আজঃ মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

খেলাপি ঋণ ১ লাখ কোটি টাকা ছাড়াল

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছরের সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ১ হাজার ১৫০ কোটি টাকা। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে খেলাপি ঋণ ছিল ৮৮ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা। সে হিসাবে চলতি বছরের প্রথম নয় মাসে খেলাপি ঋণ ১২ হাজার ৪১৬ কোটি টাকা বেড়েছে। সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৪৫ হাজার ৩৯১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। 

ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ৮ দশমিক ১২ শতাংশ খেলাপির খাতায় উঠেছে। ২০১৯ সালে দেশের ব্যাংক খাতের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সেপ্টেম্বর শেষে রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের স্থিতি ছিল ২ লাখ ১৯ হাজার ২৯২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৪৪ হাজার ১৬ কোটি টাকাই খেলাপির খাতায় উঠেছে। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ২০ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ বর্তমানে খেলাপি। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে এসব ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ছিল ৪২ হাজার ২৭৩ কোটি টাকা। ওই সময় বিতরণকৃত ঋণের পরিমাণ ছিল ২ লাখ ২ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা।

সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশের বেসরকারি ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের স্থিতি ছিল ৯ লাখ ২৮ হাজার ৪৯৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৫০ হাজার ৭৪৩ কোটি টাকা ছিল খেলাপি, যা বিতরণকৃত ঋণের ৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ। গত ডিসেম্বরে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৪০ হাজার ৩৬১ কোটি টাকা। সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিদেশি  ব্যাংকের খেলাপি হয়েছে ২ হাজার ৬৯২ কোটি টাকার ঋণ, যা এসব ব্যাংকের বিতরণকৃত ঋণের ৪ দশমিক ১২ শতাংশ। বিদেশি ব্যাংকের বিতরণকৃত ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ৬৫ হাজার ২৬২ কোটি টাকা। এছাড়া সরকারি বিশেষায়িত তিন ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ৩ হাজার ৬৯৯ কোটি টাকায় পৌঁছেছে। বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ১১ দশমিক ৪৪ শতাংশ বর্তমানে খেলাপি।

নিউজ ট্যাগ: খেলাপি ঋণ

আরও খবর
আগামীকাল জাতীয় আয়কর দিবস

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় পাসের হার ৩৩ শতাংশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ২৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) বিভিন্ন বিভাগে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। ফল পর্যবেক্ষণ করে এবার পাসের হার ৩৩ দশমিক শূন্য ৩।

ফলাফল অনুযায়ী, লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৫ হাজার ৯৪৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১ হাজার ৯৮০ জন ভর্তির জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত ও অপেক্ষমাণ তালিকায় স্থান পেয়েছেন। সেই হিসাবে পাসের হার ৩৩ দশমিক শূন্য ৩। যাচাই-বাছাইয়ের পর এই শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে ১ হাজার ২১৫ জন এবার বুয়েটে ভর্তির সুযোগ পাবেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে বুয়েটের ওয়েবসাইট ও নোটিশ বোর্ডে ভর্তি পরীক্ষার এ ফল প্রকাশ করা হয়।

গত ২০ ও ২১ অক্টোবর বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষার প্রাক-নির্বাচনী পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। সেই পরীক্ষার ফলাফলে প্রথম ছয় হাজার জনকে লিখিত পরীক্ষার জন্য মনোনীত করা হয়। ৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষায় ছয়জন প্রার্থী অনুপস্থিত ছিলেন। শুধু লিখিত পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে ভর্তিযোগ্য প্রার্থীদের মেধাতালিকা তৈরি করেছে বুয়েট।

বুয়েটে এবার মোট আসন ১ হাজার ২১৫টি। প্রকৌশল বিভাগগুলো এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মোট আসন ১ হাজার ১৫৫টি (৩টি সংরক্ষিত আসনসহ) আর স্থাপত্য বিভাগের জন্য আসন ৬০টি (১টি সংরক্ষিত আসনসহ)।

বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষার লিখিত পর্ব হয় দুটি গ্রুপে। ক গ্রুপে ছিল প্রকৌশল বিভাগগুলো এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ। খ গ্রুপে প্রকৌশল বিভাগগুলো এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের পাশাপাশি স্থাপত্য বিভাগ। প্রাক-নির্বাচনী পর্বে ক ও খ দুই গ্রুপের জন্যই গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয়ের ওপর ১০০ নম্বরের বহুনির্বাচনী পরীক্ষা হয়। লিখিত পর্বে ক গ্রুপের জন্য ৪০০ ও খ গ্রুপের জন্য ৬৫০ নম্বরের পরীক্ষা হয়। এ ক্ষেত্রে ক গ্রুপের পরীক্ষা হয় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয়ের ওপর আর খ গ্রুপে গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়নের পাশাপাশি মুক্তহস্ত অঙ্কন এবং দৃষ্টিগত ও স্থানিক ধীশক্তি বিষয়ের ওপর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৫ হাজার ৯৪৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১ হাজার ৯৮০ জন ভর্তির জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত ও অপেক্ষমাণ তালিকায় স্থান পেয়েছেন।

বুয়েটে এবার মোট আসন ১ হাজার ২১৫ টি। প্রকৌশল বিভাগগুলো এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মোট আসন ১ হাজার ১৫৫টি (৩টি সংরক্ষিত আসনসহ) আর স্থাপত্য বিভাগের জন্য আসন ৬০টি (১টি সংরক্ষিত আসনসহ)।

প্রকাশিত ফলাফলে স্থাপত্য বিভাগে ভর্তির জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হয়েছেন ৬০ জন আর অপেক্ষমাণ তালিকায় আছেন ১২০ জন। প্রকৌশল বিভাগগুলো এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগে ভর্তির জন্য ১ হাজার ১৫৫ জন শিক্ষার্থী প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হয়েছেন, অপেক্ষমাণ তালিকায় আছেন ৬৪৫ জন।

নিউজ ট্যাগ: বুয়েট

আরও খবর



দলীয় পদ হারালেন গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | ৮৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি করার দায়ে সাংগঠনিকভাবে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। তাকে আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি হারাতে হচ্ছে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদও।

শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে নেওয়া হবে আইনগত ব্যবস্থা বলে জানা গেছে আওয়ামী লীগের বৈঠক সূত্র থেকে।

এছাড়া বৈঠকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়ামের সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম ও অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।


আরও খবর



ভোমরা স্থল বন্দরে আটকা পড়েছে ৩০০ পণ্যবাহী ট্রাক

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ নভেম্বর ২০২১ | ৫৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ধর্মঘটের প্রভাবে সাতক্ষীরার ভোমরাস্থল বন্দরে আটকা পড়েছে ৩০০ ভারতীয় ট্রাক। বাংলাদেশি ট্রাকের অভাবে আমদানি করা ভারতীয় ট্রাক থেকে পণ্য পরিবহন করতে পারছেন না আমদানিকারকরা। এতে বিপাকে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা।

ভোমরা বন্দরের সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম জানান, শনিবার (৬ নভেম্বর) ৪০০ পণ্যবাহী ট্রাক ভারত থেকে দেশে প্রবেশ করেছে। এর মধ্যে ১০০ ট্রাক ডেলিভারি দেওয়া গেছে। বাকি ৩০০ ভারতীয় ট্রাক বন্দরে আটকা পড়ে রয়েছে।

আমদানিকৃত ট্রাক থেকে পণ্য পরিবহন করতে বাংলাদেশি ট্রাকের সংকটের কারণে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। যেহেতু আমদানি-রফতানি কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে সেহেতু দ্রুত সময়ের মধ্যে ধর্মঘট প্রত্যাহার না হলে ধীরে ধীরে এর পরিমাণ আরও বাড়বে।

ভোমরা কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার আমির মামুন বলেন, সকাল ৯টা থেকে বন্দরের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম স্বাভাবিক নিয়মে শুরু হয়েছে। শনিবার ৪০০ পণ্যবাহী ট্রাক দেশে প্রবেশ করেছে। তবে বাংলাদেশি ট্রাকসংকট থাকায় আমদানিকারকরা পণ্য পরিবহন করতে পারছেন না বলে জানাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

