আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

মন ভরে মাংস খাব ঝোলে-ঝালে-কষায়!

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পুজোর সময় কলকাতা ছাড়া আর কোথাও থাকার কথা ভাবতেই পারি না। শহর জুড়ে হোর্ডিং, ছাতিম ফুলের গন্ধ, দূর থেকে ভেসে আসা ঢাকের আওয়াজ ছাড়া কি পুজো ভাবা যায়! প্রতি বছরের মতো এ বারও তাই শহরেই থাকছি।

পঞ্চমীতে আমার ছবি মুক্তি পেয়েছে। তার প্রচারের জন্য কয়েক দিন বেশ ব্যস্ত ছিলাম। দম ফেলারও সময় পাইনি। ছুটি পেলাম ষষ্ঠী থেকে। এই পাঁচটি দিন নিজের মতো করে কাটাব। পরিবারকে সময় দেব, আমার বাচ্চাগুলোর সঙ্গে খেলা করব। সারা বছর এই দিনগুলোর জন্যই যত অপেক্ষা। কাছের মানুষগুলোকে মনের মতো করে কাছে পাই। এ বছর মা আমার সঙ্গে রয়েছে। কাজের জন্য মাকে সময় দিতে পারি না।

এই কদিন মায়ের কাছে যতটা থাকা যায়, থাকব। আমার আবাসনে বড় করে পুজো হয়। মায়ের সঙ্গে ওখানে অনেকটা সময় কেটে যাবে। প্রত্যেক বছরের মতো এ বারও মা আমাকে পুজোতে শাড়ি উপহার দিয়েছে। সেই শাড়িটা পরব বলে অপেক্ষা করে আছি। সারা বছর যতই ব্যস্ত থাকি না কেন, পুজোর আগে আমিও মায়ের জন্য উপহার কিনে ফেলেছি।


পুজোয় ছুটি পাব, এ দিকে আড্ডা হবে না? এমন আবার হয় নাকি! এ বছর বন্ধুদের নিয়ে ঘরোয়া পার্টি হবে। প্রচুর খাওয়াদাওয়া করব। শরীর-স্বাস্থ্যের জন্য সারা বছর ডায়েট করি। এই পাঁচটা দিন কোনও রকম বিধিনিষেধ নৈব নৈব চ। মন ভরে মাংস খাব। ঝোলে-ঝালে-কষায়! পুজোর সময় আমার মিষ্টি প্রীতিও এক লাফে অনেকটা বেড়ে যায়। তাই দিনভর চুটিয়ে খাওয়াদাওয়ার পর শেষ পাতে মিষ্টি চাই-ই চাই!

করোনাকে সঙ্গী করে আমাদের দ্বিতীয় পুজো। এত আনন্দ, উচ্ছ্বাসের মাঝেও কালো মেঘের মতো ছেয়ে রয়েছে অতিমারির ভয়। চাইব সব ধরনের সাবধানতা অবলম্বন করেই উৎসবের উদযাপন হোক।

আমার বাড়ি থেকে বেরলেই গড়িয়াহাট। যাতায়াতের পথে দেখি অনেকেই মাস্ক না পরে ঘুরছেন, কেনাকাটা করছেন। কয়েক মাস আগেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের দাপট দেখেছি আমরা। বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। শহর জুড়ে তখন অক্সিজেনের হাহাকার, অ্যাম্বুলেন্সের আওয়াজ। আমি চাই না এই শহর আবারও সেই ভয়ঙ্কর দিনের সাক্ষী হোক। তাই আমাদের মাস্ক পরার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। আরও সাবধানী হতে হবে। দরকার হলে জামার সঙ্গে মিলিয়ে মাস্ক তৈরি করুন। তাতে সাজের ব্যাঘাত ঘটবে না। কিন্তু দয়া করে প্রত্যেকে মাস্ক পরুন।

 

নিউজ ট্যাগ: মিমি চক্রবর্তী

আরও খবর
গাছের সঙ্গে বিয়ে হবে নয়নতারার

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




কর অঞ্চল-৫ এর সেরা করদাতা রফিকুল ইসলাম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি:

