আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

ঈদের ৭ দিনে ডায়রিয়া আক্রান্ত ৩৩৮৯ জন

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে ডায়রিয়া আক্রান্তের হার অনেকটাই কমে এসেছে। তবে, ঈদের দিন থেকে পরবর্তী সাতদিনে রাজধানীসহ পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলোয় তিন হাজার ৩৮৯ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর,বি) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত পহেলা মে ৬৩১ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এরপর ২ মে ৫৫৯ জন, ৩ মে ৪২৯ জন, ৪ মে ৬৪১ জন, ৫ মে ৫৪৭ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এরপর ৬ মে ৪৫৭ জন, ৭ মে ৪৭২ জন, ৮ মে ৪৩৮, ৯ মে ৪০৫ জন, এবং ১০ মে সকাল ৭টা পর্যন্ত ৫৭ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। গত ৩ মে থেকে ৯ মে পর্যন্ত (৭ দিন) হাসপাতালটিতে মোট ৩ হাজার ৩৮৯ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এ বিষয়ে আইসিডিডিআর,বির জনসংযোগ শাখার সিনিয়র ম্যানেজার তারিফুল ইসলাম খান বলেন, দেশে ডায়রিয়া প্রকোপ অনেকটাই কমতে শুরু করেছে। হাসপাতালে রোগীর সংখ্যাও অনেকটা কমে এসেছে। ঈদে অন্যান্য সবাই ছুটি কাটালেও আমাদের চিকিৎসক স্বাস্থ্যকর্মীরা ডায়রিয়া প্রকোপ মোকাবিলায় অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। গত এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে হঠাৎ করে ডায়রিয়া প্রকোপ বেড়ে গেলে রোগীদের চাপ সামলাতে আমাদের হিমশিম খেতে হয়েছে। তখন হাসপাতালের নির্ধারিত শয্যার বাইরেও খোলা জায়গায় নতুন করে দুইটি তাঁবু স্থাপন করে চিকিৎসা সেবা পরিচালনা করতে হয়েছে। তবে, এখন সংক্রমণ কমে আসায় দুইটি তাঁবুর মধ্যে থেকে একটি খুলে ফেলা হয়েছে।

হাসপাতালটিতে কর্মরত চিকিৎসক, আইসিডিডিআর,বির অ্যাসিস্ট্যান্ট সাইনটিস্ট ডা. শোয়েব বিন ইসলাম বলেন, আমাদের হাসপাতালে এখন দৈনিক ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৫০০ এর নিচে চলে এসেছে। এটিকে আমরা মোটামুটি স্বাভাবিক পরিস্থিতিই বলে থাকি। তবে, এখন তো অনেকেই ঢাকার বাইরে অবস্থান করছেন, তারা ঢাকায় ফিরলেই মূল পরিস্থিতিটা বলা যাবে। তবে, বর্তমান পরিস্থিতিকে আমরা সহনীয় বলতে পারি। পর্যায়ক্রমে আরও কমতে থাকবে।

সংক্রমণ কিছুটা কমে আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, এপিডেমিওলজিক্যাল ব্যাপারটাই এরকম। আমরা সাধারণত বলে থাকি, বর্ষা শুরুর আগে এবং পরে এই দুইটা সময় আমাদের ডায়রিয়া বাড়ে। এ সব সময়ে প্রকোপ দেখা দিলে সাধারণত এক মাস থেকে দুই মাসের মতো স্থায়ী হয়। এর বেশি তো আর থাকে না। এবারের প্রকোপটাও প্রায় দুই মাসের মতো থেকেছে।

