আজঃ শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

গবেষণায় সফল বিএফআরআই: আবার পানিতে ঢেউ তুলবে কাকিলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | ৫৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীরা জানান, কাকিলা বা কাখলে একটি বিলুপ্তপ্রায় মাছ। এর দেহ সরু, ঠোঁট লম্বাটে এবং ধারালো দাঁতযুক্ত। বাংলাদেশে যে জাতটি পাওয়া যায় সেটি মিঠা পানির। মাছটি বাংলাদেশের অধিকাংশ অঞ্চলে

স্বাদুপানির অন্যতম মাছ কাকিলা। খেতে সুস্বাদু এ মাছটির দোপেঁয়াজা ভোজনরসিকদের কাছে অমৃতসম। মানবদেহের জন্য উপকারী অণুপুষ্টি উপাদানসমৃদ্ধ এবং কাঁটা কম থাকায় সবার কাছে প্রিয়। একসময় মুক্ত জলাশয়ে বিশেষ করে নদী-নালা, হাওর-বাঁওড়, খাল-বিলে প্রচুর পাওয়া গেলেও এখন বিলুপ্তপ্রায় কাকিলা। অঞ্চলভেদে কিছু কিছু এলাকায় পাওয়া গেলেও পরিমাণে খুবই কম। জলবায়ুর প্রভাব, প্রাকৃতিক বিপর্যয়সহ প্রজনন ক্ষেত্র ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এ মাছ আর পানিতে বিচরণ করতে দেখা যায় না।

আশার কথা, বদ্ধপরিবেশে অভ্যস্তকরণ ও কৃত্রিম প্রজনন কলাকৌশল উদ্ভাবনে সাফল্য পেয়েছেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই) স্বাদুপানি উপকেন্দ্র, যশোরের বিজ্ঞানীরা। ইনস্টিটিউটের কোর গবেষণা কার্যক্রমের আওতায় তিন বছর নিবিড় গবেষণার পর এ সাফল্য পান মাৎস্যবিজ্ঞানীরা। ফলে আবার পানিতে ঢেউ তুলবে কাকিলা, রক্ষা পাবে বিলুপ্তির হাত থেকে।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই) স্বাদুপানি উপকেন্দ্র, যশোরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. রবিউল আউয়াল হোসেন, ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম এবং বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শিশির কুমার দে ওই গবেষণা করেন।

এ প্রসঙ্গে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে অভ্যন্তরীণ উন্মুক্ত জলাশয় সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় দেশি মাছের প্রজনন ও বিচরণ ক্ষেত্র ইতিমধ্যে অনেক বিনষ্ট হয়ে গেছে। ফলে প্রাকৃতিক জলাধার যেমন হাওর-বাঁওড়, খাল-বিল ও নদ-নদীতে এসব মাছের প্রাপ্যতা হ্রাস পেয়েছে। মৎস্য অধিদফতর অভয়াশ্রম প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এসব দেশি মাছ সংরক্ষণ ও উন্নয়নে কাজ করছে। তিনি বলেন, আমরা হারিয়ে যাওয়া দেশি মাছের স্বাদ মানুষের খাদ্যের সঙ্গে যুক্ত করতে চাই। এজন্য দেশি বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির মাছ পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণে বর্তমানে ইনস্টিটিউটের যশোর, সৈয়দপুর ও ময়মনসিংহ গবেষণা কেন্দ্র থেকে গবেষণা করা হচ্ছে। এতে সাফল্যও আসছে।

সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীরা জানান, কাকিলা বা কাখলে একটি বিলুপ্তপ্রায় মাছ। এর দেহ সরু, ঠোঁট লম্বাটে এবং ধারালো দাঁতযুক্ত। বাংলাদেশে যে জাতটি পাওয়া যায় সেটি মিঠা পানির। মাছটি বাংলাদেশের অধিকাংশ অঞ্চলে কাইকল্যা, কাইক্কা নামেই পরিচিত। বৈজ্ঞানিক নাম Xenentodon cancila. মাছটিকে ইংরেজিতে  Freshwater garfish. বলে। এটি ইবষড়হরফধব পরিবারের অন্তর্গত। বাংলাদেশ ছাড়াও শ্রীলঙ্কা, ভারত, পাকিস্তান, মিয়ানমার, মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ডে এ মাছ পাওয়া যায়। তবে রং ও আকারে কিছু পার্থক্য থাকে।

গবেষক দলের প্রধান ও প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. রবিউল আউয়াল হোসেন বলেন, কাকিলার দেহ লম্বা, সামান্য চাপা এবং প্রায় সিলিন্ডার আকৃতির। এগুলো লম্বায় ২৫ থেকে ৩০ সেন্টিমিটার হয়। পরিণত পুরুষ মাছের মাথার শীর্ষে লাল চূড়া দেখা যায়, যা থেকে সহজেই স্ত্রী ও পুরুষ মাছ আলাদা করা যায়। এ ছাড়া পুরুষ মাছের দেহ স্ত্রী মাছের তুলনায় সরু এবং আকারে একটু ছোট হয়। এটি শিকারি মাছ। মূলত ছোট মাছ খেয়ে থাকে। প্রাকৃতিকভাবে প্রবহমান জলাশয়ে বিশেষ করে নদীতে এবং বর্ষাকালে প্লাবিত অঞ্চলে প্রজনন করে থাকে। পরিণত মাছেরা ভাসমান জলজ উদ্ভিদ নেই এমন স্থানে বসবাস করলেও জলজ উদ্ভিদের পাতার নিচে ও ভাসমান শিকড়ে এদের স্ত্রীরা ডিম পাড়ে। কাকিলা মাছের কৃত্রিম প্রজনন এটিই বাংলাদেশে প্রথম এবং বিশ্বের কোথাও এ মাছের কৃত্রিম প্রজননের কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, রাজবাড়ী জেলাসংলগ্ন কুষ্টিয়ার পদ্মা নদী থেকে কাকিলা ব্রুড (মা-বাবা মাছ) সংগ্রহ করে যশোরের স্বাদুপানি উপকেন্দ্রের পুকুরে ছাড়া হয়। পরে হ্যাচারিতে উৎপাদিত কার্পজাতীয় মাছের জীবিত পোনা এবং নানা জলাশয় থেকে সংগৃহীত জীবিত ছোট মাছ খাইয়ে পুকুরের আবদ্ধ পরিবেশে মাছকে অভ্যস্ত করা হয়। এরপর চলতি বছরের মে থেকে বৈজ্ঞানিক প্রটোকল অনুসরণ করে কৃত্রিম প্রজননের উদ্দেশ্যে উপকেন্দ্রের হ্যাচারিতে নির্দিষ্টসংখ্যক মা-বাবা মাছকে বিভিন্ন ডোজে হরমোন ইনজেকশন দেওয়া হয়।

এভাবে কয়েকবার বিভিন্ন ডোজের ট্রায়াল দেওয়া হলেও মাছের প্রজননে সাফল্য আসেনি। অবশেষে ২৫ আগস্ট প্রজননকৃত মাছের ডিম থেকে পোনা বের হয় এবং কাকিলা মাছের কৃত্রিম প্রজননে সাফল্য আসে।

প্রধান গবেষক জানান, কাকিলা মাছের প্রজননের জন্য পিজি হরমোন ব্যবহার করা হয়। ১৮ আগস্ট পুকুর থেকে মাছ ধরে চার জোড়া মা-বাবা নির্বাচন করে হ্যাচারির চৌবাচ্চায় নির্দিষ্ট সময় ঝরনাধারা দিয়ে একটা নির্দিষ্ট মাত্রায় হরমোন ইনজেকশন দেওয়া হয়। পরে মা-বাবা মাছকে একত্রে একটি চৌবাচ্চায় রেখে ঝরনাধারা দিয়ে সেখানে কচুরিপানা রাখা হয়। প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর মা মাছ ডিম ছাড়ে। ডিমের ভিতরে বাচ্চার বিভিন্ন দশা ও উন্নয়ন অণুবীক্ষণ যন্ত্র দিয়ে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হয়। ডিম ছাড়ার ৯০ থেকে ১০০ ঘণ্টার মধ্যে নিষিক্ত ডিম থেকে বাচ্চা বের হয়।

