আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

একসঙ্গে পুলিশের ডিআইজি হলেন স্বামী-স্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার পদে কর্মরত ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা দম্পতি একসঙ্গে পদোন্নতি পেয়ে উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) হয়েছেন।

পদোন্নতি পাওয়া যুগল হলেন- ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অপারেশনস) মো. মনির হোসেন ও তার সহধর্মিনী ডিএমপির পরিবহন বিভাগের যুগ্ম পুলিশ কমিশনার শামীমা বেগম।

বুধবার (১১ মে) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে ৩২ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেওয়া হয়। এদের মধ্যে মনির হোসেন ১৯৯৯ সালে ১৮তম বিসিএসের মাধ্যমে ২৫ জানুয়ারি সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ যোগদান করেন। পেশাগত জীবনে দক্ষতার পরিচয় দিয়ে তিনি ডিএমপির প্রসিকিউশন বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনারসহ গোপালগঞ্জ ও নড়াইল জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া তিনি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অপারেশনস) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আর শামীমা বেগম একই সালে একই বিসিএসের মাধ্যমে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন। তিনিও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন। ডিএমপির ওমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনারসহ সিআইডি এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া তিনি অ্যাডিশনাল ডিআইজি হিসেবে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স ও পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার টাঙ্গাইলে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (পরিবহন) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

নিউজ ট্যাগ: ডিএমপি ডিআইজি

আরও খবর



পটকা মাছ খাওয়ার পর মৃত্যু, অসুস্থ আরও চার জন

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | ৬৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার ঈশ্বরীপুর ইউনিয়নের বংশিপুর গ্রামে পটকা মাছ খেয়ে বিষক্রিয়ায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আরও ৪ জনকে অসুস্থ অবস্থায় সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) রাতে অসুস্থদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নিহত ব্যক্তি উপজেলার বংশিপুর গ্রামের মৃত আনসার আলীর ছেলে মতিউর রহমান (৫২)।

হাসপাতালে ভর্তি থাকা ব্যক্তিরা হলেন, মতিউর রহমানের স্ত্রী মমতাজ বেগম (৪৫), ছেলে সাগর হোসেন (২৫), সাগরের স্ত্রী সিলমি বেগম (২২) ও তাদের ছেলে মাহির হোসেন (৪)।

মতিয়ারের চাচাতো ভাই আব্দুল হান্নান জানান, আজ মঙ্গলবার দুপুরে রান্না করা পটকা মাছ দিয়ে পরিবারের সদস্যরা একত্রে ভাত খায়। বিকেলের দিকে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ার পর সন্ধ্যার দিকে শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা অসুস্থ পাঁচজনকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করলে পথিমধ্যে মতিয়ার রহমানের মৃত্যু হয়।

শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. বিপ্লব কান্তি দে বলেন, ‌বিকেলের দিকে তাদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়। অবস্থার অবনতি হলে মতিউর রহমানকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পথে কুলিয়া এলাকায় তিনি মারা যান। পরিবারের বাকি চারজন সদস্যও আশঙ্কামুক্ত নন। তাদের সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: পটকা মাছ

আরও খবর



২৩ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু নেই

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৬২৫ জনে। শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৪৭ শতাংশ। এ ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে কারো মৃত্যু হয়নি। ফলে মোট মারা যাওয়ার সংখ্যা ২৯ হাজার ১২৭ জন অপরিবর্তিত থাকল।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৩৪ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ লাখ ৯৪ হাজার ৪৫৭ জন।

২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৮৮৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৪ হাজার ৯৩১টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৪৭ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৯৭ শতাংশ।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। গেল বছরের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



ছেঁড়া জুতার দাম দেড় লাখ টাকা, ছেঁড়া নয় ‘ফ্যাশন’ দাবি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

‘ব্যালেনসিয়াগা’ সংস্থার ব্যাগ ও জুতো পরতে দেখা যায় হলিউড ও বলিউডের অনেক তারকাকে। তারাই এ বার বাজারে আনল এমন জুতো যা দেখতে ছেঁড়া জুতোর মতো।

বিলাসবহুল ফ্যাশনের জগতে অত্যন্ত পরিচিত নাম ব্যালেনসিয়াগা। মাঝেমধ্যেই ব্যালেনসিয়াগার ব্যাগ কিংবা জুতো পরতে দেখা যায় হলিউড ও বলিউডের অনেক তারকাকে। এই সংস্থাই এ বার বাজারে আনল এমন এক ধরনের জুতো যা দেখতে পুরোপুরি ছিঁড়ে যাওয়া বাতিল জুতোর মতো। শুধু দেখতে ছেঁড়া বলেই নয়, পাদুকা জোড়ার দাম দেখলেও চক্ষু চরকগাছ হওয়ার উপক্রম। এক জোড়া জুতোর সর্বোচ্চ দাম নাকি দেড় লক্ষ টাকা!

