আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

কুমিল্লায় 'কোরআন উদ্ধার'কে ঘিরে উত্তেজনা : পূজামণ্ডপে হামলা

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৩৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লায় শহরের একটি পূজামণ্ডপ থেকে পবিত্র 'কোরআন উদ্ধার'-ঘটনার পর বেশ কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার পূজা উদযাপন কমিটির সম্পাদক নির্মল পাল।

তিনি বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছে, শহরের নানুয়ারদীঘি এলাকার একটি পূজামণ্ডপের প্রতিমায় কোরআন রাখার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর পুলিশ গিয়ে তা উদ্ধার করে এবং এরপর পরই একদল ব্যক্তি বেশ কিছু পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা চালায়।

"পূজা বানচালের জন্য পরিকল্পিতভাবে কোরআন রেখে এ ঘটনা ঘটিয়ে তারাই এখন শহরজুড়ে পূজাবিরোধী বিক্ষোভ করছে। কয়েকটি মণ্ডপে হামলার চেষ্টা হয়েছে কিন্তু পুলিশের বাধায় ভেতরে ঢুকতে না পারলেও গেইট বা সামনের স্থাপনা ভাংচুর করেছে," বলে জানিয়েছেন তিনি।

জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বিবিসি বাংলাকে বলেছেন তারা এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন। "আমরা টহল দিচ্ছি। আগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করি। কয়টি মণ্ডপে হামলার চেষ্টা হয়েছে এ মূহুর্তে বলতে পারছি না। পরিস্থিতি ঠিক হলে আমরা বিস্তারিত জানাবো," বেলা চারটার দিকে সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যবসায়ী সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলাকে বলেছেন বেলা এগারটার দিকে হঠাৎ কোরআন অবমাননা হয়েছে, এমন খবর ছড়িয়ে পড়ে শহর জুড়ে।

তিনি বলেন দশটার পর নানুয়ারদীঘির মণ্ডপে কোরআন নজরে পড়লে দ্রুত পুলিশকে জানানো হয় এবং পুলিশ তখনি এসে কোরআনটি সরিয়ে নেয়।

"কিন্তু খবরটি খুব দ্রুত ছড়ানো হয় এবং কয়েকটি মাদ্রাসার লোকজন ছাড়াও স্থানীয় অনেকে প্রতিবাদ করতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে সেখান থেকে মণ্ডপ গুলোতে হামলা করা শুরু হলে পুলিশ ব্যবস্থা নেয়"।

তিনি বলেন কয়েকটি গুলির শব্দ শোনা গেলেও সেগুলো কোথায় হয়েছে তা বোঝা যায়নি।

এদিকে ঘটনার পরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোরআন অবমাননা করা হয়েছে দাবি করে ব্যাপক প্রচার শুরু হয় এবং অনেকে প্রতিবাদ বিক্ষোভ অনেকে ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করেন।

প্রসঙ্গত, বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায় এখন তাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করছে।

তথ্য সূত্র: বিবিসি বাংলা


আরও খবর



অনুমোদনহীন ১১ পরিবহনকে জরিমানা

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ অক্টোবর ২০২১ | ৬০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাস রুট রেশনালাইজেশন কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। ফলে রুট পারমিটহীন বাস-মিনিবাস বন্ধে বিআরটিএ এর সঙ্গে যৌথ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে গুলিস্তান বঙ্গবন্ধু স্কয়ার সংলগ্ন এলাকায়।

এই অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ঢাকা সিটির ভেতরে চলাচল করার অনুমোদন নেই এমন বাস ও মিনিবাসগুলোকে জরিমানা করেছে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

রবিবার (০৩ অক্টোবর) দুপুর ১২টা থেকে শুরু হওয়া এই অভিযান চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যে রুট পারমিটহীন ও রুট পারমিটের মেয়াদহীন বাসগুলোকে সর্বোচ্চ ৮ হাজার ও সর্বনিম্ন ৩ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

এসময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও বিআরটিএ'র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানজিলা কবির ত্রপা ও ফিরোজা পারভীনের অধিনে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতে মোট ১০টি বাসকে ৫৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে ৫২ হাজার টাকা আদায় ও ৫ হাজার টাকা অনাদায় রয়েছে।

