আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

হিজাব নিষিদ্ধ করলো সেন্ট গ্রেগরী উচ্চ বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ১৩৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
কিন্তু এবার সেই সব অতীত সোনালী অধ্যায় ম্লান করে দিয়েছে সেন্ট গ্রেগরিজ হাই স্কুল এন্ড কলেজ অধ্যক্ষ ব্রাদার প্রদীপ প্লাসিড গোমেজ সি, এস, সি

ঢাকার লক্ষ্মীবাজারে ১৮৮২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় সেন্ট গ্রেগরিজ হাই স্কুল এন্ড কলেজ। শিক্ষা বিস্তার ও মানুষ গড়ার জন্য এ বিদ্যালয়ের রয়েছে ঐতিহ্যবাহী ইতিহাস। রয়েছে মহান মুক্তিযুদ্ধে গৌরবময় ইতিহাস।  ১৯৭১ সালের ৩১ মার্চ এই স্কুলের প্রাঙ্গণ থেকে ছাত্র, শিক্ষকসহ মোট ৩০ জনকে পাক হানাদার বাহিনী জগন্নাথ কলেজ সংলগ্ন আর্মি ক্যাম্প এ ধরে নিয়ে যায় ও নির্মম ভাবে হত্যা করে। এই দিন শ্রদ্ধেয় শিক্ষক পি ডি কস্তাসহ আরো একাধিক শিক্ষক কে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়।

অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী এই প্রতিষ্ঠান থেকে  শিক্ষা লাভ করে বাংলাদেশ তথা বিশ্বে আলো বিতরণ করে যাচ্ছেন। যাদের মধ্যে বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদ,  নোবেল বিজয়ী অমর্ত্য সেন, রাজনীতিবিদ একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, কামাল হোসেন, জামিলুদ্দিন হাসান, সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ও জামিলুর রেজা চৌধুরী মত গুণীজনেরা রয়েছেন।

কিন্তু এবার সেই সব অতীত সোনালী অধ্যায় ম্লান করে দিয়েছে সেন্ট গ্রেগরিজ হাই স্কুল এন্ড কলেজ অধ্যক্ষ ব্রাদার প্রদীপ প্লাসিড গোমেজ সি, এস, সি। গত ১৫ ডিসেম্বর ( বৃহস্পতিবার) ব্রাদার প্রদীপ প্লাসিড গোমেজ স্বাক্ষরিত শিক্ষকদের জন্য দেওয়া এক নোটিশে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব/বোরখা নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং তাদেরকে শ্রেণিকক্ষ বা ক্যাম্পাসে এই সব কর্মকাণ্ড পরিচালনা না করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

ব্রাদার প্রদীপ প্লাসিড গোমেজ স্বাক্ষরিত সেই নোটিশটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে এই বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মাঝে সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে।

তাছলিম আহমেদ নামে এক সাবেক শিক্ষার্থী নোটিশটি শেয়ার করে লিখেছেন, নোটিশটা সত্যি হলে দুর্ভাগ্যজনক - এমন গ্রেগরী হয়তো আমরা চাইনি।


মোসাদ্দেক সম্রাট মাওলা নামে একজন লিখেছেন, আমাদের পবিত্র স্কুল কোন ধর্ম বিদ্বেষী মানুষের পৈত্রিক সম্পত্তি নয় বরং এই স্কুল আমাদের প্রতিটি গ্রেগোরিয়ানদের। তাই এই স্কুলের সুনাম রক্ষা করা আমাদের প্রতিটি গ্রেগোরিয়ানদের পবিত্র দায়িত্ব। 

সাইমুর রহমান নামে এক শিক্ষার্থী লিখেছেন, আমাদের স্কুল আমাদের সম্প্রীতি শিখিয়েছে যা আমরা এখনও বুকে ধারণ করি। আমাদের স্কুল আমাদের সহাবস্থান শিখিয়েছে যা আমরা এখনও মেনে চলি। মানের অবক্ষয় মনের সান্ত্বনার প্রলেপে ঢেকে রাখার চেষ্টা করা যায় তবে মানসিকতার অবক্ষয় এত সহজে মেনে নেয়া যায় কি?

মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা তাপস নামে এক অভিভাবক লিখেছেন,  পুরান ঢাকায় থাকি। কয়েকবছর আগে আমি আমার প্রাণের প্রিয় স্কুল 'সেন্ট গ্রেগরি' থেকে আমার ছেলেদের সরিয়ে ঢাকার আরেক প্রান্তের অন্য স্কুলে নিয়েছিলাম। যা আমার সন্তানদের জন্য ছিল শারীরিক এবং মানসিক ভাবে খুব কষ্টকর এবং আমার জন্য চরমভাবে ব্যায়বহুল...বাচ্চাদের সরানোর কারণে ওই সময় এবং এখনও অনেক বিরূপ মন্তব্য শুনতে হয় অনেক সিনিয়র Gregorian এর কাছথেকে... আশাকরি এইবার বুঝতে পারছেন কতটা মনের কষ্টে আমি আমার ছেলেদের সারিয়েছিলাম এখান থেকে। মনে রাখবেন তেলহীন প্রদীপ কখনো আলো ছড়ায় না। আপনারা অনেকই আবার এর তুলনা করেন ব্রাদার রবি'র সাথে...

