আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

হজের নিবন্ধন চলবে ১৬ থেকে ১৮ মে তিন দিন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছর হজ যাত্রী নিবন্ধন চলবে মাত্র তিন দিন। সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনের জন্য হজযাত্রী নিবন্ধন শুরু হবে আগামী ১৬ মে। চলবে ১৮ মে পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে অর্থ পরিশোধ করে নিবন্ধিত হতে হবে।

বৃহস্পতিবার ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ‌২০২২ সালের হজযাত্রী নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি’তে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সরকারি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ২০২০ সালের নিবন্ধিত সকল হজ যাত্রী এবং প্রাক-নিবন্ধনের সর্বশেষ ক্রমিক নম্বর ২৫ হাজার ৯২৪ পর্যন্ত এ বছর হজের নিবন্ধনের আওতায় আসবেন। বেসরকারি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ২০২০ সালের সকল নিবন্ধিত ব্যক্তি এবার নিবন্ধনের আওতায় আসবেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, হজযাত্রী নিবন্ধনের জন্য আবশ্যই পাসপোর্ট থাকতে হবে। পাসপোর্ট স্ক্যান করে নিবন্ধন তথ্য পূরণ করতে হবে। হজযাত্রীর পাসপোর্টের মেয়াদ হজের দিন থেকে পরবর্তী ছয় মাস অর্থাৎ ২০২৩ সালের ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত থাকতে হবে। হজযাত্রীর দাখিল করা পাসপোর্টের সঠিকতা অনলাইনে যাচাই করা হবে।

নিবন্ধনের পর কোনো হজযাত্রী কোনো কারণে হজে যেতে না পারলে শুধু বিমান ভাড়া এবং খাবার বাবদ গ্রহণ করা টাকা ফেরত পাবেন। তবে বিমানের টিকিট নিশ্চিত হওয়ার পর হজযাত্রা বাতিল করলে বিমানের টিকিটের টাকাও ফেরত পাবেন না বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে ২০২০ সালে নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য অনুসরণীয় বিষয়াদি, ২০২২ সালে নির্বাচিত প্রাক-নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য অনুসরণীয় বিষয়াদি, বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের জন্য নিবন্ধন স্থানান্তরের জন্য অনুসরণীয় বিষয়াদি নিয়ে বিস্তারিত নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: হজের নিবন্ধন

আরও খবর



সরকারি সাত কলেজে নতুন দুটি বিভাগ খোলার সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজে নতুন দুটি বিভাগ খোলার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রোববার (২৫ এপ্রিল) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাত কলেজের সমন্বয়ক ও ইডেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য।

তিনি জানান, গত ১৯ এপ্রিল ঢাবির উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) ও অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়কারী অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের সভাপত্বিতে নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে সাত কলেজের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি ও অন্যান্য শিক্ষা কার্যক্রম বিষয়ে আলোচনা সভা হয়েছে। এতে নতুন সাবজেক্ট খোলার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তিনি বলেন, যুগের চাহিদা ও দেশি-বিদেশি চাহিদা মেটাতে অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজে কম্পিউটার সায়েন্সইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন সায়েন্স খোলার বিষয়ে সভায় নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নতুন দুটি বিষয় খোলার ক্ষেত্রে কলেজের সক্ষমতার সম্ভাব্যতাসহ সবকিছু যাচাই-বাছাই করেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: সরকারি সাত কলেজ

আরও খবর



ইভটিজিংকে কেন্দ্র করে ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর কিশোর গ্যাংয়ের হামলা

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় ইভটিজিংকে কেন্দ্র করে ৯নং নবীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো.বেলায়েত হোসেন সোহেলের ওপর হামলা চালিয়েছে কিশোর গ্যাং। এ ঘটনায় স্থানীয়রা কয়েকটি দেশীয় অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাংয়ের চার সদস্যকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

গতকাল মঙ্গলবার ১০ মে সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের গোপালপুর গ্রামের নূরানী মাদ্রাসা সংলগ্ন কালামিয়ার টেক এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আটককৃত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা হলো, নবীপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের অন্তর (১৯) ও বেগমগঞ্জ উপজেলার রফিকপুর গ্রামের টিপু (২৪) আবদুল গনি পারভেজ (২৫) ইমরান হোসেন ওরফে শান্ত (২০)।