নিউজ ট্যাগ: ভোমরাস্থল বন্দর

আরও খবর



টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ের হালনাগাদ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৩০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সদ্যসমাপ্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও তার পরবর্তী টি-টোয়েন্টি সিরিজের পারফরম্যান্সের ছাপ পড়েছে আইসিসির সদ্য প্রকাশিত ব়্যাঙ্কিংয়ে। টি-টোয়েন্টিতে পুরুষ ব্যাটারদের মধ্যে এক নম্বরে আছেন বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে তোলা বাবার আজম।

এছাড়া ভারতের কে এল রাহুল একধাপ উপরে উঠে এসেছেন। আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে প্রথম দশে একমাত্র ভারতীয় খেলোয়াড় হিসেবে জায়গা হয়েছে ভারতীয় ওপেনার রাহুলের। ৫ নম্বর স্থান পেয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে লাগাতার খারাপ পারফরম্যান্সের জেরে প্রথমে দশে জায়গা হল না বিরাট কোহলির। নিউজিল্যান্ড বিরুদ্ধে না খেলা বিরাটের ব়্যাঙ্কিংয়ে ছাপ ফেলেছে। প্রায় আঠারো মাস বাদে টি-টোয়েন্টি ব়্যাঙ্কিংয়ের প্রথম দশ থেকে বাদ পড়লেন কোহলি। বর্তমান ব্যাটারদের মধ্যে ১১ নম্বরে স্থান হয়েছে তার।

এছাড়া টি-টোয়েন্টি বোলিং র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে আছেন শ্রীলঙ্কার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। আর অলরাউন্ডার র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে আছেন আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী।

 


আরও খবর
হারের শঙ্কায় টাইগাররা

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




আগাম আলু তুলতে ব্যস্ত কৃষকেরা

প্রকাশিত:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নীলফামারী কিশোরগঞ্জ উপজেলার কৃষকেরা আগাম আলু তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ফলন একটু কম হলেও চড়া দামে বিক্রি করে লাভবান হবেন এমনটাই আশা করছেন আলু চাষিরা। দেশের বাজারে এই প্রথম নতুন আলু উঠতে শুরু করেছে। এ আলু ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল, খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের সরবরাহ করা হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কৃষক মমিনুর রহমান জানান, ২ বিঘা জমিতে আলু লাগিয়েছি ভালো দামের আশায়। তবে জমি উঁচু হওয়ায় আশ্বিনা বৃষ্টিপাতে তেমন কোন ক্ষতি হয়নি। এখন সেই জমির আলু তুলছি। যা ১০ থেকে ১২ বস্তা আলু হবে। এতে খরচ বাদে দ্বিগুণ টাকা আয় হবে। স্থানীয় কৃষকরা জানান, আগাম আলুর মৌসুমে বৈরী আবহাওয়ায় কারণে আগাম আলু চাষিরা বিপাকে না পড়লে ইতোমধ্যে ৩০ শতাংশ জমির আলু বাজারে চলে আসত। এখন আলু তোলা শুরু হয়েছে।

আর কদিন গেলে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে আলু উত্তোলন শুরু হবে। তবে বাজার দর ঠিক থাকলে আলু চাষিরা লাভবান হবেন। আলু উত্তোলনের পর ওই জমিতে পুনরায় নমলা আলুসহ  সাথী ফসল হিসেবে ভুট্রা, মিষ্টি কুমড়া, কাঁচামরিচ ও শীতকালীন সবজি চাষ করা হয়। পরবর্তীতে ওই ফসলগুলোতে সার প্রয়োগের প্রয়োজন হয় না।

কিশোরগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার মো. হাবিবুর রহমান জানান, চলতি বছর ৬ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। নতুন আলু উঠতে শুরু করেছে। বর্তমান আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আলুর বাম্পার ফলনের আশা করা হচ্ছে। কৃষকরা ভাল দাম পেলে আগামীতে আগাম আলু চাষে উৎসাহিত হবেন। মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা প্রতিনিয়ত কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছেন।

 

নিউজ ট্যাগ: আগাম আলু

আরও খবর
চা-চাষে সম্ভাবনার দুয়ার খুলেছে নীলফামারীতে

বৃহস্পতিবার ০৭ জানুয়ারী ২০২১