আজঃ মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

নটর‌ ডেমের ছা‌ত্র নিহতের ঘটনায় ডিএস‌সি‌সির তদন্ত ক‌মি‌টি

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ১০৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নটর ডেম কলেজের প্রথম ব‌র্ষের ছাত্র নাঈম হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ঢাকা দ‌ক্ষিণ সিটি কর‌পো‌রেশ‌ন (ডিএস‌সি‌সি)। সংস্থাটির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর সিতওয়াত নাঈমকে আহ্বায়ক এবং মহাব্যবস্থাপক (পরিবহন) বিপুল চন্দ্র বিশ্বাস ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আনিছুর রহমানকে সদস্য করে এ কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটি সাত কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবে। এছাড়াও এ দুর্ঘটনা কীভাবে সংগঠিত হলো তা সবিস্তারে উত্থাপন ও দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করা, ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা এড়ানো যায়, সেজন্য সুপারিশ করবে এ কমিটি।

এর আগে বুধবার (২৪ ন‌ভেম্বর) সকাল সা‌ড়ে এগা‌রোটার দিকে ক‌লেজ থে‌কে কামরাঙ্গীর চ‌রে যাওয়ার প‌থে গু‌লিস্তান সি‌নেমা হ‌লের সাম‌নে ঢাকা দ‌ক্ষিণ সিটি কর‌পো‌রেশ‌নের এক‌টি ময়লার গা‌ড়ি নটরডেমছাত্র নাঈম হাসানকে ধাক্কা ‌দেয়। মারাত্মক আহত অবস্থায় তা‌কে ঢাকা মে‌ডিক্যাল ক‌লেজ হাসপাতা‌লে নেওয়ার পর সে মারা যায়।

এরপর নাঈম হাসা‌নের অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুর খবর ছ‌ড়ি‌য়ে পড়‌লে নটর‌ ডেম ক‌লেজ থে‌কে তার সহপাঠীরা বেলা তিনটার দি‌কে নাঈম হত্যার ‌বিচার চেয়ে প্রথ‌মে ঢাকা দ‌ক্ষিণ সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের দি‌কে যায়। প‌থে পু‌লি‌শের বাধার মু‌খে প‌ড়ে তারা জি‌পি‌ওর সাম‌নে জি‌রো প‌য়ে‌ন্টে অবস্থান নেয়। এসময় আ‌শপা‌শের এলাকায় সব ধর‌ণের যান চলাচল বন্ধ হ‌য়ে যায়।

এদি‌কে ক‌লে‌জছা‌ত্র নাঈমের দুর্ঘটনাজ‌নিত মৃত্যুর কার‌ণে ঢাকা দ‌ক্ষিণ সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের মেয়র ব্যা‌রিস্টার ফজ‌লে নূর তাপস গভীর শোক ও তার প‌রিবা‌রের প্রতি সম‌বেদনা জা‌নি‌য়ে‌ছেন। এ ছাড়াও দ‌ক্ষি‌ণের মেয়র নিহত নাঈম হাসানের জানাজায় অংশ নেবেন ব‌লেও জা‌নি‌য়ে‌ছেন।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ২১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ইউনিট আওয়ামী লীগের এ দৃশ্য, এ অভিজ্ঞতা আমি কোনো দিন দেখিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে। প্রধানমন্ত্রী যা বলেন তা-ই করেন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের কোনো রকম হয়রানি করা হচ্ছে না। যদি সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে তদন্ত করা হবে।

রোববার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরখানের কাঁচকুড়া শিক্ষা কমপ্লেক্সে ঢাকা মহানগর উত্তরের ৪৪নং ওয়ার্ডের ত্রি-বার্ষিক ইউনিট আওয়ামী লীগের সম্মেলন-২০২১ এ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে এখন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্বের সঙ্গে ডিউটি করে যাচ্ছে। অ্যাম্বুলেন্স থেকে শুরু করে জরুরি কোনো যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি হলে সেগুলো চলাচলে সহযোগিতা করছে তারা।

