আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

দিল্লিতে বহুতল ভবনে আগুন, নিহত বেড়ে ২৭

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৩০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের পশ্চিম দিল্লির মুন্ডকা মেট্রো স্টেশনের কাছে একটি তিন তলা বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২৭ জন নিহত হয়েছেন বলে টাইমস অব ইন্ডিয়া ও এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে।

বাণিজ্যিক ভবনটিতে আগুন লাগার পর বিকেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আসেন। তাদের ২০টি ইউনিট রাত নাগাদ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন চলছে উদ্ধার অভিযান। ইতোমধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে অন্তত ৬০ থেকে ৭০ জনকে।

দিনের ব্যস্ত সময়ে যখন আগুন লাগে, তখন বাড়িতে অনেকে ছিলেন। আগুন থেকে বাঁচতে বহুতল থেকে ঝাঁপ দিয়েছিলেন অনেকে। তাদের মধ্যে ৪০ জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এনডিটিভির খবরে জানা যায়, আগুনের শুরু ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি অফিস থেকে। সেখানে সিসিটিভি ক্যামেরা ও রাউটার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের অফিস ছিল। আগুনের ঘটনায় শোক প্রকাশ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট বার্তায় বলেছেন, দিল্লিতে মর্মান্তিক অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির ঘটনায় অত্যন্ত মর্মাহত। শোকাহত পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করছি। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।

এছাড়া তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারের জন্য ২ লাখ ও আহতদের জন্য ৫০ হাজার রুপি করে দেওয়ার ঘোষণা দেন মোদি।


আরও খবর



ভারত থেকে পেঁয়াজ আসা বন্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে তিনদিন ধরে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে খুচরা বাজারে।

আমদানিকারকরা বলছেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির আগের ইমপোর্ট পারমিটের (আইপি) মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। নতুন করে আইপি না পাওয়ায় কয়েকদিন ধরে আমদানি বন্ধ হয়ে গেছে।

হিলি স্থলবন্দর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বন্দর দিয়ে সর্বশেষ গত ৩০ এপ্রিল ৬৮টি ট্রাকে ১৯০২ মেট্রিক টন ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। এরপর ঈদের ছুটি শুরু হয়। ছুটি শেষে শনিবার (৭ মে) থেকে বন্দর দিয়ে আমদানি কার্যক্রম শুরু হয়। তবে শনিবার থেকে বন্ধ রয়েছে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি।

এদিকে হিলির খুচরা বাজারে ঈদের আগে প্রকারভেদে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৫ থেকে ১৬ টাকা দরে বিক্রি হলেও বর্তমানে তা বেড়ে ২০ থেকে ২২ টাকায় ঠেকেছে।

আড়তে পেঁয়াজ কিনতে আসা মো. আসলাম বলেন, ঈদের আগে হিলির আড়তে পেঁয়াজের দাম ছিল ১৪ টাকা কেজি। এখন দাম চাচ্ছে ২০ থেকে ২২ টাকা। আমরা অন্য বাজারে ২০ টাকা কেজি খুচরা বিক্রি করেছি। অথচ এখান থেকেই আমাদের ২০-২২ টাকা দিয়ে কিনতে হচ্ছে।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক শাহরিয়ার আলম বলেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য আমাদের যেসব ইমপোর্ট পারমিট নেওয়া ছিল সেগুলোর মেয়াদ ছিল ৫ মে পর্যন্ত। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১ মে থেকে ৬ মে পর্যন্ত ছয়দিন হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ছিল। যে কারণে ওই সময়ের মধ্যে বাড়তি পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানির ইচ্ছা থাকলেও সেটি সম্ভব হয়নি।

তিনি বলেন, সরকার নতুন করে পেঁয়াজ আমদানির জন্য ইমপোর্ট পারমিট দেওয়া বন্ধ রেখেছে, যে কারণে বর্তমানে বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানিও বন্ধ রয়েছে।

