আজঃ মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

নতুন বছরে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি রাজ পরিবারের ‘ধর্মযুদ্ধ’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

২০১৯-এ ছবি তৈরির ঘোষণা। ২০২০-তে মুক্তির কথা ছিল। মহামারির সঙ্গে এক বছর যুদ্ধ চালিয়ে নতুন বছরের ২১ জানুয়ারি মুক্তি পেতে চলেছে রাজ চক্রবর্তীর ধর্মযুদ্ধ। রাজ মানেই এখন বিষয়নির্ভর ছবি। আর তাতে রাজ-ঘরনি শুভশ্রী নায়িকা কম অভিনেত্রী বেশি। পরিণীতা ছবি থেকেই চেনা ছক থেকে বেরিয়ে নিজেদের ভেঙেছেন রাজশ্রী। তারই যেন আরও পরিণত রূপ ধর্মযুদ্ধ

তারকা দম্পতির পাশাপাশি ছবির জোরালো খুঁটি এক ঝাঁক তারকা। রয়েছেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত, সপ্তর্ষি মৌলিক, পার্নো মিত্র, ঋত্বিক চক্রবর্তী, সোহম চক্রবর্তী। ২০২১ মঞ্চ, পর্দা সফল প্রবীণ অভিনেত্রী স্বাতীলেখাকে কেড়ে নিয়েছে। নতুন বছরে পর্দাজুড়ে তিনি নব রূপে। ধর্মযুদ্ধ ছাড়াও স্বাতীলেখা জীবন্ত হবেন উইনডোজ প্রোডাকশনের বেলাশুরু ছবিতে। সপ্তর্ষি এই ছবিতে শুভশ্রীর স্বামী। পেশায় অটোচালক। খবর, শুভশ্রীর পাশাপাশি তাঁর লুক-এও বড় পরিবর্তন এনেছেন পরিচালক। শ্যুট শুরুর আগে তাঁকে অটো চালানো শিখতে হয়েছিল

ছবি-মুক্তির খবর সপ্তর্ষি প্রথম জানলেন আনন্দবাজার অনলাইন থেকে। আনন্দের পাশাপাশি ছোট্ট আক্ষেপ তাঁর, রাজ যখন ছবিটি বানিয়েছিলেন সেই সময় দেশ-রাজ্যজুড়ে ধর্ম নিয়ে কাটাছেঁড়া চলছে। ছবিটি সেই সময় মুক্তি পেলে আরও প্রাসঙ্গিক হত। এখন কি তা হলে ছবির প্রাসঙ্গিকতা তুলনায় কমে গিয়েছে? মানতে রাজি নন স্বাতীলেখা সেনগুপ্তের একমাত্র জামাই।

তাঁর কথায়, দেশ বা রাজ্যে ধর্মযুদ্ধ থিতিয়েছে। থেমে যায়নি। তা ছাড়া, দর্শক অত্যন্ত বুদ্ধিমান। তাঁরা ছবি দেখে বুঝবেন পরিচালক কী বলতে চাইছেন। আশা, তাঁরা খুশি মনেই ছবিটিকে গ্রহণ করবেন। শুভশ্রীর স্বামী হওয়ার অনুভূতি কেমন? অনবদ্য, দাবি সপ্তর্ষির। সারা ছবিতেই শুভ অন্তঃসত্ত্বা। সেই অনুভূতি ধরে রেখে ছবিতে অভিনয় করে যাওয়া সহজ নয়। এত দিন গ্ল্যামারাস নায়িকা হিসেবে জনপ্রিয়তা পাওয়ার পরে 'পরিণীতা' থেকে শুভ জনপ্রিয় অভিনেত্রী। এ ভাবে ভেঙে নিজেকে প্রমাণ করতে যথেষ্ট সাহসের প্রয়োজনবক্তব্য অভিনেতার।


আরও খবর
শাকিব খানের ব্যাংক হিসাব তলব

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




নদী পারাপারের অপেক্ষায় ৬ শতাধিক গাড়ি

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঘনকুয়াশার কারণে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ কারণে ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে ছয় শতাধিক যানবাহন। এতে যাত্রী ও যানবাহন চালকদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

বুধবার সকাল ৬টা থেকে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) কর্তৃপক্ষ।

দৌলতদিয়া  বিআইডব্লিউটিসি ও ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়, ভোর থেকে পদ্মায় কুয়াশার ঘনত্ব বৃদ্ধি পায়। কুয়াশার ঘনত্বের বৃদ্ধির কারণে নৌপথ সম্পূর্ণরূপে অস্পষ্ট হয়ে যায়। এ অবস্থায় ফেরি চলাচল করলেও দুর্ঘটনার সম্ভাবনা সৃষ্টি হতে পারে বলে সকাল ৬টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

রাজবাড়ী  জেলা পুলিশ সূত্র থেকে জানা যায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় এবং রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় প্রায় ৬ শতাধিক যানবাহন ফেরিপারের অপেক্ষায় আটকে রয়েছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার কারণে যাত্রী ও যানবাহন চালকদেরও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের বাণিজ্য বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. মহিউদ্দীন রাসেল  বলেন, ঘনকুয়াশার কারণে ফেরি চলাচলে সমস্যা সৃষ্টি হয়। এতে দুর্ঘটনা এড়াতে আমরা বুধবার ভোর থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছি। কুয়াশার ঘনত্ব কমে গেলে পুনরায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

 


আরও খবর



গাজীপুরে আজিজ কেমিক্যাল কারখানায় অগ্নিকাণ্ড

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ নভেম্বর ২০২১ | ৫৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বিকট শব্দের সঙ্গে কালো ধোয়া ও আগুন পুরো ভবনসহ চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। ঝাঁঝালো গন্ধে আশপাশের পরিবেশ বিষাক্ত

শ্রীপুর(গাজীপুর)প্রতিনিধি

গাজীপুরের শ্রীপুরের তেলিহাটি ইউনিয়নের মুলাইদ এলাকায় আজিজ কেমিক্যাল গ্রুপের এ এস এম কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কোম্পানি লিমিটেডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে মাওনা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

বুধবার (৩ নভেম্বর)  সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় কারখানায় এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, ঘটনার সময় বিকট শব্দে কারখানার আশপাশের  মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। বিকট শব্দের সঙ্গে কালো ধোয়া ও আগুন পুরো ভবনসহ চারদিকে  ছড়িয়ে পড়ে। ঝাঁঝালো গন্ধে আশপাশের পরিবেশ বিষাক্ত হয়ে ওঠে।

মাওনা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মিয়া রাজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে  জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা  কাজ করছে।  বিস্তারিত তথ্য পরে জানা যাবে। হাইড্রোজেন পারক্সাইডের সংরক্ষিত স্টোরেজ বিস্ফোরণ হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।  আগুন লাগার প্রকৃত কারণ নিরূপণ করা যায়নি।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালক আব্দুল হামিদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান আগুন নিয়ন্ত্রণে মাওনা, শ্রীপুর, ভালুকাসহ মোট ৮ টি ইউনিট কাজ করছে। তাৎক্ষণিক আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। হতাহতের কোন খবরাখবর এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পাওয়া যায় নি।

নিউজ ট্যাগ: গাজীপুর

আরও খবর
গাজীপুর সিটির মেয়র কিরন

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১




বুসান আন্তর্জাতিক মৎস্য মেলায় বাংলাদেশের উৎপাদিত মাছ প্রদর্শন

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দক্ষিণ কোরিয়ার বুসান আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক খাদ্য ও মৎস্য মেলা ২০২১-এ সিউলের বাংলাদেশ দূতাবাস অংশগ্রহণ করেছে। তিন দিনব্যাপী এ মেলায় বাংলাদেশের উৎপাদিত মাছ ও সামুদ্রিক খাদ্য প্রদর্শন করা হয়েছে।

শনিবার (৬ নভেম্বর) দক্ষিণ কোরিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস এ তথ্য জানায়।

দূতাবাস জানায়, গত ৩ থেকে ৫ নভেম্বর বুসান আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক খাদ্য ও মৎস্য মেলা ২০২১ অনুষ্ঠিত হয়। গত কয়েক বছর মতো এবারও বাংলাদেশ মেলায় সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ নেয়। এই মেলার মাধ্যমে দেশের উৎপাদিত মাছ ও সামুদ্রিক খাদ্য প্রদর্শন করা হয়।

মেলাটি বুসান মেট্রোপলিটন সিটি কর্তৃপক্ষ ও বুসান এক্সিবিশন অ্যান্ড কনভেনশন সেন্টার (বেক্সকো), ন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফিশারিজ কো-অপারেটিভ ও কোরিয়া ফিশারি ট্রেড অ্যাসোসিয়েশনের সম্মিলিত সহযোগিতায় আয়োজিত হয়ে আসছে।

এতে দক্ষিণ কোরিয়াসহ ১৪টি দেশ ও তাদের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। ৫৫১টি বুথের (৩৬টি বিদেশি এবং ৫১৫টি কোরিয়ান) মাধ্যমে দেশগুলো সামুদ্রিক খাদ্য ও মৎস্য জাতীয় পণ্য আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তুলে ধরে।

দূতাবাস জানায়, এ মেলায় প্রতিদিন প্রায় ১০০ জন কোরীয় ও অন্যান্য দেশের দর্শনার্থী বাংলাদেশের প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখেছেন। তিন দিনব্যাপী এ মেলায় দেশের বিভিন্ন প্রজাতির মাছ বিশেষ করে- ইলিশ, রুই, পাঙ্গাস, তেলাপিয়া, শিং মাছ, বাগদা ও গলদা চিংড়ি, হরিনা চিংড়ি, মাড কাঁকড়া, ইল মাছ, কাটল মাছ, স্কুইড, ম্যাকারেল, চাইনিজ পমফ্রেট, সিলভার পমফ্রেট, সারডিন, লেদার জ্যাক মাছ, ছুরি মাছ, টুনা এবং হেলিবাট মাছ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দর্শনার্থীদের সামনে তুলে ধরা হয়।


