কোনো প্রবেশমূল্য ছাড়াই প্রবেশ করেছিলেন আরিয়ান। তিনি নিজেই নাকি জেরায় স্বীকার করেছেন এ কথা।

এনসিবি খতিয়ে দেখছে শাহরুখপুত্রের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট। তিনি কাদের সঙ্গে কথা বলতেন, যোগাযোগ রাখতেন এসব কিছু নিয়েও এখন তদন্ত চলছে।

কোনো মাদকচক্রের সঙ্গে তিনি যুক্ত কিনা, তা-ও জানার চেষ্টা চলছে। বন্ধুদের বিভিন্ন গ্রুপে কী ধরনের আলোচনা করতেন তিনি, তা-ও এখন নজরে তদন্তকারীদের।

আরিয়ানের বিরুদ্ধে নারকোটিকস ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস (এনডিপিএস) আইনে মামলা হতে পারে।

কর্ডেলিয়া নামে সেই প্রমোদতরীর পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন আরও বেশ কিছু তারকা। কিন্তু এনসিবি যখন হানা দেয়, তখন মাদক সেবন করতে দেখা যায়নি তাদের। আপাতত আরিয়ানের থেকেই এ পার্টি সম্পর্কে নানা ধরনের তথ্য নেওয়ার চেষ্টায় রয়েছেন এনসিবির কর্মকর্তারা। 

 


আরও খবর
গাছের সঙ্গে বিয়ে হবে নয়নতারার

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার ‘ক’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

প্রকাশিত:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গেল ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হওয়া দেশের ২০ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় বিজ্ঞান অনুষদের (ক ইউনিট) ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

আজ বুধবার (২০ অক্টোবর) বিকেল ৫টার পর গুচ্ছ ভর্তির ওয়েবসাইটে এই ফল প্রকাশ করা হয়।

গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্যদের নিয়ে গঠিত কোর কমিটির আহ্বায়ক এবং শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, এখানে কোনো পাস ফেল নেই। কাউকে কোনো প্লেস দেওয়া হয়নি, শুধু নম্বর দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার টেকনিক্যাল কমিটির আহ্বায়ক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর বলেন, বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'ক' ইউনিটের ও এমআর শিট দেখার কাজ শেষ করে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। বুধবার সকালে গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের নিয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকের মাধ্যমে ফলাফলের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ওয়েবসাইটে ফলাফল আপলোড হতে সময় লাগাতে বিকেল ৫টায় ফলাফল শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।

ওএমআর শিট বাতিলের বিষয়ে অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর বলেন, মাত্র ২৪ জন শিক্ষার্থীর ওএমআর বাতিল হয়েছে। এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কেবল যাদের সমস্যা কোনোভাবেই সমাধান করা যায়নি কেবল তাদের ওএমআর বাতিল বলে গণ্য হয়েছে।

মোট ১ লাখ ৩১ হাজার ৯০৫ জন শিক্ষার্থী বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তির জন্য আবেদন করেছিলেন। গত রবিবার সারা দেশের ২৭টি কেন্দ্রে তাদের পরীক্ষা হয়। আবেদনকারীদের আনুমানিক ৯০ শতাংশ সেদিন পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলেন বলে পরীক্ষা কমিটি জানিয়েছিল।


আরও খবর



ডেঙ্গুতে আরও ১৭২ জন হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ডেঙ্গুতে আরও ১৭২ জন আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে সর্বমোট ২১ হাজার ৫৭৪ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। আজ সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গুবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেশে নতুন করে আরও ১৭২ জন বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ১৩০ জন এবং ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ৪২ জন।

এ দিকে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮১৫ জন। এর মধ্যে ঢাকার ৪২টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছে ৬৩০ জন এবং অন্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছে ১৮৫ জন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, গত ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ২১ হাজার ৫৭৪ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছে ২০ হাজার ৬৭৬ জন রোগী। ডেঙ্গুতে এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছে ৮৩ জন।


আরও খবর



করোনায় আরও সাড়ে ৮ হাজারের বেশি মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১ | ৫৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এ সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ২৮৩ জন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে আরও আট হাজার ৫৬৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন চার লাখ ৮৬ হাজার ১১৩ জন। সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ১৮ হাজার ৫৫৬ জন। শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকাল ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ কোটি ৩৭ লাখ ২৯ হাজার ১১৪ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪৯ লাখ ৫৩ হাজার ৩২৭ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২২ কোটি আট লাখ ৫৪ হাজার ৬৫৮ জন।

২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এ সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ২৮৩ জন। মারা গেছেন এক হাজার ৫৫২ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত চার কোটি ৬২ লাখ ৬২ হাজার ৩৩৭ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন সাত লাখ ৫৫ হাজার ৬৪৭ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিন কোটি ৬০ লাখ ২৮১ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ভারত। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৩৩১ জন। একই সময়ে মারা গেছেন ৬৬৬ জন। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন তিন কোটি ৪১ লাখ ৫৮ হাজার ৭৭২ জন। এরমধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ৫৩ হাজার ৭৪২ জন।

তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই কোটি ১৭ লাখ ১১ হাজার ৮৪৩ জনে। এরমধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ পাঁচ হাজার ২১১ জন। করোনা থেকে সেরে উঠেছেন দুই কোটি ১৭ লাখ ১১ হাজার ৮৪৩ জন।

এ তালিকায় পরের স্থানগুলোতে রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, আর্জেন্টিনা, স্পেন, কলম্বিয়া ও ইতালি। তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ২৯ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৭ হাজার ১৩৯ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৭ হাজার ৮০৫ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লাখ ৩০ হাজার ৬৪৭ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এ ভাইরাসে দেশটিতে প্রথম মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। এরপর ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে।

সংক্রমণ চীন থেকে ছড়িয়ে পড়ার পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয় ইউরোপের কিছু দেশ ও যুক্তরাষ্ট্র। তবে দেশগুলোতে চলতি বছরের শুরুর দিকে করোনা নিয়ন্ত্রণে আসা শুরু হয়।

এর বিপরীতে পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকে ভারতসহ এশিয়ার কিছু দেশে। তবে ভারত থেকে ছড়িয়ে পড়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের করোনা পরিস্থিতি ফের খারাপ হয়।

এরই মধ্যে অব্যাহতভাবে টিকাদান চালিয়ে যাচ্ছে বিশ্বের প্রায় সবগুলো দেশ। কোনো কোনো দেশ টিকার বুস্টার ডোজ ও শিশুদেরও টিকাদান শুরু করেছে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর