আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু আরও কমল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এটি চার মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু। এর চেয়ে কম মৃত্যু হয়েছিল গত ২৭ মে। সেদিন মারা যান ২২ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ২৭ হাজার ৩৩৭ জনে।

২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ১৪৪ জনের। শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬১ শতাংশ। বুধবার শনাক্তের হার ছিল ৪ দশমিক ৭৯ শতাংশ। ফলে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৪৮ হাজার ৩২০ জনে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে বুধবার ৩৬, মঙ্গলবার ২৬, সোমবার ২৬, রোববার ৪৩, শনিবার ৩৫, শুক্রবার ৩৮ জনের মৃত্যু হয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৬৫৩ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৭ হাজার ৭৮৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪ হাজার ৮৬৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ২৪ হাজার ৮২০টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬১ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট ৯৫ লাখ ৫১ হাজার ৯৭০টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ২১ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় যে ৩৬ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ১০ জন এবং নারী ১৪ জন। এ সময়ের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। চট্টগ্রামে ৬, খুলনায় ৩, সিলেটে ৩, রংপুর ১ জন মারা গেছেন। তবে বরিশাল, রাজশাহী ও ময়মনসিংহে কারও মৃত্যু হয়নি।


আরও খবর



ভারত থেকে ১০ লাখ টিকা ঢাকায় পৌঁ‌ছে‌ছে

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | ৪৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দীর্ঘ সাত মাস পর ভারত থেকে কেনা ১০ লাখ ডোজ করোনা ভ্যাকসিন ঢাকায় পৌঁছেছে। শনিবার (০৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে টিকাগু‌লো অবতরণ ক‌রে।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের টিকা কর্মসূচির পরিচালক ডা. শামসুল হক। তি‌নি বলেন, ভারতের সেরাম ইন‌স্টি‌টিউট থে‌কে ১০ লাখ কো‌ভি‌শি‌ল্ডের টিকা সন্ধ্যা ৫টা ৫৪ মি‌নি‌টে ঢাকায় এসে পৌঁ‌ছে‌ছে।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা পুনের প্ল্যান্টে উৎপাদন করে কোভিশিল্ড নামে বাজারজাত করছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকা উৎপাদনকারী কোম্পানি সেরাম ইনস্টিটিউট।

এ কোম্পানি থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তিন কোটি ডোজ কোভিশিল্ড কিনতে গত বছরের নভেম্বরে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি করে বাংলাদেশ। এরপর জানুয়ারিতে ৬০০ কোটি টাকার বেশি অগ্রিম হিসেবে দেয় সরকার, যা টিকার মোট দামের অর্ধেক।

চুক্তি অনুযায়ী প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা আসার কথা ছিল। গত ২৫ জানুয়ারি প্রথম চালানে ৫০ লাখ ডোজ এবং ২৩ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় চালানে ২০ লাখ ডোজ টিকা আসে বাংলাদেশে।

পাশাপাশি ভারত সরকারের উপহার হিসেবে ২১ জানুয়ারি আরও ২০ লাখ ডোজ এবং ২৬ মার্চ ১২ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড পেয়েছে বাংলাদেশ।

মার্চে ভারতে করোনাভাইরাস মহামারি চরম আকার ধারণ করলে সে দেশের সরকার এপ্রিলে টিকা রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা দেয়।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




‘ফোনের কথোপকথনে হত্যা-ধর্ষণ প্রমাণ হয়না’

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুনিয়ার হত্যা ও ধর্ষণের মামলা তদন্ত করছে পিবিআই। ৮নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে করা মামলার তদন্ত অনেকদূর এগিয়েছে বলে পিবিআই সূত্রে জানা গেছে। উল্লেখ্য যে মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত তানিয়া এই মামলাটি দায়ের করেন। গুলশানের একটি ফ্ল্যাটে এপ্রিলে মারা যান মুনিয়া। তার মৃত্যুর পর প্রথমে মুনিয়ার বোন নুসরাত তানিয়া একটি আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা দায়ের করেছিলেন। তিন মাস তদন্তের পর গুলশান থানা আত্মহত্যার প্ররোচনার কোন প্রমাণ না পাওয়ায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। কিন্তু মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত তানিয়া ওই পুলিশ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেন এবং নারাজি দরখাস্ত দেন। এরপর আদালত ওই নারাজি দরখাস্তটি নাকচ করে দেয়। পরবর্তীতে নুসরাত তানিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে হত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন, ট্রাইব্যুনালে এই মামলা তদন্ত দিয়েছে পিবিআইকে। একাধিক সূত্র বলছে যে এখন পর্যন্ত যে সমস্ত আলামত এবং তথ্য-প্রমাণ দেওয়া হয়েছে তাতে হত্যা বা ধর্ষণের কোন কিছুই প্রমাণ হয়না। বিভিন্ন সূত্র বলছে হত্যা এবং ধর্ষণের জন্য কয়েকটি সুনির্দিষ্ট বিষয়ে লাগে।

