আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

ময়মনসিংহে দুই তরুণী ধর্ষণ: গ্রেফতার ৫ আসামি রিমান্ডে

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে গারো সম্প্রদায়ের দুই তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার পাঁচ আসামির দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার সকালে হালুয়াঘাটের ৬নং জিআর আমলি আদালতে তাদের সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই ইমরান।  পরে শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দেওয়ান মনিরুজ্জামান তাদের দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আসামিরা হলেন- মামলার প্রধান আসামি রিয়াদ (২২), হালুয়াঘাট উপজেলার কাতলমারি গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে শরীফ মিয়া (২০), কাটাবাড়ি গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে মিজানুর রহমান (২২), একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে আব্দুল হামিদ (১৯), কচুয়াকুড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মিয়া হোসেন (২০) ও একই গ্রামের মফিজুল মিয়ার ছেলে রুকন মিয়া (২১)। এদের মধ্যে আব্দুল হামিদ মামলার আসামি না হলেও ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মো. সফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে শুক্রবার রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে ময়মনসিংহ গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত ৫ আসামিকে গ্রেফতার করে।

এর আগে গত বছরের ২৭ ডিসেম্বর রাতে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার গাজীর ভিটা গ্রামে প্রতিবেশির বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফেরার পথে কাটাবাড়ি গ্রামের আকাশী বাগানে দুই গারো তরুণী ধর্ষণের শিকার হন। এ ঘটনায় ৩০ ডিসেম্বর হালুয়াঘাট থানায় ১০ জনকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা করে ধর্ষণের শিকার এক কিশোরীর পিতা।

এ ঘটনায় আসামিদের গ্রেফতার দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠে জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা হালুয়াঘাটের গারো সম্প্রদায়ের বিভিন্ন সংগঠন। সেসময় আসামিদের  দ্রুত গ্রেফতার না করা হলে সারা দেশে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেয় গারো সম্প্রদায়।


আরও খবর



আজ বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন বিদ্যা সিনহা মিম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রনায়িকা বিদ্যা সিনহা মিম।  মিমের বরের নাম সনি পোদ্দার। কুমিল্লার ছেলে সনি দেশের একটি বেসরকারি ব্যাংকে চাকরি করছেন। ছয় বছর আগে এক বান্ধবীর মাধ্যমে সনি ও মিমের পরিচয় হয়। সেই সূত্র ধরে তাদের বন্ধুত্ব ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর আগে গতকাল সোমবার (৩ জানুয়ারি) মিমের গায়ে হলুদ সম্পন্ন হয়েছে।

শোবিজের একাধিক পরিচালক, শিল্পী ও তার ঘনিষ্ঠজনদের কাছে পাঠানো বিয়ের আমন্ত্রণ পত্রের সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুরে ধুমধাম আয়োজনে সিঁথিতে সিঁদুর পড়ছেন এই নায়িকা। সনাতন ধর্মরীতি মেনেই হবে তার বিয়ে।

দীর্ঘ ছয় বছর চুটিয়ে প্রেম করার পরগত বছরের ১০ নভেম্বর জন্মদিনে সনি পোদ্দারের সঙ্গে বাগদান করেন মিম। সে সময় প্রশ্ন উঠেছেল বিয়ের পর কি রুপালি পর্দা ছেড়ে পরিবর্তন হয়ে যাবেন মিম? বাগদানের পরপরই এমন প্রশ্নের জবাবে মিম গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, তিনি যেমন আছেন তেমনই থাকবেন। পরিবর্তনের সুযোগ নেই। জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করলেও কাজ চালিয়ে যাবেন নিয়মিত।

বিদ্যা সিনহা মিম অভিনীত পরাণ সিনেমাটি এ বছরের ভালোবাসা দিবসে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া অন্তর্জালদামাল সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় আছে।

ফেব্রুয়ারির শেষদিকে শুটিং শুরুর কথা রয়েছে পথে হলো দেখা নামের নতুন সিনেমাটির। ঢাকা, বান্দরবান, সিলেট, পঞ্চগড় ও ঠাকুরগাঁওয়ের বিভিন্ন মনোরম পরিবেশে সিনেমাটির টানা শুটিং হবে বলে জানিয়েছেন নির্মাতা আবু রায়হান জুয়েল।


আরও খবর



গুলিস্তানে বাসচাপায় দুই পথচারী নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৫০৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর গুলিস্তানে বাসচাপায় দুই পথচারী নিহত হয়েছেন। নিহতদের নাম-পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গুলিস্তান টোল প্লাজার সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওয়ারী থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, গুলিস্তানে বাসচাপায় দুই পথচারী নিহত হয়েছেন। তবে বাসটি কোন পরিবহনের তা এখনো আমরা জানতে পারিনি। ঘটনাস্থলে আমাদের কর্মকর্তারা আছেন। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

এদিকে, এ দুর্ঘটনায় অন্তত চারজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন- ইলিয়াস হোসেন (৪০), ওমর শরীফ (৪৫), আল-আমিন (২৫), সজীব (২৬)। ঢামেকে চিকিৎসাধীনরা জানিয়েছেন, তারা সবাই মেঘলা পরিবহনের যাত্রী ছিলেন।


আরও খবর



রেহামের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি! এটাই নয়া পাকিস্তান ইমরানের?

