আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

জয়পুরহাটে আলুর কেজি ৫ টাকা, দিশেহারা চাষিরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ১৭৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ

জয়পুরহাটে প্রতিদিনই আলুর দাম কমছে। ভালো ফলন হলেও বাজারে দাম না থাকায় লোকসানের মুখে পড়ছেন জয়পুরহাট জেলার আলুচাষীরা। বর্তমানে স্থানীয়ভাবে প্রতি কেজি আলু পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ৫-১০ টাকা। ফলে খরচের তুলনায় লোকসান বেড়ে যাওয়ায় দিশেহারা তারা।

জয়পুরহাট শহরের নতুনহাটে আলু বিক্রি করতে আসা চাষীরা জানান যে, বাজারে আলু প্রতি মণ ছিল ৪৫০ টাকা তা আজ বাজারে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর ২৫০ টাকার আলু ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এভাবে দিন দিন আলুর দাম কমে যাচ্ছে। রোমানা পাইকারি (লাল) বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকা মণ। আর প্রতি কেজি ১০ টাকা। বট পাইকারি (লাল) মিউজিকা আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৬০ টাকা মণ। গ্রেনোলা আলু প্রতি মণ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা।

আলুর পাইকারি ক্রেতা জহুরুল ইসলাম ও পরিতোষ কুমার বলেন, আলুর বাজার একদিন আগে যা ছিল পরের দিন তা থাকছে না। দাম হুহু করে কমে যাচ্ছে। আমরা যেসব আলু কিনছি এসব আলু ঢাকা, রাজশাহী, সিলেট, খুলনা, চট্টগ্রাম, বরিশাল সহ দেশের বিভিন্ন স্থানের মোকামে সরবরাহ করা হচ্ছে। কাঁচাবাজারের মূল্য সঠিকভাবে বলা যায় না। কিন্তু আলুর বাজার একেবারেই উঠছে না।

বাজারে গ্রানোলা আলু বিক্রি করতে আসা চাষীরা বলেন, প্রতি বিঘায় আলুর ফলন হচ্ছে ৫৮-৬০ মণ। আলু চাষে জমিতে ১৮-২০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। কিন্তু বর্তমান বাজার হিসেবে আলু বিক্রি  করলে ১২-১৫ হাজার টাকার বেশি বিক্রি করা সম্ভব নয়। এতে আমাদের কয়েক হাজার টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে। সরকারিভাবে রফতানি ও দাম নির্ধারণ করতে সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান তারা।

সদর উপজেলার আমদই ইউনিয়নের পলিকাদোয়া গ্রামের আলুচাষী মাসুদ রানা বলেন, জমি থেকেই আলু বিক্রি করে দিচ্ছি। আজ বাজারে ৩৭০ টাকা দরে ৮০ মণ মিউজিকা আলু বিক্রি করেছি। তবে প্রতি মণ ১০ টাকা কমে ৩৬০ টাকা দরে ৩০ মণ আলু বিক্রি করেছেন হিসমী  গ্রামের মাহবুব।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য মতে, জেলায় এবার ৪০ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে আলু রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৭ হাজার ১০০ হেক্টর, পাঁচবিবিতে ৭ হাজার, কালাইয়ে ১১ হাজার ১০০, ক্ষেতলালে ৯ হাজার এবং আক্কেলপুরে ৬ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। কিন্তু ৪০ হাজার ২৮০ হেক্টর জমিতে আলু চাষ করে লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে।

জেলা বিপণন বিভাগের মাঠ ও বাজার পরিদর্শক মোঃ সাখাওয়াত হোসেন বলেন, আলুর ভরা মৌসুম চলছে। এবার আলুর ফলন ভালো হয়েছে। এজন্য আলুর দাম কম।

নিউজ ট্যাগ: জয়পুরহাট আলু

আরও খবর



এজেন্ডা বাস্তবায়নে মাহবুব তালুকদার মিথ্যাচার করেন: সিইসি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার মিথ্যাচার করেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। এজেন্ডা বাস্তবায়নে তিনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে ইসি নিয়ে কথা বলেন বলেও দাবি করেন সিইসি।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ভোটার তালিকায় পিতা-মাতা পরিচয়হীনদের তালিকাভুক্তির সমস্যা ও করণীয়-বিষয়ক কর্মশালার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এর আগে গতকাল ৫ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) পর্যবেক্ষণ শেষে মাহবুব তালুকদার বলেছিলেন, ভোটযুদ্ধে যুদ্ধ আছে, ভোট নেই। এছাড়া তিনি নিজেদের দায় স্বীকারমূলক মন্তব্যও করেন।