জানা গেছে, মার্চের মাঝামাঝি থেকেই রোগীর সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকে। গত ১৬ মার্চ সর্বপ্রথম এক হাজার ৫৭ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তির খবর জানিয়েছিল আইসিডিডিআর,বি। এরপর দিনই (১৭ মার্চ) আরও এক হাজার ১৪১ জন রোগী ভর্তি হন। এরপর রোগীর সংখ্যা আরও বাড়তে থাকে। গত ৪ এপ্রিল রেকর্ডসংখ্যক ১ হাজার ৩৮৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছিলেন। শুরু থেকেই রোগীর সংখ্যা ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও গত ৮ এপ্রিলের পর থেকে হাসপাতালটিতে রোগী ভর্তির সংখ্যা কিছুটা কমতে থাকে। এরপর ১৪ এপ্রিল দীর্ঘ একমাস পর হাসপাতালটিতে ভর্তি রোগীর সংখ্যা এক হাজারের নিচে নেমে আসে।

নিউজ ট্যাগ: আইসিডিডিআর,বি

আরও খবর



পরিবেশবান্ধব উড়োজাহাজ উৎপাদন করবে এয়ারবাস

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কার্বন নিঃসরণ বন্ধের উদ্যোগ নিচ্ছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। জলবায়ু সুরক্ষায় এমন উদ্যোগ নিতে চাপও বাড়ছে। এরই অংশ হিসেবে শূন্য কার্বন নিঃসরণ উড়োজাহাজ তৈরি করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এয়ারবাস। ২০৩৫ সালের মধ্যে নতুন এ উড়োজাহাজ সরবরাহ উপযোগী হবে বলেও জানিয়েছে ইউরোপীয় উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি। সৌদি আরবের রিয়াদে অনুষ্ঠিত ফিউচার এভিয়েশন ফোরামের আলোচনায় প্রতিষ্ঠানটির একজন নির্বাহী এ তথ্য জানান। খবর আরব নিউজ।

এয়ারবাসের আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলের প্রেসিডেন্ট মিকাইল হাউয়ারি আরব নিউজের সঙ্গে একটি ব্যক্তিগত সাক্ষাত্কারে ব্যবসায়িক পরিকল্পনা তুলে ধরেন। তিনি ব্যাখ্যা করেন, এয়ারবাস প্রথমে ২৫ শতাংশ কম কার্বন নিঃসরণ করা উড়োজাহাজ তৈরি শুরু করেছিল। এখন সংস্থাটি শূন্য নিঃসরণ উড়োজাহাজ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে। এটি ২০৩৫ সালের মধ্যে সরবরাহ উপযোগী হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

মিকাইল হাউয়ারি বলেন, বৈশ্বিক এভিয়েশন বাজার আমাদের থেকে এমন উড়োজাহাজের আশা করছে। শিল্পের নেতৃত্ব পর্যায় থেকে আমাদের দায়িত্ব পুরো বাস্তুতন্ত্রকে একটি টেকসই ব্যবস্থায় চালিত করা। তাছাড়া ভবিষ্যতে উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের জন্য টেকসই একটি প্রধান পার্থক্যকারী ফ্যাক্টর হবে। কারণ বৈশ্বিক দূষণে উড়োজাহাজ ২ দশমিক ৫ শতাংশ অবদান রাখে।

নিউজ ট্যাগ: এয়ারবাস

আরও খবর



নারায়ণগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি এএফএম সায়েদ

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখায় নারায়ণগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি হয়েছেন রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) এ এফ এম সায়েদ। নারায়ণগঞ্জ জেলার সাত থানার মধ্যে মে মাসে শ্রেষ্ঠ অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) হলেন তিনি ।

মঙ্গলবার জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম তার হাতে সম্মাননা স্মারক ও পুরস্কার তুলে দেন।

এ সময় পুলিশ সুপার বলেন, জেলার সাতটি থানার মধ্যে তার সামগ্রীক কর্মতৎপরতায় রূপগঞ্জ থানার ওসি এএফএম সায়েদ শ্রেষ্ঠ হয়েছেন। এই সম্মাননার মধ্য দিয়ে তার আগামী দিনের দায়িত্ববোধ আরও বাড়বে আশা করি। পাশাপাশি রূপগঞ্জের জনগণ আরও ভালো সেবা পাবে।