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রবিবার রাতে ভাগ্নের বিয়ে থেকে বাড়ি ফিরছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রাক্তন স্ত্রী রেহাম খান। মাঝপথে হঠাৎ তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুজন অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি। বন্দুক ধরে তাঁর গাড়িকে দাঁড় করিয়েও রাখে। কোনও মতে অন্য গাড়িতে চেপে পালিয়ে গিয়ে নিজের প্রাণ বাঁচায়েছেন রেহাম। এমনটাই দাবি করলেন তিনি।

ঘটনার পর পরই আতঙ্কিত রেহাম টুইট করেন। লেখেন, ভাগ্নের বিয়ে থেকে বাড়ি ফিরছিলাম। হঠাৎ বাইকে চেপে দুই দুষ্কৃতি এসে আমাদের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালাতে থাকে। বন্দুক ধরে গাড়িকে দাঁড় করিয়ে রাখে। আমি অন্য গাড়িতে উঠে পড়েছি। ওই গাড়িতে আমার নিরাপত্তারক্ষী ও চালক আছেন।

তবে এই ঘটনার জন্য তিনি আঙুল তুলেছেন তাঁর প্রাক্তন স্বামী তথা পাক প্রধানমন্ত্রীর দিকে। রেহাম লিখেছেন, এটাই কি ইমরান খানের নয়া পাকিস্তান! কাপুরুষ, গুণ্ডা ও লোভীদের দেশে আপনাকে স্বাগত!


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




‘গবেষণা জাহাজ ইলিশ উৎপাদনে ব্যাপক সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে। অতীতের চেয়ে এখন বেশি ইলিশ উৎপাদন হচ্ছে। তবে ইলিশের সাময়িক উৎপাদন বৃদ্ধি নয় বরং গবেষণার মাধ্যমে আমরা ইলিশ উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে চাই। ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি ইলিশের গুণগত মান আমরা নিশ্চিত করতে চাই

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের নতুন গবেষণা জাহাজ ইলিশ উৎপাদনে ব্যাপক সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম

মঙ্গলবার (০৪ জানুয়ারি) খুলনা শিপইয়ার্ডে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের জন্য শিপইয়ার্ড কর্তৃক নবনির্মিত ইলিশ গবেষণা জাহাজ হস্তান্তর উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো বলেন, "ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে। অতীতের চেয়ে এখন বেশি ইলিশ উৎপাদন হচ্ছে। তবে ইলিশের সাময়িক উৎপাদন বৃদ্ধি নয় বরং গবেষণার মাধ্যমে আমরা ইলিশ উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে চাই। ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি ইলিশের গুণগত মান আমরা নিশ্চিত করতে চাই। অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে ইলিশ কখনো বিপন্ন যাতে না হয় সেজন্য আমাদের গবেষণা ইনস্টিটিউট রয়েছে, বিভিন্ন ল্যাবরেটরি রয়েছে। ইলিশ গবেষণার ক্ষেত্রে গবেষণা জাহাজ বড় ধরনের সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। আমরা চাই নদীমাতৃক বাংলাদেশে যেন পৃথিবীর সবচেয়ে সুস্বাদু ইলিশ পাওয়া যায়"।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, "বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। খুলনা শিপইয়ার্ডে গবেষণা জাহাজ তৈরি আমাদের সক্ষমতার পরিচয়। জাহাজ নির্মাণে ভবিষ্যতে আমরা বিদেশের উপর নির্ভর করবো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রায়ই বলেন আমাদের নিজেদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। আজ দেশের মানুষের সাংবিধানিক মৌলিক চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয়েছে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বিশ্বের বিস্ময় হবে বাংলাদেশ"।

মন্ত্রী আরো বলেন, "করোনার সময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দরজা একদিনের জন্যও বন্ধ ছিল না। কারণ এ মন্ত্রণালয়ের কাজ স্থবির হয়ে গেলে মানুষের পুষ্টি ও আমিষের চাহিদা মেটানো মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাবে। এ খাতে কাজ করা মানুষ বেকার হয়ে যাবে। এ খাতের রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাবে। এভাবে আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতকে একটা বৈপ্লবিক পরিবর্তনের দিকে নিয়ে এসেছি"।