বিষয়টি নিয়ে সিইসির প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, উনি তো এ রকম সব সময় বলেন। একেক সময় একেক শব্দচয়ন করেন, মিডিয়ায় প্রচার করার জন্য। এই কথাগুলো অপ্রাসঙ্গিক কথা। অপ্রচারমূলক কথা। নির্বাচন কমিশনকে অপবাদ দেওয়া কথা। ভোটযুদ্ধ আছে, ভোট নেই, তাহলে ৭৫ শতাংশ ভোটার কোত্থেকে আসে? টেলিভিশনে দেখিয়েছেন সারিবদ্ধভাবে নারী-পুরুষ দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেন। তাহলে এরা কারা? এরা কী ভোটার নন? সুতরাং উনার কথার কোনো প্রাসঙ্গিকতা নেই।

কে এম নূরুল হুদা বলেন, উনি এটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বলেন। হয়তো উনার কোনো এজেন্ডা আছে, সেটা বাস্তবায়নের জন্য, নির্বাচন কমিশনকে হেয় করার জন্য এই কথা বারবার বলেন। এই কথাটা মিথ্যাচার, অপ্রাসঙ্গিক, অপবাদ। উনি মিথ্যা কথা বলেন।

সাংবাদিকদের অন্য এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, নির্বাচনে সহিংসতা ও মৃত্যুর দায় নির্বাচন কমিশনের নয়। দায় প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের। সহিংস ঘটনাগুলো ঘটেছে কেন্দ্রের বাইরে। আমরা তাদের বারবার বলি সহনশীল হতে।

তিনি বলেন, আমরা প্রত্যেকটি হত্যাকাণ্ডের জন্য মর্মাহত। এগুলো অপ্রত্যাশিত। আমরা এগুলো চাই না। প্রার্থীদের আমরা বারবার অনুরোধ করি, নির্বাচন হবে প্রতিযোগিতামূলক, প্রতিহিংসাপরায়ণ নয়, রক্তপাত নয়।’

কে এম নূরুল হুদা বলেন, প্রশাসনিক দুর্বলতার কারণে সহিংসতা হচ্ছে। পুলিশও অনেক সময় ভিকটিম হচ্ছে, আহত হচ্ছে, নিহত হচ্ছে। প্রচুর ধৈর্য সহকারে তারা দায়িত্বপালন করেন।’

নিউজ ট্যাগ: কে এম নূরুল হুদা

আরও খবর



দুই ক্যারিবীয় ক্রিকেটারকে দলে নিলো সিলেট

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ২৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আর কয়েকদিন পরই মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসর। সেটিকে সামনে রেখে নিজেদের দলকে আরও শক্ত করে নিচ্ছে সিলেট সানরাইজার্স। তারই ধারাবাহিকতায় দুই ক্যারিবীয় ক্রিকেটার লেন্ডল সিমন্স ও ডেভন থমাসকে দলভুক্ত করেছে ফ্রাঞ্জাইজিটি।

জানা গেছে, সিমন্সকে দলে নেওয়ার এক দিনের মাথায় থমাসের সঙ্গেও চুক্তি করেছে সিলেট। এ নিয়ে ৮ জন বিদেশি ক্রিকেটারকে দলে নিলো তারা।

এক নজরে সিলেট সানরাইজার্স

বিদেশি: লেন্ডল সিমন্স, ডেভন থমাস, দীনেশ চান্দিমাল, কেসরিক উইলিয়ামস, কলিন ইনগ্রাম, রবি বোপারা, অ্যাঞ্জেলো পেরেরা ও সিরাজ আহমেদ।

দেশি: তাসকিন আহমেদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মোহাম্মদ মিঠুন, আল আমিন হোসেন, নাজমুল ইসলাম অপু, এনামুল হক বিজয়, সোহাগ গাজী, অলক কাপালি, মুক্তার আলী, মিজানুর রহমান, নাদিফ চৌধুরী, জুবায়ের হোসেন লিখন ও শফিউল হায়াত হৃদয়।

