আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আরও ১৮২ জন, মৃত্যু ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১৮২ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ১৪৩ জন এবং ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৯ জন। একইসঙ্গে এই সময়ে নতুন করে ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অধিদফতর বলছে, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুবরণকারীদের অধিকাংশই রাজধানীর বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে সারাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গু বিষয়ক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯১৬ জনে। ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৭৪২ জন এবং অন্যান্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৭৪ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ (১২ অক্টোবর) পর্যন্ত হাসপাতালে সর্বমোট রোগী ভর্তি হয়েছেন ২০ হাজার ৫১৮ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৯ হাজার ৫২২ জন রোগী। ডেঙ্গুতে এ সময়ে ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ডেঙ্গু আক্রান্ত

আরও খবর



পুরান ঢাকার বংশালে কেমিক্যালের দোকানে আগুন

প্রকাশিত:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পুরান ঢাকার বংশালে একটি কেমিক্যালের দোকানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ২ টি ইউনিট। আজ সোমবার (১১ অক্টোবর) সকাল ৯টা ২০ মিনিটে ২নং আরমানিটোলা বংশাল মাঠের পাশেই ওই দোকানে আগুন লাগে বলে জানা গেছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিসের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষেল ডিউটি অফিসার রাসেল শিকদার।

তিনি আরও বলেন, সকালে আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। তবে কেমিক্যালের দোকান হওয়ায় আগুন নেভাতে কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও হতাহতের কোনো খবর জানা যায়নি।


আরও খবর
ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৭৩

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




ব্যর্থ কংগ্রেস, দেশ চায় তৃণমূলকেই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এত দিন তাঁর দলের বিভিন্ন নেতা যা বলেছেন, তৃণমূল কংগ্রেসের দৈনিক মুখপত্রে ইদানীং যা লেখা হচ্ছে, তাকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে গেলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, সময়ের যাত্রাপথে এখন বিজেপির বিরুদ্ধে আসল লড়াইয়ের মুখ হয়ে উঠেছে এই তৃণমূল কংগ্রেসই। দেশের মানুষ এখন তৃণমূল কংগ্রেসকে ঘিরে নতুন ভারতের স্বপ্ন দেখছেন।

কয়েক দিন আগেই তৃণমূলের লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বিজেপির বিকল্প মুখ হতে রাহুল গাঁধী ব্যর্থ। মমতাই পারবেন। এ বার দলীয় মুখপত্রের উৎসব সংখ্যায় প্রবন্ধে মমতা লিখেছেন, বাংলার সীমা অতিক্রম করে একের পর এক রাজ্য থেকে ডাক আসছে, আপনারা আসুন। নতুন ভারত গড়তে নেতৃত্ব দিক বাংলা।

তৃণমূলের এই অবস্থানের প্রতিক্রিয়ায় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর অভিযোগ, বিজেপির নেপথ্য মদতেই মমতার দল কংগ্রেসকে লাগাতার আক্রমণ করে চলেছে এবং বিরোধী ঐক্যকে নড়বড়ে করে দিতে চাইছে।

পর্যবেক্ষকদের মতে, বাংলা নেতৃত্ব দিক কথাটির মর্মার্থ আসলে বিরোধী মঞ্চে মমতার নেতৃত্বকেই প্রতিষ্ঠা করা। যদিও তিনি নিজে বার বারই বলেন, কে নেতা হবেন, সেটা বড় কথা নয়। আসল হল বিজেপিকে হটানো। সেই ভাবেই আলোচ্য প্রবন্ধেও তিনি লিখেছেন, দেশের মানুষের দাবি, দিল্লির মসনদ থেকে সরাতে হবে ফ্যাসিবাদী, স্বৈরাচারী বিজেপিকে। মানুষের আশা ভরসা তৃণমূল কংগ্রেসকে ঘিরে। এই সূত্রেই তাঁর ব্যাখ্যা, বিকল্প জোটের নেতৃত্ব নিয়ে আমরা চিন্তিত নই। কিন্তু বাস্তবটা কংগ্রেসকে অনুভব করতে হবে। অন্যথায় বিকল্প শক্তির গঠনে ফাঁক থেকে যাবে।