ঢাকা কর অঞ্চল-৫ এর শীর্ষ ৫ জন করদাতার অন্যতম হয়েছেন দেশের অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম। এ উপলক্ষে তাকে সম্মানিত করতে মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় কর অঞ্চল-৫ এর কার্যালয়ে এ অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রতিষ্ঠানের কর কমিশনার সোয়ায়েব আহমেদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত কর কমিশনার গোলাম কবির, মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামান, যুগ্ন কর কমিশনার শেখ শামীম বুলবুল, উপ কর কমিশনার পল্লব কুমার দেব, এসএম গালিব ফারুক, সহকারি কর কমিশনার মহিবুল ইসলাম ভূইয়া, রংধনু গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান দিপু, প্রকল্প পরিচালক কর্নেল (অব:) নাজির আহমেদ, আয়কর উপদেষ্টা এমদাদুল হক বাবুল প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে রফিকুল ইসলামের হাতে শুভেচ্ছা স্বারক ও করদাতার সম্মাননা এবং পুরুস্কার তুলে দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে কর কমিশনার সোয়ায়েব আহমেদ বলেন, আলহাজ্ব রফিকুল ইসলামের মতো ব্যক্তি ও রংধনু গ্রুপের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো করদানে আগ্রহী হচ্ছে বলেই আমরা পদ্মা সেতুর মতো বড় প্রকল্প করার সাহস পাই। দেশ প্রতিনিয়ত উন্নয়নের দিকে ধাবিত হচ্ছে। স্বনির্ভর হচ্ছে মানুষ।

এসময় রফিকুল ইসলাম বলেন, আগে মানুষ কর কর্মকর্তাদের নাম শুনলে ভয় পেতো। তথ্য গোপন করতো। এখন কর দিতে মেলায় আয়োজন হয়। মানুষ লাইন ধরে উৎসবমুখর পরিবেশে কর দেয়। তার কারণ জনবান্ধন কর কর্মকর্তারা মানুষকে করদানে আগ্রহী করে তুলছেন। তারা করদানের সুফল মানুষকে বোঝাতে সক্ষম হচ্ছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন উন্নয়নশীল রাষ্ট্র গড়ার অংশীদার হতে কর দিতে সক্ষম দেশের সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে করদানে আগ্রহী হতে অনুরোধ করেন।


আরও খবর
নাটকীয় উত্থানে ঘুরে দাঁড়াল পুঁজিবাজার

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১




‘বঙ্গবন্ধু-২ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই’

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের নির্বাচনি ইশতেহারে উল্লেখিত সময়েই মহাকাশে বঙ্গবন্ধু-২ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ, ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক চালু ও তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগ স্থাপন হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে আমরা বিশ্বের ৫৭তম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকারী দেশের গৌরবই কেবল অর্জন করিনি বরং গত দুবছরে আমাদের নিজেদের ছেলেদের কারিগরি সহায়তায় কোনও প্রকার ত্রুটি বিচ্যুতি ছাড়াই নিরবচ্ছিন্নভাবে স্যাটেলাইট সেবা প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিএল) আয়োজিত 'বঙ্গবন্ধু- স্যাটেলাইটের মাধ্যমে দেশের বেসরকারি স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার শুরুর দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, অনলাইনে যুক্ত হন ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব মো. আফজাল হোসেন এবং অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্স (অ্যাটকো) সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএসসিএলর চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ।

টিভি চ্যানেল মালিকদের এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, আমরা সবাই নিজ দেশের স্যাটেলাইট ব্যবহার করতে পেরে গৌরব অনুভব করি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অচিরেই দেশের দ্বিতীয় স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




আইএসের অর্থ বিসয়ক প্রধান গ্রেফতার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সশস্ত্র গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) অর্থ বিসয়ক প্রধান সামি জসিম আল-জাবুরিকে গ্রেফতার করেছে ইরাক। 

এক অভিযানে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটি। সামি জসিমকে ধরার জন্য তথ্য পেতে যুক্তরাষ্ট্র এক সময় ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল।

