আজঃ শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

মহম্মদপুরে দুইশ মেধাবী ছাত্রীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ আগস্ট ২০২১ | ১০৭০জন দেখেছেন
Image

মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি :

মাগুরার মহম্মদপুরে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার আটটি ইউনিয়নের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মেধাবী ছাত্রীদের মাঝে ২শ বাসাইকেল বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা সদরের ঐতিহ্যবাহী রাজা সিতারাম রায়ের কাচারি বাড়ি প্রঙ্গনে এই বাইসাইকেল বিতরণ করা হয়।

উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ উপলক্ষে আলোচনা সভায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবু আব্দুল্লাহেল কাফির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা ভারপ্রাপ্ত ডিডিএলজি মো. কামরুজ্জামান, মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামানন্দ পাল, এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের জেলা ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলিটেটর শামচুজ্জোহা, ওসি মো. নাসির উদ্দিন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. বরকত আলী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ হাই মিয়াসহ সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ।     

বাইসাইকেল পেয়ে মহম্মদপুর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী রাখী রাজবংশী আনন্দের হাসি হেসে বলে, আমরা খুব খুশি। সাইকেল পেয়ে আমাদের পড়ালেখার আগ্রহ বেড়ে গেছে। স্কুল খোলার পর এই সাইকেল চালিয়ে নিয়মিত স্কুলে যাবো। স্কুল কামায় দেবো না। চৌবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী এবং কানুটিয়া আঃ আলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনির ছাত্রী সুমাইয়া খাতুনের চোখে মুখেও আনন্দের হাসি ফুটে ওঠে। তারাও একইভাবে তাদের মনের কথা ব্যক্ত করে।


আরও খবর



হাসপাতালে ভর্তি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শারিরীকভাবে অসুস্থ হওয়ায় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তমকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে দলটির যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, গতকাল মঙ্গলবার হঠাৎ পেটে ব্যথা শুরু হলে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে অধ্যাপক এম. এস আরাফাতের তত্ত্বাবধানে বিএসএমএমইউয়ের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয়। সেখানে আলট্রাসনোগ্রাম করা হলে তার গল-ব্লাডারে পাথর ধরা পরে।

বর্তমানে তিনি জেনারেল সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক এ. এইচ এম. তৌহিদুল আলমের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন। সুস্থতার জন্য তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন বলে জানান ইকবাল সিদ্দিকী।


আরও খবর



২ দিনের মধ্যে পরীমণির জামিন আবেদন নিষ্পত্তি করতে রুল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | ৮৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনির জামিন আবেদন এক মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ আদালত। 

বৃহস্পতিবার বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

মাদক মামলায় পরীমনির জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালত এ আদেশ দেন।

মাদক মামলার জামিন শুনানির জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করে নিম্ন আদালত যে আদেশ দিয়েছেন, তা চ্যালেঞ্জ ও জামিন চেয়ে বুধবার উচ্চ আদালতে আবেদন করেন পরীমনি।

আদালতে পরীমনির পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না ও অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবু এহিয়া দুলাল।

সর্বশেষ গত ২২ আগস্ট ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে পরীমনির জামিন আবেদন করেন আইনজীবী মজিবুর রহমান।  পরিপ্রেক্ষিতে শুনানির জন্য আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন আদালত।

গত ৪ আগস্ট বনানীর বাসা থেকে পরীমনিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।  তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, ৪ আগস্ট বাদীসহ র‌্যাব ১-এর সদস্যরা গুলশান-১ গোলচত্বরে অবস্থান করছিলেন।  বিকাল ৪টা ৫ মিনিটের দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন, বনানীর একটি বাসায় পরীমনি তার সহযোগী আশরাফুল ইসলামের মাধ্যমে বিদেশি মদ সংগ্রহ করে মজুত করে রেখেছেন।  তারা বাসায় অবস্থান করছেন।  পরে বাসার পঞ্চম তলায় অভিযান চালানো হয়।  পরীমনির বাসা থেকে নারী র‌্যাব সদস্যের সহায়তায় তাকে আটক করা হয়।  বাসার একটি কক্ষে কাঠের ফ্রেমের ভেতর থেকে বিদেশি মদ জব্দ করা হয়।

মামলায় অভিযোগে বলা হয়, পরীমনির বাসা থেকে একটি সাদা জিপারে রাখা চার গ্রাম আইস বা ক্রিস্টাল মেথ জব্দ করা হয়। আরও জব্দ করা হয় এক ব্লট ভয়ঙ্কর এলএসডি মাদক। পরীমনির বাসা থেকে জব্দ বিদেশি মদসহ অন্যান্য মাদকের মোট দাম দেখানো হয়েছে ২ লাখ ৭ হাজার টাকা।


আরও খবর
আক্রমণাত্মক মন্তব্যের শিকার নুসরাত

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

হাইকোর্টে জামিন পেলেন মডেল মৌ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




আজ ৪২তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ বৃহস্পতিবার (০৯ সেপ্টেম্বর) ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগে ৪২তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে। সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। করোনা মহামারির মধ্যে এই বিসিএসের মাধ্যমে প্রথমে ২ হাজার, পরে আরও ২ হাজারসহ মোট ৪ হাজার চিকিৎসক নেওয়ার কথা রয়েছে। এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে দিন-রাত এমনকি ছুটির দিনেও কাজ করছে পিএসসি। জানা গেছে, আজ বৃহস্পতিবার পিএসসির বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় ৪২তম বিশেষ বিসিএসের ফল অনুমোদন দেওয়া হতে পারে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, প্রথমে ৪২তম বিসিএস থেকে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের কথা থাকলেও সরকারের বিশেষ ক্ষমতায় এখান থেকে আরও দুই হাজার অর্থাৎ মোট চার হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সরকারের ইচ্ছা দ্রুত সময়েই এই চিকিৎসকদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করে তাদের পদায়ন করা। এ বিষয়েও সরকারের বিভিন্ন দপ্তর কাজ করে যাচ্ছে।

করোনার সময় দফায় দফায় পেছানো হয় ৪২তম বিসিএসের ভাইভা। পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও করোনার সময় বিশেষভাবে চিকিৎসক নিয়োগ দিতে কাজ করে পিএসসি। এ সময় জরুরি অবস্থাতেও সরকারের কাছে বিশেষ অনুমতি নিয়ে কাজ করে পিএসসি।

করোনার প্রেক্ষাপটে দুই হাজার চিকিৎসককে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ দিতে গত বছর ৪২ তম বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় (লিখিত টাইপ) ৩১ হাজার চিকিৎসক অংশ নেন। পরীক্ষার এক মাস পর ২৯ মার্চ এই বিসিএসের ফল প্রকাশ করে পিএসসি। এতে উত্তীর্ণ হন ৬ হাজার ২২ জন।


আরও খবর
১৪ নভেম্বর থেকে দাখিল পরীক্ষা শুরু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




রাগীব আহসান ১৭ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নেন যেভাবে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ২৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ধর্মীয় অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে শরিয়াহভিত্তিক সুদমুক্ত বিনিয়োগের ধারণা প্রচার করে ১০ হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে ১১০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেন। এরপরই বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান খুলে হাতিয়ে নেন ১৭ হাজার কোটি টাকা। এমনটিই দাবি করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১০ এর একটি দল রাজধানী ঢাকার শাহাবাগ থানার তোপখানা রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাগীব আহসান (৪১) ও তার সহযোগী আবুল বাশার খানকে (৩৭) গ্রেফতার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ভাউচার বই ও মোবাইল ফোন।

শুক্রবার বিকালে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে তার অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিষয়ে অবহিত করতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, রাগীব আহসান ১৯৮৬ সালে মাদরাসায় পড়াশোনা শুরু করেন। ১৯৯৯ সালে হাটহাজারী মাদরাসা থেকে তিনি পাস করেন। ২০০০ সালে খুলনার একটি মাদরাসা থেকে মুফতি ডিগ্রি লাভ করেন। এরপর মসজিদে ইমামতি করেন।

২০০৬-০৭ সালের দিকে ইমামতির পাশাপাশি এহসান এস মাল্টিপারপাস নামে একটি এমএলএম কোম্পানিতে ৯০০ টাকা বেতনে চাকরি করার মাধ্যমে এমএলএম কোম্পানির আদ্যপান্ত রপ্ত করেন রাগীব। ২০০৮ সালে এহসান রিয়েল এস্টেট নামে নিজেই একটি এমএলএম কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। ওই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ১০ হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে ১১০ কোটি টাকা নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন।

রাগীবের তত্ত্বাবধানে ৩০০ মাঠ পর্যায়ের কর্মী ছিল। যাদের কোনো বেতন ছিল না। যদিও তাদের বিনিয়োগ আনার পরিমাণের ওপর ২০ শতাংশ লভ্যাংশ দেওয়ার কথা ছিল। এসব পরিকল্পনার মাধ্যমে দ্রুত গ্রাহক সংখ্যা বাড়াতে সক্ষম হন রাগীব। কর্মী-গ্রাহক সবার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন তিনি। কর্মী-গ্রাহকদের কাউকেই লভ্যাংশ পরিশোধ করেননি।


আরও খবর



জামালপুরে মাদরাসা থেকে তিন ছাত্রী নিখোঁজ, চার শিক্ষক আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার একট আবাসিক মাদরাসা থেকে নিখোঁজ হওয়া তিন ছাত্রীর সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে চার শিক্ষককে আটক করে থানায় নিয়েছে পুলিশ। একই সঙ্গে আপাতত মাদরাসাটি বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। গতকাল সোমবার রাত দেড়টার দিকে পুলিশ ওই চারজনকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিখোঁজ ছাত্রীদের উদ্ধারের অংশ হিসেবে পুলিশ গতকাল সোমবার রাতে ওই মাদরাসায় যান। সেখানে মাদরাসার শিক্ষকদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। একই সঙ্গে বিষয়টির তদন্তও করা হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ ওই মাদরাসার চার শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যান।

প্রসঙ্গত, ওই তিন ছাত্রী মাদরাসার একটি কক্ষে থাকে। রোববার রাতে তারা ওই কক্ষেই ঘুমিয়ে পড়ে অন্য আবাসিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে। সোমবার ফজরের নামাজ পড়ার জন্য ঘুম থেকে সব শিক্ষার্থীকে জাগিয়ে দেওয়া হয়। অন্যান্য শিক্ষার্থীর মতো ওই তিনজনও নামাজ পড়ার প্রস্তুতি নেয়। নামাজের পর তাদের তিনজনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে তাদের পরিবারকে বিষয়টি জানানো হয়। পরিবার ও মাদরাসা কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করেছে।

তবে তাদের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। গতকাল সোমবার বিকেলে ইসলাম থানায় জিডি করা হয়।


আরও খবর