এ সময় চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, "এ দেশটা আইনসঙ্গতভাবে চলবে। দেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান। সংবিধানে যেটা নেই সে জাতীয় আবদার করলে সেটা দেয়ার কোন সুযোগ থাকবে না। অসাংবিধানিক কোন কিছু দাবী করা আইনের শাসনের পরিপন্থী। বিএনপির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি সংবিধানসম্মত নয়। তাই এ দাবি কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। দেশে বিএনপি-জামাত অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ইমেজ সংকটে পড়েছে। এখন যদি আবার সে চেষ্টা কেউ করে এ দেশের মানুষই তাদের কঠোরভাবে মোকাবিলা করবে। বর্তমান সরকার প্রধান বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরি শেখ হাসিনা। তিনি বারবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েও সমঝোতা করেন নি। কাজেই অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে আওয়ামী লীগ বা সরকারকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কোন লাভ নেই। জনগণের ম্যান্ডেট না নিয়ে যেনতেন উপায়ে বিএনপির ক্ষমতায় আসার দুঃস্বপ্ন কখনো সফল হবে না। কারণ নেতৃত্বহীন, আদর্শহীন বিএনপিতে মানুষের আস্থা নেই"।

খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর খন্দকার আক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই)-এর মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ। খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন, খুলনা নেভাল এরিয়া কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, খুলনার জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, বিএফআরআই-এর ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের পরিচালক মো. আবুল বাশার এবং বিএফআরআই ও খুলনা শিপইয়ার্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড এ গবেষণা জাহাজ নির্মাণ করেছে। ৮৬ ফুট দৈর্ঘ্যের ও ১৯ দশমিক ৬৮ ফুট প্রস্থের এ জাহাজে ফিশ ফাইন্ডার, ইকো-সাউন্ডার, নেভিগেশন এবং অত্যাধুনিক টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, অগ্নি নির্বাপক সরঞ্জামাদি, আধুনিক ইলিশ গবেষণা ল্যাবরেটরি, নেটিং সিস্টেম, পোর্টেবল মিনি হ্যাচারিসহ অন্যান্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সংযোজন করা হয়েছে। জাহাজটি দিয়ে নদী এবং সাগরের মোহনায় ইলিশের প্রজনন এবং বিচরণক্ষেত্রের পরিবর্তন পর্যবেক্ষণ এবং নতুন নতুন ক্ষেত্র চিহ্নিত করা সম্ভব হবে। এছাড়া ইলিশের সর্বোচ্চ সহনশীল উৎপাদন, ইলিশের গতিবিদ্যা, জীবনচক্র ও উৎপাদনশীলতার ওপর পরিবেশ ও জলবায়ুগত প্রভাব নির্ণয় সংক্রান্ত গবেষণা পরিচালনা করা হবে।



আরও খবর



‘বড় তারকা’র জন্য প্রথম সুযোগ হারান সিদ্ধার্থ

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বলিউডে এক দশক কাটিয়ে ফেলেছেন। সুদর্শন নায়ক হিসেবে তাঁর যথেষ্ট নামডাক। কিন্তু অভিনয়েও যে তিনি কম যান না, তা শেরশাহ ছবিতে ভাল ভাবেই বুঝিয়ে দিয়েছেন সিদ্ধার্থ মলহোত্র। কিন্তু জানেন কি, ইন্ডাস্ট্রিতে পা রেখেই নিরাশ হতে হয়েছিল পর্দার বিক্রম বত্রাকে? দীর্ঘ অপেক্ষার পরেও হাতছাড়া হয়েছিল প্রথম ছবি। সিদ্ধার্থের ৩৭তম জন্মদিনে ফিরে দেখা যাক সেই আখ্যান।

বয়স কুড়ি পেরোতেই অভিনেতা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে দিল্লি থেকে মুম্বইয়ে আসেন সিদ্ধার্থ। সেই সময় এক প্রযোজনার সংস্থার সঙ্গে ছবি নিয়ে পাকা কথা হয় তাঁর। সিদ্ধার্থ বলেন, ওরা আমাকে ডেকেছিল, কাস্টিং করেছিল, আমি ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছিলাম। ছয় থেকে আট মাস অপেক্ষাও করি। কিন্তু শেষে আমাকে বাদ দিয়ে পরিচালক অন্য এক বড় তারকাকে নিয়ে ছবিটি তৈরি করেন।

এই ঘটনার পর মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন সিদ্ধার্থ। অভিনয়ের আশা ত্যাগ করে সহ-পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। ক্যামেরার পিছনে থেকে ছবির সেটের খুঁটিনাটি শিখে নিচ্ছিলেন। ২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত মাই নেম ইজ খান ছবিতে কর্ণ জোহরের সহকারী হিসেবে কাজ করেন সিদ্ধার্থ। পরবর্তীতে কর্ণই তাঁকে স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ করে দেন। বরুণ ধবন এবং আলিয়া ভট্টের মতো তারকা-সন্তানদের সঙ্গে প্রথম ছবিতেই নজর কাড়েন সিদ্ধার্থ। এর পর ধীরে ধীরে বলিউডে নিজের জায়গা পাকা করে নেন তিনি।


আরও খবর