রাজধানীর উত্তরখানে একটি ফায়ার সার্ভিস ও একটি পুলিশ ফাঁড়ির জন্য নেতাকর্মীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, নতুন থানা হতে সময় লাগবে। দুবার কাগজপত্র প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠাতে হবে। তাই আমি ডিসিকে বলবো, এলাকার জনগণের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ ক্যাম্প করে দেওয়ার জন্য। একইসঙ্গে ডিজি ফায়ারকে বলবো- তারা যেন ইন্সপেকশন করে সুবিধাজনক স্থানে এটার একটা ব্যবস্থা করেন।

রাজধানীর উত্তরখান ও দক্ষিণখানের সড়কে ইজিবাইকের কারণে সৃষ্ট যানজট নিরসন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আমি উত্তরা বিভাগের ডিসিকে (উপ-পুলিশ কমিশনার) বলবো- যিনি ট্রাফিকের দায়িত্বে আছেন আপনি ওনার সঙ্গে আলোচনা করে যানজট কন্ট্রোল করার ব্যবস্থা করেন।

স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠের জনসমাগম দেখে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইউনিট আওয়ামী লীগের এ দৃশ্য, এ অভিজ্ঞতা আমি কোনো দিন দেখিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে। প্রধানমন্ত্রী যা বলেন তা-ই করেন। সেজন্যে আজ তার আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা। এ জায়গায় কাউকে ভাড়া করে আনা হয়নি, কাউকে পয়সা দিয়ে আনা হয়নি। আপনারা আওয়ামী লীগকে ভালোবাসেন, এটাই প্রমাণ করে।

তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশে কোনো খাদ্যের অভাব নেই। কোনো কিছুরই অভাব নেই। সারাদেশের গৃহহীনদের তালিকা করে তাদের বাসস্থানের ব্যবস্থা করছেন প্রধানমন্ত্রী।


আরও খবর



বিচারক কামরুন্নাহারকে এজলাসে না বসার নির্দেশ

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | ৫৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণ মামলার রায় দেওয়া ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক বেগম মোছা: কামরুন্নাহারকে আজ রবিবার সাড়ে ৯টা থেকে এজলাসে না বসার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি। বিচারক কামরুন্নাহারের ফৌজদারি বিচারিক ক্ষমতা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

বিচারক কামরুন্নাহারকে আদালত থেকে প্রত্যাহার করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগে সংযুক্ত করতে চিঠি দেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ বিচারকদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রধান বিচারপতি এ নির্দেশ দিয়েছেন। সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ও স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। 

গত ১১ নভেম্বর দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণের মামলার রায় ঘোষণা করেন বিচারক বেগম মোছা: কামরুন্নাহার। রায়ে সব আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে। খালাস পাওয়া পাঁচ আসামি হলেন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার হোসেনের ছেলে শাফাত আহমেদ, শাফাত আহমেদের বন্ধু সাদমান সাকিফ, নাঈম আশরাফ, শাফাতের দেহরক্ষী রহমত আলী ও গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন।

রায়ের পর্যবেক্ষণে বিচারক বলেন, মামলার দুই ভিকটিম আগে থেকেই সেক্সুয়াল কাজে অভ্যস্ত। তারা স্বেচ্ছায় হোটেলে গিয়েছেন। সেখানে গিয়ে সুইমিং করেছেন। ঘটনার ৩৮ দিন পর তারা বললেন, আমরা ধর্ষণের শিকার হয়েছি। অহেতুক তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রভাবিত হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিয়েছেন। এতে আদালতের ৯৪ কার্যদিবস নষ্ট হয়েছে। এরপর থেকে পুলিশকে এ বিষয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছি। এ ছাড়া এরপর থেকে ধর্ষণের ৭২ ঘণ্টা পর যদি কেউ মামলা করতে যায়- তা না নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি।

বিচারকের পর্যবেক্ষণের প্রতিক্রিয়ায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, আমি রায়ের বিষয়বস্তু নিয়ে মন্তব্য করতে চাই না। অবজারভেশনে (৭২ ঘণ্টা পরে পুলিশ যেন কোনো ধর্ষণ মামলার এজাহার না নেয়) বিচারক যে বক্তব্য দিয়েছেন এ সম্পর্কে আমি বলতে পারি, এটা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং অসাংবিধানিক।