কী সেই বাস্তব? মমতা লিখেছেন, সাম্প্রতিক অতীতে কংগ্রেস দিল্লির দরবারে বিজেপিকে মোকাবিলায় ব্যর্থ হয়েছে। গত দুটি লোকসভা নির্বাচন তার বড় প্রমাণ। তাঁর অভিমত, দিল্লিতে যদি লড়াই না থাকে, তা হলে মানুষের মনোবল কমে যায় এবং লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যগুলিতেও বিজেপি কিছু বাড়তি ভোট পেয়ে যায়। সেটা এ বার কিছুতেই হতে দেওয়া যাবে না।পাশাপাশি, বিজেপির মোকাবিলায় তৃণমূলের ভূমিকা তুলে ধরে মমতার বক্তব্য, বাংলার এ বারের নির্বাচনে গোটা দেশ দেখেছে, বিজেপির সর্বশক্তিকে কী ভাবে তৃণমূল হারিয়ে দিয়েছে। যাঁরা দেশ চালাচ্ছেন (আসলে ডোবাচ্ছেন), তাঁরা সকলেই তো ডেইলি প্যাসেঞ্জারি করলেন। কুৎসা করলেন। এজেন্সি নামালেন। তবু তৃণমূলকে হারাতে পারলেন না। এটা একটা ইতিহাস। এটা একটা মডেল। দেশের মানুষ এই মডেলের উপর ভরসা রাখছেন।

তৃণমূল নেত্রীর এ বারের বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের লখিমপুরের ঘটনার প্রসঙ্গও উল্লেখ করেছেন অধীর। তিনি বলেছেন, লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, ভারতের দুটো দলকে বিজেপি পিছন থেকে মদত করছে শুধু কংগ্রেসকে খতম করার জন্য! একটা দলের নাম আপ, আর একটা দলের নাম তৃণমূল। লখিমপুরেও বাকি সবাইকে রুখে দিয়ে ওদের যেতে দেওয়া হয়েছে।প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির মন্তব্য, এটা একটা ছক হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশে যেখানে কংগ্রেস লড়াই করছে, সেখানে তৃণমূল গিয়ে কংগ্রেসের ক্ষতি করবে এবং বিজেপিকে ঘুরিয়ে সাহায্য করবে। আর বাংলায় ভাযণবাজি হবে মোদীর বিরুদ্ধে কংগ্রেস লড়তে পারে না, তৃণমূল লড়ে!


আরও খবর



১১ অক্টোবর: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

প্রকাশিত:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়

আজ ১১ অক্টোবর সোমবার, গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ২৮৪তম (অধিবর্ষে ২৮৫তম) দিন। বছর শেষ হতে আরো ৮১ দিন বাকি রয়েছে। একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনাবলিঃ

০৬৩২ - ইয়ামমার যুদ্ধে ভণ্ড নবী মুসায়লাম কাজ্জাব নিহত হয়।

১৫০৩ - দ্বিতীয়বার ভারত ভ্রমণ শেষে পর্তুগিজ নাবিক ভাস্কো-দা-গামা মোজাম্বিকের তাগুসে উপস্থিত হন।

১৬৬৯ - পিটার দি গ্রেট রাশিয়ার জার হন।

১৭৩৭ - কলকাতায় যুগপৎ ভূমিকম্প ও ঘূর্ণিঝড়ে তিন লাখ লোকের মৃত্যু ঘটে।

১৮৭১ - শিকাগোর ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড আয়ত্তে আনা হয়।

১৮৯৯ - দক্ষিণ আফ্রিকায় হল্যান্ড ও বৃটিশদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ সংঘটিত হয়।

১৯২৩ - জার্মান মুদ্রার বিপজ্জনক মুদ্রাস্ফীতি ঘটে। ১ পাউন্ডের মূল্যমান দাঁড়ায় ১ হাজার কোটি মার্ক।

১৯৩৭ - চীনের সাংহাইএ চীন আর জাপানের সেনাবাহিনীর মধ্যে তীব্র লড়াই হয়। এই লড়াইয়ে দুপক্ষের বিপুল সংখ্যক সৈন্য হতাহত হয়।

১৯৫৭ - প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে শহীদ সোহরাওয়ার্দী পদত্যাগ করেন।

১৯৬২ - চীন-ভারত যুদ্ধ শুরু হয়।

১৯৬৪ - কায়রোতে ৪৭ জোট নিরপেক্ষ দেশের সম্মেলন সমাপ্ত হয়।

১৯৭২ - চীন আর জার্মানীর মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৭৪ - গিনি-বিসাউ ও গ্রানাডা জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে।

১৯৭৮ - জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বর্ণবাদবিরোধী বিশেষ অধিবেশন অনষ্ঠিত হয়।

১৯৮৯ - তিব্বতের রাজধানী লাসায় অবস্থিত পোতালা প্রাসাদের মেরামত প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। এই প্রকল্পে চীন সরকার ৩ দশমিক ৫ কোটি ইউয়ান বরাদ্দ করে।

