আজঃ শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

ঘুষের টাকা ফেরত নিতে গিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৯৯২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অনার্স-মাস্টার্স পাস করে চাকরির সন্ধানে ছিলেন উম্মে সাদিয়া (ছদ্মনাম)। এর মাঝেই ফেসবুকে পরিচয় হয় বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (বাপাউবো) তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) মো. আনিসুর রহমানের সঙ্গে একপর্যায়ে তাদের মধ্যে গড়ে ওঠে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। সেই সম্পর্ককে বেশ ভালোভাবেই কাজে লাগিয়েছেন ওই প্রকৌশলী।

চাকরি দেওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে বছর পঁচিশের ওই তরুণীর কাছ থেকে হাতিয়ে নেন ১০ লাখ টাকা। দীর্ঘ দিনেও চাকরি দিতে না পারায় টাকা ফেরত চাইতে আনিসুরের তেজকুনীপাড়ার ১০৫/২ নম্বর বাসায় যান ওই তরুণী। আপ্যায়নের আড়ালে কোকের সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়ান চেতনানাশক। অচেতন হতেই কেড়ে নেন তার সম্ভ্রম। শুধু তাই নয়, ধর্ষণের চিত্র গোপনে ভিডিও ধারণ করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ওই চাকরিপ্রার্থীকে বছরজুড়েই ভোগ করেন আনিসুর রহমান।

এসব অভিযোগ এনে গত বছরের ২৯ অক্টোবর প্রকৌশলী আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর হাকিমের আদালতে (১৪ নম্বর কোর্ট) পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দেন সাদিয়া। ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ দিদার হোসাইনের নির্দেশে সেই মামলার তদন্ত শেষে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে গত ৩০ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দেন ধানমন্ডি থানার এসআই মধুসুদন মজুমদার। চার্জশিট আমলে নিয়ে গত ২৫ আগস্ট আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা (ওয়ারেন্ট) জারি করেন আদালত। কিন্তু রহস্যজনক কারণে ধরা পড়ছেন না প্রকৌশলী আনিসুর।

এদিকে ভুক্তভোগী তরুণী প্রকৌশলী আনিসুরের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বাপাউবোর মহাপরিচালকের দপ্তরেও লিখিত অভিযোগ দেন। ঘুষ-সম্ভ্রম হারানোর বিস্তারিত ঘটনা লিখে জানান সাদিয়া। কিন্তু আনিসুর রহমানের টিকিটিও ছুঁতে পারেনি বাপাউবো কর্তৃপক্ষ। উল্টো মামলা তুলে না নিলে বিশেষ একটি গোয়েন্দা সংস্থাকে দিয়ে ভুক্তভোগী তরুণীকে তুলে নেওয়ার হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন ওই প্রকৌশলী। হুমকিতে এখন ঘর ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বাদী। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক ফজলুর রশিদ আমাদের সময়কে বলেন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিষয়ে আমি অবগত নই। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আনিসুর রহমানের ক্ষমতার কাছে পুলিশও জানি অসহায়! গ্রেপ্তারি পরোয়ানা নিয়েও অভিযুক্ত ঘুরে বেড়াচ্ছেন প্রকাশ্যে। অফিসে গিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন দিব্যি। যদিও পুলিশের দাবি, ওয়ারেন্টভুক্ত ওই আসামিকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ভুক্তভোগীর স্বজনরা অবশ্য জানিয়েছেন, টাঙ্গাইলের দেওলা এলাকায় গ্রামের বাড়িতে গত শুক্রবার আনিসুরের অবস্থান নিশ্চিত করলেও সাড়া দেননি ওয়ারেন্ট তামিলকারী কর্মকর্তা টাঙ্গাইল সদর থানার এসআই। আসামির অবস্থান শনাক্তের পরও ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তার না করার বিষয়ে জানতে চাইলে টাঙ্গাইল সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শামীম হোসেন বলেন, এই ওয়ারেন্টের বিষয়ে আমি অবগত নই। এসআই আমিনুলের অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। সেই সঙ্গে দ্রুত সময়ের মধ্যে ওয়ারেন্ট তামিল করে আদালতের নির্দেশ পালন করা হবে।

অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন দাবি করেছেন প্রকৌশলী আনিসুর রহমান। গতকাল সোমবার দুপুরে তিনি আমাদের সময়কে বলেন, চাকরির কথা বলে ওই তরুণীর কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়া এবং ধর্ষণের যে অভিযোগ তিনি তুলেছেন, তা অসত্য। অনৈতিক সুবিধা নেওয়া এবং আমার সামাজিক মর্যাদা ক্ষুণের উদ্দেশ্য চক্রটি নানা অভিযোগ তুলছে। আদালতে দাখিল করা ধর্ষণের ভিডিওর বিষয়ে তিনি বলেন, এই আধুনিক প্রযুক্তির যুগে সব কিছুই সম্ভব। যদি আদালতে এমন কিছু মেয়েটি দিয়ে থাকে তা অবশ্যই এডিট করা ও সাজানো। মামলা উঠিয়ে না নিলে তরুণীকে তুলে নেওয়ার হুমকির অভিযোগ প্রসঙ্গে প্রকৌশলী আনিসুর রহমান বলেন, এটি কোনো কথা হলো, তাকে উঠায় আনতে হবে কেন? আমি যদি চাই ও-তো সুড় সুড় করে চলে আসবে! মামলায় চার্জশিটের বিষয়ে আমি জানি না। অফিসের কাজে ব্যস্ততার দোহাই দিয়ে এর বেশি কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন এই প্রকৌশলী।

এদিকে প্রকৌশলী আনিসুর রহমান তার বিরুদ্দে আনা অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করলেও তদন্ত কর্মকর্তা চার্জশিটে উল্লেখ করেন- আনুষঙ্গিক কার্যাক্রমের পাশাপাশি জব্দকৃত আলামত (বাদী-আসামির তিনটি ঘনিষ্ঠ ছবি, তাদের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ধারণকৃত ভিডিও) পরীক্ষা করানো হয়। এ বিষয়ে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) এসআই ও আলোকচিত্র বিশারদ রিপন হালদার মতামত দেন, ভিকটিমের নমুনা ছবির সঙ্গে অশ্লীল স্থিরচিত্র থাকা নারীর ছবি ও ভিডিওতে সংরক্ষিত ভিডিওচিত্রে থাকা নারীর ছবির মিল রয়েছে এবং তা এডিট করা হয়নি।

তদন্তে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে এসআই মধুসুদন মজুমদার চার্জশিটে আরও উল্লেখ করেন, বাদীর সঙ্গে মামলার এজাহারভুক্ত পলাতক আসামি আনিসুর রহমানের ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয়। পানি উন্নয়ন বোর্ডের একজন বড় প্রকৌশলী পরিচয় দিয়ে তিনি বাদীকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দেন। সেই সঙ্গে বাদীর কাছ থেকে বায়োডাটা এবং বিভিন্ন সময়ে ১০ লাখ টাকা নেন। কিন্তু চাকরি না দিয়ে তিনি বাদীকে ঘুরাতে থাকেন। একদিন টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে আসামি তার তেজকুনীপাড়ার বাসায় তরুণীকে নিয়ে যান। কিন্তু বাসায় কেউ না থাকায় সন্দেহ হলে বাদী চলে আসতে চান। এ সময় আসামি আনিসুর রহমান জোর করে তাকে কোক খাওয়ান। তার সঙ্গে ছিল চেতনানাশক। ফলে বাদী নিস্তেজ হয়ে পড়লে আসামি তাকে ধর্ষণ করেন। জ্ঞান ফিরলে বাদী নিজেকে আসামির বিছানায় বিবস্ত্র অবস্থায় দেখেন। কোনো মতে সেখান থেকে বাসায় চলে আসেন ওই তরুণী। পরবর্তী সময় শারীরিক মেলামেশার জন্য আসামি ফের তার বাসায় যেতে বললে বাদী রাজি হননি। এ সময় তিনি হুমকি দেন যে, ধর্ষণের সেই দৃশ্য ভিডিও ধারণ করা আছে। আমার কথামতো না চললে সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়া হবে। অগত্যা পারিবারিক ও সামাজিক অবস্থান বিবেচনায় আসামির কথায় সায় দিতে বাধ্য হন তরুণী। তদন্তকালে প্রাপ্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ ও আলামত পরীক্ষার রিপোর্ট পর্যালোচনা এবং ঘটনার পারিপার্শ্বিকতায় বাদীর অভিযোগ ২০১২ সালের পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনের ৮ (১)/৮ (২) ধারার প্রমাণিত হয়। কিন্তু ব্যাপক চেষ্টার পরও আনিসুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