অভিযানের বিষয়ে বিআরটিএ ভ্রাম্যমাণ আদালত-৪ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফিরোজা পারভীন জানান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও বিআরটিএ'এর যৌথ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এই অভিযান মূলত ঢাকা সিটিতে চলাচলের অনুমোদন নেই তবুও সিটিতে চলছে এমন বাস ও ফিটনেসবিহীন যানবাহনের বিরুদ্ধে। আমাদের অভিযানে কোনো ফিটনেসহীন পরিবহন পাওয়া না গেলেও রুট পারমিট ভায়োলেন্স করেছে এবং রুট পারমিটের মেয়াদ নেই এমন বাসগুলোকে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য এসব রুটপারমিটহীন বাস চলাচল বন্ধ করা। যেহেতু এসব পরিবহনকে মোটা অংকের জরিমানা করা হচ্ছে সেহেতু এটার মাধ্যমে এই মেসেজটা তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে তারা যেন দ্রুত কাগজটা ঠিক করে নেয়।

অভিযানে সর্বোচ্চ ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় রুপান্তর পরিবহনের একটি বাসকে। এই বাসটি ঢাকার বাইরের রুটে চলাচলের অনুমোদন থাকলেও ঢাকা সিটির ভেতর চলাচল করছিল।

রুট পারমিট ভায়োলেসন ও রুট পারমিটের মেয়াদ না থাকায় বন্ধন পরিবহনের একটি বাসকে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এই বাসটি সায়েদাবাদ থেকে নারায়নগঞ্জ রুটে চলাচলের অনুমতি নিয়ে ঢাকা সিটির ভেতরে চলাচল করছিল।

সাভার ও ঘিওড় রুটে চলাচলের অনুমতি নিয়ে মোহাম্মদপুর থেকে সাইনবোর্ড রুটে চলাচল করা মিডলাইন পরিবহনের একটি বাসকেও ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া রজনীগন্ধা পরিবহনের দুটি বাস, দোয়েল, খাজাবাবা, স্বদেশ, দোলা, বন্ধন, হিমাচল ও বাহন পরিবনের একটি করে বাসকে জরিমানা করা হয়।


আরও খবর
ইকবালসহ ৪ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




অবসরেই যাচ্ছেন ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মেয়াদ বাড়ানোর গুঞ্জনের মধ্যেই অবসরে যাচ্ছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করা হয়। আদেশে আগামী ২৯ অক্টোবর থেকে তাকে অবসর প্রদান করার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ধনঞ্জয় কুমার দাশ স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয়েছে, আগামী ২৯ অক্টোবর, ২০২১ তারিখে তার চাকরির বয়স ৫৯ হওয়ায় সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ এর ৪৩ (১) (ক) অনুযায়ী তাকে সরকারি চাকরি হতে অবসর প্রদান করা হলো।

তার অনুকূলে ১৮ মাসের মূল বেতনের পরিমাণ অর্থ ল্যাম্পগ্রান্টসহ এক বছর অবসর ও অবসরোত্তর ছুটি (পিআরএল) মঞ্জুর করা হলো। তিনি বিধি অনুযায়ী অবসর ও অবসরোত্তর ছুটিকালীন সুবিধাদি প্রাপ্য হবেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, নতুন ডিএমপি কমিশনার হিসেবে কে দায়িত্ব নিচ্ছেন তা আগামী দুই-একদিনের মধ্যে জানা যাবে।

দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, ডিএমপি কমিশনার হওয়ার তালিকায় পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত আইজিপি এস. এম রুহুল আমিন, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত আইজিপি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন্স) এম খুরশীদ হোসেন, বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির (সারদা, রাজশাহী) প্রিন্সিপাল খন্দকার গোলাম ফারুকসহ বেশ কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে দুই-একদিনের মধ্যেই সব স্পষ্ট হবে।

ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ডিএমপি কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এর আগে তিনি সিআইডি প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন। সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলার ঘটনার কারণে তার চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর গুঞ্জন ওঠে। অবশেষে সময়মতোই তাকে অবসরে পাঠানো হলো।

