আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

নতুন ফিচার চালু করেছে ইমো

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ব্যবহারকারীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ছবি শেয়ার ও ভয়েস মেসেজের জন্য নতুন ফিচার চালু করেছে ইমো।

নতুন ফিচারগুলো ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতায় পরিবর্তন আনবে বলে আশা করছে প্রতিষ্ঠানটি। ইমো ছবি শেয়ারের দুটি নতুন অপশন- অরিজিনাল ইমেজ এবং হাই কোয়ালিটি যুক্ত করেছে।

এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটি ডেটা সেভার মোডের জন্য ছবির ডেফিনিশন আরও উন্নত করার পেছনে কাজ করেছে। অন্যান্য ফিচারের মধ্যে ম্যানুয়ালি ইয়ার স্পিকার মোড, ভয়েস মেসেজিং ফাংশনটি ব্যবহারকারীদের জন্য চালু করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ইমো

আরও খবর



এবার করোনায় আক্রান্ত মিথিলা

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছরের শুরুতেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলার বর্তমান স্বামী ভারতীয় নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি। এর কদিন পর (৫ জানুয়ারি) গায়ক-অভিনেতা তাহসান খান ও মিথিলার মেয়ে আইরা তেহরীম খানও করোনায় আক্রান্ত হয়। অবশেষে মিথিরাও করোনার থাবায় পড়লেন। গতকাল শুক্রবার তার কোভিড টেস্ট পজিটিভ এসেছে বলে নিশ্চিত করেছেন এই তারকা। ফলে পরিবারের সবাই এখন ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হলেন।

মিথিলা বলেন, কয়েক দিন ধরেই আমরা সাবধানে ছিলাম। কিন্তু আমার মধ্যেও করোনার লক্ষণ ছিল। ফলে ৩-৪ দিন আগে পরীক্ষা করিয়েছিলাম। তখন কিন্তু নেগেটিভ এসেছিল। গত পরশু (বৃহস্পতিবার) আবারও নমুনা পরীক্ষা করালে গতকাল বিকেলে পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

মিথিলা জানান, অল্প কাশি ও ঠাণ্ডা আছে। এছাড়া তিনি আর কোনও সমস্যা অনুভব করছেন না। স্বামী-সন্তান এখন বেশ ভালো আছে। তাদের জ্বর নেই। বর্তমানে তারা সবাই কলকাতায় সৃজিতের বাসাতেই আছেন।


আরও খবর



ফাঁদে ফেলে অর্থ আদায়: এবার পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রী গ্রেফতার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৭৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রংপুরে ফাঁদে ফেলে সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে টাকা আদায়ের ঘটনায় এবার এক পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) বিকেলে রংপুর নগরীর ঠিকাদার পাড়া বিকন মোড় এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতার ওই নারীর নাম কানিজ ফাতিমা আনিসা (৩৬)। তার স্বামীর নাম হাবিবুর রহমান। তিনি পুলিশ সুপার কার্যালয়ে পরিদর্শক পদে কর্মরত।

আনিসাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুর মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হোসেন আলী। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে টাকা আদায় ও টর্চারসেলে নির্যাতনের অভিযোগে ২ জানুয়ারি রাতে নগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড় এলাকার বাড়ি থেকে শাহারুখ করিম অনিক (৩৪) ও তার স্ত্রী আসমানী আক্তারকে (২৪) গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় থানায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়। ওই মামলায় আসামিরা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে কানিজ ফাতিমা আনিসার নাম উঠে আসে।

হোসেন আলী আরও বলেন, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে বিকন মোড় এলাকার একটি বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে রংপুর মহানগর পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, গ্রেফতার আনিসা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে পরিদর্শক পদে কর্মরত হাবিবুর রহমানের স্ত্রী।