নিউজ ট্যাগ: ধর্ষণ বাপাউবো

আরও খবর



২০০ টাকা ছিঁড়ে ফেলায় বাবাকে খুন

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের কামারছড়া চা বাগানে সিএনজিচালক ছেলের লাঠির আঘাতে বাবার মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ ঘটনার পর থেকে ছেলে পলাতক রয়েছে।

জানা গেছে, চা বাগানে সাপ্তাহিক ৯০০ টাকা মজুরি নিয়ে চা শ্রমিক শনিছড়ি রবিদাস (৩৮) বাড়ি ফিরছিলেন। পথে তা মাতাল স্বামী শ্যামলাল রবিদাস (৪৫) তার কাছে কিছু টাকা দাবি করেন।

এ সময় শ্যামলাল রবিদাসকে ২০০ টাকা দিলে তিনি আরও টাকা দাবি করেন। টাকা না দেওয়ার কারণে সেই ২০০ টাকা শ্যামলাল ছিঁড়ে ফেলেন।

এ নিয়ে শ্যামলাল ও তার ছেলে নন্দলালের সঙ্গে তর্ক হয়। একপর্যায়ে নন্দলাল লাঠি দিয়ে তার বাবাকে মাথায় আঘাত করেন। পরে তাকে শমসেরনগর চা বাগানের কেমিলিয়া দানকান ফাউন্ডেশন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পর নন্দলাল রবিদাস পালিয়ে যান।

কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: বাবাকে খুন

আরও খবর



কোপার মতোই ব্রাজিলের বিপক্ষে খেলতে চায় আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে দারুণ এক জয় তুলে নিয়েছে আর্জেন্টিনা ফুটবল দল। কোপা আমেরিকা জয়ের পর এই প্রথম মাঠে নামে তারা। ৩-১ গোলের জয়ে নতুন দিনের শুরুটা ভালোভাবেই করেছে আর্জেন্টিনা। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর আর্জেন্টিনার সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ ব্রাজিল।

কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সাত ম্যাচের সবগুলোই জিতেছে তারা। তবে তাদের বিপক্ষে কোপা আমেরিকার ফাইনালের মতোই খেলবেন বলে জানিয়েছেন আর্জেন্টাইন ফুটবলার লাউতারো মার্টিনেজ। ওই ম্যাচে ১-০ গোলের জয় তুলে নিয়ে ২৮ বছর পর কোনো আন্তর্জাতিক শিরোপা ঘরে তুলে আলবিসেলেস্তেরা।

ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে তিন গোলের একটি করা লাউতারো মার্টিনেজ ব্রাজিল ম্যাচ নিয়ে বলেছেন, ব্রাজিলের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ আছে আমাদের। তাদের সঙ্গে ম্যাচটা আলাদা। আমরা চেষ্টা করবো কোপা আমেরিকার ফাইনালে যেমন খেলেছি, তেমন করে খেলতে।

ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ৩ পয়েন্ট নিয়ে কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের জায়গা করার পথে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেছে আর্জেন্টিনা। এই জয়ের পরও দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানেই আছে তারা। ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ম্যাচটি মার্টিনেজের কাছে ছিল ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।


আরও খবর
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

মেসিকে পেছনে ফেললেন সিআর সেভেন

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




পিএসজির জার্সি গায়ে ম্যাচ হারলেন মেসি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পিএসজির জার্সি গায়ে প্রথমবারের মতো শুরুর একাদশে নেমেছিলেন লিওনেল মেসি, চ্যাম্পিয়নস লিগেও যা তার প্রথম। কিন্তু অভিষেকটা মোটেও আশানুরূপ হলো না তার, যেমনটা হলো না তার দল পিএসজিরও। শুরুতে এগিয়ে গিয়েও ক্লাব ব্রুগার বিপক্ষে ১-১ ড্রয়ে বাধ্য হতে হয়েছে কোচ মরিসিও পচেত্তিনোর শিষ্যদের৷

গেল মৌসুমের সেমিফাইনালে খেলেছিল পিএসজি, এর আগের মৌসুমে ফাইনাল। সেই দলে এবার যোগ দিয়েছেন মেসি। এমন দলের ওপর প্রত্যাশার পারদ না চড়ে যায় কোথায়? কিন্তু সে প্রত্যাশাটা তারকাখচিত পিএসজি মেটাতে পারল কই?

