আজঃ মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরও ২০১ জন হাসপাতালে

প্রকাশিত:রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ | ৯৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ২০১ জন রোগী ভর্তি হয়েছে।

রোববার (১৭ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গুরোগী ভর্তি হয়েছেন ২০১ জন। এর মধ্যে ঢাকাতে ১৪০ জন এবং ঢাকার বাইরের সারাদেশে ভর্তি হয়েছেন ৬১ জন।

এতে আরও বলা হয়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ৮৪৪ জন ডেঙ্গুরোগী ভর্তি আছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৬টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৬৫১ জন এবং অন্যান্য বিভাগে বর্তমানে সর্বমোট ১৯৩ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

এ বছর ১ জানুয়ারি থেকে ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ২১ হাজার ৪০২ জন। একই সময়ে তাদের মধ্য থেকে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২০ হাজার ৪৭৫ জন রোগী। এ পর্যন্ত ডেঙ্গুরোগে আক্রান্ত হয়ে ৮৩ জনের মৃত্যুর হয়েছে। 


আরও খবর



ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে হাড় কাঁপাবে শৈত্যপ্রবাহ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী ডিসেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত শৈত্যপ্রবাহ হতে পারে বলে  জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। গত দুই বছরের তুলনায় এ বছর আগভাগেই শীত পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সঙ্গে বাড়তে পারে শীতের তীব্রতাও।

আবহাওয়া অফিসসূত্রে জানা গেছে, দেশে সাধারণত মৃদু, মাঝারি ও তীব্র এই তিন ধরনের শৈত্যপ্রবাহের প্রবণতা রয়েছে। চলতি নভেম্বর মাসে এ ধরনের কোনো শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা নেই। তবে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত শৈত্যপ্রবাহ হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) মো. আজিজুর রহমান জানান, এ বছর অন্যবারের তুলনায় আগভাগেই শীত আসবে। তবে অস্বাভাবিক রকম শীত আগেও পড়েনি এবারও পড়বে না। বিগত দুই বছরের তুলনায় এবারে শীত মৌসুমের মাঝামাঝি সময়ে (শীতের মৌসুম বলতে নভেম্বর, ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মাস বোঝায়) আগের বছরগুলোর তুলনায় শীতের প্রভাব বেশি থাকবে।

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল,উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এবং নদনদী অববাহিকায় মাঝারি অথবা ঘন কুয়াশা এবং অন্য স্থানে হালকা বা মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

উল্লেখ্য, রাতের তাপমাত্রা বা সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেলে তাকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ হিসেবে ধরা হয়। আর তাপমাত্রা ৬-৮ ডিগ্রির মধ্যে থাকলে মাঝারি এবং তাপমাত্রা ৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলে নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক ছিল। সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা ১-২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত ছিল।

গত মঙ্গলবার ঢাকায় সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে যথাক্রমে ২৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও ২০ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


আরও খবর
সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




ভারতে ভেজাল মদপানে ২৪ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ নভেম্বর ২০২১ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের বিহারে ভেজাল মদপানে অন্তত ২৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। রাজ্যটির ওয়েস্ট চাম্পারান ও গোপালগঞ্জ জেলায় গত দুদিনে এসব মৃত্যু হয়েছে বলে শুক্রবার (৫ নভেম্বর) জানিয়েছে দেশটির বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

তবে ওই দুটি জেলার প্রশাসন এখন পর্যন্ত ওই সব মানুষের মৃত্যু কিভাবে হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানায়নি।

এনডিটিভি জানায়, বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জ জেলায় বিষাক্ত মদপানে ৬ জনের মৃত্যু হয়। এর ফলে ওই জেলায় মদ পানে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ১৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

এছাড়া ওয়েস্ট চাম্পারান জেলার বেতিয়ার তেলহুয়া গ্রামে স্থানীয়ভাবে তৈরি মদ বা হুচ পানে বৃহস্পতিবার ৮ জন মারা গেছেন।

তেলহুয়া গ্রামের বাসিন্দাদের উদ্ধৃতি দিয়ে সংবাদ মাধ্যম জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় মদ পান করে ৮ জন অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই বৃহস্পতিবার তাদের মৃত্যু হয়।

বিহারের মন্ত্রী জানক রাম বলেন মৃত্যুর বিষয়টি জানতে পেরে গোপালগঞ্জ সফর করেছেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বিষাক্ত মদ পানে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের বাড়িতে আমি গিয়েছি। আমার মনে হচ্ছে এটি এনডিএ সরকারের বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্র।

গোপালগঞ্জের সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা আনন্দ কুমার বলেন, গত দুই দিনে জেলার মোহাম্মদপুর গ্রামে কিছু সংখ্যক মানুষ রহস্যজনকভাবে মারা গেছেন। তাদের মৃত্যুর কারণ এখনো জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে এটি জানা যাবে।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, ধারনা করা হচ্ছে বিষাক্ত মদ পানে তাদের মৃত্যু হয়েছে। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে কয়েকজনের শরীর পরিবার দাহ করেছে বলেও জানায় তারা।

নিউজ ট্যাগ: ভেজাল মদপান

আরও খবর



স্বস্তি ফিরতে শুরু করেছে সবজির বাজারে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শীত আসতে শুরু করায় বাড়ছে সবজির সরবরাহ। এতে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরতে শুরু করেছে বাজারে। কিছুদিন আগেও ৬০/৭০ টাকার নিচে কোনো সবজি না পাওয়া গেলেও বর্তমান বাজারে সে দাম কমতে শুরু করেছে।

শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে এই চিত্র দেখে গেছে। তবে ক্রেতারা বলছেন, আসন্ন শীতের এই সময় দাম আরও কম থাকার কথা। সেই তুলনায় কিছুটা বেশি দামেই বিক্রি হচ্ছে সবজি।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সপ্তাহের বাজারে বড় সাইজের একটি ফুলকপি ৪০/৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যা আগে বিক্রি হয়েছে ৬০/৭০ টাকায়। একইভাবে বাঁধাকপি প্রতি পিস ৩৫/৪০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা থেকে কমে প্রতি কেজি ৬০/৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ১০০ টাকা কেজির সিম ২০ টাকা কমে আজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়।

শুক্রবারের বাজারে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ দাম কমে ৮০/৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও শসা ৪০ টাকা, মূলা ৪০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

তবে আগের মতো বেশি দামেই বিক্রি হচ্ছে টমেটো, গাঁজর। বাজারে আজ টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা কেজিতে আর গাঁজর বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১২০ টাকায়। পিঁয়াজের কেজি মানভেদে ৬০/৬৫ টাকা।

নিউজ ট্যাগ: সবজির দাম

আরও খবর
সপ্তাহের ব্যবধানে কমেছে সবজির দাম

শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১




হাফ ভাড়ার দাবিতে রাজধানীতে শিক্ষার্থীদের বাস ভাঙচুর

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ১১৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীতে চলাচলকারী গণপরিবহনে অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে চারটি বাস ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে।

শনিবার বেলা ১২টার দিকে রাজধানীর সায়েন্স ল্যাব এলাকায় সিটি কলেজের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা এসব বাস ভাঙচুর করে বলে জানায় পুলিশ।

তার আগে নিউমার্কেট সায়েন্সল্যাব এলাকার রাস্তা অবরোধ করেন ঢাকা কলেজ ও সিটি কলেজের শিক্ষার্থীরা। সেখান থেকে চারটি বাস ভাঙচুর করলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা বিভাগের নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শরীফ মো. ফারুকুজ্জামান।

তিনি বলেন, ছাত্ররা হাফ পাশের দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়৷ এর মধ্যে উত্তেজিত ছাত্ররা চারটি বাস ভাঙচুর করে। আমরা সাথে সাথেই তাদের থামিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। ছাত্রদের বুঝিয়ে তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া বলেন, গণপরিবহনে বিশেষ করে বাসে হাফ ভাড়ার দাবিতে কয়েকদিন ধরেই ধানমন্ডি সাইন্সল্যাব এলাকার শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করছে, রাস্তা অবরোধ করছে। আজকেও বেলা সোয়া ১২টার দিকে সিটি কলেজ ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা রাস্তা অবরোধ করেছে। এ সময় কয়েকটি বাসের গ্লাস ভাঙচুর করা হয়।

এখন রাস্তায় ঢাকা কলেজের কিছু শিক্ষার্থী অবস্থান করছেন বলে জানান তিনি।

গত বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা কলেজের ছাত্ররা একইভাবে রাস্তা অবরোধ করেছিলেন। সেদিন পুলিশ ও কলেজ শিক্ষকরা তাদের বুঝিয়ে কলেজ প্রাঙ্গনে ফেরত পাঠায়। তবে তারা বাস মালিক-শ্রমিকদের হাফ পাশ কার্যকর করতে শনিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়।

ছাত্রদের অভযোগ, তারা সবসময় অর্ধেক ভাড়া দিয়ে বাসে চলাচল করেন। তবে নতুন ভাড়া কার্যকর হবার পর থেকে কোনো বাসে হাফ ভাড়া নিচ্ছে না বরং তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

এরই মধ্যে ছাত্রদের ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে নামিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।


আরও খবর
মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৬

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




সাত কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় পাশের হার ৬৭ ভাগ

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ নভেম্বর ২০২১ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ৬৭ ভাগ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। আজ বুধবার (১৭ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান অধ্যাপক আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফল ঘোষণা করেন।

পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ২১ হাজার ১৩২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ১৪ হাজার ৩৮২ জন। সে হিসাবে পাসের হার ৬৭ দশমিক ৯০। এই ইউনিটে আসন সংখ্যা ১১ হাজার ৯০৫টি।

এসময় গার্হস্থ্য অর্থনীতি ইউনিটের অন্তর্ভুক্ত গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজগুলোর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ৫ হাজার ৫৪৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৪ হাজার ৪৯৫ জন। সে হিসাবে পাসের হার ৮১ দশমিক ০৬ শতাংশ। এই ইউনিটে আসন সংখ্যা ২ হাজার ৬৫৫টি।

সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন মো. নাজমুল আলম নামে এক পরীক্ষার্থী। তিনি রাজধানীর দারুন নাজাত সিদ্দীকিয়া কামিল মাদ্রাসার আলিমের ছাত্র ছিলেন।

গার্হস্থ্য অর্থনীতি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন ফাতেমা তাসনিম রাইসা নামে এক পরীক্ষার্থী। তিনি রাজধানীর বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজের উচ্চমাধ্যমিকের ছাত্রী ছিলেন।



আরও খবর