তবে এ বিষয়ে জানতে হাবিবুর রহমানের মোবাইল নম্বরে কল দিলে তিনি নিজেকে পুলিশ পরিদর্শক পরিচয় দেন। তবে আনিসার ব্যাপারে জানতে চাইলে ওই নারী তার স্ত্রী নন বলেই ফোন কেটে দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা পুলিশ সুপার ফেরদৌস আলী চৌধুরীর মোবাইল ফোনে কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এর আগে সোমবার বিকেলে রংপুর র‌্যাব-১৩ এর সহকারী পরিচালক মাহমুদ বশির আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বেশ কিছুদিন ধরে অনিকের স্ত্রী আসমানী রংপুর মহানগরীর বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে পরিচিত হয়ে কৌশলে তাদের আস্তানায় ডেকে নিয়ে যেতেন। এরপর অনিকসহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজন ওইসব ব্যক্তির অশ্লীল ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া এবং হত্যার ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায় করত। এভাবেই লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এ চক্রটি।

এমন একটি অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৩ বিষয়টি আমলে নিয়ে সত্যতা অনুসন্ধানের জন্য তাৎক্ষণিক ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং জিম্মিকারী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ায়। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাবের একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে রংপুর মহানগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড় এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করে।

অভিযান চলাকালে র‌্যাব তাদের বাসার ষষ্ঠ তলায় একটি টর্চার সেলের সন্ধান পায়। এ সেল থেকে দুটি চাপাতি, ইলেকট্রিক শকের তার, মাদক সেবনের সরঞ্জামাদি, হাতুড়ি, ছুরি, স্ট্যাম্প, ভিডিও ধারণের দুটি মোবাইল ফোন এবং একটি ল্যাপটপ উদ্ধার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার দম্পতি বিভিন্ন ব্যক্তিকে জিম্মি করে চাঁদা আদায় এবং নির্যাতনের কথা স্বীকার করেছেন। সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দিয়ে আটকদের হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের সহযোগীদেরও আইনের আওতায় আনতে র‌্যাবের কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

নিউজ ট্যাগ: রংপুর

আরও খবর



ময়মনসিংহে দুই গারো তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণ: গ্রেপ্তার-৫

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে বিয়ে বাড়ি থেকে ফেরার পথে দুই গারো তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণের মামলায় ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- হালুয়াঘাট উপজেলার কাতলমারি গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে শরীফ মিয়া (২০), কাটাবাড়ি গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে মিজানুর রহমান (২২), একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে আব্দুল হামিদ (১৯), কচুয়াকুড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মিয়া হোসেন (২০) একই গ্রামের মফিজুল মিয়ার ছেলে রুকন মিয়া (২১)। তাদের মধ্যে আব্দুল হামিদ মামলার আসামি না হলেও ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা পুলিশ সুপার মোহা.আহমার উজ্জামান বলেন, দুই গারো তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় শুক্রবার রাতে ময়মনসিংহসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের দুটি চৌকস টিম তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে তাদের গ্রেপ্তার করে। অচিরেই বাকিদের গ্রেপ্তার করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ ডিসেম্বর মধ্যরাতে বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফেরার পথে কাটাবাড়ি গ্রামের আকাশী বাগানে দুই গারো তরুণী ধর্ষণের শিকার হন। পরে ৩০ ডিসেম্বর হালুয়াঘাট থানায় ১০জনকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন এক তরুণীর বাবা।

নিউজ ট্যাগ: ময়মনসিংহ

আরও খবর



গীতিকার মেহবুবুল হাসান রাসেলের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাসেল ওনীল নামে পরিচিত গীতিকার মেহবুবুল হাসান রাসেলের (৪৭) ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানাধীন লিচু বাগান এলাকার নিজ বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

গণমাধ্যমে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার ডিউটি অফিসার মো. সাইদুর রহমান।

পরিবারের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, রাতের খাবার শেষে নিজের রুমে যান মেহবুবুল হাসান রাসেল। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে পরিবারের অন্য সদস্যরা ডাকাডাকির পর দরজা না খোলায় পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ গিয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে থাকা অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে।

প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা বলে ধারণা করছে পুলিশ। তবে তদন্তের পর এর প্রকৃত কারণ সম্পর্কে জানা সম্ভব হবে বলে জানান মো. সাইদুর রহমান।