নিউজ ট্যাগ: ডিএমপি কমিশনার

আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস আজ

প্রকাশিত:রবিবার ১০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১০ অক্টোবর ২০২১ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ রবিবার (১০ অক্টোবর) বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। অসম বিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য প্রতিপাদ্য নিয়ে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি। মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য প্রতিবছর ১০ অক্টোবর নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে সারা বিশ্বে এই দিবসটি পালন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ বিষয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস হলো পৃথিবীর সবার মানসিক স্বাস্থ্যশিক্ষা, সচেতনতার দিন। এটি ১৯৯২ সালে প্রথম পালন করা হয়। কিছু দেশে একে মানসিক রোগ সচেতনতা সপ্তাহের অংশ হিসেবে পালন করা হয়।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ফর চাইল্ড অ্যান্ড অ্যাডোলেসেন্ট মেন্টাল হেলথ (বিএসিএএমএইচ) সভাপতি ও জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক ডা. হেলালউদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশে মানসিক ব্যাধির ব্যাপকতা অনেক বেশি। চিকিৎসাসেবা অবহেলিত বিশেষ করে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আক্রান্তরা এ রোগে চিকিৎসা পান না। মানসিক স্বাস্থ্য নিশ্চিতে সরকারি সুপরিকল্পিত নীতিমালা, প্রশিক্ষিত মনোরোগ চিকিৎসক তথা স্বাস্থ্যকর্মী, অপর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ ও কুসংস্কারজনিত কারণে মানসিক রোগের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না। করোনাকালে মানসিক রোগের ব্যাপকতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে প্রতি ৪০ সেকেন্ডের মধ্যে কেউ না কেউ আত্মহত্যায় প্রাণ হারান। আত্মহত্যাজনিত মৃত্যুর অধিকাংশই প্রতিরোধযোগ্য। অধিকাংশ ব্যক্তিই আত্মহত্যার সময় কোনো না কোনো মানসিক রোগে আক্রান্ত থাকেন। সাধারণত সেটা গুরুত্ব দেওয়া হয় না বা মানসিক রোগ নিশ্চিত হলেও যথাযথ চিকিৎসা করা হয় না বলেই আত্মহত্যা বেড়ে যাচ্ছে। মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নের মাধ্যমে আত্মহত্যার এ হার কমিয়ে আনা সম্ভব।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




১০ অক্টোবর থেকে সব বর্ষের জন্য খুলবে ঢাবির হল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | ৬৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা সংক্রমণের কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আবাসিক হল দুই বর্ষের জন্য খোলা হয়েছে। তবে এবার সব বর্ষের শিক্ষার্থীর জন্য আগামী ১০ অক্টোবর থেকে হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক প্রভোস্ট বলেন, আগামী ১০ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে ১ম-৩য় বর্ষের শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে হলে উঠতে পারবেন। এছাড়া আগামী ১৬ অক্টোবর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হবে।


আরও খবর



বেনাপোলে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকবে টানা চার দিন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৬৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুর্গাপূজা উপলক্ষে টানা চার দিন আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে দেশের প্রধান স্থলবন্দর বেনাপোলে। তবে এ সময় বেনাপোল কাস্টম হাউজের কার্যক্রম, বন্দরে পণ্য খালাস এবং বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক থাকবে।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ১২ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি থাকবে। এই সময়কালে পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে বেনাপোল বন্দরের সঙ্গে সব ধরনের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে।  ১৬ অক্টোবর সকাল থেকে আবার আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য চালু হবে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক লতা বলেন, দুর্গাপূজার ছুটির কারণে টানা চার দিন আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে বলে পেট্রাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন থেকে পত্র দিয়ে আমাদের জানিয়েছে।

বেনাপোল কাস্টমস চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা সাইফুর রহমান মামুন বলেন, দুর্গাপূজার ছুটি থাকায় ১২ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকবে বলে ওপারের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টরা আমাদের জানিয়ে দিয়েছেন। আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও বন্দরে পণ্য লোড-আনলোড ও কাস্টমসের কাজ চলবে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মদ রাজু আহমেদ জানান, পূজার ছুটিতে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও দুই দেশের মধ্যে যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক থাকবে।



আরও খবর