সংস্থার পক্ষ থেকে জুতোটির নাম রাখা হয়েছে ফুললি ডেসট্রয়েড স্নিকার্স’ বা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাওয়া জুতো। ব্যালেনসিয়াগার প্যারিস স্নিকার’ নামক একটি বিশেষ সংগ্রহের অধীনে বাজারে আসছে এই জুতোগুলি। মাত্র ১০০ জোড়া এই ধরনের জুতো তৈরি করছে সংস্থাটি। দাম শুরু হচ্ছে ৩৮ হাজার টাকা থেকে। কিন্তু জুতো যত ছেঁড়া হবে ততই বাড়বে দাম। সর্বোচ্চ দাম ১ লক্ষ ৪৪ হাজার টাকা।

কিন্তু এমন ছেঁড়া জুতো বাজারে আনার কারণ কী? ব্যালেনসিয়াগা কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁরা একটি বিশেষ বার্তা প্রচার করতে চাইছেন জুতোটির মাধ্যমে।

‘স্নিকার্স জাতীয় জুতো সারা জীবন পরার জন্যই তৈরি’— এই বার্তাটিই তাঁরা পৌঁছে দিতে চান গ্রাহকদের কাছে। সাদা, কালো কিংবা লাল রঙের এই জুতো মূলত তৈরি হয়েছে ক্যানভাস কাপড়ে। শুকতলা তৈরি হয়েছে রবার দিয়ে। উপাদানের বৈচিত্র ও বিশেষ রঙের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ময়লার আবিলতা।


আরও খবর



ডিমলায় গরু ও খাসির মাংসে আগুন

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | ৬১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ডিমলা-নীলফামারী, প্রতিনিধি:

মধ্যম আয়ের মানুষও এখন আর গরুর মাংস কেনার সাহস করছে না। অনেক পরিবার শুধু বাড়িতে অতিথি এলে নিরুপায় হয়ে গরুর মাংস কেনার সাহস দেখায়। এ অবস্থা চলতে থাকলে ভবিষ্যতে এই মানুষগুলোর সাধ্যের মধ্যে আর থাকবে না গরুর মাংস।

অথচ দেশে প্রতিবছর বাড়ছে গরু-মহিষ, ছাগল-ভেড়ার উৎপাদন। তার পরও গরুর মাংসের দাম বাড়ছে। মাংস কিনতে নাভিশ্বাস ভোক্তাদের।

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে বেড়েছে গরু ও খাসির মাংসের দাম। কেজি প্রতি গরু ১৫০ ও খাসি ১০০ টাকা বেড়ে গরুর মাংসের দাম হয়েছে ৬৫০ টাকা ও খাসির মাংসের দাম ৮৫০ টাকা। এছাড়াও দেশি মুগরি ৪৫০ টাকা, সোনালী মুরগি ৩০০ টাকা কেজি ও বয়লার মুগরির দাম ১৮০ টাকা কেজি। দিন দিন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়ায় সাধারণ ক্রেতাদের নাভিস্বাস অবস্থা। অন্যদিকে বেড়েছে শাক-সবজি, মাছ, তেল, কাঁচা তরু তরকারীসহ সকল নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম এছাড়া সয়াবিন তেলের দাম এক লাফে ৩৮ টাকা বেড়ে ২১০টাকায় গিয়ে ঠেকেছে।

সোমবার (০৯ ই মে) ডিমলা উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে দেখা যায় এসব চিত্র। গরুর মাংস ৬৫০ টাকা কেজি ও খাসির মাংস ৮৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও খোলা সোয়াবিন তেল ১৯৫ টাকা ও বোতলের এক লিটার তেল বর্তমানে ২১০ টাকা এবং মশুর ডাল ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি দিনই নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়ার করনে সাধারণ ক্রেতারা পড়েছে বিপাকে। বাড়ছে ক্রেতাদের মধ্যে ক্ষোভ।

ডিমলা উপজেলার বিভিন্ন সবজি বাজার ঘুরে জানা যায়, লাউ ৪০-৪৫ টাকা পিস, বেগুন ৪০-৪৫ টাকা কেজি, কাঁচা মরিচ ২৫-৩০ টাকা কেজি, করলা কেজি ৪০-৪৫ টাকা, পেঁয়াজ ৩৫-৪০ টাকা ও শসা ৩০-৩৫ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

মাংস ও মাছ বাজারে ঘুরে দেখা যায়,  গরুর মাংস ৬৫০ টাকা কেজি ও খাসির মাংস ৮৫০টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। ছোট ইলিশ ৪৫০-৭৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে, রুই মাছ ২৪০-২৬০ টাকা কেজি, মিরকা মাছ ১৭০ টাকা কেজি, টেংরা মাছ ৫০০-৬০০ টাকা কেজি, তেলাপিয়া ১৫০ টাকা, জাপানী রুই মাছ ১৮০-২০০ টাকা, বাচা মাছ ১৫০ টাকা, পাংগাস মাছ ১৪০-১৫০টাকা কেজি, সিলভার কাপ ১২০-১৪০ টাকা, লাল ডিম হালিতে ৪ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩৬ টাকা হালি, সাদা ডিম ৪ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩২ টাকা হালি দরে বিক্রি হচ্ছে।