১৯৯১ - সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে পড়ার কিছু আগে দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা কেজেবির তৎপরতা বন্ধ করে দেয়া হয়।

২০০০ - লন্ডনে প্রথমবারের মত একটি মুসলিম মাধ্যমিক স্কুলকে সরকারী হিসাবে অনুমোদন দেয়া হয়।

২০০০ - চীনের ইনজিনিয়ারীন , প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান মহলের সবচেয়ে বড় আকারের এবং সবচেয়ে উচ্চ পর্যায়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলন আন্তর্জাতিক ইনজিনিয়ারীন, প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান সম্মেলন পেইচিংএর গণ মহা ভবনে মহাসমারোহে অনুষ্ঠিত হয়।

২০০১ - চীনের রাষ্ট্রীয় মানদন্ডকরণ ব্যবস্থাপনা কমিটি পেইচিংএ প্রতিষ্ঠিত হয়।

২০০২ - চীনের ছ’টি বে-সামরিক বিমান পরিবহণ লিমিটেড কোম্পানি প্রতিষ্ঠার ঘোষণা করা হয়।

 

জন্মঃ

১৬১৬ - আন্দ্রিয়াস গ্রয়ফিউস, তিনি ছিলেন জার্মান কবি ও নাট্যকার।

১৭৩৮ - আর্থার ফিলিপ, তিনি ছিলেন ইংরেজ এডমিরাল ও রাজনীতিবিদ।

১৮৭১ - আব্দুল করিম, তিনি ছিলেন পুঁথি সংগ্রাহক, লেখক ও সাহিত্য বিশারদ।

১৮৭৭ - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, তিনি ছিলেন সাহিত্যিক সমালোচক ।

১৮৮৪ - ফ্রেডরিখ কার্ল রুডলফ বার্জিয়াস, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী জার্মান বংশোদ্ভূত আর্জেন্টিনার রসায়নবিদ।

১৮৮৪ - আন্না এলিয়ানর রুজভেল্ট, তিনি ছিলেন আমেরিকান মানবাধিকার কর্মী, রাজনীতিবিদ ও ৩৯ তম ফার্স্ট লেডি।

১৮৮৫ - ফ্রাসোয়া মাউরিয়াক, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফরাসি লেখক, কবি ও নাট্যকার।

১৯২১ - নীলিমা ইব্রাহিম, তিনি ছিলেন বাঙালি শিক্ষাবিদ।

১৯৩৬ - সি. গর্ডন ফুলেরটন, তিনি আমেরিকান কর্নেল, প্রকৌশলী ও মহাকাশচারী।

১৯৪২ - অমিতাভ বচ্চন, তিনি জনপ্রিয় ভারতীয় অভিনেতা।

১৯৫৭ - পল বওন, তিনি ইংরেজ অভিনেতা।

১৯৬৫ - রনিত রায়, তিনি ভারতীয় জনপ্রিয় ধারাবাহিক আদালতের অভিনেতা।

১৯৭৩ - তাকেশি কানেসিরো, তিনি জাপানি অভিনেতা ও গায়ক।

১৯৮৩ - ব্র্যাডলি জেমস, তিনি ইংরেজ অভিনেতা।

 

মৃত্যুঃ

১৮৫২ -গটথল্ড আইজেনস্টাইন, তিনি ছিলেন জার্মান গণিতবিদ ও অধ্যাপক।

১৮৯৬ -অ্যান্টন ব্রুকনার, তিনি ছিলেন অস্ট্রিয়ান অর্গানবাদক, সুরকার ও শিক্ষাবিদ।

১৯৩৮ -নগেন্দ্রনাথ বসু, তিনি ছিলেন বাংলা বিশ্বকোষের প্রথম প্রণেতা।

১৯৪০ -লুলুইস কোম্পানিস, তিনি ছিলেন স্প্যানিশ আইনজীবী, রাজনীতিবিদ ও কাতালোনিয়ার ১২৩ তম রাষ্ট্রপতি।

১৯৪০ -জাঁ ককতো, তিনি ছিলেন ভিটো ভল্টেরা, তিনি ছিলেন ইতালীয় গণিতবিদ ও পদার্থবিজ্ঞানী।

১৯৮৮ -বনিটা গ্রানভিলে, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেত্রী, গায়ক ও প্রযোজক।

১৯৯১ -গোলাম সামদানী কোরায়শী, তিনি ছিলেন বাংলাদেশের একজন বিশিষ্ট সহিত্যিক, গবেষক ও অনুবাদক।