গবেষকরা জানান, প্রতি ১০০ গ্রাম খাবার-উপযোগী কাকিলা মাছে ১৭.১ শতাংশ প্রোটিন, লিপিড ২.২৩ শতাংশ, ফসফরাস ২.১৪ শতাংশ এবং ০.৯৪ শতাংশ ক্যালসিয়াম রয়েছে যা অন্যান্য ছোট মাছের তুলনায় অনেক বেশি। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ বলেন, দেশের বিলুপ্তপ্রায় ৬৪টি মাছের মধ্যে ৩০টির কৃত্রিম প্রজননে ইতিমধ্যে মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট সাফল্য পেয়েছে। সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ৩১তম মাছ হিসেবে কাকিলা যুক্ত হলো।’


আরও খবর
ইভ্যালির সিইও রাসেলের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১




বিশ্বে করোনায় প্রাণহানি ৪৫ লাখ ৮৮ হাজার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বাস্থ্যবিধি মানা ও টিকাদানের হার বাড়ানোর ফলে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বস্তির আভাস দিচ্ছে। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস শনাক্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই কমেছে। বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত ৪৫ লাখ ৮৮ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গত একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৬০৬ জনের। একই সময়ে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৯৯ হাজার মানুষ।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২২ কোটি ১৯ লাখ ৫৩ হাজার ৬৫৮ জনের। মৃত্যু হয়েছে ৪৫ লাখ ৮৮ হাজার ২১৩ জনের।করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ১৯ কোটি ৮৫ লাখের বেশি মানুষ। এখন করোনা রোগী রয়েছেন প্রায় এক কোটি ৮৮ লাখ। এদের মধ্যে ১ লাখ ৫ হাজারের বেশি রোগীর অবস্থা গুরুতর।

করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ কোটি ৮ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি মানুষের। এছাড়া মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৬৬ হাজার ৫৫৯ জনের।

করোনায় হতাহতের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৩০ লাখ ৫৭ হাজারের বেশি মানুষের। এই মারণ ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৪১ হাজার ৭৫ জনের। তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্রাজিল। দেশটিতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ কোটি ৮ লাখ ৯৯ হাজারের বেশি মানুষের। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৮৩ হাজার ৮৬৬ জনের।

তালিকায় ২৭ নম্বরে থাকা বাংলাদেশে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ১৭ হাজার ১৬৬ জনের এবং মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার ৬২৮ জনের। এখন করোনা রোগী রয়েছেন ৩৫ হাজার ৩৫১ জন। এদের মধ্যে ১৫২৪ জনের অবস্থা গুরুতর।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জোরকদমে চলছে টিকাদান। এরই মধ্যে বেশিরভাগ দেশ তাদের প্রাপ্তবয়স্ক জনসংখ্যার বেশিরভাগকে টিকা দিয়ে ফেলেছে। টিকা দেয়ার হার বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে শিথিল করা হয়েছে করোনা বিধিনিষেধ। এরই মধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ওঠানো শুরু করেছে দেশগুলো। বাংলাদেশ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।



আরও খবর



জনবল নেবে পাবনা পরিবার-পরিকল্পনা কার্যালয়

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ আগস্ট ২০২১ | ৮৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শূন্যপদে জনবল নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে পাবনা জেলা পরিবার-পরিকল্পনা কার্যালয়।  রাজস্ব খাতের চার পদে ৯৮ জনবল নেবে প্রতিষ্ঠানটি।  তবে এসব পদে শুধু পাবনা জেলার স্থায়ী বাসিন্দারা আবেদন করতে পারবেন।  আগামী ৬ সেপ্টেম্বর থেকে আবেদন করা যাবে অনলাইনে।

