আজঃ শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

কেমন কাটবে আপনার আজকের দিন

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ আপনার জন্মদিন হলে পাশ্চাত্য জ্যোতিষে আপনি কন্যা রাশির জাতক/ জাতিকা। আপনার জন্মসংখ্যা : ৬। আপনার ওপর প্রভাবকারী গ্রহ : বুধ ও শুক্র। আপনার শুভ সংখ্যা : ৫ ও ৬। শুভ বার : বুধ ও শুক্র। শুভ রত্ন : হীরা ও পান্না।

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

উচ্চশিক্ষার্থীদের জন্য দিনটি শুভ। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিদেশযাত্রা হতে পারে। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে। কোনও আশা পূরণ হতে পারে। পেশাগত দিক ভালো যাবে।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২০ মে)

দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। অতিন্দ্রীয় শাস্ত্রাদির প্রতি আগ্রহ বোধ করতে পারেন। কোনও ধরনের সামাজিক সমস্যার উদ্ভব হতে পারে। রিপুকে সংযত রাখুন।

মিথুন (২১ মে-২০ জুন)

দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো থাকবে। প্রেম-ভালোবাসার জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। প্রণয় প্রস্তাবে সাড়া পেতে পারেন। ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে। বিক্রয়-বাণিজ্যে লাভযোগ আছে

কর্কট (২১ জুন-২০ জুলাই)

শরীর ভালো না-ও থাকতে পারে। পরিমিত আহার করুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন। শত্রু সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। সীমা লঙ্ঘন করা ঠিক হবে না।

সিংহ (২১ জুলাই-২১ আগস্ট)

সম্ভাব্য ক্ষেত্রে সন্তানলাভ হতে পারে। ধর্মীয় কাজে আনন্দ পাবেন। প্রেম-ভালোবাসার জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। মনের মানুষকে মনের কথা স্পষ্ট করে বলুন। রোমান্টিক প্রস্তাবে সাড়া পেতে পারেন।

কন্যা (২২ আগস্ট-২২ সেপ্টেম্বর)

মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। পারিবারিক পরিবেশ অনুকূল থাকতে পারে। আত্মীয়দের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকবে। মন ভালো থাকবে। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

তুলা (২৩ সেপ্টেম্বর-২২ অক্টোবর)

প্রতিবেশীদের সঙ্গে  সম্পর্ক ভালো থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। নতুন আত্মীয়লাভ হতে পারে। প্রবাসী আপনজনের কোনও সংবাদ পেতে পারেন। কাজকর্মে উৎসাহ বোধ করতে পারেন।

বৃশ্চিক (২৩ অক্টোবর-২১ নভেম্বর)

বাড়িতে অতিথি সমাগম হতে পারে। পুরোনো কোনও আত্মীয়ের সঙ্গে দেখা হতে পারে। অধীনদের কাজে লাগাতে পারবেন। মূল্যবোধ বজায় রাখুন। পড়াশোনায় আনন্দ পাবেন।

ধনু (২২ নভেম্বর-২০ ডিসেম্বর)

শরীর ভালো থাকবে। মানসিক প্রশান্তি বজায় থাকতে পারে। ভালো ব্যবহার দিয়ে কাজ আদায় করতে পারবেন। কাউকে দেখে ভালো লাগতে পারে। বিনয়ী আচরণ দিয়ে অন্যের মন জয় করতে পারবেন।

মকর (২১ ডিসেম্বর-১৯ জানুয়ারি)

ব্যয় বৃদ্ধি পেতে পারে। দূরের যাত্রা হতে পারে। শারীরিক অসুস্থতাকে অবহেলা করবেন না। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন। কোনও পূর্বকর্মের ফল ভোগ করতে পারেন।

কুম্ভ (২০ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

আর্থিক দিক ভালো যাবে। আয়-উপার্জন বৃদ্ধি পেতে পারে। কোনও আশা পূরণ হতে পারে। বন্ধুদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকবে। ভবিষ্যতের জন্য কোনও পরিকল্পনা গ্রহণ করতে পারেন।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

সামাজিক কাজে অংশ নিতে পারেন। সে ক্ষেত্রে সাফল্যের সম্ভাবনা আছে। সুনাম ও মর্যাদা বৃদ্ধি পেতে পারে। পিতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। কর্মপরিবেশ অনুকূল থাকতে পারে।

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আজ প্রথম প্রেম দিবস

শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১




নতুন বিপজ্জনক অধ্যায়ে প্রবেশ করেছে আফগানিস্তান: জাতিসংঘ

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তান নতুন বিপজ্জনক অধ্যায়ে প্রবেশ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনার মিশেল ব্যাশেলে।

তিনি বলেন, তালেবান গতমাসে ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তান নতুন এবং এক বিপজ্জনক অধ্যায়ে প্রবেশ করেছে। নারীরাসহ জাতিগত এবং ধর্মীয় অনেক সম্প্রদায়ই গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। তালেবান নারী অধিকার সমুন্নত রাখার আশ্বাস দিলেও গত তিন সপ্তাহে এর উল্টোটাই দেখা গেছে। তালেবানের নতুন সরকারে নারী প্রতিনিধিত্ব না থাকা নিয়েও ব্যাশেলেট হতাশা প্রকাশ করেন।