নিউজ ট্যাগ: বিপিএল

আরও খবর



টিকা ছাড়া রেস্টুরেন্টে খেতে পারবে না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টিকা ছাড়া কেউ রেস্টুরেন্টে খেতে পারবে না। খাওয়ার আগে তাকে টিকার সার্টিফিকেট দেখাতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, সার্টিফিকেট দেখানোর পর হোটেল কর্তৃপক্ষ তাকে এন্টারটেইন করবে। তানা হলে হোটেল মালিককেও জরিমানা দিতে হবে। এ বিষয়ে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলেও তিনি জানান।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় সচিবালয়ে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন’ ইস্যুতে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এ মুহূর্তে লকডাউনের কথা ভাবছে না সরকার। কারণ এখনো লকডাউন দেয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি।

মন্ত্রী বলেন, করোনা ও ওমিক্রন ঠেকাতে যে ধরণের পদক্ষেপ নেয়া উচিত সে সব বিষয়ে জোর দেয়া হবে।

গণপরিবহনে যাত্রী চলাচলের ক্ষেত্রে নির্ধারিত আসনের চেয়ে কম যাত্রী পরিবহনের বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টিকা নেয়ার বিষয়ে অনেক ঢিলেঢালা মনোভাব দেখা যাচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়টি আরও জোরদার করা হবে। তার জন্য আমরা পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

এর আগে, সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে এ বৈঠক শুরু হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল প্রধান অতিথি হিসেবে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রীপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



বায়ুদূষণে আজও বিশ্বে প্রথম স্থানে ঢাকা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | ২২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বে বায়ুদূষণে আজও শীর্ষস্থান দখল করেছে রাজধানী ঢাকা। আজ বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় ঢাকার বায়ুদূষণের মাত্রা সবার ওপরে উঠেছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের বায়ুমান যাচাইবিষয়ক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এয়ার ভিজ্যুয়াল এর বায়ুমান সূচক (একিউআই) থেকে এ তথ্য জানা যায়।

একিউআই অনুযায়ী, ঢাকায় আজ বায়ু দূষণের মানমাত্রা ২৪১; যা গতকাল সকাল ১০টায় ২৬৯ রেকর্ড করা হয়। এর অর্থ হলো বাতাসের মান অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ে রয়েছে।

একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ তা জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ ও অসুস্থ রোগীদের বাড়িতে অবস্থানের এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কাজে গেলে মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা।

ঢাকা ছাড়া দ্বিতীয় অবস্থানে আছে চীনের উহান ও কাজাকিস্তানের নুর সুলতান শহর, যাদের দূষণের মাত্রা যথাক্রমে ২৩১ ও ২২৯।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ছয় ধরনের পদার্থ এবং গ্যাসের কারণে ঢাকায় দূষণের মাত্রা সম্প্রতি অনেক বেড়ে গেছে। এর মধ্যে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ধূলিকণা অর্থাৎ পিএম ২.৫ এর কারণেই ঢাকায় দূষণ অতিমাত্রায় বেড়ে পরিস্থিতি নাজুক হয়ে উঠছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ক্যাপসের পরিচালক ও স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বায়ু দূষণের মাত্রা ২০০ ছাড়ালে আমরা বলি মারাত্মক অস্বাস্থ্যকর। ৩০০ হলে দুর্যোগপূর্ণ হিসেব বিবেচনা করি। শীত শুরু হলে শুষ্ক মৌসুমের কারণে এ ধরনের আবহাওয়া থাকে। আমরা আগেই বলেছিলাম, একসময় জরুরি অবস্থাও জারি করা হতে পারে, যদি সরকার বায়ুদূষণ রোধে কার্যকর কোনও পদক্ষেপ না নেয়।

ক্যাপসের এক গবেষণায় সম্প্রতি বলা হয়, রাজধানীতে ২০২০ সালের তুলনায় ২০২১ সালে গড় বায়ুদূষণ বেড়েছে ৯ দশমিক ৮ ভাগ। বায়ুমান সূচক (একিউআই) অনুযায়ী, গড়ে ২০২০ সালে দূষণের মাত্রা ছিল ১৪৫; যা ২০২১ সালে এসে হয় ১৫৯ দশমিক ১।

