আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

পাড়াগাঁয়ে ব্যতিক্রমী এক বিদ্যাপীঠ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রথমে দেখে মনে হবে এটি কোনো জমিদারের বাড়ি বা অভিজাত রিসোর্ট। বাংলাদেশে এমন দৃষ্টিনন্দন বিদ্যাপিঠ তেমন দেখা যায় না। যেখানে ব্যতিক্রম পরিবেশে শিক্ষা দেওয়া হয়। ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের চরভিটা গ্রামে অবস্থিত ব্যতিক্রম এ বিদ্যাপিঠ। নাম চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এখানে ছাত্র-ছাত্রীদের আধুনিক সৃজনশীল পদ্ধতিতে পাঠদান করা হয়।

ভারত সংলগ্ন বর্ডারের প্রায় দুই কিলোমিটার আগে দেখা মিলল দৃষ্টিনন্দন একটি বিদ্যাপিঠের। সূর্যের আলোয় বিদ্যাপিঠটি ঝলমল করছে। রাতের জন্য রয়েছে ল্যাম্পশেডও। ২০০১ সালে এরফান আলীর (প্রধান শিক্ষক) বাবা নুরুল ইসলাম নিজ জমিতে স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৩ সালে প্রাথমিক বিদ্যালয়টির সরকারিকরণ করা হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয় ভবনের চারপাশ খোলামেলা। শ্রেণিকক্ষসহ বিদ্যালয়ের সবকিছুই রঙিন প্রচ্ছদে ঢাকা। বালক-বালিকাদের জন্য রয়েছে আলাদা আলাদা শৌচাগার, খেলাধুলার জন্য রয়েছে নানান ধরনের সরঞ্জাম। বিদ্যালয়টিতে রয়েছে কারুকার্যখচিত, সুসজ্জিত নান্দনিক ভবন। দ্বিতল ভবনের ছাদে দেওয়া হয়েছে বিদ্যালয়ের নিজ অর্থায়নে কম্পিউটার ল্যাব। ভবনের উত্তরে হাঁস-মুরগির খামার ও বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব লাইব্রেরি এবং পশ্চিম পাশে রয়েছে সিসি ক্যামেরায় মনিটরিং রুম, সততা ক্যান্টিন, মসজিদ, মাছ চাষের পুকুর।

শিক্ষার্থীদের বিনোদনের জন্য রয়েছে শিশুপার্ক ও মিনি চিড়িয়াখানা। খেলার মাঠের এক পাশে আছে দোলনা, গরুর গাড়ি। পুকুরে নৌকা। দেয়ালে আঁকা রয়েছে স্বাধীনতার মহান পুরুষ ও শহীদদের প্রতিকৃতি, কবি-সাহিত্যিকদের ছবি। এ ছাড়া রয়েছে বিভিন্ন প্রাণীর ছবি। মাটিতে ফুলের গাছ দিয়ে বানানো হয়েছে ত্রিভুজ, চতুর্ভুজ ও বৃত্ত। চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিজ জমিতে সবজি চাষ করা হয়। তাদের ফলানো সবজি ব্যবহার হয় মিড-ডে মিলে। তা ছাড়া, বিনামূল্যে শেখানো হয় কম্পিউটার, আবৃত্তি, অভিনয়। ভারতের সীমান্তঘেঁষা এ স্কুলে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানো হয়। শিক্ষার্থী সংখ্যা প্রায় ৩৫০। চারজন শিক্ষক ও তিনজন প্যারাশিক্ষক রয়েছেন।

শিক্ষার্থীরা জানায়, বিদ্যালয়ে লেখাপড়ার ফাঁকে তারা প্রতিদিন একদল খাবার দেয় হাঁস-মুরগিকে, অন্য দল সবজি বাগানের পরিচর্যা করে। এ কাজ করতে ওদের ভালো লাগে। স্কুলের খাবার খেয়ে তারা এখন নিশ্চিন্তে পড়ালেখা করতে পারছে। সমাপনী পরীক্ষার পর স্কুল ছেড়ে চলে যাবে কেউ কেউ। স্কুলের জন্য ভালো কিছু একটা করে যেতে পারলে নিজেরও ভালো লাগবে।

