আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

করোনা: একদিনে শনাক্ত আরও ৬ লাখ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। একইসঙ্গে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় দুই হাজার মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় ৬ লাখে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে যুক্তরাজ্য। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে জার্মানি, কানাডা, ব্রাজিল, ফিনল্যান্ড, ইতালি ও রাশিয়া। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫১ কোটি ৯৬ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৬২ লাখ ৮৪ হাজার।

শুক্রভার (১৩ মে) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ৯৩৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে চার শতাধিক। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬২ লাখ ৮৪ হাজার ৩৮৪ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৯২ হাজার ৯৫৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ২২ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১ কোটি ৯৬ লাখ ৪৩ হাজার ২৮২ জনে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ৬৫২ জন এবং মারা গেছেন ১৭৯ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে ইউরোপের এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৫৬ লাখ ৬৫ হাজার ৯১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৩৭ হাজার ৬২৮ জন মারা গেছেন।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে যুক্তরাজ্য। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৮৪ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৪৫৮ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ২১ লাখ ৫৯ হাজার ৬১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৭৬ হাজার ৭০৮ জন মারা গেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৯০০ জন এবং মারা গেছেন ২০৭ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৮ কোটি ৪০ লাখ ৫৪ হাজার ৬৩৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১০ লাখ ২৬ হাজার ৯৪ জন মারা গেছেন।

ফ্রান্সে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৪৭ জন এবং মারা গেছেন ৮৪ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৯০ লাখ ৯৭ হাজার ৫৭০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৪৭ হাজার ১৫৯ জন মারা গেছেন। একইসময়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ৯২০ জন এবং মারা গেছেন ২১ জন।

রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১১১ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪ হাজার ৬৫ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৮২ লাখ ৪৫ হাজার ৩৯৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৩৫৯ জনের। একইসময়ে থাইল্যান্ডে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ১৯ জন এবং মারা গেছেন ৫৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫ হাজার ৮৮৩ জন এবং মারা গেছেন ৬৩ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে পূর্ব এশিয়ার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৭৬ লাখ ৯৪ হাজার ৬৭৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ২৩ হাজার ৫৫৪ জন মারা গেছেন। গত একদিনে ফিনল্যান্ডে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৯৭৩ জন এবং মারা গেছেন ১৩৪ জন।

ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৩১৭ জন এবং মারা গেছেন ১৩০ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে ইউরোপের এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৬৯ লাখ ৫৪ হাজার ৭৮৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৬৪ হাজার ৯৭৬ জন মারা গেছেন। একইসময়ে জাপানে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫ হাজার ৭৪০ জন এবং মারা গেছেন ৪১ জন।

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৩৬ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ২১ হাজার ৩৪৪ জন। অপরদিকে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩ কোটি ৬ লাখ ৩৯ হাজার ১২৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৬৪ হাজার ৭০০ জনের।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ১৮৭ জন। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৩১ লাখ ১৬ হাজার ৬০০ জন এবং মারা গেছেন ৫ লাখ ২৪ হাজার ১৮১ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭ হাজার ৩১৪ জন এবং মারা গেছেন ৫৫ জন। একই সময়ে কানাডায় নতুন করে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ৮৬৫ জন এবং মারা গেছেন ১৭৭ জন। গ্রিসে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৭৮২ জন এবং মারা গেছেন ২০ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



হজের নিবন্ধন চলবে ১৬ থেকে ১৮ মে তিন দিন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছর হজ যাত্রী নিবন্ধন চলবে মাত্র তিন দিন। সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনের জন্য হজযাত্রী নিবন্ধন শুরু হবে আগামী ১৬ মে। চলবে ১৮ মে পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে অর্থ পরিশোধ করে নিবন্ধিত হতে হবে।