আরও খবর



বিশ্বে দূষিত শহরের তালিকায় ৮ নম্বরে ঢাকা

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক জলবায়ুবিষয়ক সংস্থা আইকিউএয়ারর প্রকাশিত তালিকায় উঠে এসেছে।বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত ১০ শহরের তালিকায় ঢাকা ৮ নম্বরে রয়েছে।

প্রকাশিত তথ্যমতে, দূষিত ১০ শহরের তালিকায় ভারতেই রয়েছে তিনটি শহর। এ ছাড়া পাকিস্তানের দুটি ও বাংলাদেশের একটি শহর রয়েছে।

একিউআই অনুযায়ী, স্কোর শূন্য থেকে ৫০-এর মধ্যে থাকলে বাতাসের মান ভালো বিবেচনা করা হয়। স্কোর ৫১ থেকে ১০০-এর মধ্যে থাকলে সন্তোষজনক, ১০১ থেকে ২০০-এর মধ্যে থাকলে মধ্যম, ২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকলে খারাপ, ৩০১ থেকে ৪০০-এর মধ্যে থাকলে অত্যধিক খারাপ এবং ৪০১ থেকে ৫০০-এর মধ্যে থাকলে দূষণের মাত্রা মারাত্মক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তালিকায় ৪৬০ স্কোর নিয়ে সবচেয়ে দূষিত শহরের শীর্ষে রয়েছে ভারতের নয়াদিল্লি। দ্বিতীয় (৩২৮) পাকিস্তানের লাহোর। তৃতীয় (১৭৬) চীনের চেংদু, চতুর্থ (১৬৯) ভারতের মুম্বাই, পঞ্চম (১৬৫) পাকিস্তানের করাচি, ষষ্ঠ (১৬৫) ভারতের কলকাতা, সপ্তম (১৬৪) বুলগেরিয়ার সোফিয়া, অষ্টম (১৬০) বাংলাদেশের ঢাকা, নবম (১৫৯) সার্বিয়ার বেলগ্রেড এবং দশ নম্বরে (১৫৮) আছে ইন্দোনেশিয়ার শহর জাকার্তা।


আরও খবর



আদাবর থেকে টিকটকে আসক্ত ৩ বোন নিখোঁজ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর আদাবর এলাকার একটি বাসা থেকে দুই এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ তিন বোন নিখোঁজ হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সকালে আদাবরের শেখের টেকের খালার বাসা থেকে তারা বের হয়ে আর ফেরেনি।

এ ঘটনায় তাদের খালা সাজেদা নওরীন আদাবর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) সকালে আদাবর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহীদুজ্জামান বলেন, যে বাসা থেকে ওই তিন তরুণী বেরিয়েছে তার আশপাশের বাসা ও সড়কের সিসিটিভির ফুটেজ পর্যালোচনা করা হয়েছে। ফুটেজ দেখে মনে হয়েছে তারা নিজ ইচ্ছায় ব্যাগ গুছিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, আমরা তাদের অবস্থান শনাক্তে কাজ করছি। খিলগাঁওয়ে তারা মোবাইল ব্যবহার করলেও আদাবরে খালার বাসায় তাদের মোবাইল ছিল না। তারা বের হয়ে যাওয়ার সময় কোনো মোবাইল নেয়নি। তারা টিকটক করত বলে পরিবারের অভিযোগ। তাদের নিখোঁজের সঙ্গে টিকটক ভিডিও তৈরির কোনো যোগসাজশ ছিল কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাদের অবস্থান শনাক্ত ও উদ্ধারের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে নেপথ্যে কী ছিল কারণ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নিখোঁজ তিন তরুণীর খালা সাজেদা নওরীন বলেন, বড় বোনের মৃত্যুর তিন বছর হয়েছে। ভগ্নিপতিও বিয়ে করেছেন। ছোট বোনের খিলগাঁওয়ের বাসায় থাকত রোকেয়া (১৮), জয়নব আরা (১৭) ও খাদিজা আরা (১৬)।

তিনি বলেন, ধানমন্ডি গার্লস হাই স্কুলে জয়নব আরা এবং খাদিজা আরার পরীক্ষার সেন্টার ছিল। সে কারণে আদাবরে আমার বাসায় নিয়ে আসি। এর মধ্যেই তারা তিন জন বাসা থেকে কাউকে কিছু না বলে বেরিয়ে যায়। তিন ভাগ্নিই টিকটকে আসক্ত ছিল। টিকটকের মাধ্যমে কারও মাধ্যমে ওরা প্ররোচিত হয়ে থাকতে পারে।

সাজেদা নওরীন বলেন, বাসা থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় তারা বই-খাতা, পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড, রেজিস্ট্রেশন কার্ডসহ সবকিছু নিয়ে গেছে। ওরা নিরাপদে ফিরুক কিংবা ফিরিয়ে আনা হোক, সেটাই আমার অনুরোধ।

 


আরও খবর
মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৬

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১