জরিপে বলা হচ্ছে, ২০২০ সালের জানুয়ারিতে বায়ুমান সূচকের (একিউআই) গড় মাত্রা ছিল ২৩৫ দশমিক ১। ২০২১ সালের জানুয়ারিতে বেড়ে দাঁড়ায় ২৬১ দশমিক ৬; যা দুই বছরের হিসাবে ১১ দশমিক ৩ ভাগ বেশি। একইভাবে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ছিল ২২০ দশমিক ৫। ২০২১ সালে বেড়ে হয়েছে ২৩১ দশমিক ৪।

তাদের গবেষণায় দেখা যায়,  প্রতি মাসের গড় প্রতি ঘনমিটার অতিসুক্ষকণা (পিএম ২.৫) পরিমাপ করে দেখা যায়,  তেজগাঁও, আগারগাঁও, মিরপুর-১০, গুলশান-২, শাহবাগ, ধানমন্ডি-৩২ এবং আবদুল্লাহপুর এলাকায় গড় মাসিক পিএম ২.৫ এর ঘনত্ব বেশি। লক্ষ করা যায়, যেসেব এলাকায় বিভিন্ন ধরনের শিল্পকারখানার উপস্থিতি রয়েছে, রাস্তা নির্মাণ ও মেরামতের কাজ চলমান, মেট্রোরেলের কাজ চলমান এবং কয়েকটি রাস্তার সংযোগ যেখানে ঘটেছে; সেখানে পিএম ২.৫ এর ঘনত্ব বেশি ছিল। সবচেয়ে বেশি দূষণ দেখা যায়, তেজগাঁও এলাকায়। যেখানে ঘনত্ব বাংলাদেশের নির্ধারিত মান থেকে ৪.৬৪ গুণ বেশি এবং তুলনামূলক কম দূষিত সংসদ এলাকা যেখানে দূষণের মান ৩.৫৯ গুণ বেশি।


আরও খবর



গুগল-ফেসবুকের বিরুদ্ধে ফ্রান্সের অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুকি বা অনলাইন ট্র্যাকার প্রত্যাখানের প্রক্রিয়া জটিল করায় টেক জায়ান্ট গুগল ও বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুককে জরিমানা করেছে ফ্রান্স।

প্রতিষ্ঠান দুটিকে সব মিলিয়ে ২১০ মিলিয়ন ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২ হাজার ৩৭ কোটি ৫৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা) জরিমানা করে ফ্রান্সের বাজার পর্যবেক্ষক সংস্থা।

প্রযুক্তি শিল্পের শীর্ষ দুই প্রতিষ্ঠান গুগল ও ফেসবুকের বিরুদ্ধে ফ্রান্সের ডেটা গোপনীয়তা পর্যবেক্ষক সিএনআইএল-এর অভিযোগ, তারা ব্যবহারকারীদের জন্য কুকি প্রত্যাখানের প্রক্রিয়া বেশি জটিল করেছে।

কুকি ব্যবহারের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর অনুমতি নেওয়ার ওপর  বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইউ)-এর ডেটা গোপনীয়তা নীতিমালায়। সিএনআইএল-এর কাছেও গুরুত্ব পাচ্ছে বিষয়টি।

ব্যবহারকারীদের জন্য কুকি প্রত্যাখ্যান করার প্রক্রিয়া সহজ করতে বলেছে পর্যবেক্ষক সংস্থাটি। তিন মাসের মধ্যে পর্যবেক্ষকের নির্দেশ মেনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নিলে বিলম্বের জন্য উভয় প্রতিষ্ঠানকে প্রতিদিন এক লাখ ইউরো করে জরিমানা করা হবে।

সহজ করে বললে, কুকি হল ছোট ছোট ডেটা প্যাকেট যা ওয়েব ব্রাউজারগুলোকে ডেটা সংরক্ষণ করতে দেয় এবং ব্যবহারকারীদের টার্গেটেড অ্যাড দেখানোর জন্য তথ্য সরবরাহ করে।

সিএনআইএল-এর ডেটা নিরাপত্তা প্রধান কারিন কাইফার বলেছেন, আপনি যখন কুকি গ্রহণ করবেন, সেটা এক ক্লিকেই হয়ে যায়। প্রত্যাখ্যানের বিষয়টিও এক ক্লিকেই হওয়া উচিত।

 


আরও খবর