নবীপুর ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) আবদুল ছোবহান জানান, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরের দিকে নবীপুর ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের গোপালপুর গ্রামের জসিমের নতুন বাড়িতে কিশোরী মেয়েরা বাড়ির পুকুরে গোসল করতে গেলে ইভটিজিং করে একই গ্রামের হারিস মোল্লা বাড়ির বাশারের ছেলে ইভটিজার রবি (২৩) ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। সে দীর্ঘদিন থেকে ওই মেয়েদের উক্ত্যক্ত করে আসছে। পরে ভুক্তভোগী কিশোরীদের পরিবার বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানকে জানায়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অবহিত করার অভিযোগে বিকেলের দিকে রবি ও কিশোর গ্যাংয়ের বহিরাগত সদস্যরা ইভটিজিংয়ের শিকার কিশোরীদের বসতঘরে হামলা চালায় এবং তাদেরকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করে।

ইউপি সদস্য আরো জানায়,খবর পেয়ে চেয়ারম্যান আমাকে ঘটনাস্থলে পাঠালে বহিরাগত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা চলে যায়। একপর্যায়ে কিশোর গ্যাং বাহিনীর প্রধান রবির মা ও ইভটিজিংয়ের শিকার কিশোরীদের মায়ের মধ্যে তুমুল বাকবিতন্ডা বেধে যায়। তখন আমি বিষয়টি চেয়ারম্যান কে জানাই। যে এ সমস্যা আমার পক্ষে সমাধান করা সম্ভব নয়। তখন চেয়ারম্যান আমাকে জানায় আপনি ঘটনাস্থলে থাকেন আমি আসছি।

ইউপি সদস্য জানায়,চেয়ারম্যান এসে দুই পক্ষকে নিবৃত করে। অভিযুক্ত রবিকে চেয়ারম্যানের প্রাইভেট কারে তুলে নেয়। একপর্যায়ে আসস্মিক রবির কিশোর গ্যাংয়ের ৩০-৩৫জন সদস্য চেয়ারম্যান ও তাঁর ভাগনে নজরুল ইসলামের (৩৫) ওপর হকিস্টিক,রড দিয়ে হামলা চালায়। এতে চেয়ারম্যান বাম চোখে ও কপালে গুরুত্বর আঘাত পায়। হামলাকারীরা চেয়ারম্যানের ব্যবহৃত প্রাইভেটকারও ভাংচুর করে। খবর পেয়ে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যাওয়ার সময় চারজনকে আটক করে স্থানীয়রা। পরে চেয়ারম্যানকে উদ্ধার করে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। সেখান থেকে রাত পৌনে ১টার দিকে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে  ৯নং নবীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো.বেলায়েত হোসেন সোহেল বলেন, ইভটিজিং নিয়ে বিরোধের জের ধরে ইভটিজার কিশোর গ্যাং বাহিনীর সদস্যরা এ হামলা চালায়। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী। তিনি বলেন, ইভটিজিংকে কেন্দ্র করে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে চেয়ারম্যান সমস্যা সমাধানে গেলে তাঁর ওপর হামলার এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় লোকজন চারজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। আটককৃতদের থানায় এনে রাখা হয়েছে। ভুক্তভোগীদের লিখিত এজহার পেলে আটকৃতদের ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে নোয়াখালী চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।


আরও খবর



ভারত থেকে পেঁয়াজ আসা বন্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে তিনদিন ধরে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে খুচরা বাজারে।

আমদানিকারকরা বলছেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির আগের ইমপোর্ট পারমিটের (আইপি) মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। নতুন করে আইপি না পাওয়ায় কয়েকদিন ধরে আমদানি বন্ধ হয়ে গেছে।

হিলি স্থলবন্দর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বন্দর দিয়ে সর্বশেষ গত ৩০ এপ্রিল ৬৮টি ট্রাকে ১৯০২ মেট্রিক টন ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। এরপর ঈদের ছুটি শুরু হয়। ছুটি শেষে শনিবার (৭ মে) থেকে বন্দর দিয়ে আমদানি কার্যক্রম শুরু হয়। তবে শনিবার থেকে বন্ধ রয়েছে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি।

এদিকে হিলির খুচরা বাজারে ঈদের আগে প্রকারভেদে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৫ থেকে ১৬ টাকা দরে বিক্রি হলেও বর্তমানে তা বেড়ে ২০ থেকে ২২ টাকায় ঠেকেছে।

আড়তে পেঁয়াজ কিনতে আসা মো. আসলাম বলেন, ঈদের আগে হিলির আড়তে পেঁয়াজের দাম ছিল ১৪ টাকা কেজি। এখন দাম চাচ্ছে ২০ থেকে ২২ টাকা। আমরা অন্য বাজারে ২০ টাকা কেজি খুচরা বিক্রি করেছি। অথচ এখান থেকেই আমাদের ২০-২২ টাকা দিয়ে কিনতে হচ্ছে।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক শাহরিয়ার আলম বলেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য আমাদের যেসব ইমপোর্ট পারমিট নেওয়া ছিল সেগুলোর মেয়াদ ছিল ৫ মে পর্যন্ত। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১ মে থেকে ৬ মে পর্যন্ত ছয়দিন হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ছিল। যে কারণে ওই সময়ের মধ্যে বাড়তি পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানির ইচ্ছা থাকলেও সেটি সম্ভব হয়নি।