তিনি বলেন, মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

দিন বাড়ি যায়/ চড়ে পাখির ডানায় এর মতো অসংখ্য জনপ্রিয় গানের রচয়িতা রাসেল একসময় সাংবাদিকতায়ও যুক্ত ছিলেন। পরে সাংবাদিকতা ছেড়ে বিজ্ঞাপনী সংস্থায় যুক্ত হন। গানের পাশাপাশি অসংখ্য বিজ্ঞাপনের জিংগেলও লিখেছেন তিনি। তার লেখা অধিকাংশ গানই দলছুট এবং বাপ্পা মজুমদারের গাওয়া।


আরও খবর



অধিনায়ক না থাকলেও কোহলীই আমাদের দলের নেতা : বুমরা

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিরাট কোহলী টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব ছাড়ার তাঁরা অবাক হয়েছিলেন। কিন্তু দলের প্রত্যেকে কোহলীর এই সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা করেন। এক দিনের সিরিজের আগে সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত হয়ে সোমবার বললেন যশপ্রীত বুমরা।

বুমরা বলেছেন, দেখুন, বিরাট কেন টেস্ট অধিনায়কত্ব ছেড়েছে সেটা বলার জন্য তো এখানে আসিনি। এটা ওর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। আমরা শ্রদ্ধা করি। ওর শরীর এবং মনের ব্যাপারে ও-ই সব থেকে ভাল জানে। তবে বিরাটের অধীনে খেলতে পেরে আমি গর্বিত। টেস্টে অভিষেক হয়েছিল ওর অধীনেই। দলের মধ্যে আলাদা শক্তি নিয়ে আসে ও। বরাবরই আমাদের দলের নেতা থাকবে এবং আশা করি ভবিষ্যতেও এ ভাবেই অবদান রেখে যাবে।

কখন কোহলী অধিনায়কত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানান সেই প্রসঙ্গে বুমরা বলেছেন, কেপ টাউনে হারের পর টিম মিটিংয়েই কোহলী আমাদের জানিয়ে দেয় যে, ও টেস্ট অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছে। ওর নেতৃত্বকে আমরা সম্মান করি। দলের নেতা হিসাবে যা অর্জন করেছে তার জন্য ওকে আমরা অভিনন্দন জানিয়েছি। বুমরা আরও বলেন, অধিনায়ক না হলেও বিরাট আমাদের দলের নেতা থাকবে। ওর মতো শক্তি ভারতীয় দলে প্রায় কারওর নেই। ভারতীয় ক্রিকেটে একটা বদল নিয়ে এসেছে ও। প্রত্যেকে এখন অনেক বেশি ফিট। আমাদের দলে ও-ই অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। খেলার প্রতি ওর জ্ঞান বরাবর দলের কাজে লাগবে।

তবে বুমরা এটাও স্পষ্ট জানিয়েছেন, নেতৃত্বের এই বদল সম্ভবত দলের পারফরম্যান্সে কোনও প্রভাব ফেলবে না। বুমরার কথায়, সবার কথা বলতে পারব না। তবে আমার কাছে এই ঘটনা কোনও প্রভাব ফেলবে না। আমরা প্রত্যেকে একে অপরকে কোনও না কোনও উপায়ে সাহায্য করার জন্য তৈরি। আমরা জানি যে প্রক্রিয়া মেনে এগোচ্ছি তাতে পরিবর্তন আসবেই। তাই আমার মনে হয় না বিরাট চলে যাওয়ায় কেউ কোনও সমস্যায় পড়বে।

তিনি নিজে কখনও দলের অধিনায়ক হওয়ার ইচ্ছে পোষণ করেন? বুমরা জানালেন, দলকে নেতৃত্ব দিতে কোনও সমস্যা নেই তাঁর। বলেছেন, দলকে যে ভাবে পারি সাহায্য করতে চাই। যদি কোনওদিন নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ আসে তা হলে অবশ্যই সেটা নিয়ে ভাবব। কিন্তু নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য কখনও ধাওয়া করব না। আমি নিজের কাজটা করতেই বেশি ভালোবাসি। তার জন্য আমাকে অধিনায়ক করতেই হবে এমন কোনও ব্যাপার নেই। দলের জয়ে অবদান রাখার থেকে বড় আমার কাছে কিছু নেই।

নিউজ ট্যাগ: বিরাট কোহলী

আরও খবর