বৃহস্পতিবার ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ‌২০২২ সালের হজযাত্রী নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি’তে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সরকারি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ২০২০ সালের নিবন্ধিত সকল হজ যাত্রী এবং প্রাক-নিবন্ধনের সর্বশেষ ক্রমিক নম্বর ২৫ হাজার ৯২৪ পর্যন্ত এ বছর হজের নিবন্ধনের আওতায় আসবেন। বেসরকারি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ২০২০ সালের সকল নিবন্ধিত ব্যক্তি এবার নিবন্ধনের আওতায় আসবেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, হজযাত্রী নিবন্ধনের জন্য আবশ্যই পাসপোর্ট থাকতে হবে। পাসপোর্ট স্ক্যান করে নিবন্ধন তথ্য পূরণ করতে হবে। হজযাত্রীর পাসপোর্টের মেয়াদ হজের দিন থেকে পরবর্তী ছয় মাস অর্থাৎ ২০২৩ সালের ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত থাকতে হবে। হজযাত্রীর দাখিল করা পাসপোর্টের সঠিকতা অনলাইনে যাচাই করা হবে।

নিবন্ধনের পর কোনো হজযাত্রী কোনো কারণে হজে যেতে না পারলে শুধু বিমান ভাড়া এবং খাবার বাবদ গ্রহণ করা টাকা ফেরত পাবেন। তবে বিমানের টিকিট নিশ্চিত হওয়ার পর হজযাত্রা বাতিল করলে বিমানের টিকিটের টাকাও ফেরত পাবেন না বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে ২০২০ সালে নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য অনুসরণীয় বিষয়াদি, ২০২২ সালে নির্বাচিত প্রাক-নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য অনুসরণীয় বিষয়াদি, বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের জন্য নিবন্ধন স্থানান্তরের জন্য অনুসরণীয় বিষয়াদি নিয়ে বিস্তারিত নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: হজের নিবন্ধন

আরও খবর



টানা ২৩ দিন করোনায় মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত ২২

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় কেউ মারা যায়নি আর শনাক্ত হয়েছেন ২২ জন। এ নিয়ে টানা ২৩ দিন করোনায় কারো মৃত্যু হয়নি। এখন পর্যন্ত মৃত্যু ২৯ হাজার ১২৭ জন এবং শনাক্ত ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৯৭৯ জন।

শনিবার (১৪ মে) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। আর গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ০ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

এদিন সুস্থ হয়েছেন ২২০ জন এবং এখন পর্যন্ত সুস্থ ১৮ লাখ ৯৯ হাজার ১৫০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৩ হাজার ৯৪৮টি, অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩ হাজার ৯৬৫টি। এখন পর্যন্ত এক কোটি ৪০ লাখ ৪৪ হাজার ৯৩৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতি ১০০ নমুনায় ০ দশমিক ৫৫ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত ১৩ দশমিক ৯১ শতাংশ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত বিবেচনায় প্রতি ১০০ জনে সুস্থ হয়েছে ৯৭ দশমিক ২৪ শতাংশ এবং মারা গেছেন ১ দশমিক ৪৯ শতাংশ।


আরও খবর



এপ্রিলে সড়কে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি মোটরসাইকেলে

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত এপ্রিল মাসে সারাদেশে ৪২৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৪৩ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ৬৭ জন নারী ও ৮১ জন শিশু। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৬১২ জন। এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে ছিল ঈদযাত্রার সময়। এ মাসে সড়কে সবচেয়ে বেশি প্রাণ হারিয়েছেন মোটরসাইকেল চালক ও আরোহী। ১৮৯টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ২০৬ জন, যা এপ্রিলে সড়ক দুর্ঘটনায় মোট মৃত্যুর ৩৭ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

দুর্ঘটনায় এপ্রিলে প্রতিদিন গড়ে নিহত হয়েছেন ১৮ জন। এর আগের মাস মার্চে প্রতিদিন গড় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৯ জন। এ হিসাবে মার্চের তুলনায় এপ্রিলে প্রাণহানি কমেছে ৪ দশমিক ৭৩ শতাংশ। তবে এটা উন্নতির কোনো টেকসই সূচক নির্দেশ করে না। দুর্ঘটনায় ৪৩১ জন ১৮-৬৫ বছর বয়সী কর্মক্ষম মানুষ নিহত হয়েছেন।