ফয়সাল প্রবাল নামে একজন লিখেছেন, তীব্র ধিক্কার জানাচ্ছি। তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তীব্র তিরস্কার জানাচ্ছি। ধর্মবিদ্বেষী এই ব্রাদারের দ্রুত অপসারণ চাই।

এবিষয়ে জানতে অধ্যক্ষ ব্রাদার প্রদীপ প্লাসিড গোমেজ সি, এস, সি সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার বক্তব্য পাওয়া যায় নি।  

প্রসঙ্গত, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এখানে ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনা বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুধু বাংলা মাধ্যমে পড়াশোনা চলতে থাকে। তবে ২০০৮ সালের দিকে আবার ইংরেজি ভার্সন চালু করা হয়। ২০১৬ সালে স্কুলটিকে কলেজে উন্নীত করা হয়।


আরও খবর



সোশ্যাল মিডিয়া সাংবাদিকদের চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে: আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সোশ্যাল মিডিয়া এখন সাংবাদিকদের চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রসারের কারণে এখন সবাই সাংবাদিক হয়ে গেছেন। সবাই সাংবাদিক হয়ে যাওয়ার কারণে প্রকৃত সাংবাদিকরা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন।  যারা পড়ালেখা করে, কাজ করে এই পেশায় আছেন তারা এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের কারণে কোণঠাসা অবস্থায়। 

আপনারা যারা লেখাপড়া করে সাংবাদিক হয়েছেন তারা মানসিকভাবে নিজেকে যেভাবে তৈরি করেছেন।  কিন্তু ফেসবুক ব্যবহারকারীরা ঘরের মধ্যে বসেই সাংবাদিকতা করছেন। এই যে পার্থক্য, এই পার্থক্যের জন্য আপনাদেরকে লড়াই করে বেঁচে থাকতে হবে। বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, আপনারাই কিন্তু আসল সাংবাদিকতা করার জন্য শিক্ষিত-প্রশিক্ষিত।  এজন্য আপনাদের যে জায়গা তথা পেশাদারিত্বের জায়গাটায় যেন অ্যামেচারিজম না আসে সেদিকে সজাগ করতে হবে।  সেই দায়িত্বও আপনাদের।  সেই জায়গায় সরকার আপনাদের সব রকম সহায়তা করবে।


আরও খবর



দাবি না মানলে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার হুশিয়ারি রাশিয়ার

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | ৫১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নিজেদের নিরাপত্তা রক্ষায় কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। এ বিষয়ে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো যদি আমাদের দাবি মেনে না নেয় তাহলে আমাদের নিরাপত্তার স্বার্থে যা করার দরকার তাই করা হবে। আমরা যে দাবি বা প্রস্তাব দিয়েছি তা দ্রুত মেনে নিতে হবে। অনন্ত সময়ের জন্য এ বিষয় নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজী নই আমরা।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম রিয়া নোভোসতিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও যুক্তরাষ্ট্রের  প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মধ্যে ফোনালাপ হওয়ার পর এমন হুশিয়ারি দিয়েছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত কয়েকদিন ধরে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বেশ উত্তপ্ত পরিস্থিতি চলছে। কারণ রাশিয়া তাদের প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনের সীমান্তে প্রায় লাখ খানেক সৈন্য মোতায়েন করেছে। ফলে আশঙ্কা করা হচ্ছে ইউক্রেনে আক্রমণ করবে রাশিয়া।

তারা মূলত এটি করছে কারণ ইউক্রেন পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দিতে চাচ্ছে ও যুক্তরাষ্ট্র তাদের সামরিক বাহিনীকে রাশিয়ার আরো কাছাকাছি নিয়ে আসছে। এখন ইউক্রেন যদি ন্যাটোর সদস্য হয় তাহলে সেখানে ন্যাটোর সৈন্যরা যেতে পারবে। আর এ বিষয়টিকে নিজেদের নিরাপত্তার হুমকি মনে করছে রাশিয়া।

তাই রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন যুক্তরাষ্ট্রকে বলেছেন পশ্চিম ইউরোপে যেন তারা না আগানোর চেষ্টা করে এবং যুক্তরাষ্ট্র এদিকে আসবে না এমন নিশ্চয়তা চেয়েছেন পুতিন। 