প্রধানমন্ত্রী মুস্তাফা আল-কাদিমি জানিয়েছেন, ইরাকি বাহিনী দেশের সীমান্তের বাইরে চালানো এক জটিল নিরাপত্তা অভিযানে আইএসের এই উচ্চ পর্যায়ের নেতাকে গ্রেফতার করেছে।

সীমান্তের বাইরে কোথায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়, এ বিষয়ে তিনি কিছু বলেননি। 

তবে বার্তা সংস্থা এএফপি এক ইরাকি সামরিক কর্মকর্তার বরাত দিয়েছে জানিয়েছে, সামি জসিমকে তুরস্কে গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু তুরস্ক এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো কথা বলেনি। 

এই সামি জসিম আবু বকর আল-বাগদাদীর ডেপুটি ছিলেন। বাগদাদী দু্'বছর আগে নিহত হন।

ইরাকী প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, সামি জসিম আইএসের খুবই গুরুত্বপূর্ণ নেতা। তিনি এই চরমপন্থী গোষ্ঠীর তহবিলের দায়িত্বে ছিলেন। ইরাক ও সিরিয়া থেকে লুট করা তেল, গ্যাস ও পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন বিক্রি করা অর্থের হিসাব তার কাছেই থাকতো।  


আরও খবর



বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ৭৬তম

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে ভারত পাকিস্তানের তুলনায় বেশ এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। বিশ্ব ক্ষুধা সূচক ২০২১-এ এমন তথ্য উঠে এসেছে। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) প্রকাশিত ওই সূচকে ১১৬ দেশের মধ্যে বাংলাদেশ রয়েছে ৭৬তম অবস্থানে। অন্যদিকে পাকিস্তান রয়েছে ৯২ ও ভারত ১০১ নম্বর অবস্থানে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের সমানসংখ্যক ৭৬ পয়েন্ট পেয়েছে নেপালও। এদিকে জাতিসংঘ ২০৩০-এর ক্ষুধামুক্ত বিশ্বের লক্ষ্য থেকে ছিটকে পড়েছে। যুদ্ধ-সংঘাত, করোনা মহামারি ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এ অবস্থা হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ডয়েচে ভেলে।

ক্ষুধা সূচকে মাত্র ১৫টি দেশ রয়েছে ভারতের পেছনে। ভারতের পেছনে থাকা দেশগুলো হলো- পাপুয়া নিউগিনি, আফগানিস্তান, নাইজেরিয়া, মোজাম্বিক, কঙ্গো, সিয়েরা লিওন, হাইতি, পূর্ব তিমুর, লাইবেরিয়া, গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, চাদ, মাদাগাস্কার, মধ্যআফ্রিকান প্রজাতন্ত্র, ইয়েমেন ও সোমালিয়া। এসব দেশের বেশিরভাগ দেশই আফ্রিকার দরিদ্র দেশ।

গ্লোবাল হাঙ্গার ইনডেক্স (জিএইচআই) জানিয়েছে, ২০৩০ সালের মধ্যে কম ক্ষুধা সূচক ইনডেক্স উত্তরণে ব্যর্থ হবে বিশ্বের ৪৭টি দেশ। এই ইনডেক্সে সবচেয়ে খারাপ অবস্থানে রয়েছে সোমালিয়া। আফ্রিকার এই দেশটির পয়েন্ট খুব কম। এ ছাড়া আরও ৫টি দেশের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক।

উদ্বেগজনক দেশগুলো হলো- গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, চাদ, মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র, মাদাগাস্কার ও ইয়েমেন। এসব দেশের ২০৩০ সালের মধ্যে জিরো হাঙ্গারের দিকে অগ্রগতির লক্ষ থাকলেও ইতোমধ্যে অনেক ধীর, স্থবির এমনকি বিপরীত হওয়ার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে।

এদিকে গত বছরের (২০২০ সাল) বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে ১০৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৭৫তম। এর আগের বছর ২০১৯ সালে এই সূচকে ১১৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৮। ২০১৮ সালে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৬তম।