তবে পেঁয়াজ আমদানির জন্য অনুমতি চেয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন করা হয়েছে বলে জানান আমদানিকারক শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত অনুমোদন দেওয়া হয়নি। কবে দেওয়া হবে কিংবা দেওয়া হবে কি না সে ব্যাপারেও কর্তৃপক্ষ কিছু বলছে না।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন প্রতাব মল্লিক বলেন, হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত ছিল। এরপর থেকে বন্দর দিয়ে আর পেঁয়াজ আমদানি হয়নি।


আরও খবর



মানিকগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে দালালদের খপ্পরে সেবা প্রার্থীরা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে স্বাভাবিক নিয়মে পাসপোর্ট পাওয়া যেন সোনার হরিণ। সবকিছু ঠিক থাকার পরও অফিস কর্তাদের নানা টালবাহানায় ভুক্তভোগীরা দালালদের দ্বারস্থ হচ্ছেন। দালাল ছাড়া নিজে পাসপোর্ট করতে গেলে পড়তে হচ্ছে ভোগান্তিতে। এছাড়া দালালদের মাধ্যমে করানো প্রতিটি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে গুনতে হয় অতিরিক্ত টাকা। যা পরবর্তী সময়ে অফিসটিতে কাজ করা কর্মকর্তাদের মধ্যে ভাগ হয়ে যায় বলে অভিযোগ রয়েছে। মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস কার্যালয়ে এমন চিত্র উঠে এসেছে।

জানা যায়, দালালরা প্রতিটি ই-পাসপোর্ট থেকে নির্ধারিত ১ হাজার টাকা অফিস কর্তাদের ঘুষ দিয়ে থাকেন। ফলে সেবা গ্রহীতা অফিসে আবেদন জমা দেওয়া থেকে শুরু করে ছবি তোলা ও পাসপোর্ট ডেলিভারি পর্যন্ত সব কাজ হয়রানি ছাড়াই করতে পারেন। এছাড়া ছোটখাটো কোন ভুল থাকলেও সেগুলোতে ছাড় দেওয়া হয়। তবে বড় ধরনের কোন ভুল থাকলে নির্ধারিত এক হাজার টাকার বাইরে আরো টাকা দিতে হয়।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় অভিযান হলে দালালরা অফিস স্টাফদের সঙ্গে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সব কাজ করেন। পছন্দের সেবাপ্রার্থী পাসপোর্ট অফিসের গেটে দিয়ে ভেতরে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে তার নাম, চেহারার ধরন, জামা কাপড়ের রঙসহ সব বিবরণ মোবাইলে  কর্মকর্তাদের  জানিয়ে  দেন দালালরা। প্রশাসনের নজরদারি কমে গেলে বা সেবাপ্রার্থীর জরুরি প্রয়োজনে তখন দালালেরা নিজেরাও অফিসে যাতায়াত করে থাকেন।

সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া ইউনিয়নের গোলড়া গ্রামের সাইদুল ইসলাম বলেন, আমার আগের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হওয়ায় অনলাইনে আবেদন করি। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে গেছিলাম। দালাল দিয়ে কাজ না করায় অফিসের গেট থেকে শুরু করে পদে পদে হয়রানির শিকার হয়েছি। আমার ভোটার আইডি কার্ড থাকলেও স্মার্ট কার্ড না থাকায়  নতুন পাসপোর্ট দেওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেন কর্মকর্তারা। অনেক হয়রানির পর ফিঙ্গার ও ছবি তোলার সুযোগ পাই। তবে নির্ধারিত সময় পার হয়ে গেলেও আমার পাসপোর্ট এখনো হাতে পায়নি। পাসপোর্ট পেতে কয়েক মাস দেরি হবে বলেও তারা জানায়। পরে বাধ্য হয়ে অফিস থেকে বের হয়ে দালালের শরনাপন্ন হই। দালাল অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করে ১ হাজার ৫০০ টাকার বিনিময়ে মাত্র একদিন পর পাসপোর্ট ডেলিভারি করিয়ে দেয়।

সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ এলাকার এখলাস মিয়া বলেন, মেয়েকে বিদেশ পাঠানোর জন্য পাসপোর্ট করতে হচ্ছে। নিজেরা এলে হয়রানি হয়। তাই এলাকার একজন দালালের মাধ্যমে পাসপোর্ট করিয়েছি। নরমাল পাসপোর্টের জন্য দালালকে ৬ হাজার ৫০০ টাকা দিয়েছি। দালাল পাসপোর্ট অফিসের লোকদের ফোন করে সব বলে দেওয়ায় কোনো সমস্যা হয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দালাল বলেন, অনেক সময় হয়রানি ও ভোগান্তি পোহাতে হয়। ফলে সেবা গ্রহীতারা আমাদের কাছে আসেন। পাসপোর্টের মেয়াদ, সাধারণ ও জরুরি অনুয়ায়ী ব্যাংক ড্রাফট ও পাসপোর্ট অফিস খরচ রাখি। সব ঠিক থাকলে পাসপোর্ট অফিসে এক হাজার টাকা দিতে হয়। অফিসের বড় কর্তা ৫০০ টাকা রাখেন আর বাকি ৫০০ টাকা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে নির্ধারিত হারে ভাগ হয়ে যায়। তবে বড় কর্তা আমাদের হাত দিয়ে টাকা লেনদেন করেন না। আমরা অফিস স্টাফদের টাকা দেই। আর  বিশ্বস্ত অফিস স্টাফরা বড় কর্তাকে টাকা দেন। আর কোনো পাসপোর্ট সংক্রান্ত ঝামেলা থাকলে সেগুলো কনটাক্ট অনুয়ায়ী টাকার অংক বেড়ে যায়। ব্যাংক ড্রাফট ও অফিস খরচের পর কিছু টাকা আমাদের থাকে। আমাদের চেয়ে অফিস কর্তাদের বেশি লাভ।

তিনি আরো বলেন, প্রতিজন দালাল দিনে ৩/৪ টি পাসপোর্টের কাজ পান। এমন দিনও আছে যেদিন অনেকেই কাজ পান না। তবে প্রতিদিন প্রায় প্রতি পাসপোর্ট থেকেই অফিসের লোকজন টাকা পেয়ে থাকেন।

এসব বিষয়ে জানতে মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক নাহিদ নেওয়াজের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এমনকি এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য দিতেও তিনি রাজি হননি।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল  লতিফ বলেন, দালাল চক্রটি বন্ধ করতে বিভিন্ন সময় অভিযান চালানো হয়েছে। দ্রুত এ চক্রটি বন্ধ করতে অভিযান পরিচালনা করা হবে। যদি এসব কার্যক্রমের সঙ্গে পাসপোর্ট অফিসের কেউ জড়িত থাকেন তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



এইচএসসি পাসে চাকরি দেবে এভারকেয়ার হাসপাতালে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এভারকেয়ার হাসপাতাল ঢাকাতে টেকনিশিয়ান পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১৬ মে পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: এভারকেয়ার হাসপাতাল ঢাকা

বিভাগের নাম: অ্যাডাল্ট কার্ডিওলজি

পদের নাম: টেকনিশিয়ান

পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়

শিক্ষাগত যোগ্যতা: এইচএসসি

অভিজ্ঞতা: ০১-০২ বছর

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম

প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ

বসয়: নির্ধারিত নয়

কর্মস্থল: ঢাকা

আবেদনের ঠিকানা: আগ্রহীরা recruit@evercarebd.com অথবা MY BDJOBS account এই ঠিকানায় সিভি পাঠাতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ১৬ মে ২০২২

 