পদের নাম : পরিবার-পরিকল্পনা সহকারী (গ্রেড-১৫)

পদ সংখ্যা: ৩ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৭০০/- থেকে ২৩৪৯০/-

পদের নাম : পরিবার-পরিকল্পনা পরিদর্শক (গ্রেড-১৬)

পদ সংখ্যা: ৮ জন (পুরুষ)

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: পরিবারকল্যাণ সহকারী (গ্রেড ১৭)

পদ সংখ্যা: ৮৬ জন (নারী)

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯০০০/- থেকে ২১৮০০/-

পদের নাম: আয়া (গ্রেড ২০)

পদ সংখ্যা: ১ জন (নারী)

আবেদনের যোগ্যতা: ৮ম শ্রেণি বা সমমান পাস।

বেতন: ৮২৫০/- থেকে ২০০১০/-

বয়স: আগ্রহী প্রার্থীর বয়স ২০২০ সালের ২৫ মার্চ হিসাবে ১৮-৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে; প্রতিবন্ধী ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে বয়স সর্বোচ্চ ৩২ বছর।

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহী প্রার্থীরা http://dgfppab.teletalk.com.bd -এ ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: আগ্রহীরা ২০২১ সালের ৫ অক্টোবর বিকাল ৫টা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।


আরও খবর
সারা দেশে নিয়োগ দেবে ইবনে সিনা

শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

পুলিশে কনস্টেবল পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

শুক্রবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১




অভিনয়ের চেয়ে ভিন্ন ধরনের কাজে বেশি ব্যস্ত অপু বিশ্বাস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দীর্ঘ বিরতির পর কাজে ফিরেছেন ঢালিউডের শীর্ষ নায়িকা অপু বিশ্বাস। করোনাভাইরাসের কারণেই তিনি অভিনয়ে বিরতি নিয়েছিলেন। বিরতি ভেঙেছেন বন্ধন বিশ্বাসের পরিচালনায় ছায়াবৃক্ষ নামের একটি সিনেমা দিয়ে।

এদিকে প্রেম-প্রীতির বন্ধন নামে আরেকটি ছবিতেও শুটিং করছেন এই চিত্রনায়িকা। সেটিরও ৭০ ভাগ কাজ শেষ করেছেন অপু বিশ্বাস। এছাড়া ঈষা খাঁ নামের নতুন একটি ছবির কাজও হাতে আছে তার।

সম্প্রতি ছবিতে অভিনয়ের চেয়ে অন্য ধরনের কাজে বেশি ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে অপু বিশ্বাসকে। বলা যায় বিকল্প মাধ্যমেই সরব রয়েছেন এই অভিনেত্রী। সম্প্রতি একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে আছেন তিনি।

এছাড়াও সরব রয়েছেন ফ্যাশন শো, ব্রাইডাল শো, র্যাম্প-মডেলিং শোয়ের লাল গালিচায়। গত রবিবার এরকম একটি ব্রাইডাল ফ্যাশন শোতে বিশেষ অতিথি হিসেবে লালগালিচায় পা রেখেছেন তিনি। পুরস্কার ও সনদ তুলে দিয়েছেন অংশগ্রহণকারীদের হাতে। অংশগ্রহণকারীরাও একজন স্বনামধন্য চলচ্চিত্র অভিনেত্রীকে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন।

এ প্রসঙ্গে অপু বিশ্বাস বলেন, ভক্ত-অনুসারী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে খুব কাছ থেকে মিশতে ইচ্ছে করে। সবাই জানেন আমি একজন অভিনেত্রী। সিনেমা এবং গণমাধ্যমের সুবাদে গ্রাম-বাংলার মানুষ আমাকে খুব কাছ থেকে চেনেন, জানেন, জানার চেষ্টা করেন। আমিও তাদের কাছাকাছি থাকতে চাই। এজন্য একটু কষ্ট হলেও শুটিং ও ইভেন্টগুলো সমন্বয় করেই চলি।