সোমবার জেনেভায় মানবাধিকার পরিষদে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আফগানিস্তানের তালেবান শাসকরা প্রকাশ্যে মানবাধিকার বিশেষত, নারী অধিকার রক্ষায় যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তা ভঙ্গ করছে। তারা নারীদের ঘরে থাকার নির্দেশ দিচ্ছে, কিশোরীদের স্কুলে যেতে বাধা দিচ্ছে। এমনকি ঘরে ঘরে পুরোনো শত্রুদের খুঁজে বেড়াচ্ছে। কোথাও কোথাও ১২ বছরের মেয়েদের স্কুলে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নারীদের ঘরে থাকতে বলা হয়েছে সে ১৯৯৬-২০০১ সালের সময়কার তালেবান শাসনের মতো।

তাছাড়া, আফগানিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত সরকারের নিরাপত্তা কর্মকর্তা এবং অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তাদেরকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার পরও তালেবান প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছে বলে জানিয়েছেন ব্যাশেলেট।

ওইসব কর্মকর্তাসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে কাজ করা লোকজনদের ঘরে ঘরে গিয়ে তল্লাশি চালানোর একাধিক অভিযোগ পেয়েছে জাতিসংঘ। তাছাড়া জাতিসংঘের কয়েকজন স্টাফও বাড়তে থাকা হামলা এবং হুমকির খবর জানিয়েছে।

ব্যাশেলেট জানান, আফগান সামরিক বাহিনীর সদস্যদের ওপর প্রতিশোধ হামলা হওয়ার খবরও তারা পেয়েছেন। ফলে আফগানিস্তানে মানবাধিকারের বিষয়টি নজরে রাখার ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান তিনি।


আরও খবর



গাজায় মেয়াদোত্তীর্ণ করোনার ভ্যাকসিন পাঠিয়েছে ইসরাইল

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ৫০ হাজার ডোজ মেয়াদোত্তীর্ণ করোনার ভ্যাকসিন পাঠিয়েছে ইসরাইল। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ খবর জানিয়েছে। মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, গাজা উপত্যকায় পাঠানোর জন্য রাশিয়ায় তৈরি ভ্যাকসিনগুলো ইহুদিবাদী ইসরাইলকে দেওয়া হলেও তেলআবিব এগুলো অনুপযুক্ত পরিবেশে রেখে দিয়েছিল।

এ ছাড়া ভ্যাকসিনের চালানটি ঠিক সময়ে গাজায় পৌঁছাতে বাধা দেয় ইসরাইল।  সম্প্রতি গাজার কারেম আবু সালেম ক্রসিং দিয়ে রাশিয়ার তৈরি স্পুৎটনিক লাইট টাইপের ভ্যাকসিনের চালানটি অবরুদ্ধ এ উপত্যকায় পাঠানো হয়। কিন্তু সেফটি টেস্টে দেখা যায়, ভ্যাকসিনগুলোর মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে।

এর আগে ইসরাইলি গণমাধ্যম খবর দিয়েছিল— মেয়াদোত্তীর্ণ হতে যাওয়া ভ্যাকসিনগুলো প্রথমে তেলআবিব পশ্চিমতীরের স্বশাসন কর্তৃপক্ষকে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু মাহমুদ আব্বাসের নেতৃত্বাধীন ফিলিস্তিনি স্বশাসন কর্তৃপক্ষ ওই চুক্তি বাতিল করে দেয়। এর পরই চালানটি গাজা উপত্যকায় পাঠায় দখলদার ইসরাইল।

সর্বশেষ পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গাজা উপত্যকায় এখন পর্যন্ত এক লাখ ৪৭ হাজার ৩৬৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, যাদের মধ্যে এক হাজার ২২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ ছাড়া অবরুদ্ধ এই উপত্যকায় প্রায় ২০ লাখ মানুষ বসবাস করলেও এ পর্যন্ত মাত্র তিন লাখ ৫৪ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসের টিকা নিতে পেরেছেন। পশ্চিমতীর ও গাজা উপত্যকায় বসবাসরত ফিলিস্তিনি নাগরিকদের জন্য করোনাভাইরাসের টিকা সরবরাহ করার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে ইহুদিবাদী ইসরাইল চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে।

অথচ ইসরাইল তার প্রাপ্তবয়স্ক প্রায় সব নাগরিককে টিকার আওতায় এনেছে এবং অনেকে এরই মধ্যে তৃতীয় অর্থাৎ বুস্টার ডোজও নিয়ে ফেলেছে।


আরও খবর



গাড়ি না কিনে ১৫ কোটি টাকা চিকিৎসা সেবায় দান করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ইহসানুল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের স্বাস্থ্যের বিষয়টি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন

নিজের অফিসের জন্য গাড়ি ক্রয় না করে সেই টাকা সাধারণ মানুষের চিকিৎসা সেবায় খরচের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুকূলে মোটরযান ক্রয় খাতে ১৫ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এই টাকা মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় খরচ করতে দেওয়া হয়েছে।