মেসি, নেইমার, কিলিয়ান এমবাপে কাগজে কলমে এমন ত্রয়ী বিশ্বসেরা হলেও সেটা মাঠে প্রমাণ করতে পারেননি তারা, অন্তত নিজেদের প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগ ম্যাচে তো বটেই। বক্সে হোক, কিংবা বক্সের বাইরে, তিনজনই ভুগেছেন বেশ।

এরপরও ব্যক্তিগত ঝলক দেখা গেছে মাঝেমধ্যে, তারই একটায় এল পিএসজির গোলটা। ম্যাচের ১৪ মিনিটে বাইলাইন ধরে ক্লাব ব্রুগা বিপদসীমায় ঢুকে কাটব্যাক করেন এমবাপে, বক্সে ফাঁকায় থাকা অ্যান্দার হেরেরা বলটা জালে জড়িয়ে পিএসজিকে এগিয়ে দেন সহজেই।

এর মিনিট তের পর আসে স্বাগতিকদের জবাব, গোলটাও যেন হলো অনেকটা পিএসজির গোলটার মতোই। ফরাসি দলটির রক্ষণের দায়ও আছে বটে, অনেকটা ফাঁকাতেই যেন ছেড়ে দিয়েছিল এদুয়ার্দ সোবোলকে, তার কাটব্যাক থেকেই হ্যান্স ভানাকেন সমতা ফেরান ম্যাচে।

পিএসজি এগিয়ে যেতে পারত দুই মিনিট পরই, যদি না মেসির শটটা প্রতিহত হতো ক্রসবারে। পুরো ম্যাচে এই শটটাই হয়ে থাকলো মেসির 'হাইলাইটস'।

দারুণ প্রেস আর প্রতি আক্রমণের কৌশলে ক্লাব ব্রুগা বিরতির আগ পর্যন্ত ভালোই ব্যস্ত রেখেছে ফরাসি অতিথিদের। মাঝমাঠ, আর রক্ষণের সমন্বয়হীনতাও মরিসিও পচেত্তিনোর দলকে ভুগিয়েছে বেশ। দৃশ্যটা বদলায়নি বিরতির পরেও৷ দ্বিতীয়ার্ধে এমবাপের চোট আরও কঠিনই করে দিয়েছিল নেইমার মেসির কাজটা।

শুরুর অর্ধে রক্ষণ থেকে আক্রমণে উঠে আসার 'ট্র‍্যানজিশন' সময়ে সমন্বয়হীনতার অভাব ভুগিয়েছে পিএসজিকে। তবে দলে নতুন যোগ দেওয়া নুনো মেন্দেজ আসতেই যেন সমস্যার সমাধান খুঁজে পেয়েই গিয়েছিল পিএসজি। ফিনিশিং আরেকটু ভালো হলেই হয়তো কাজ হয়ে যেত দলটির।

সেটা হয়নি। নুনোর কাটব্যাক থেকে মেসির শট ছিল না লক্ষ্যে, বারকয়েক ইকার্দি বনেছেন অফসাইডের শিকার। তাই জয়সূচক গোলটা আর মেলেনি পিএসজির। পিএসজির মেসির চ্যাম্পিয়নস লিগ অভিষেকটা তাই শেষ হয় ড্র দিয়েই।


আরও খবর
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

মেসিকে পেছনে ফেললেন সিআর সেভেন

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




প্রেস ক্লাবের সামনে ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের মানবন্ধন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ই-অরেঞ্জ ও পুলিশ কর্মকর্তা সোহেলের সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ভুক্তভোগীদের টাকা অবিলম্বে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে মানবন্ধন করছেন ই-অরেঞ্জ অনলাইন শপের ভুক্তভোগী গ্রাহকরা।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়ে ই-অরেঞ্জ ভুক্তভোগী কেন্দ্রীয় কমিটির ব্যানারে এই মানববন্ধন শুরু হয়। ভুক্তভোগীদের দাবি, ই-অরেঞ্জ যেহেতু অরেঞ্জ বাংলাদেশের সিস্টার কনসার্ন, তাই আর্থিক ক্ষতির দায় অরেঞ্জ বাংলাদেশকে নিতে হবে।