১. শারীরিক উপস্থিতির প্রয়োজন হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত তদন্তে শারীরিক উপস্থিতির কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

২. হত্যা বা ধর্ষণের ক্ষেত্রে যে আলামতগুলো দরকার সে ধরনের কোনো আলামত বাদীপক্ষ এখন পর্যন্ত দিতে পারেনি।

৩. হত্যা বা ধর্ষণের যে সাক্ষ্য প্রমাণের বিষয় থাকে, সেই সাক্ষ্য-প্রমাণও এখন পর্যন্ত অনুপস্থিত।

বিভিন্ন সূত্র বলছে যে একটি হত্যা মামলায় সুনির্দিষ্ট উপস্থিতিটিই সবচেয়ে প্রধান উপজীব্য বিষয়। কিন্তু মুনিয়ার কথিত হত্যা ও ধর্ষণ মামলায় কোন সুনির্দিষ্ট শারীরিক উপস্থিতির প্রমাণ মেলেনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেছেন যে শুধুমাত্র ফোনের কথোপকথনে বা বিভিন্ন মেসেজ আদান প্রদানের মাধ্যমে হত্যা ধর্ষণ প্রমাণ হয় না। ফোনে হত্যা করা যায় না বা মেসেজ দিয়ে হত্যা করা যায়না, হত্যার জন্য যে উপস্থিতির প্রয়োজন সেই উপস্থিতি সম্পর্কে কোন তথ্য প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাছাড়া শুধু উপস্থিত থাকলেই হবে না, যিনি হত্যা ও ধর্ষণের জন্য উপস্থিত হয়েছেন সে ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষদর্শীর কোন সাক্ষ্য বা প্রমাণ লাগবে।

এই মামলার বাদী নিজেই বলেছেন তিনি কুমিল্লা থেকে আসছিলেন এবং কুমিল্লা থেকে আসার পথে কয়েকদফা তার সঙ্গে মুনিয়ার কথাবার্তা হয়েছে। কাজেই তিনি প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষীনন এবং ওই ফ্ল্যাটে যারা দায়িত্বে ছিলেন গার্ড বা অন্যান্য প্রতিবেশীরা তারা কেউই মুনিয়াকে হত্যা করা হয়েছে বা মুনিয়ার বাসায় প্রবেশ করে কেউ তাকে হত্যা করেছে এমন সাক্ষ্য প্রমাণ দিতে পারেননি। ফলে যে সমস্ত অভিযোগ বা তথ্য প্রমাণ দিয়ে মুনিয়ার হত্যা-ধর্ষণের মামলা করা হয়েছে সেগুলো আইনের চোখে অগ্রহণযোগ্য বলেই মনে করছেন বিভিন্ন সূত্র।

বিশেষ করে মুনিয়ার হত্যাকাণ্ডের প্রধান তথ্য প্রমাণ হিসেবে দেওয়া হয়েছে কিছু টেলি আলাপ এবং কিছু মেসেজ। এই মেসেজ এবং টেলি আলাপ দিয়ে কোন কিছুই প্রমাণিত হয় না বলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার বিভিন্ন কর্মকর্তারা মনে করছেন। তারা বলছেন যে হত্যা প্রমাণের জন্য যে সমস্ত তথ্য-প্রমাণ বা আলামতের প্রয়োজন তার কোন কিছুই এখানে নেই। সেক্ষেত্রে এই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন গুলশান থানা পুলিশের অনুরূপই হতে পারে বলে একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর
ইকবালসহ ৪ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




হাজীগঞ্জে শিশু ধর্ষণ-মৃত্যুর ঘটনা গুজব : পূজা উদযাপন পরিষদ

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের ১০ বছরের একটি শিশুকে ধর্ষণের খবর গুজব বলে জানিয়েছে স্থানীয় পূজা উদযাপন পরিষদ।

ধর্ষণের শিকার শিশুটি মারা গেছে, এমনকি শিশুটির সঙ্গে তার মাসি ও বোনও ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল থেকে দেশে-বিদেশে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়ায় কুচক্রী মহল।