‘রোড সেফটি ফাউন্ডেশন’র এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। এ সংস্থাটি দেশের সাতটি জাতীয় দৈনিক, পাঁচটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার তথ্যের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদন করেছে। শনিবার (৭ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিবেদনের তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার পরই বেশি হতাহত হয়েছেন সাধারণ পথচারী। এপ্রিলে নিহতদের মধ্যে পথচারী ১১৬ জন, যা মোট নিহতের ২১ দশমিক ৩৬ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ৮৭ জন, যা মোট নিহতের ১৬ শতাংশ। এসময়ে ছয়টি নৌ-দুর্ঘটনায় আটজন নিহত হয়েছেন। নিখোঁজ হয়েছেন ছয়জন। রেলপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে ২১টি। এতে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের। আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন।

এছাড়া সড়ক দুর্ঘটনায় বাসের যাত্রী নিহত হয়েছেন ১৩ জন, যা একমাসে মোট নিহতের ২ দশমিক ৩৯ শতাংশ। ট্রাক-পিকআপ-ট্রাক্টর-ট্রলি আরোহী নিহত হয়েছেন ৬৩ জন, যা মোট নিহতের ১১ দশমিক ৬০ শতাংশ। মাইক্রোবাস-প্রাইভেটকার-অ্যাম্বুলেন্স-পুলিশের গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে নিহত হয়েছেন ১৪ জন, যা মোট মৃত্যুর ২ দশমিক ৫৭ শতাংশ। ইজিবাইক-সিএনজি-অটোরিকশা-অটোভ্যান-মিশুক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন ১০০ জন, যা মোট মৃত্যুর ১৮ দশমিক ৪১ শতাংশ।

নসিমন-ভটভটি-আলমসাধু-টমটমের ১৯ যাত্রী নিহত হয়েছেন, যা মোট মৃত্যুর ৩ দশমিক ৪৯ শতাংশ। এছাড়া বাইসাইকেল-প্যাডেল রিকশা-রিকশাভ্যানের ১২ জন আরোহী নিহত হয়েছেন, যা মোট মৃত্যুর ২ দশমিক ২০ শতাংশ।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ অনুযায়ী, দুর্ঘটনাগুলোর মধ্যে ১৮৭টি সংঘটিত হয়েছে জাতীয় মহাসড়কে, যা এপ্রিলের মোট দুর্ঘটনার ৪৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ। আঞ্চলিক মহাসড়কে ঘটেছে ১২৩টি দুর্ঘটনা, যা মোট দুর্ঘটনার ২৮ দশমিক ৮০ শতাংশ। গ্রামীণ সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৬৫টি, যা মোট দুর্ঘটনার ১৫ দশমিক ৪২ শতাংশ, শহরের সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪৬টি, যা মোট দুর্ঘটনার ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ। আর অন্যান্য স্থানে ছয়টি দুর্ঘটনা ঘটেছে, যা আলোচিত মাসের মোট দুর্ঘটনার ১ দশমিক ৪০ শতাংশ।

এসব দুর্ঘটনা ৮৪টি মুখোমুখি সংঘর্ষ, ১৬৭টি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে, ১১৩টি পথচারীকে চাপা বা ধাক্কা দেওয়া, ৫২টি যানবাহনের পেছন থেকে ধাক্কা দেওয়া এবং ১১টি অন্যান্য কারণে সংঘটিত হয়েছে। দুর্ঘটনায় সম্পৃক্ত যানবাহনের সংখ্যা ৭৫৭টি। এরমধ্যে ট্রাক ১৪৪, বাস ৭৯, কাভার্ডভ্যান ২৬, পিকআপ ৫৮, ট্রলি ৯, লরি ১০, ট্রাক্টর ১৭, তেলবাহী ট্যাঙ্কার তিনটি, গ্যাস সিলিন্ডারবাহী ট্যাঙ্কার একটি, ডিএনসিসির ময়লাবাহী ট্রাক একটি, ড্রাম ট্রাক সাতটি, মাইক্রোবাস ১৭, প্রাইভেটকার ১৪, অ্যাম্বুলেন্স তিনটি, পুলিশ জিপ একটি, মোটরসাইকেল ১৯৭, থ্রি-হুইলার ১১৬। এছাড়া স্থানীয়ভাবে তৈরি যানবাহন ৪৩ এবং বাইসাইকেল-প্যাডেল রিকশা-রিকশাভ্যান ১১ টি।