আরও খবর



‘বক্তব্য পরীক্ষা করেই জাহাঙ্গীরকে বহিষ্কার করা হয়েছে’

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ৬১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে দল থেকে বহিষ্কার ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পার্টির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেও জাহাঙ্গীর আলমের বিষয়টি নিয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছেন। তার বক্তব্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার রাতে আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সংসদের সভা শেষে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বৈঠকে গোটা হাউস শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের পক্ষে মত দিয়েছে। সবাই একবাক্যে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছে। সে পরিপ্রেক্ষিতে জাহাঙ্গীর আলমকে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক থেকে তো বটেই, প্রাথমিক সদস্যপদও কেড়ে নেওয়া হয়েছে।

এখন গাজীপুরের পুরো কমিটি থাকবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, একজনের জন্য কি আর পুরো কমিটি ভেঙে দেওয়া যায়।

বৈঠকে বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকরা নির্বাচন সম্পর্কে রিপোর্ট দিয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ইউপিতে যারা বিদ্রোহী ছিল বা বিদ্রোহীদের মদত দিয়েছিল তাদের সম্পর্কে রিপোর্ট দিয়েছে। অনেক নাম এসেছে। বিদ্রোহীদের ব্যাপারে আগে যে সিদ্ধান্ত ছিল সেটাই থাকবে। যারা মদত দিয়েছেসেসব জেলার নেতা, উপজেলা নেতাদেরও শাস্তি পেতে হবে। এমনকি জনপ্রতিনিধি বা মন্ত্রী হলেও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রতীকবিহীন হবে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, হয়তো কোনও বিশেষ এলাকায় হতে পারে। কিন্তু সামগ্রিকভাবে উন্মুক্ত করার ব্যাপারে কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।


আরও খবর



ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর জন্য তহবিল গঠনে গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ৩১ অক্টোবর ২০২১ | ৪৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব থেকে অধিক ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোকে রক্ষার জন্য আরও তহবিলের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) হিসাব অনুযায়ী, আমাদের অর্থনীতিকে পরিবেশবান্ধব করে গড়ে তুলতে আগামী দশকে ছয় ট্রিলিয়ন থেকে ১০ ট্রিলিয়ন বিনিয়োগ করতে হবে। এখন পর্যন্ত সিভিএফের অধিকাংশ দেশ হচ্ছে স্বল্পোন্নত, নিম্ন বা অগ্রগণ্য মধ্যম-আয়ের উন্নয়নশীল দেশ। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় বিভিন্ন কৌশল উদ্ভাবনে সহায়তায় তাদের তহবিল ও বিশেষজ্ঞের সহযোগিতা প্রয়োজন। আর এটি শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে ইতিমধ্যে স্থবির হয়ে পড়েছে বলে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়েছেন।

শেখ হাসিনা ও গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপ্টেশনের সিইও প্যাট্রিক ভারকইজেনের যৌথভাবে লেখা একটি প্রবন্ধ ব্যাপকভাবে প্রচারিত ও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আমেরিকান সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন নিউজউইক প্রকাশ করেছে। জলবায়ুর পরিবর্তন থেকে বাঁচতে অধিক ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোর জন্য আরও অর্থের যোগান দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ শীর্ষক তাদের এ যৌথ প্রবন্ধে উন্নয়শীল দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব থেকে বাঁচাতে বার্ষিক তহবিলে উন্নত দেশগুলোর একশ বিলিয়ন ডলার প্রদানের জলবায়ু প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নেরও আহ্বান জানানো হয়েছে।


তারা লিখেছেন, আমাদের জলবায়ু সঙ্কট হচ্ছে বৈশ্বিক। এখন পর্যন্ত বিশ্বের প্রতিটি দেশে সমভাবে এর প্রভাব পড়তে দেখা যায়নি। চারটি মহাদেশের ৪৮টি দেশের একটি গ্রুপ ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) জন্য জলবায়ুর পরিবর্তন হচ্ছে একেবারে অস্তিত্বের হুমকি। আর এটি অতিশয়োক্তি না।