এ প্রসঙ্গে ওসি এ এফ এম সায়েদ বলেন, এ পুরস্কার আমাকে আগামীতে জনগণকে আরও বেশি সেবা দিতে অনুপ্রেরণা জোগাবে। তিনি আরো বলেন, পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম স্যার আমাকে অনেক উৎসাহ প্রদান করছেন সেই অনুপ্রেরণা আমাকে কাজ করার সাহস জুগিয়েছে। তাই আমি আজ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছি। আমি অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে অনেক অনেক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি পুলিশ সুপার মহোদয়ের কাছে।

উল্লেখ্য, এর আগেও এ এফ এম সায়েদ একাধিকবার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন। সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ থাকা সময়ে হয়েছিলেন ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ।


আরও খবর



সাফা কবিরের ‘হ্যাপি বার্থডে’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টিভি নাটকের বাইরে ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও দেখা দিয়েছেন সাফা কবির। এর আগে হইচইয়ের ওয়েব সিরিজ বলিতে গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার (১৯ মে) মুক্তি পেতে যাচ্ছে তাঁর আরেকটি ওয়েব কনটেন্ট। হ্যাপি বার্থডে নামের এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি প্রচার হবে চরকিতে। এটি পরিচালনা করেছেন নিশান মাহমুদ।

হ্যাপি বার্থডের গল্পে সাফার চরিত্রের নাম পিংকি। টিকটক করে এলাকার বেশ পরিচিত মুখ সে। তরুণসমাজে তাকে নিয়ে অন্য রকম আকর্ষণ। পিংকি সুযোগ পেলেই ইন্টারনেট ঠিক করার অজুহাতে মিজানকে বাসায় ডেকে নিয়ে আসে। ইন্টারনেট নষ্ট আর ঠিক করার খেলা তাদের মধ্য বেশ অনেক দিন ধরেই চলে। পিংকির জন্মদিনে অনেকে টিকটক করে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানায়। কিন্তু মিজান কিছুই করতে পারে না। কীভাবে পিংকিকে জন্মদিনে খুশি করা যায়, কীভাবে তার মন পাওয়া যায় এই ভেবে হয়রান মিজান। অ্যালেন শুভ্রকে দেখা যাবে এ চরিত্রে।


সাফা কবির বলেন, ওটিটিতে এর আগে কাজ করা হলেও চরকির সঙ্গে এটাই আমার প্রথম কাজ। পুরো গল্পটাই আমাকে ঘিরে অর্থাৎ পিংকিকে নিয়ে। খুবই সুন্দর একটা গল্প, কাজটা করে বেশ ভালো লেগেছে। সাফা-অ্যালেন ছাড়াও এতে আরও অভিনয় করেছেন রোজী সিদ্দিকী, ইকবাল হোসাইন, আবদুল্লাহ আল সেন্টু, প্রীতি চৌধুরী, হোসেইন জীবন, কাজী আবরার হাসান, ইশরাক রহমান শান্ত প্রমুখ।

এবারের ঈদে সাফা অভিনীত একাধিক নাটক প্রশংসিত হয়েছে। পর্দায় সাফাকে দেখা গেছে তাহসান খান, ফারহান আহমেদ জোভান, তৌসিফ মাহবুব, খায়রুল বাসারের মতো অভিনেতাদের সঙ্গে। সাফা কবির বলেন, কোয়ালিটিফুল না হলে সেসব কাজ করতে চাই না। বিভিন্ন ধরনের চরিত্রে নিজেকে উপস্থাপনের চেষ্টা করছি এখন। এবার ঈদের জন্য বেশ কিছু কাজ করেছি, যেগুলো একটু অন্য রকম আমার জন্য। পুরান ঢাকার গল্পের চরিত্র, মফস্বলের গল্পএমন সব চরিত্রে অভিনয় করেছি, যা এর আগে খুব বেশি করা হয়নি।