১৯৯৬ -উইলিয়াম ভিখর, তিনি ছিলেন নোবেলজয়ী কানাডীয় অর্থনীতিবিদ।

২০০৭ -শ্রী চিন্ময়, তিনি ছিলেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত আমেরিকান আধ্যাত্মিক নেতা ও কবি।

২০১২ -ফ্রাঙ্ক আলমো, তিনি ছিলেন ফরাসি গায়ক।

নিউজ ট্যাগ: ইতিহাসে এই দিনে

আরও খবর
২৩ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১

২১ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১




২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আরও দুইজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ডেঙ্গুতে আরও দুজন প্রাণ হারিয়েছে। এ নিয়ে মোট ৬৫ জন ডেঙ্গুতে মারা গেল। আজ মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গুবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নতুন করে আরও ২১৯ জন বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ১৬৫ জন এবং ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ৫২ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নতুন ২১৯ জন ভর্তি হয়েছে। এ নিয়ে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৫৪ জন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৬টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছে ৭৩৬ জন এবং অন্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছে ২১৮ জন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, গত ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ১৭ হাজার ৭৯০ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছে ১৬ হাজার ৭৭১ জন রোগী। ডেঙ্গুতে এ সময়ে ৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।



আরও খবর



নতুন নামে কোম্পানি করে ব্র্যান্ডিংয়ে যাচ্ছে ফেসবুক!

প্রকাশিত:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নতুন ব্র্যান্ডিং পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কোম্পানির নাম পরিবর্তন করতে যাচ্ছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মালিকানা প্রতিষ্ঠান ফেসবুক ইনকরপোরেশন। প্রযুক্তি বিষয়ক বিখ্যাত ব্লগ দ্য ভার্জের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ এ কথা জানিয়েছে।

ব্লুমবার্গ বলছে, ফেসবুক অ্যাপ ও অন্যান্য সেবা অপরিবর্তিত থাকবে। তবে, ফেসবুক ইনকরপোরেশনের আওতায় ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের মতো শতকোটি ব্যবহারকারীর প্রতিষ্ঠানগুলো যেভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে, সেখানে নতুন নামের কোম্পানির আওতায় ফেসবুকসহ এসব প্রতিষ্ঠান চলবে। অ্যালফাবেট ইনকরপোরেশন নামের প্যারেন্ট কোম্পানির আওতায় একইভাবে এরই মধ্যে গুগল ব্যবসা পরিচালনা করছে।

দ্য ভার্জের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মেটাভার্স খাতে কার্যক্রম বাড়ানোর অংশ হিসেবে কোম্পানির নাম পরিবর্তন করতে যাচ্ছে ফেসবুক। বাস্তব জীবনকে ভার্চুয়ালে জগতে আরও প্রাণবন্ত আকারে হাজির করার বিষয়টিকে বোঝাতে মেটাভার্স কথাটির ব্যবহার হয়ে থাকে।

ধারণা করা হচ্ছে, আগামী ২৮ অক্টোবর ফেসবুক ইনকরপোরেশনের কানেক্ট কনফারেন্সে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ নাম পরিবর্তনের বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন।

গত জুলাইয়ে জাকারবার্গ বলেছিলেন, আগামী বছরগুলোতে মানুষজন আমাদের একটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম কোম্পানি থেকে একটি মেটাভার্স কোম্পানি হিসেবে রূপান্তর হতে দেখবেন। বিভিন্নভাবে মেটাভার্সই আগামী দিনের সামাজিক প্রযুক্তি হয়ে উঠবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, নতুন ব্র্যান্ডিংয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে ফেসবুক জানিয়েছে, তারা (ফেসবুক) গুজব বা ধারণাপ্রসূত কথার ওপর মন্তব্য করতে রাজি নয়।

এমন এক সময়ে ব্র্যান্ডিংয়ে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে ফেসবুক, যখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম কোম্পানিটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা, আইনপ্রণেতা ও মানবাধিকারকর্মীদের কাছ থেকে তুমুল চাপের মুখে রয়েছে। সম্প্রতি ফেসবুকের সাবেক কর্মী ফ্রান্সেস হাউজেন মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এবং মার্কিন নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে হাজার হাজার নথি দিয়েছেন। এসব নথিতে কন্টেন্ট পর্যবেক্ষণে ফেসবুকের গাফিলতি এবং ফটোশেয়ারিং অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারের ফলে মানসিক সমস্যার তথ্য উল্লেখ রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ফেসবুক

আরও খবর