মানববন্ধনে বক্তারা ই-অরেঞ্জ প্রতারণার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তি, সরকারি আমলা ও কর্তাব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রশাসনিক ও আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ সহ দায়েরকৃত সব মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে নিষ্পত্তির দাবি জানান।

তারা আরও বলেন, এতো বড় প্রতারণার পরও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলে তাদের কোনও দায় নেই, এটা হতে পারে না। ই-ক্যাবের মতো সংগঠনের কোনও ভূমিকা আমরা দেখিনি। ই-ক্যাব বাণিজ্য ও মন্ত্রণালয়কে বলছি, আপনারা বলছেন বিষয়টি দেখবেন, কিন্তু এগুলো শুধু কাগজে কলমে থাকলে হবে না। এর আগে ডেসটিনি, যুবকের টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার রায় থাকলেও দশ বছরেও টাকা ফেরত পায়নি গ্রাহকরা। তাই শুধু কাগজে কলমে এসব বললেই হবে না, বাস্তবায়ন চাই। সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার কথাও বলেন বক্তারা।


আরও খবর



মাসে ২ কোটি টিকা দেয়ার পরিকল্পনা

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, টিকা সরবরাহ এখন বেশ ভালো। আমাদের হাতে পর্যাপ্ত টিকা রয়েছে। আমরা সামনের দিনগুলোতে টিকা পাওয়ার উৎস নিশ্চিত করেছি।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মাসে ২ কোটি ডোজ টিকা দেয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে সরকার।

রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে অধিদপ্তরের ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে টিকাদানের এ পরিকল্পনার কথা জানান মহাপরিচালক আবুল বাশার খুরশীদ আলম।

তিনি বলেন, টিকা সরবরাহ এখন বেশ ভালো। আমাদের হাতে পর্যাপ্ত টিকা রয়েছে। আমার সামনের দিনগুলোতে টিকা পাওয়ার উৎসও নিশ্চিত করেছি।

এই ধারবাহিকতায় মাসে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ১ কোটি থেকে ২ কোটি টিকা দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছি। সে লক্ষে মাঠপর্যায়ে টিকাদান কর্মসূচিকে আরও কী করে বাড়ানো যায় বা সম্প্রসার করা যা এ বিষয়ে আমরা সচেষ্ট আছি।

খুরশীদ আলম বলেন, প্রতি সপ্তাহে এক দিন নিবন্ধিত ও ৬০ বছরের বেশি বয়সীদের স্পট রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে। আমরা টিকা দেয়ার সময় মাথায় রাখি যারা বয়স্ক তারা যেন আগে টিকাটা পান।

আমাদের পর্যালোচনা উঠে আসছে, ৬০ বছরের বেশি বয়সী জনগোষ্ঠী বেশির ভাগ ক্ষেত্রে করোনা সংক্রমিত হয়েছে। তাদের মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যাও বেশি। তাদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদে যেদিন ২ দিন নিয়মিত টিকাদান থাকবে না, সপ্তাহে এমন দুই দিন টিকা দেয়া হবে। টিকা প্রত্যাশীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে নিবন্ধন করবেন এবং এসএমএস আসার পর টিকা নেবেন। আইসিটি বিভাগ ইউনিয়নের নাম ব্যবহার করে টিকা প্রতাশীদের কাছে এসএমএস পাঠাবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠানে টিকাকেন্দ্র ছিল তা সরিয়ে নেয়া হবে। এখন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পাশাপাশি উপজেলা অডিটোরিয়ামে টিকাকেন্দ্র করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। একইসঙ্গে বড় হল রুমেও টিকা কেন্দ্র করা হবে।’

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশুদের টিকার বিষয়ে একটি নির্দেশনা দিয়েছেন, সেই নির্দেশনা অনুযায়ী শিশুদের টিকার আওতায় আনার কাজ করে যাচ্ছি। আমরা প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন মাথায় রেখেই কীভবে দ্রুত সময়ের মধ্যে টিকার আওতায় আনা যায়, তার চেষ্টা করছি।’

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ায় সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে এ কাজ করার কথা জানান তিনি।


আরও খবর
করোনায় আরও ৩১ জনের মৃত্যু

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১