এখন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন যা সিদ্ধান্ত নেয়া দরকার তা যেন খুব দ্রুত নেয়া হয়।  কারণ এরপর নিজেদের নিরাপত্তার জন্য যা করার দরকার তা করবে তারা।



আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




২০২২ শিক্ষাবর্ষের ৬ষ্ঠ থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্লাস রুটিন প্রকাশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নতুন বছরে (২০২২ সালে) মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কোন রুটিনে ক্লাস হবে তা নির্দিষ্ট করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

নতুন রুটিনে প্রাথমিকের শ্রেণি কার্যক্রম প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুসারে পরিচালনা করার কথাও বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে মাউশি মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুকের সই করা অফিস আদেশে বলা হয়, ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সপ্তাহে প্রতিদিন ৪টি বিষয়ের ওপর ক্লাস নেওয়া হবে। ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে প্রতিদিন (বিদ্যালয় খোলা থাকা সাপেক্ষে) ক্লাস হবে এবং দিনে ৩টি বিষয়ের ক্লাস নেওয়া হবে।

এছাড়া ৮ম ও ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে দুইদিন ৩টি করে বিষয়ের ওপর ক্লাস নেওয়া হবে। ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে একদিন ৩টি বিষয়ে ক্লাস নেওয়া হবে।


আরও খবর



বাস-ট্রেন ও লঞ্চে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার আহ্বান জাতীয় কমিটির

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে বাস, ট্রেন ও লঞ্চসহ সব ধরনের গণপরিবহনে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি। আজ মঙ্গলবার জাতীয় কমিটির সভাপতি হাজি মো. শহীদ মিয়া স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

একই সঙ্গে আসনসংখ্যার অর্ধেক যাত্রী বহনের নামে ভাড়া নৈরাজ্য ও সরকারি সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে অতিরিক্ত যাত্রী বহন ঠেকাতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষসহ (বিআরটিএ) সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষকে কঠোর অবস্থানে থাকারও আহ্বান জানিয়েছে নাগরিক সংগঠনটি।

বিবৃতিতে বলা হয়, নতুন করে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকার বাস, ট্রেন ও লঞ্চসহ সব ধরনের গণপরিবহনে ১৩ জানুয়ারি থেকে আসনসংখ্যার অর্ধেক যাত্রী পরিবহন এবং মুখে মাস্ক পরার নির্দেশনা জারি করেছে সরকার। এ ছাড়া চালক ও চালকের সহকারীসহ সকল পরিবহন কর্মীকে দুই ডোজ করোনা প্রতিরোধী টিকা গ্রহণকারী হতে হবে বলে সরকারি নির্দেশনায় বলা হয়েছে। কিন্তু নিকট অতীতে দেখা গেছে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালে সরকার এমন নির্দেশনা দিলেও সব ধরনের গণপরিবহনই অতিরিক্ত (৫০ শতাংশের বেশি) যাত্রী বহন করেছে। এমনকি মাস্কবিহীন যাত্রীদেরও বহন করা হয়েছে।

এ ছাড়া ঢাকাসহ বড় শহরগুলোতে বাস ও টেম্পোতে অর্ধেক যাত্রী বহনের নামে পরিবহনকর্মীরা ৬০ শতাংশ বেশি ভাড়া আদায় করেছে। এতে সাধারণ যাত্রীদের চরম আর্থিক খেসারত দেওয়ার পাশাপাশি করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করতে হয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের বরাত দিয়ে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির বিবৃতিতে আরও বলা হয়, করোনাভাইরাসের ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের (ধরন) পাশাপাশি এবার অতি দ্রুত সংক্রমণশীল ওমিক্রন ধরনও বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছে। সেই সঙ্গে শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে চলেছে। তাই জননিরাপত্তার স্বার্থে অতীতের চেয়ে এবার অধিকতর সতর্কতা অপরিহার্য। সুতরাং, এ বিষয়ে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষকে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে বলে মনে করেন জাতীয় কমিটির নেতারা।


আরও খবর



মুম্বাইয়ে বহুতল ভবনে আগুন, নিহত ৭

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | ৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের মুম্বাইয়ে একটি ২০তলা ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে সাতজন নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১৫ জন। শনিবার (২২ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় সকাল ৭টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, মুম্বাইয়ের গান্ধী হাসপাতালের বিপরীতে ২০তলা কমলা ভবনের ১৮তলায় আগুন লাগে।

মুম্বাইয়ের মেয়র কিশোরি পেড়নেকর বলেন, আবাসিক ভবনটির ছয়জন বাসিন্দার অক্সিজেন সহায়তার দরকার হচ্ছে। তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসলেও প্রচুর ধোঁয়া বের হচ্ছে।


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২