তিনি বলেন, সরকার নতুন করে পেঁয়াজ আমদানির জন্য ইমপোর্ট পারমিট দেওয়া বন্ধ রেখেছে, যে কারণে বর্তমানে বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানিও বন্ধ রয়েছে।

তবে পেঁয়াজ আমদানির জন্য অনুমতি চেয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন করা হয়েছে বলে জানান আমদানিকারক শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত অনুমোদন দেওয়া হয়নি। কবে দেওয়া হবে কিংবা দেওয়া হবে কি না সে ব্যাপারেও কর্তৃপক্ষ কিছু বলছে না।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন প্রতাব মল্লিক বলেন, হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত ছিল। এরপর থেকে বন্দর দিয়ে আর পেঁয়াজ আমদানি হয়নি।


আরও খবর



পেট্রলের চেয়ে বিদ্যুৎচালিত গাড়ি ব্যবহারের খরচ কমেছে

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কয়েক মাস ধরে বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারে অস্থিরতা চলছে। ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনে সরবরাহ নিয়ে অনিশ্চয়তায় জ্বালানির দাম রেকর্ড পর্যায়ে উন্নীত হয়। এতে যুক্তরাজ্যে পেট্রলের চেয়ে বিদ্যুৎচালিত গাড়ি (ইভি) ব্যবহারে বার্ষিক ব্যয়ের ব্যবধান প্রসারিত হয়েছে। নতুন একটি গবেষণায় উঠে এসেছে, পেট্রলচালিত গাড়ির চেয়ে ইভি ব্যবহারে বার্ষিক প্রায় ৬০০ পাউন্ড কম খরচ হয়। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

তুলনামূলক চিত্র উপস্থাপন করা ওয়েবসাইট কমপেয়ার দ্য মার্কেটের গবেষণায় উঠে এসেছে, এরই মধ্যে ইভি চালানোর ব্যয় পেট্রলচালিত গাড়ির চেয়ে সস্তা ছিল। তবে ইউক্রেনে যুদ্ধের কারণে বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারে অস্থিরতায় দুই ধরনের গাড়ির ব্যয়ের ব্যবধান উল্লেখযোগ্যভাবে প্রসারিত হয়েছে। একটি বিদ্যুৎচালিত গাড়ি চালানোর জন্য গড় বার্ষিক ব্যয় এখন ১ হাজার ২৬৪ পাউন্ড। যেখানে পেট্রলচালিত গাড়ির গড় ব্যয় ১ হাজার ৮৩৪ পাউন্ড।

যদিও সব ধরনের যানবাহন চালানোই এক বছর আগের তুলনায় অনেক বেশি ব্যয়বহুল। মার্চে পেট্রলের দাম রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছেছে। তবে চলতি মাসে সামান্য কমেও গিয়েছে। পেট্রলচালিত গাড়ির নিবন্ধন সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। এ গাড়ির ব্যয় এক বছরে ৩০০ পাউন্ডেরও বেশি বেড়েছে। যেখানে বিদ্যুৎচালিত গাড়ির মালিকানা নিতে ব্যয় বেড়েছে ১৩৭ পাউন্ড। অর্থাৎ ইভি নিবন্ধনের খরচ ৪০৩ থেকে ৫৭০ পাউন্ডে উন্নীত হয়েছে।

এ পরিসংখ্যানে বীমা, এমওটি ও জ্বালানির গড় ব্যয় অন্তর্ভুক্ত। পাশাপাশি পেট্রলচালিত গাড়ির জন্য ১৬৫ পাউন্ড আবগারি শুল্ক হিসাব করা হয়েছে। বিদ্যুৎচালিত গাড়িতে এ শুল্ক অব্যাহতি দেয়া হয়। গবেষণাটিতে ধরা হয়েছে, একজন চালক বছরে ৬ হাজার ৭০০ মাইল ভ্রমণ করেন, পেট্রলের জন্য প্রতি লিটার ১ পাউন্ড ৬২ পেনি কিংবা বিদ্যুতের জন্য ২৮ পেনি পরিশোধ করেন। যেসব চালক তাদের বিদ্যুতের জন্য বিশেষ ইভি শুল্কের আওতায়, তারা অনেক কম অর্থ প্রদান করবেন। সুতরাং তাদের সঞ্চয় আরো বেশি হবে।