তবে হাজীগঞ্জ উপজেলায় এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি জানিয়ে সব গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়।  বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ হাজীগঞ্জ শাখার সভাপতি রোটা. রুহিদাস বণিক তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও বক্তব্যের মাধ্যমেও বিষয়টি গুজব বলে ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলা হিন্দু-খ্রিস্টান-বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সত্য ব্রত ভদ্র মিঠুন বলেন, হাজীগঞ্জের কোথাও হিন্দু সম্প্রদায়ের কোনো পরিবারে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্পূর্ণ মিথ্যা অপপ্রচার করা হচ্ছে। যা গুজব।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশীদ বলেন, গত বুধবার (১৩ অক্টোবর) রাতে হাজীগঞ্জে ঘটে যাওয়া ঘটনার পর বিভিন্ন গুজব রটানো হচ্ছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি শিশুকে নিয়েও ছড়ানো খবরটি অসত্য ও গুজব। ধর্ষণের বিষয়ে কোনো মামলা বা অভিযোগও নিয়ে কেউ আসেনি। 

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত ডিআইজি ইকবাল হোসেন বলেন, সকাল থেকে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো বিষয়টি মিথ্যা ঘটনা। এটি অসত্য ও গুজব। এ ধরনের গুজব ছড়াচ্ছে একটি স্বার্থন্বেসী মহল।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




দুই সন্তানসহ বিষপান, মায়ের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৬১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পারিবারিক কলহের জেরে সুনামগঞ্জের শাল্লায় দুই সন্তানসহ বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তবে দেরিতে বিষপান করায় প্রাণে বেঁচে গেছে তার দুই শিশু সন্তান।

আত্মহননকারী ওই নারী উপজেলা সদরের সুলতানপুর গ্রামের। সোমবার সকাল ৯ টার দিকে তার স্বামীর বসত বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়দের ধারণা, পারিবারিক কলহের জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। প্রতিদিনের ন্যায় ওই নারী স্বামী সোমবার সকালে গ্রামের পাশের ছায়ার হাওরে মাছ ধরতে চলে যায়। ৯ টার দিকে বাড়িতে এসে দেখতে পান স্ত্রী ও তার দুই ছেলে ঘরের ভেতর মৃত্যু যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন।

ওই নারী স্বামী ছেলেদের নিকট কি হয়েছে জানতে চাইলে, বড় ছেলে তাকে জানিয়েছে, তার মা প্রথম বিষ খেয়েছে। পরে জোর করে তাদেরকে ও বিষপান করিয়েছে। এগুলে শুনে ওই নারী স্বামী দিলে আশপাশের লোকজন এসে দ্রুত তাদেরকে শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

সিলেট নিয়ে যাবার পথে ওই নারী মারা যায়। অসুস্থ দুই শিশু সন্তানকে দিরাই ও শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর

বিকেলে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

শাল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানিয়েছেন, স্থানীয়দের ধারণা পারিবারিক কলহের জের ধরেই দুই শিশু সন্তানসহ নিজে ইদুর মারার বিষপান করেছিল ওই নারী। দুই শিশু সন্তান প্রাণে বাঁচলেও মায়ের মৃত্যু হয়েছে।


আরও খবর



বিশ্বে একদিনে করোনায় ৫ হাজার মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। দেশটিতে করোনা শনাক্ত হয়েছে দুই কোটি ১৬ লাখ ৩৮ হাজার ৭২৬ জনের। এরমধ্যে ছয় লাখ তিন হাজার ১৯৯ জন মারা গেছেন

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও পাঁচ হাজার তিনজন মারা গেছেন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯ লাখ নয় হাজার ৬৫৩ জনে। এছাড়া নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন তিন লাখ ২৭ হাজার ৮৯ জন। এতে বিশ্বব্যাপী করোনা শনাক্ত ছাড়িয়েছে ২৪ কোটি ১১ লাখ ৫০ হাজার ৬৬৬ জনে।

অন্যদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় তিন লাখ ১৭ হাজার ৬০৭ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। মোট সুস্থ হলেন ২১ কোটি ৮০ লাখ ৭৬ হাজার ৮২৬ জন।

রোববার (১৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় সবার উপরে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন চার কোটি ৫৭ লাখ ৭৪ হাজার ১৭৫ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন সাত লাখ ৪৪ হাজার ৩৮৫ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন তিন কোটি ৫৩ লাখ ৫২ হাজার ৩৪৩ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৪০ লাখ ৬৬ হাজার ৭৬০ জন। এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে চার লাখ ৫২ হাজার ১৫৬ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৪৬ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। দেশটিতে করোনা শনাক্ত হয়েছে দুই কোটি ১৬ লাখ ৩৮ হাজার ৭২৬ জনের। এরমধ্যে ছয় লাখ তিন হাজার ১৯৯ জন মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ২৫০ জন এবং মারা গেছেন ৪৭২ জন।

এ তালিকায় পরের স্থানগুলোতে রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, আর্জেন্টিনা ও স্পেন।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৯ নম্বরে। দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২৭ হাজার ৭৫২ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৪ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৩৩ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। এরপর দ্রুত দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ে ভাইরাসটি। গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর