আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

ধর্মঘট অব্যাহত রাখবে ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান মালিকরা

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাস ও লঞ্চ মালিকদের ভাড়া বাড়ানোর দাবি মেনে নিয়েছে সরকার। নতুন ভাড়ায় বাসের চাকা ঘুরছে রাস্তায়। তবে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিকদের দাবির বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি সরকার। তাই তেলের দাম না কমা পর্যন্ত ধর্মঘট অব্যাহত রাখার কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।

পরিষদের আহ্বায়ক রুস্তম আলী খান রোববার (৭ নভেম্বর) জানান, সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের সঙ্গে কেউ কথা বলেননি। তাই জ্বালানি তেলের দাম না কমা পর্যন্ত আমরা ধর্মঘট অব্যাহত রাখব।

অন্যদিকে কাভার্ডভ্যান-ট্রাক প্রাইমমুভার পণ্য পরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন অতিরিক্ত মহাসচিব আবদুল মোতালেব বলছেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে আমাদেরকে ডেকে পাঠাবেন। এরপরে আমাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন। অথচ, এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে এ বিষয়ে কোনো সংবাদ পৌঁছায়নি। সরকার এখনও আমাদের অফিসিয়ালি ডেকে পাঠান নেই।

তিনি বলেন, আমরা প্রতিদিন রেডি হয়ে বসে থাকি কেউ আমাদের ডাকবেন বলে। ডেকে একটা সমাধান দেবেন, কিন্তু আমাদের ডাকা হয় না। আমাদের কাজ বন্ধ হয়ে আছে।

 


আরও খবর



পাবনা ও মহেশপুরে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় মঙ্গলবার সকাল ১০টায় পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে ৪০০ শীতার্তের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। কম্বল বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পাবনা পুলিশ সুপার মো. মহিবুল ইসলাম খান (বিপিএম)।

কম্বল হাতে পেয়ে বৃদ্ধা সেতারা খাতুন বলেন, 'কয়েক দিনের শীতে মোটা একটা কাপড়ের জন্যি একটু ভালো করে ঘুমও পাড়বের পারতেছিলাম না। শীতে খুব কষ্ট করে রাত পার করতিছিলেম। কত জনেক কইছি একটা কম্বল দেওয়ার জন্যি, কেউ দেয় না। আজ ইনারা (বসুন্ধরা গ্রুপ) একটা কম্বল দিলো। বাপু রে অনেক দরকার ছিল কম্বলটা।'

কম্বল বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন পাবনা পৌরসভার মেয়র মো. শরীফ উদ্দিন প্রধান, পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার মো. জমিদার রহমান, শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামান, পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাংলা বিভাগের ইনসট্রাকটর ও উপদেষ্টা আলি আকবর মিয়া রাজু, পাবনা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈকত আফরোজ, দেশ রূপান্তর পত্রিকার পাবনা প্রতিনিধি রিজভী জয়, কালের কণ্ঠের চাটমোহর উপজেলা প্রতিনিধি আব্দুল লতিফ রঞ্জু প্রমুখ।

'জারের ঠেলায় গাঁ-পা শুধু কাপে। যারে দেহি তার কাছেই জারের কাপড় চাই। একজন পুরেন জাম্পার দিছে। জাম্পারে জার মানে না। কাইল এক গেদা কাগজ ধরাইয়া দিয়া কইল ভাঙ্গরে স্কুলে যাইতে। তাইল কম্বল পাবো। আজ আসতেই গেদারা আমাক কম্বল গায় জড়াইয়া দিল। এখন এই কম্বল গায় দিয়ে রাত্রে সুমু।' শুভসংঘের কম্বল পেয়ে কথাগুলো শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামানের কাছে কথাগুলো বলছিলেন ৮০ বছরের বৃদ্ধা সোনেকা খাতুন।

মঙ্গলবার বিকেলে সরকারি ভাঙ্গুড়া মডেল ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে ৪০০ অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। বসুন্ধরা গ্রুপের অর্থায়নে এই কম্বল বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার শীতার্ত ও দুস্থ অসহায় মানুষের মাঝে চার শতাধিক কম্বল বিতরণ করেছে বসুন্ধরা গ্রুপ।

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে এবং দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকার সংগঠন শুভসংঘের আয়োজনে মঙ্গলবার (০৪ জানুয়ারি) সকালে মহেশপুর উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে এ কম্বল বিতরণ করা হয়। বসুন্ধরা গ্রুপের কম্বল পেয়ে খুশি গরিব ও দুস্থরা। এসময় তারা কালের কণ্ঠ পত্রিকার সংগঠন শুভসংঘকে ধন্যবাদ জানান।

নিউজ ট্যাগ: বসুন্ধরা গ্রুপ

আরও খবর
পাবনায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২




চীনে সর্বনিম্ন জন্মহারের রেকর্ড

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চীনে সর্বনিম্ন জন্মহারের রেকর্ড হয়েছে। দেশটির জাতীয় পরিসংখ্যার ব্যুরো-র ডাটা অনুসারে, ২০২১ সালে দেশটির মূল ভূখণ্ডে প্রতি হাজারে জন্মহার ৭ দশমিক ৫২। ২০২০ সালে জন্মহার ছিল ৮ দশমিক ৫২। আজ সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯৪৯ সালে দেশটির স্টাটিস্টিকস ব্যুরো তথ্য সংগ্রহ করা শুরু করার পর থেকে এই জন্মহার সর্বনিম্ন। ২০২১ সালে চীনে স্বাভাবিক জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল মাত্র ০.০৩৪ শতাংশ; তথ্য অনুযায়ী যা ১৯৬০ সালের পর থেকে সবচেয়ে কম।

গত কয়েক বছর ধরেই চীনে জন্মহার নিম্নগামী রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ২০২১ সালে দম্পতিদের তিনটি পর্যন্ত সন্তান নেওয়ার অনুমতি দেয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে বহু দশক ধরে কঠোরভাবে এক সন্তান নীতি অনুসরণের পর ২০১৬ সালে তা বাতিল করে চীন। সে সময় ঘোষণা দেওয়া হয়, সব দম্পতি দুইটি করে সন্তান নিতে পারবেন।

পিনপয়েন্ট অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের প্রধান অর্থনীতিবিদ ঝিওয়েই ঝাং বলেন, জনসংখ্যাগত চ্যালেঞ্জটি সুপরিচিত। কিন্তু জনসংখ্যার বার্ধক্যের গতি স্পষ্টতই প্রত্যাশার চেয়ে দ্রুততর।’ জন্মহার কমে যাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জন্মহার ধারণার চেয়েও দ্রুত গতিতে কমছে।

উল্লেখ্য, ডাটা অনুসারে ২০২০ সালে যেখানে ১ কোটি ২০ লাখ শিশুর জন্ম হয়েছে সেখানে ২০২১ সালে শিশু জন্মের সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৬ লাখ ২০ হাজার জনে। 


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




একদিনে হাসপাতালে ভর্তি ১৫ ডেঙ্গুরোগী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ভর্তি হওয়া ১৫ জনের মধ্য ঢাকায় সরকারি হাসপাতালে একজন ও বেসরকারি হাসপাতালে রয়েছেন চারজন

এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীসহ সারাদেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৫ জন। তাদের মধ্যে ঢাকাতেই ৫ জন ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালে দশজন ভর্তি হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ এবং ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন এমন রোগীর সংখ্যা ৭৮ জন। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ৪৪ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে ৩৪ জন ভর্তি রয়েছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ভর্তি হওয়া ১৫ জনের মধ্য ঢাকায় সরকারি হাসপাতালে একজন ও বেসরকারি হাসপাতালে রয়েছেন চারজন। এছাড়া ঢাকার বাইরে হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি হয়েছেন ১০ জন।

এছাড়া চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৮ হাজার ৩৮৩ জন। তাদের মধ্যে জানুয়ারিতে ৩২ জন, ফেব্রুয়ারিতে নয়জন, মার্চে ১৩ জন, এপ্রিলে তিনজন, মে মাসে ৪৩ জন, জুনে ২৭২ জন এবং জুলাইয়ে ২ হাজার ২৮৬ জন, আগস্টে ৭ হাজার ৬৯৮ জন, সেপ্টেম্বরে ৭ হাজার ৮৪১ জন, অক্টোবরে ৫ হাজার ৪৫৮ জন, নভেম্বরে ৩ হাজার ৫৬৭ জন এবং চলতি মাসের ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১ হাজার ১৬১ জন ভর্তি হন।

একই সময়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮ হাজার ২০১ জন। মারা গেছেন ১০৪ জন। মারা যাওয়া ১০৪ জনের মধ্যে জুলাইয়ে ১২ জন, আগস্টে ৩৪ জন এবং সেপ্টেম্বর ২৩ জন, অক্টোবরে ২২ জন, নভেম্বরে সাতজন এবং চলতি মাসের ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে।