অভিভাবকরা জানান, এখন বাচ্চারা বাড়ির খাবারের থেকে মিড-ডে মিল খেতে বেশি আগ্রহী। ছেলে-মেয়েরা যে চাষাবাদ ও অনেক কিছু শিখছে, তাতে তারা খুশি।

চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এরফান আলী বলেন, অভাব-অনটনের কারণে অনেক শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে খুব একটা হাজির হতো না। ২০১৩ সালে বিদ্যালয়ে ১৫০ শিক্ষার্থী ছিল, কিন্তু প্রতিদিন হাজির থাকত ৬০ থেকে ৭০ জন। শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়মুখী করা এবং ঝরে পড়া রোধে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও অভিভাবকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করে পড়ালেখায় শিক্ষার্থীদের মনোযোগ ধরে রাখতে বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল চালুর ব্যবস্থা করি। প্রতি মাসে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ হয়। এ উদ্যোগ চালু রাখতে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নুরুল ইসলাম নিজের ৬ বিঘার একটি পুকুর ও ২ বিঘা জমি বিদ্যালয়কে ব্যবহার করতে দিয়েছেন। এ ছাড়া তিনি প্রতি মাসের লবণ ও তেলের জোগান দেন। সেই পুকুরেই চলছে মাছ চাষ, হাঁস-মুরগির খামার, জমিতে সবজি। মিড ডে মিল চালু করায় স্কুলে শিক্ষার্থী বাড়ছে, সেই সুবাদে তিনি মনে করেন তার স্কুল এখন সেরা।

হরিপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আজিজার রহমান বলেন, চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হরিপুর উপজেলার অন্যতম একটি বিদ্যালয়। এখানে শিক্ষার্থীদের মনোযোগ আকর্ষণের জন্য সৃজনশীল অনেক কিছু জিনিস আছে যা শিক্ষার্থীদের মনকে দোলা দেয়। বিদ্যালয়টি দিন দিন উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে, এলাকাবাসী সম্পৃক্ত হচ্ছে।


আরও খবর



রুশ সীমান্তে পৌঁছল ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ৪৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ক্রমশ লক্ষ্যভ্রষ্ট হচ্ছে রাশিয়া। ২৪ ফেব্রুয়ারি যুদ্ধ শুরুর সময়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছিলেন, গোটা ইউক্রেনকে মুক্ত করবেন তাঁরা। ক্রমে সেই লক্ষ্য থেকে সরে পূর্ব ও দক্ষিণ ইউক্রেনে নজর দেয় রাশিয়া। এখন উত্তর-পূর্ব ইউক্রেনের দখলও হাতছাড়া হয়েছে মস্কোর। এ দিন একটি ভিডিয়ো ছড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতে দেখা যাচ্ছে, রুশ সীমান্তে দাঁড়িয়ে ইউক্রেনীয় বাহিনীর গর্জন, আমরা এখানে মিস্টার প্রেসিডেন্ট!

এই মুহূর্তে একমাত্র মারিয়ুপোল-সহ ডনবাস অঞ্চল রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জ়েলেনস্কি অবশ্য দবি করেছেন, মারিয়ুপোলও তিনি মুক্ত করবেন। তাঁকে সমর্থন করে ইউরোপ-আমেরিকা ও জি-৭-এর মতো ধনী দেশের গোষ্ঠীও জানিয়েছে, রাশিয়া যদি ইউক্রেনের সীমান্ত বদলের চেষ্টা করে, তারা তা মান্যতা দেবে না।

রুশ সীমান্ত ঘেঁষা সুমি অঞ্চলেও মস্কোর হামলা বন্ধ হয়েছে বলে দাবি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। রুশ আগ্রাসনের শুরু থেকে এই অঞ্চলটি ভয়ানক হামলার শিকার। ইউক্রেনের পশ্চিম অংশ এখন একেবারেই শান্ত। কাল থেকে কিভে ভারতীয় দূতাবাসের কাজও চালু হয়ে যাবে। বহু অঞ্চলেই মানুষ ঘরে ফিরতে শুরু করেছে। একমাত্র ডনবাস এলাকায় এখনও রয়েছে রুশরা।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক আজ একটি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, যুদ্ধের শুরু থেকে এ পর্যন্ত স্থলবাহিনীর এক-তৃতীয়াংশ হারিয়েছে রাশিয়া। বিপুল ক্ষয়ক্ষতি ও মৃত্যুর বোঝা মস্কোর ঘাড়ে। এমনকি রাশিয়া যা-ই দাবি করুক, পূর্ব ইউক্রেনেও তেমন অগ্রগতি হয়নি ক্রেমলিনের সেনার। ব্রিটিশ মন্ত্রক বলেছে, রুশ বাহিনীর শক্তি ক্রমশ কমছে। নৈতিক দিক থেকেও তারা জোর পাচ্ছে না। বাহিনীর কর্মক্ষমতা কমেছে।

কিছু ক্ষেত্রে এমন অবস্থা যে কোনও পরিবর্তিত ব্যবস্থা নেই রাশিয়ার হাতে। ফলে রুশ অভিযান ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়ছে।ব্রিটেনের গোয়েন্দা বাহিনীর দাবি, আগামী এক মাসে আরও পিছু হটতে বাধ্য হবে রাশিয়া। এ-ও শোনা গিয়েছে, মারিয়ুপোলের আজ়ভস্টল কারখানার নীচে আটকে থাকা জখম সেনাবাহিনীকে উদ্ধারে ইউক্রেন সরকারে সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে রাশিয়া। যদিও এই পরিস্থিতিতেও রাশিয়ার হামলা অব্যাহত রয়েছে। আজ তারা দাবি করেছে, কৃষ্ণসাগরে স্নেক আইল্যান্ডের কাছে ইউক্রেনের তিনটি যুদ্ধবিমান তারা গুলি করে নামিয়েছে। পূর্ব ইউক্রেনে মস্কোর ক্ষেপণাস্ত্র হানাও জারি রয়েছে।


আরও খবর



শিবগঞ্জে হামদর্দের চিকিৎসাসেবা কেন্দ্র উদ্বোধন

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশে ন্যাচারাল মেডিসিনের অগ্রদূত হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াকফ) বাংলাদেশ, সারাদেশে হামদর্দের চিকিৎসাসেবা সম্প্রসারণের অংশ হিসাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানায় গত ১৯ মে ২০২২ তারিখে তাদের ২৭০ তম চিকিৎসাসেবা ও বিক্রয় কেন্দ্র উদ্বোধন করেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিবগঞ্জের উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাঃ গোলাম কিবরিয়া এবং উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসাঃ শিউলী বেগমসহ জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনের প্রতিনিধি, ডাক্তার, শিক্ষক, ইমাম, গণমাধ্যমকর্মী ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। হামদর্দের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন হামদর্দের ডিরেক্টর মার্কেটিং মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম এবং বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

এ উপলক্ষ্যে স্থানীয় একটি চাইনীজ রেস্টুরেন্টে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় হামদর্দের ডিরেক্টর মার্কেটিং মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম ন্যাচারাল মেডিসিনের উপকারিতা, বিশ্বজুড়ে এর গ্রহণযোগ্যতা, হামদর্দের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস, দেশব্যাপী ন্যাচারাল মেডিসিনের স্বাস্থ্যসেবা বিস্তারে হামদর্দের ভূমিকা এবং হামদর্দের অন্যান্য জনকল্যাণমূলক কর্মকান্ড তুলে ধরেন।

তিনি তার বক্তব্যে বাংলাদেশে ন্যাচারাল মেডিসিন অর্থাৎ ইউনানী ও আয়ূর্বেদ শাস্ত্রীয় চিকিৎসার উন্নতি ও বিস্তারের এবং বাংলাদেশে হামদর্দকে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে দেয়ার নেপথ্য কারিগর, হামদর্দ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চীফ মোতাওয়াল্লী ড. হাকীম মোঃ ইউসুফ হারুন ভূঁইয়ার অনন্য অধ্যাবসায়, ত্যাগ ও নিবেদনের অনেক অজানা তথ্য সর্বসাধারনের মাঝে তুলে ধরেন।