বিভাগওয়ারী পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এপ্রিলে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি হয়েছে ঢাকা বিভাগে। এ মাসে সংঘটিত মোট দুর্ঘটনার ৩০ দশমিক ৬৭ শতাংশ ঢাকা বিভাগে। এপ্রিলে সড়কে প্রাণহানির ২৮ দশমিক ৭২ শতাংশ ঢাকায়। মোট দুর্ঘটনার ১২ দশমিক ৪১ শতাংশ রাজশাহী বিভাগে। এছাড়া চট্টগ্রামে ২৪ দশমিক ১২ শতাংশ, খুলনায় ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ, বরিশালে ৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ, সিলেটে ৪ দশমিক ৪৪ শতাংশ, রংপুরে ৬ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং ময়মনসিংহে ৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী। এপ্রিলে সড়কে প্রাণ ঝরেছে ৬৩ জন শিক্ষার্থীর। এছাড়া রাজনৈতিক নেতা ১২ জন, ব্যবসায়ী ৩১ জন, শিক্ষক ১৩ জন, পুলিশ সদস্য চারজন, সেনাসদস্য একজন, র‌্যাব সদস্য একজন, বিজিবি সদস্য একজন, গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য দুজন, ফায়ার সার্ভিসের সদস্য একজন, চিকিৎসক দুজন, সাংবাদিক তিনজন, আইনজীবী চারজন, প্রকৌশলী দুজন, সংগীত শিল্পী একজন, ব্যাংক কর্মকর্তা ৯ জন, এনজিও কর্মকর্তা ১১ জন, ওষুধ ও বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী বিক্রয় প্রতিনিধি ১৯ জন, পোশাকশ্রমিক সাতজন, চালকল শ্রমিক দুজন, ইটভাটা শ্রমিক চারজন, ধানকাটা শ্রমিক ছয়জন, মাটিকাটা শ্রমিক চারজন।

যেসব কারণে দুর্ঘটনা: সংস্থাটি বলছে ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন, বেপরোয়া গতি, চালকদের বেপরোয়া মানসিকতা, অদক্ষতা ও শারীরিক-মানসিক অসুস্থতার কারণে সড়কে বেশি দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়া বেতন ও কর্মঘণ্টা নির্দিষ্ট না থাকা, মহাসড়কে স্বল্পগতির যানবাহন চলাচল, তরুণ ও যুবদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো, জনসাধারণের মধ্যে ট্রাফিক আইন না জানা ও না মানার প্রবণতা, দুর্বল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা, বিআরটিএ’র সক্ষমতার ঘাটতি, গণপরিবহন খাতে চাঁদাবাজি সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ।

নিউজ ট্যাগ: সড়ক দুর্ঘটনা

আরও খবর



ভারতের মধ্যপ্রদেশে ভবনে আগুন, নিহত ৭

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে একটি দোতলা ভবনে আগুন লেগে অন্তত সাতজন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় শনিবার ভোরে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। পুলিশ জানায়, নিহতদের মধ্যে দুজন নারীও রয়েছেন। ওই ভবন থেকে নয়জনকে এ পর্যন্ত উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচজনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এনডিটিভি জানায়, ইন্দোরের স্বর্ণবাগ কলোনির ওই ভবনের বেসমেন্টের প্রধান বৈদ্যুতিক সরবরাহ ব্যবস্থায় শর্ট সার্কিটের কারণে আগুনের সূত্রপাত হয়। বেজমেন্টে পার্ক করা গাড়িতে দ্রুত আগুন ধরে যায়। এরপর তা পুরো ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। আগুন লাগার সময় ভবনের বাসিন্দারা ঘুমিয়ে ছিলেন বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এই ঘটনার ভবনের মালিক আনসার প্যাটেলকে আটক করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ভবনটিতে কোনো অগ্নি নিরাপত্তা সরঞ্জাম স্থাপন না করায় অবহেলাজনিত মৃত্যুর অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন।


আরও খবর



এসেছে ছায়াবৃক্ষ চলচ্চিত্রের পোস্টার

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | ৬০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শুটিং শেষ করে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজও প্রায় শেষ। আগামী জুলাইয়ে ছায়া বৃক্ষ ছবিটির মুক্তির কথা ভেবে রেখেছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অনুপম কথাচিত্র। তার আগে প্রথম ঝলক পোস্টার প্রকাশিত হলো। চাবাগানের শ্রমিক বেশে ছবির চিত্রনায়ক নিরব ও চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের একটি স্থিরচিত্র দিয়ে প্রকাশ করেছে পোস্টার।

ছবির পরিচালক বন্ধন বিশ্বাস বলেন, শুরুতে ছবির একটি গান প্রকাশ করার কথা ছিল। কিন্তু সিদ্ধান্ত বদল করে এখন পোস্টার প্রকাশ করলাম। আগামী জুলাই মাসের শুরুতে ছবিটি মুক্তি দিতে চাই। তার আগে দর্শক আগ্রহ বাড়াতে নানাভাবে ছবিটির বিভিন্ন খবর দর্শকের সামনে তুলে ধরতে চাই। কিছুদিন পর ছবির গান প্রকাশ করার ইচ্ছা। পর্যায়ক্রমে নানা কিছু আসবে ছবির।

ছবিতে চা-শ্রমিকের চরিত্রে অভিনয় করছেন অপু বিশ্বাস। চুক্তিবদ্ধ হওয়ার সময় চরিত্রটির জন্য পরিচালকের পরামর্শে ওজন কমানোর যুদ্ধে নেমেছিলেন তিনি।

নিরব এর আগে বেশির ভাগ বাণিজ্যিক ঘরানার ছবিতে কাজ করেছেন। এই প্রথম তিনি একজন চা-বাগানের শ্রমিকের চরিত্রে অভিনয় করলেন।

ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অনুপম কথাচিত্রের স্বত্বাধিকারী অনুপ কুমার বড়ুয়া জানালেন, ঈদের পরপরই সেন্সর ছাড়পত্রের জন্য জমা দেওয়া হবে ছায়া বৃক্ষ। আর চাঁদরাত ১২টার পরই এ ছবিতে ইমরান ও কোনালের গাওয়া একটি গান প্রকাশ করা হবে। প্রযোজক বললেন, ‘“ছায়া বৃক্ষ চলচ্চিত্রের পক্ষ থেকে গানপ্রেমীদের জন্য ঈদ উপহার হিসেবে গানটি প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ঈগল মিউজিকের ইউটিউব থেকে গানটি উপভোগ করতে পাবেন শ্রোতারা।

নিরব-অপু বিশ্বাস ছাড়াও ছায়াবৃক্ষতে আরও অভিনয় করেছেন কাজী নওশাবা আহমেদ, শতাব্দী ওয়াদুদ, বড়দা মিঠু, ইকবাল আহমেদ। ছায়াবৃক্ষ- চলচ্চিত্রে আরেকটি গানে দ্বৈতভাবে কণ্ঠ দিয়েছেন আঁখি আলমগীর ও কিশোর। এ ছবিতে আছে ফজলুর রহমান বাবুর গানও। ২০১৯-২০ সালের সরকারের অনুদানের এ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন শতাব্দী ওয়াদুদ, নওশাবা, সুমিত প্রমুখ।

নিউজ ট্যাগ: ছায়াবৃক্ষ

আরও খবর