কমপেয়ার দ্য মার্কেটের ডিরেক্টর অ্যালেক্স হেস্টি বলেন, বিদ্যুতের বিল বাড়তে থাকা সত্ত্বেও অনেক গ্রাহক ইভিতে স্থানান্তরিত হচ্ছেন। তারা এটা দেখে খুশি হবেন, পেট্রলের চেয়ে বিদ্যুতে গাড়ি চালানো যথেষ্ট কম খরচের। পাশাপাশি এ গাড়ি পরিবেশবান্দব। এছাড়া এটি গ্রাহকদের জ্বালানি তেল, ইন্স্যুরেন্স ও কর বাঁচিয়ে দিচ্ছে।

কয়েক বছর ধরেই গ্রাহকরা জীবাশ্ম জ্বালানিচালিত গাড়ি ছেড়ে ইভিতে স্থানান্তরিত হচ্ছেন। ফলে বিদ্যুৎচালিত গাড়ির বিক্রিও ঊর্ধ্বমুখী। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) বিশ্বজুড়ে সামগ্রিক গাড়ি বিক্রি সংকুচিত হলেও ইভি বিক্রি বেড়েছে। বর্তমানে ক্রমবর্ধমান পেট্রল ও ডিজেলের দাম ইভিকে অনেক গ্রাহকের কাছেই একটি আকর্ষণীয় বিকল্প করে তুলেছে। এ খাতের পরিসংখ্যান অনুসারে, মার্চে ব্রিটিশরা যে সংখ্যক ইভি কিনেছে, তা পুরো ২০১৯ সালের তুলনায় অনেক বেশি। খরচ কমে যাওয়ায় এ গাড়ির বিক্রি আরো বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। যদিও অনেক ব্রিটিশ গ্রাহকের জন্য ইভি কেনার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতাও রয়েছে। হ্যাস্টি বলেন, একটি বিদ্যুৎচালিত গাড়ি কেনা এবং একটি হোম চার্জিং পয়েন্ট ইনস্টল করার একটি উল্লেখযোগ্য আগাম খরচ রয়েছে। অনেক মানুষ গাড়ি কেনার পাশাপাশি এ ব্যয় বহন করতে সক্ষম নাও হতে পারে।


আরও খবর



রাণীশংকৈল দুই খালাতো ভাই সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৩২০জন দেখেছেন

Image

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল দক্ষিণ বনগাঁও গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের দুই নাতি দিনাজপুরের মঙ্গলপুর নামক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে বলে মৃত্যুর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়।

মৃত দু'জন আপন খালাতো ভাই এবং রানীশংকৈলের এক সময়ের আ.লীগের জনপ্রিয় নেতা মৃত আফসার আলীর ভাগিনা। দুর্ঘটনায় মৃতের একজন হলেন হরিপুরের ড.ওসমান গনির ছেলে সাদ-ইবনে ওসমান (২৫)। সে নর্থ সাউথ  বিশ্ববিদ্যলয়ে বি,বি,এ ফাইনাল সেমিস্টারের শিক্ষার্থী। অপরজন নেকমরদ করিগরী কলেজের নহেদ প্রেন্সিপালের বড় ছেলে নোয়াজিস তাসিন (১৫)। সে রানীশংকৈল কেন্দ্রীয় মাধ্যমিক স্কুলে এস,এস,সি পরীক্ষার্থী।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নোয়াজিস তাসিনের মা আইরিনসহ খালাতো ভাই সাদ ইবনে ওসমান নিজেস্ব প্রাইভেট কারে দিনাজপুর থেকে রানীশংকৈল ফেরার পথে মঙ্গলপুর নামক স্থানে গাড়ির তেল শেষ হয়ে যায়। পরে দুই খালাতো ভাই অটো যোগে পাশেই থাকা পেট্রোল পাম্পে তেল কিনে মঙ্গলপুর ইউনিয়ন ৫ নং ওয়ার্ড মেম্বারের মোটরসাইকেলে পৌচ্ছে নেয়ার পথে পেছনদিক থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাকের সাথে ধাক্কা খেয়ে ঘটনাস্থলে মোটরসাইকেল আরোহীসহ দুই খালাতো ভাই একসাথেই সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান।

ঘটনাটি ঘটে আনুমানিক রাত ১২ টার সময়। তাদের লাশ রাতের মধ্যেই রানীশংকৈলে তাদের নানার বাড়ি আনা হচ্ছে বলে স্বজনরা জানিয়েছেন।

রাণীশংকৈল উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না সড়ক দুর্ঘটনায় আপন খালাতো ভাই এর মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।


আরও খবর