নিউজ ট্যাগ: সাফা কবির

আরও খবর



বেধড়ক মার, মুখে গুলির পর জীবন্ত পুঁতে দিয়েছিল

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গেট ভেঙে বাড়িতে ঢুকে পড়েছিল রুশ সেনারা। ঘরে ঢুকে একের পর এক জিনিস টেনে বাইরে আছড়ে আছড়ে ফেলছিল আর অশ্লীল ভাষায় গালাগালি দিচ্ছিল। তার পরই তিন ভাইকে বাড়ির বাইরে টেনেহিঁচড়ে এনে বন্দুকে নলের মুখে হাঁটু গেড়ে বসানো হল। তখনও তল্লাশি চলছিল ঘরের ভিতরে। হঠাৎই এক সেনা চিৎকার করে উঠলেন। তার পরই হাতে একটি সেনার পদক নিয়ে বেরিয়ে এলেন।

তার পরই শুরু হল তিন ভাইকে বেধড়ক মার। বলতে বলতে শিউরে উঠছিলেন ইউক্রেনের চেরনিহিভের ডোভজিকে গ্রামের বাসিন্দা মাইকোলা। দুই ভাই ইভেয়েন, দিমিত্রো এবং বোন ইরিনাকে নিয়ে থাকতেন মাইকোলা। ১৮ মার্চ সব কিছু ওলটপালট হয়ে যায় মাইকোলার জীবনে। ওই দিন ডোভজিক দখল করে নিয়েছিল রুশ সেনারা। তার আগেই রুশ সেনার একটি দলের উপর ইউক্রেনীয় সেনারা বোমা হামলা চালায় ওই গ্রামেই। তার পরই গ্রামবাসীদের ঘরে ঘরে ঢুকে লুটপাট, তাণ্ডব এমনকি অত্যাচার করে খুন করার অভিযোগ ওঠে।

মাইকোলার বাড়িতেও ঢুকেছিল রুশ সেনারা। তাঁদের হাত-পা বেঁধে নিজেদের সঙ্গে নিয়ে যায় রুশ সেনারা। তিন দিন ধরে লোহার রড দিয়ে তিন ভাইকে বেধড়ক মারধর করে তারা। যত ক্ষণ না জ্ঞান হারিয়েছিল, তত ক্ষণ পর্যন্ত পিটিয়ে যাওয়া হয়েছিল তিন জনকেই। তার পরেও রুশ সেনাদের অত্যাচার থামেনি। সেনা পরিবারের হওয়ায় মাইকোলাদের উপর অত্যাচারের মাত্রা আরও বহু গুণ বাড়িয়ে দিয়েছিল রুশ সেনারা। তিন দিন ধরে মারধরের পর চতুর্থ দিন তিন ভাইকে একটি গাড়ির পিছনে বেঁধে হেঁচড়াতে হেঁচড়াতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল একটি ফাঁকা জমিতে। সেখানে আগে থেকেই বড় গর্ত খুঁড়ে রাখা ছিল।

এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে মাইকোলা বলেন, আমাদের সকলের চোখই বাঁধা ছিল। ফলে কী হতে চলেছে কেউই বুঝতে পারছিলাম না। কিছু সময় পরেই বন্দুকের গুলির আওয়াজ পেলাম। আমার পাশেই মেজ ভাই দিমিত্রি ছিল। ধপ করে মাটিতে পড়ে যাওয়ার আওয়াজ পেলাম। তার পরই আবার গুলি। আমার বাঁ পাশে ছিল ছোট ভাই ইভেয়েন। ও মাটিতে পড়ে গেল। তত ক্ষণে আমার আর বোঝার কিছু বাকি ছিল না।

মাইকোলা আরও বলেন, দুই ভাইয়ের পর আমার পালা ছিল। অপেক্ষা করছিলাম কখন গুলি এসে মাথাটা ফুঁড়ে দেয়। গুলি ওরা ছুড়েছিল ঠিকই, কিন্তু সেই গুলি সৌভাগ্যবশত মাথা না ফুঁড়ে, আমার গাল ফুঁড়ে বেরিয়ে গিয়েছিল। মাটিতে পড়ে গিয়েছিলাম। ফিনকি দিয়ে রক্ত বেরোচ্ছিল। সেনারা ভেবেছিল মরে গিয়েছি। তার পর লাথি মেরে আমাদের তিন ভাইকে ওই বড় গর্তের মধ্যে ফেলে দিল। তার পর মাটিচাপা দিয়েছিল। তার পরই ওরা চলে যায়। সবার নীচে ছিল ইভেয়েনের দেহ। তার উপর আমাকে ফেলা হয়। আমার উপর ছিল দিমিত্রির দেহ।