নিউজ ট্যাগ: অপু বিশ্বাস

আরও খবর
আক্রমণাত্মক মন্তব্যের শিকার নুসরাত

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

হাইকোর্টে জামিন পেলেন মডেল মৌ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | ৮৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পশ্চিমা সৈন্য-নাগরিক ও আফগান সহযোগীদের সরিয়ে নেওয়ার ব্যাপক তোড়জোড়ের মধ্যে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বাইরে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বৃহস্পতিবার এক টুইট বার্তায় বিস্ফোরণের এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

টুইটে তিনি বলেছেন, কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে এক বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে বলে আমরা নিশ্চিত করছি। তবে এখনো হতাহতের বিষয়ে জানতে পারিনি। আমরা জানতে পারলেই বিস্তারিত তথ্য জানানো হবে।

রয়টার্সকে যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এক আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী এই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, কাবুলের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিস্ফোরণের বিষয়টি এরই মধ্যে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে জানানো হয়েছে।

তবে বিমানবন্দরে বিস্ফোরণের এই ঘটনায় কোনও হতাহত হয়েছে কিনা তা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বিবিসিকে বলেছে, আমাদের কাছে ব্রিটেনের সামরিক বাহিনীর হতাহতের কোনও রেকর্ড নেই। এ বিষয়ে এখনই নিশ্চিত করা যাচ্ছে না।

ভয়াবহ এই বিস্ফোরণের কয়েক ঘণ্টা আগে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা কয়েকটি দেশ আফগানিস্তানে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) অনুসারী ইসলামিক স্টেট খোরাসান (আইএসআইএস-কে) আত্মঘাতী হামলা চালাতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে।

আইএসআইএস-কের হামলার আশঙ্কায় বৃহস্পতিবার কাবুল বিমানবন্দর থেকে নাগরিকদের দূরে থাকার আহ্বান জানায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং অস্ট্রেলিয়া।


আরও খবর



রাজশাহী হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আরও ৫ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে পর পর দুদিন ১০ জন করে মৃত্যু হলেও আজ মারা গেছেন পাঁচজন। তাদের মধ্যে পজিটিভ শনাক্ত একজন এবং উপসর্গ নিয়ে মারা যান চারজন। এদের মধ্যে তিনজন পুরুষ ও দুজন নারী।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ইউনিটে এই পাঁচজনের মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী।

তিনি জানান, মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর দুজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুজন ও নওগাঁর একজন। যাদের মধ্যে তিনজনের বয়স ৬০ বছরের উপরে। বাকি দুজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে।

শামীম ইয়াজদানী আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে নতুন রোগি ভর্তি হয়েছেন ২২ জন। একই সময় সুস্থ্য হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৬ জন। মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত করোনা ইউনিটে রোগী ভর্তি আছেন ১৪০ জন। যাদের মধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ১১ জন।

করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রোগিদের মধ্যে ৫০ জন করোনায় পজেটিভ শনাক্ত। উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৫৮ জন; যাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া করোনা নেগেটিভ হয়েও পরবর্তী স্বাস্থ্য জটিলতায় চিকিৎসাধীন ৩২ জন।

রামেক পরিচালক জানান, সোমবার দুটি ল্যাবে রাজশাহী জেলার ২৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ৩৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আগের দিনের চেয়ে ১ দশমিক ৭০ শতাংশ কমে সংক্রমণের হার দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ। যা আগের দিন রবিবার ছিল ১৪ দশমিক ৯৫ শতাংশ। এর আগে গত শনিবার শনাক্তের হার ছিল ৯ দশমিক ৪৫ শতাংশ।



আরও খবর