নিউজ ট্যাগ: চাকরির খবর

আরও খবর



ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে লিগ জমিয়ে রাখল লিভারপুল

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এভারটনকে হারিয়ে ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে লিগ জমিয়ে রাখল লিভারপুল। রবিবার ঘরের মাঠ অ্যানফিল্ডে এভারটনকে ০-২ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল। এ জয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষ দুই দলের ব্যবধান আবারও দাঁড়াল ১ পয়েন্টে।

যদিও লিগ শিরোপা নিশ্চিত করতে শেষ পাঁচ ম্যাচ জিতলেই চলবে সিটির। তবে এক ম্যাচে পয়েন্ট খোয়ালে আর লিভারপুল সব ম্যাচ জিতলে লিগ শিরোপা হাত ছাড়া হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যান সিটির।

ঘরের মাঠে বিবর্ণ প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধে চেনা রূপে ফিরল লিভারপুল। একের পর এক আক্রমণে কাঁপিয়ে দিল এভারটনকে। ৬২তম মিনিটে রবার্টসনের গোলে স্বস্তি ফিরে লিভারপুল ডাগ আউটে। ওরিগির সঙ্গে বল দেওয়া নেওয়া করে দুরের পোস্টে বল ঠেলে দেন সালাহ, সেখানে দৌড়ে গিয়ে বল জালে পাঠান রবার্টসন।

ম্যাচের ৮৫তম মিনিটে ওরিগির গোলে ব্যবধান বাড়ায় লিভারপুল। রবার্টসনের কর্নার বক্সের সামনে থেকে হেন্ডারসন হাওয়ায় তুলে দিলে বাইসাইকেল কিক নেন দিয়াজ, ঠিক ঠাক শট না হওয়ায় সামনে বাউন্স খেয়ে গোলমুখের দিকে গেলে হেডে জাল খুঁজে নেন ওরিগি।

এ জয়ে ৩৩ ম্যাচে ৭৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানেই থাকল লিভারপুল। লিভারপুলের সমান ম্যাচে ৮০ পয়েন্ট  নিয়ে শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি। অপরদিকে, ৩২ ম্যাচে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে ১৮তম অবস্থানে এভারটন।


আরও খবর



যে কারণে ২ শিক্ষার্থীর পড়া লেখার দায়িত্ব নিলেন এমপি

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী নিয়ে প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়ায় নোয়াখালীতে রুবীরহাট বঙ্গবন্ধু সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই গরিব শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার আজীবন দায়িত্ব নিলেন সংসদ সদস্য এ এইচ এম ইব্রাহিম।

রোববার (৮ মে) দুপুরে সোনাইমুড়ির রুবীরহাট বঙ্গবন্ধু সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়টি জাতীয়করণের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ি) আসনের সংসদ সদস্য এ এইচ এম ইব্রাহিম কে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী নিয়ে ২ শিক্ষার্থী প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়ায় তিনি সন্তুষ্ট হয়ে তাদের লেখাপড়ার দায়িত্ব নেন।

শিক্ষার্থীরা হলেন সোনাইমুড়ির নদনা ইউনিয়নের পাঁচ বাড়িয়া গ্রামের মৃত ছালেহ আহম্মেদের মেয়ে দশম শ্রেণি ছাত্রী নুসরাত জাহান ও হাটগাঁও গ্রামের জিয়া উদ্দিন তানসেলের ছেলে মিনহাজ উদ্দিন শিখর। তারা দুইজনই বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী।

এ সময় অনুষ্ঠানে সোনাইমুড়ি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামীম কুদ্দুস ভূইয়া, সোনাইমুড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুনুর রশিদ, সোনাইমুড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুমিনুল ইসলাম বাকের, সাধারণ সম্পাদক আফম বাবুল ও স্কুল প্রতিষ্ঠাতার ছেলে আশরাফুল হক চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য দেশের একমাত্র বঙ্গবন্ধুর নামে স্কুলটি জাতীয়করণ করা হয়।


আরও খবর