এ প্রবন্ধে তারা জলবায়ু সঙ্কট থেকে নিজেদের বাঁচাতে বিশ্বের বড় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জলবায়ুর উন্নতি ঘটাতে সিভিএফ দেশগুলোর জন্য বিপুল অর্থের যোগান দেওয়া হলে জলবায়ুর ঝুঁকি থেকে বের হয়ে আসতে তারা পদক্ষেপ গ্রহণে সমর্থ হবে। আর তা বর্তমানে মহাবিপদের মুখে থাকা ৪৮টি দেশের জন্য ভালো হবে।

মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলার ব্যাপারে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তারা বলেন, আমাদের অস্তিত্ববাদের জলবায়ু হুমকি মোকাবিলায় আমাদেরকে একই ধরনের ভূমিকা অবশ্যই কাজে লাগাতে হবে। আসন্ন বিপদের মুখোমুখি হলে কি করা সম্ভব তা কোভিড-১৯ মোকাবিলার ক্ষেত্রে দেখিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার।

জলবায়ু পরিবর্তনের দুর্দশার ব্যাপারে তারা বলেন, ভানুয়াতু, মালদ্বীপ ও মার্শাল দ্বীপপুঞ্জের মতো ছোট দ্বীপ দেশগুলো সমুদ্রের পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ধীরে ধীরে পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে।



আরও খবর



‘বীর সিমেন্টের’ লোগো উন্মোচন করলেন বসুন্ধরা গ্রুপ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | ৯১২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জমকালো লগো উন্মোচন অনুষ্ঠানের মধ্যে দেশের বাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করলো বসুন্ধরা গ্রুপের বীর সিমেন্ট। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার অডিটোরিয়ামে বীর সিমেন্টের লোগো উন্মোচন ও আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। বাংলাদেশের ৫০ তম বিজয়ের দিবস উৎযাপনের প্রাক্কালে এই ব্র্যান্ড বাংলাদেশের উন্নয়নে অগ্রযাত্রায় সহযোগী হিসেবে এক নতুন ভূমিকা পালনের প্রত্যাশা বীর সিমেন্টের কর্তৃপক্ষ।      

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রাযাত্রায় সবসময় দেশের সবচেয়ে বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ সবসময়েই সম্পৃক্ত ছিলো এবং বেসরকারী উদ্যোগে ১৯৯৬ সালে প্রথম সিমেন্ট ইন্ড্রাস্টির সূচনা করে। এর ধারাবাহিকতার ২০১২ সালের ১২ নভেম্বর যাত্রা শুরু করে বসুন্ধরা সিমেন্ট। তিনি আরো বলেন, বীরের দেশ আমাদের বাংলাদেশ, আগামীর বাংলাদেশের জন্য টেকসই এক অবকাঠামো গড়তে বসুন্ধরা গ্রুপের নতুন সংযোজন বীর সিমেন্ট, আমি বীর সিমেন্টর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করলাম।

এ সময় সিমেন্ট সেক্টরের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা (সিএমও) খন্দকার কিংশুক হোসেন বলেন, আজ আমাদের জন্য এক বিশেষ দিন, একটি শুভ দিন। কারণ এই দিনে আমরা দেশের বাজারে নতুন একটি ব্র্যান্ডের যাত্রা শুর করতে যাচ্ছি । আমরা সকলের পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে এই ব্র্যান্ডেটিকে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবো এই প্রত্যাশায় সবাইকে আরো একবার ধন্যবাদ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা ময়নাল হোসেন চৌধুরী, বসুন্ধরা গ্রুপের গভমেন্ট রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্সের সিওও মো. তারিকুল ইসলাম চৌধুরী, ফাইন্যান্স হেড নূরে-আলাম-ছিদ্দিকি, হেড অফ ব্যাংকিং শেখ মো. রাজিব সামাদ, হেড অফ একাউন্টস পিজিরুল আলম খাঁন, জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) আব্দুল লতিফ, ব্যান্ড এ্যন্ড কমিউনিকেশনের এ জিএম মো. সাইফুল ইসলাম রুবেল প্রমূখ।


আরও খবর