সভায় আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে হামদর্দের প্রতি তাদের আস্থা ও ভরসার কথা এবং হামদর্দের পথ চলায় পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

সভা শেষে সম্মানীত অতিথীবৃন্দের উপস্থিতিতে ফিতা কেটে হামদর্দ চিকিৎসা ও বিক্রয় কেন্দ্র, শিবগঞ্জ এর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়। এই চিকিৎসাকেন্দ্র থেকে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত হামদর্দের অভিজ্ঞ চিকিৎসক বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করবে।


আরও খবর



আজ বিশ্ব জীববৈচিত্র্য দিবস

প্রকাশিত:রবিবার ২২ মে 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ মে 20২২ | ১৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব জীববৈচিত্র্য দিবস আজ। প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলাদেশে যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে পালিত হবে দিবসটি। এবারের প্রতিপাদ্য সব প্রাণীর জন্য একটি সমন্বিত ভবিষ্যৎ গড়ে তুলি

জীববৈচিত্র্য সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সচেতন করতেই ২২ মে দিনটি বিশ্ব জীববৈচিত্র্য দিবস হিসেবে উদযাপন করে আসছে জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচি।

স্বাধীনতার পর ১৯৭৪ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার জন্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ সেল ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন প্রণয়ন করেন। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ১৯৯২ সালের ২২ মে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে বায়োডাইভার্সিটি (সিবিডি) চুক্তিতে সই করে।

এরপর ৫ জুন ১৯৯২ সালে ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচির ধরিত্রী সম্মেলনে সিবিডি বিভিন্ন দেশের স্বাক্ষরের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বিশ্বের প্রায় ১৬৮টি দেশ সিবিডি চুক্তিতে সই করে এবং সিবিডি ওই বছরের ২৯ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হয়। বর্তমানে এ চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী দেশের সংখ্যা ১৯৫ টি।


আরও খবর



বৃষ্টির মধ্য দিয়ে শুরু ঈদের সকাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সারাদেশে পালিত হচ্ছে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ‘ঈদুল ফিতর’।

তবে এদিন সকালে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হয়েছে। এতে নামাজ শেষে বাসায় ফিরতে ভোগান্তিতে পড়েন মুসল্লিরা।

সকাল থেকেই মেঘ ছিল আকাশে। ফলে পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবে ঘর থেকে ছাতা নিয়ে বের হন অনেক মুসল্লি। তবে যারা ছাতা নিয়ে বের হননি তারা পড়েছেন ভোগান্তিতে।

এদিকে, গরমের মাঝে বৃষ্টি হওয়ায় অনেকে আবার স্বস্তিও প্রকাশ করেছেন।

বৃষ্টি হওয়ার পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া অধিদফতর। এরই ধারাবাহিকতায় ভোর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত শুরু হয়। 

আবহাওয়াবিদ ড. আবুল কালাম মল্লিক গণমাধ্যমকে জানান, দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়া দুপুর ১২টার পর খুলনা, বরিশাল, কুমিল্লা ও নোয়াখালীর দিকে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।


আরও খবর



করোনায় মৃত্যু নেই, শনাক্ত ১৯

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়নি। এই সময়ে ১৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার ২৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৩৮ শতাংশ।

এর আগে গতকাল সোমবার (২৫ এপ্রিল) সারাদেশে ২৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। তবে এই সময়ে করোনায় কেউ মারা যাননি। দেশে এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৬০২ জনে দাঁড়িয়েছে। আর মোট মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ১২৭ জনের।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের শেষে চীনের উহানে প্রথম করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরপর কয়েক মাসের মধ্যে এ ভাইরাস সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হয় ২০২০ সালের ৮ মার্চ। আর প্রথম মৃত্যু হয় একই বছরের ১৮ মার্চ।


আরও খবর