মাইকোলা জানিয়েছেন, ক্রমে দমবন্ধ হয়ে আসছিল। কোনও রকমে দিমিত্রির দেহটাকে আমার উপর থেকে সরিয়েছিলাম। তাঁর কথায়, জানি না, কোথা থেকে বাঁচার এত জোর চলে এসেছিল। নিজেকে ঠেলে তুলেছিলাম গর্ত থেকে। তার পর টলতে টলতে মাঠ ধরে এক মহিলার বাড়িতে পৌঁছেছিলাম। রাতভর ওই বাড়িতে থেকে ভোরে নিজের বাড়িতে পৌঁছেছিলাম। তখন বাড়িতে ইরিনা আমাদের জন্য অপেক্ষা করছিল।

নিউজ ট্যাগ: মাইকোলা

আরও খবর



নর্থ সাউথের চেয়ারম্যানসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রায় ৩০৪ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দেশের শীর্ষ বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান আজিমউদ্দিন ও চার সদস্যসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার (৫ মে) দুদকের সমন্বিত ঢাকা জেলা কার্যালয়-১ এ সংস্থাটির উপ-পরিচালক ফরিদ উদ্দিন পাটোয়ারী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

যে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে তারা হলেন- নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান আজিমউদ্দিন আহমেদ, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য এম.এ. কাশেম, বেনজীর আহমেদ, মিসেস রেহানা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান ও আশালয় হাউজিং অ্যান্ড ডেভেলপার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিন মো. হিলালী।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১০ অনুযায়ী নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ হলেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজ। রুলস এবং রেগুলেশনস অনুযায়ী এই বিশ্ববিদ্যালয় একটি দাতব্য, কল্যাণমুখী, অবাণিজ্যিক ও অলাভজনক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে পাশ কাটিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের কয়েকজন সদস্যের অনুমোদন নিয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস উন্নয়নের নামে ৯ হাজার ৯৬ দশমিক ৮৮ ডেসিমেল জমি ক্রয়ের জন্য ৩শ' তিন কোটি ৮২ লাখ ১৩ হাজার ৪৯৭ টাকা অপরাধজনকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের তহবিল থেকে গ্রহণ করেছে।

এজাহারে আরও বলা হয়েছে, তারা টাকা আত্মসাতের উদ্দেশ্যে কম দামে জমি কেনা সত্ত্বেও বেশি দাম দেখিয়ে প্রথমে বিক্রেতার নামে টাকা প্রদান করে। পরে বিক্রেতার কাছ থেকে নিজেদের লোকের নামে নগদ চেকের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করে আবার নিজেদের নামে এফডিআর করে রাখেন এবং পরে আবার নিজেরা ওই এফডিআরর অর্থ উত্তোলন করে আত্মসাত করেন।

অবৈধভাবে আয়ের অবস্থান গোপন করে অর্থ হস্তান্তর, স্থানান্তর মাধ্যমে মানিলন্ডারিংয়ের অপরাধও সংঘটন করেন তারা। এমন শাস্তিযোগ্য অপরাধ এবং বেআইনি কার্যকলাপের মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিশ্বাসভঙ্গ করেছেন।

সেই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাত করে নিজেরা অন্যায়ভাবে লাভবান হয়েছেন। এই বেআইনি কার্যক্রম করার ক্ষেত্রে প্রতারণা ও জালজালিয়াতির আশ্রয় বা ঘুষের আদান প্রদান করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করায় তাদের বিরুদ্ধে দুদক মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪(২)(৩) ধারায় ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে।


আরও খবর