আরও খবর



এজেন্ডা বাস্তবায়নে মাহবুব তালুকদার মিথ্যাচার করেন: সিইসি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার মিথ্যাচার করেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। এজেন্ডা বাস্তবায়নে তিনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে ইসি নিয়ে কথা বলেন বলেও দাবি করেন সিইসি।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ভোটার তালিকায় পিতা-মাতা পরিচয়হীনদের তালিকাভুক্তির সমস্যা ও করণীয়-বিষয়ক কর্মশালার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এর আগে গতকাল ৫ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) পর্যবেক্ষণ শেষে মাহবুব তালুকদার বলেছিলেন, ভোটযুদ্ধে যুদ্ধ আছে, ভোট নেই। এছাড়া তিনি নিজেদের দায় স্বীকারমূলক মন্তব্যও করেন।

বিষয়টি নিয়ে সিইসির প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, উনি তো এ রকম সব সময় বলেন। একেক সময় একেক শব্দচয়ন করেন, মিডিয়ায় প্রচার করার জন্য। এই কথাগুলো অপ্রাসঙ্গিক কথা। অপ্রচারমূলক কথা। নির্বাচন কমিশনকে অপবাদ দেওয়া কথা। ভোটযুদ্ধ আছে, ভোট নেই, তাহলে ৭৫ শতাংশ ভোটার কোত্থেকে আসে? টেলিভিশনে দেখিয়েছেন সারিবদ্ধভাবে নারী-পুরুষ দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেন। তাহলে এরা কারা? এরা কী ভোটার নন? সুতরাং উনার কথার কোনো প্রাসঙ্গিকতা নেই।

কে এম নূরুল হুদা বলেন, উনি এটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বলেন। হয়তো উনার কোনো এজেন্ডা আছে, সেটা বাস্তবায়নের জন্য, নির্বাচন কমিশনকে হেয় করার জন্য এই কথা বারবার বলেন। এই কথাটা মিথ্যাচার, অপ্রাসঙ্গিক, অপবাদ। উনি মিথ্যা কথা বলেন।

সাংবাদিকদের অন্য এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, নির্বাচনে সহিংসতা ও মৃত্যুর দায় নির্বাচন কমিশনের নয়। দায় প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের। সহিংস ঘটনাগুলো ঘটেছে কেন্দ্রের বাইরে। আমরা তাদের বারবার বলি সহনশীল হতে।

তিনি বলেন, আমরা প্রত্যেকটি হত্যাকাণ্ডের জন্য মর্মাহত। এগুলো অপ্রত্যাশিত। আমরা এগুলো চাই না। প্রার্থীদের আমরা বারবার অনুরোধ করি, নির্বাচন হবে প্রতিযোগিতামূলক, প্রতিহিংসাপরায়ণ নয়, রক্তপাত নয়।’

কে এম নূরুল হুদা বলেন, প্রশাসনিক দুর্বলতার কারণে সহিংসতা হচ্ছে। পুলিশও অনেক সময় ভিকটিম হচ্ছে, আহত হচ্ছে, নিহত হচ্ছে। প্রচুর ধৈর্য সহকারে তারা দায়িত্বপালন করেন।’

নিউজ ট্যাগ: কে এম নূরুল হুদা

আরও খবর



জঙ্গি সংগঠন 'আল্লাহর দলের' সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাভার থানাধীন রামচন্দ্রপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন 'আল্লাহর দলের' সদস্য আতিকুর রহমান সুইটকে (৫৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিট (এটিইউ)।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) রাতে সাভারের রামচন্দ্রপুর ছাকিপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বর্তমানে তিনি ইমপেক্স ল্যাবরেটরি কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন।

এটিইউর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) ওয়াহিদা পারভীন জানান, গ্রেফতার আতিকুর রহমান সুইট রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশে খেলাফত প্রতিষ্ঠা করার উদ্দেশ্য দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন। তাছাড়া নিজেদের মতবাদ প্রচারের মাধ্যমে অনলাইনে 'আল্লাহর দলের' পক্ষে সদস্য সংগ্রহের কাজ করে আসছিলেন।

আতিকুর রহমান সুইট ঢাকার তেজগাঁও থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দায়েরকৃত একটি মামলার পলাতক আসামী। তার বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান এএসপি ওয়াহিদা।


আরও খবর
রিফাত হত্যা: খালাস চেয়ে মিন্নির জেল আপিল

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22