বেসরকারি সংস্থা ওয়েলথহাঙ্গার লাইফ ও কনসার্ন ওয়ার্ল্ড ওয়াইড জানিয়েছে, গত দুই বছরে অর্থনৈতিক পতনের কারণে সারা বিশ্বে অনেক মানুষ নতুন করে ক্ষুধার্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ওই গবেষণা অনুযায়ী, গত বছর পর্যাপ্ত পুষ্টি না পাওয়া মানুষের সংখ্যা ৩২ কোটি থেকে বেড়ে বিশ্বের জনসংখ্যায় প্রায় এক-তৃতীয়াংশ ২৪০ কোটিতে পৌঁছেছে।

 


আরও খবর



প্রতিদিন মুড়ি খাওয়া কি ভালো

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | ৫৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মেঘলা দিনে বাইরে টিপ টিপ বৃষ্টি, বিকালে বা সন্ধ্যায় ঘরে ফিরে আয়েশ করে গরম গরম চায়ের সঙ্গে অনেকেই মুড়ি খেয়ে থাকেন। কেউ কেউ আবার চানাচুর-মুড়ি একসঙ্গে মেখেও খান। এ তো গেলে বিশেষ দিনের পছন্দের খাবার। তবে দুপুরে লাঞ্চের বদলে হালকা পেট ভরাতে মুড়ি খাওয়াটা নাগরিক জীবনে দিনকে দিন বাড়ছে। ডায়েট হিসাবে মুড়ি বেছে নিচ্ছেন কেউ কেউ। কিন্তু প্রতিদিন মুড়ি খাওয়া কী স্বাস্থ্যের জন্য ভালো, তাহলে জেনি নিন।

মুড়ি খেলে অ্যাসিডিটির সমস্যা কমাতে পারে। নিয়মিত মুড়ি খেলে পেটে অ্যাসিডের ক্ষরণে ভারসাম্য আসে। বাড়াবাড়ি রকমের অ্যাসিড হলে, মুড়ি পানিতে ভিজিয়ে খেতে পারেন। এতে দ্রুত অ্যাসিডের সমস্যা কমবে।

মুড়িতে ক্যালসিয়াম ও আয়রন থাকে। এটি হাড় শক্ত করে। কিন্তু মনে রাখতে হবে, মুড়ি খেলে ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ কিছুটা হলেও বাড়তে পারে। তাই যাদের ইউরিক অ্যাসিডের সমস্যা আছে, তারা এড়িয়ে চলুন।

মুড়িতে ক্যালরির মাত্রা তুলনামূলক কম। অল্প খিদে পেলে মুড়ি খেলে পেট ভরে যায়। ক্যালরির মাত্রা কম বলে মুড়ি খেলে ওজন বাড়ে না। যারা হালকা খাবার হিসাবে নিয়মিত মুড়ি খান, তাদের পক্ষে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সহজ। সাধারণত এক কাপ মুড়িতে ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ ক্যালরি থাকে।

ভাত বা রুটির বদলেও মুড়ি খাওয়া যায়। কারণ, এটি শর্করাজাতীয় খাবার। তবে মুড়িতে লবণের পরিমাণ বেশি থকায় উচ্চ রক্তচাপ এবং হাইপার টেনশনের সমস্যা থাকলে পরিহার করা উচিত। চিনি দিয়ে ভেজে খাওয়া যায়, আবার মুড়ি মাখিয়েও খাওয়া যায়। তবে চানাচুরের বদলে ছোলা বা মটরশুঁটি দিয়ে মাখিয়ে খাওয়াটা তুলনামূলক বেশি ভালো।

আজকাল ইউরিয়া-মিশ্রিত মুড়ি পাওয়া যায়, এগুলো না খাওয়াই উচিত। মুড়িতে লবণের পরিমাণ বেশি থাকে। এ কারণে যাদের কিডনির সমস্যা রয়েছে তাদের মুড়ি না খাওয়াই উচিত।


আরও খবর
আজকের ভালো মন্দ

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21