গয়াবাড়ী ইউনিয়নের শুটিবাড়ী বাজারের মাংস বিক্রেতা মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, হাটে প্রতিটি গরুর দাম ১০-১৫ হাজার টাকা বেশি দরে কিনতে হচ্ছে তাই মাংসের দাম একটু চড়া।


আরও খবর



৪০ বছরের মধ্যে ব্রিটেনে সর্বোচ্চ মুদ্রাস্ফীতি, ছাড়াল ৯ শতাংশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ২২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুক্তরাজ্যে মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে। গত এপ্রিল মাসে দেশটিতে বার্ষিক ভোক্তা মূল্যস্ফীতি পৌঁছেছে ৯ শতাংশে। ১৯৮২ সালের পর থেকে এই হার সর্বোচ্চ। একইসঙ্গে আশির দশকের শেষের দিকে ব্রিটেনে সরকারি ভাবে মূল্যস্ফীতির হিসাব রাখা শুরু হওয়ার পর থেকেও এই হার সর্বোচ্চ। বুধবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অর্থনীতিবিদদের মধ্যে পরিচালিত রয়টার্সের একটি জরিপে ব্রিটেনের বর্তমান মুদ্রাস্ফীতি ৯ দশমিক ১ শতাংশ বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

এদিকে যুক্তরাজ্যের জাতীয় পরিসংখ্যান দপ্তর জানিয়েছে, বুধবার ভোক্তা মূল্যস্ফীতি সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছানোর আগে সর্বশেষ সম্ভবত ১৯৮২ সালের কাছাকাছি সময়ে সবচেয়ে বেশি ছিল। বিদ্যমান এই পরিস্থিতিতে ব্রিটিশ পরিবারগুলোকে আরও সাহায্য দেওয়ার বিষয়ে চাপের মধ্যে রয়েছেন যুক্তরাজ্যের অর্থমন্ত্রী রিশি সুনাক। তিনি বলছেন, বিশ্বজুড়ে দেশগুলো উচ্চ মুদ্রাস্ফীতির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এবং গত এপ্রিল মাসে ব্রিটেনে মুদ্রাস্ফীতির এই উল্লম্ফনে গত মাসের জ্বালানি শুল্কের বৃদ্ধিকে প্রতিফলিত করছে। আমরা এই বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জগুলো থেকে মানুষকে সম্পূর্ণরূপে রক্ষা করতে পারছি না। তবে যেখানে সম্ভব সেখানে আমরা উল্লেখযোগ্য সহায়তা প্রদান করছি। এছাড়া আরও পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত আছি আমরা।

এর আগে চলতি মাসের শুরুতে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড জানিয়েছিল, চলতি বছরের শেষের দিকে মুদ্রাস্ফীতি ১০ শতাংশ ছাড়িয়ে যেতে পারে। অবশ্য কেবল যুক্তরাজ্যই নয়, গোটা বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক সংকট ক্রমশ স্পষ্ট হচ্ছে। গত একমাস ধরে কার্যত ধুঁকছে শ্রীলঙ্কা। হাঙ্গেরি জ্বালানি এবং খাবারের দাম ফ্রিজ করে দিয়েছে। জাপানে ভয়াবহ মুদ্রাস্ফীতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) জানিয়েছে, ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে আফ্রিকায় খাদ্য সংকট শুরু হয়েছে, যা সামাজিক লড়াইয়ে রূপ নিতে পারে। সব মিলিয়ে গোটা বিশ্বজুড়েই এক অস্বস্তিকর অবস্থা তৈরি হয়েছে। মূলত ইউক্রেন যুদ্ধ সেই অবস্থায় আরও ইন্ধন দিচ্ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এর আগে গত মার্চ মাসে আরেক ইউরোপীয় দেশ জার্মানির মুদ্রাস্ফীতি সাত দশমিক তিন শতাংশে পৌঁছায়। এরপর এপ্রিল মাসে তা আরও বৃদ্ধি পায়। ১৯৮১ সালে পশ্চিম জার্মানি শেষ এমন দ্রুত মুদ্রাস্ফীতি দেখেছিল। অর্থাৎ এই মুদ্রাস্ফীতি গত চার দশকে ঘটেনি।

মূলত তেল ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণেই এই হারে মুদ্রাস্ফীতি হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ ইউরোপের অনেক দেশ তেল ও গ্যাসের ক্ষেত্রে রাশিয়ার ওপর প্রবলভাবে নির্ভরশীল। ফলে ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরেই সেসব দেশের জ্বালানিখাতে ব্যয় বাড়তে থাকে। আর তারই প্রতিফলন ঘটছে সার্বিক অর্থনীতিতে।

নিউজ ট্যাগ: মুদ্রাস্ফীতি

আরও খবর