ইহসানুল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের স্বাস্থ্যের বিষয়টি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী তার নিজের কার্যালয়ের জন্য গাড়ি ক্রয় বাতিল করে সেই টাকা মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় খরচ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রী ডাক্তার, স্বাস্থ্য কর্মী নিয়োগ থেকে শুরু করে, স্বাস্থ্যের অবকাঠামো ও সরঞ্জাম সুবিধা বাড়ানো, আইসিইউ বৃদ্ধি, হাসপাতালের সক্ষমতা বাড়ানো, স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রণোদনা, বিনামূল্যে করোনা টিকা সরবরাহসহ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে পদক্ষেপ নিয়েছেন। মানুষের স্বাস্থ্যসেবার জন্য তিনি বিশেষ বরাদ্দের ব্যবস্থা করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মো. আহসান কিবরিয়া সিদ্দিকি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গাড়ি কেনার ১৫ কোটি টাকা স্বাস্থ্য সেবার কাজে দিয়ে মিতব্যয়ীতার নজির স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


আরও খবর



দিল্লির আদালতে গোলাগুলি, গ্যাংস্টারসহ নিহত ৪

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের দিল্লিতে আদালতের ভেতর গোলাগুলির ঘটনায় এক গ্যাংস্টারসহ চারজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন কয়েকজন। ভারতের একাধিক সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিল্লির রোহিণী আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল কুখ্যাত গ্যাংস্টার জিতেন্দ্র ওরফে গোগীকে। তাকে লক্ষ্য করে আগে থেকেই সেখানে হাজির ছিল তার প্রতিদ্বন্দ্বী একটি গ্যাংয়ের সদস্যরা।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গোগীকে নিয়ে যখন আদালত চত্বরে ঢোকে পুলিশ। তখনই তার উপর হামলা চালায় দুইজন। এলোপাথাড়ি গুলির মধ্যে পড়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় গোগীর। পাল্টা পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে দুই হামলাকারী।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঘটনার ফুটেজে গোলাগুলির শব্দ শোনা যায়। পুলিশ সদস্য ও আইনজীবীদের হুড়াহুড়ি করতে দেখা গেছে।

গোলাগুলিতে নিহত চারজনের মধ্যে দুই হামলাকারীও রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তারা নিরাপত্তাকর্মীদের হাতে নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, বেশ কিছু অপরাধে জড়িত কুখ্যাত গ্যাংস্টার জিতেন্দর গোগী দিল্লির তিহার কারাগারে ছিলেন। তাকে রোহিনীর আদালতে তোলার সময় প্রতিদ্বন্দ্বী তিল্লু গ্যাংয়ের সদস্যরা সেখানে উপস্থিত হয়। হামলাকারীরা আইনজীবীর পোশাকে প্রকাশ্যে গুলি চালায়।


আরও খবর



পিএইচডি-মাস্টার্স ডিগ্রি মূল্যহীন

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সদ্য দায়িত্ব নেওয়া তালেবান সরকারের শিক্ষামন্ত্রী শেখ মৌলভী নরুদ্দিন মুনির বলেছেন, পিএইচডি আর মাস্টার্স ডিগ্রির কোনো মূল্য নেই।

নব নিযুক্ত শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আফগানিস্তানে পিএইচডি আর মাস্টার্স  ডিগ্রির কোনো মূল্যই নেই।কারণ মোল্লাদের এসব ডিগ্রি না থাকলেও তারা সবচেয়ে বেশি ক্ষমতা রাখে আর তারাই 'সর্বশ্রেষ্ঠ'।বুধবার একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা এ খবর জানা গেছে।

তিনি বলেন, আজকের দিনে পিএইচডি আর মাস্টার্স ডিগ্রির কোনো মূল্য নেই। মোল্লা আর তালেবান নেতারা ক্ষমতায় এসেছে। তাদের পিএইচডি, মাস্টার্স  কিংবা হাইস্কুলের ডিগ্রিও নেই। তারপরও তারা সবচেয়ে বেশি ক্ষমতা রাখে আর তারাই 'সর্বশ্রেষ্ঠ'।

গত সোমবার থেকে আফগানিস্তানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী ও পুরুষ শিক্ষার্থীদের পর্দার আড়ালে রেখে পাঠদান শুরু হয়েছে। 

আফগানিস্তানের নারীরা শুধু হিজাব পরে মুখ খোলা রেখেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কর্মক্ষেত্রে অংশ নিতে পারবে বলে এর আগে দেওয়া প্রতিশ্রুতি থেকে সরে এসে নতুন নির্দেশনা জারি করেছে তালেবান।

তালেবানের উচ্চশিক্ষা মন্ত্রণালয় ওই নির্দেশনায় আরও বলেছে, নারী শিক্ষার্থীদের ক্লাস অবশ্যই নারী শিক্ষকরা নেবেন বলে নির্দেশনায় জানানো হয়েছে। নারী শিক্ষক না থাকলে সচ্চরিত্রের বয়স্ক পুরুষ শিক্ষকরাও পড়াতে পারেন।


আরও খবর