আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

পদ প্রত্যাশীদের বিলবোর্ড-ফেস্টুন ছিড়ে নদীতে

প্রকাশিত:বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৮০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পিরোজপুরে আগামীকাল বৃহস্পতিবার জেলা যুবলীগের বর্ধিতসভা সামনে রেখে উৎসবমুখর পরিবেশ ঘোলাটে করার চেষ্টা করছে একটি গ্রুপ। তারা কেন্দ্রীয় নেতা ও পদ প্রত্যাশীদের তোরণ ব্যানার ফেষ্টুনে ভেঙ্গে বর্ধিতসভকে বাঁধার সম্মুখীন করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার গভীর রাতে ওই গ্রুপটি যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ কামরুজ্জামান খান শামীম ও  পিরোজপুর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এস এম বায়েজীদ হোসেনের বিলবোর্ড ও ফেষ্টুন ছিড়ে নদীতে ফেলে দেয়।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য মোহাম্মদ কামরুজ্জামান খান শামীম বলেন, আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও কেন্দ্রীয় যুবলীগরে দায়িত্বশীল নেতাদের জানিয়েছি। ফেস্টুন ছেড়া এটা কোন রাজনৈতিক শিষ্টাচার হতে পারে না। ফেস্টুন ও বিলবোর্ডে বঙ্গবন্ধু ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার সহ মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের ছবি ছিলো। কিন্তু তারা সে সবের তোয়াক্কা করেনি। এস এম বায়েজীদ হোসেন বলেন, আমাদের জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়ে প্রতিপক্ষ এ কাজটি করেছে।

এ ব্যাপারে পিরোজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুল বলেন, যে সব দুবৃত্ত এ কাজ করেছে তারা শুধূ মাত্র স্থানীয় নেতাদের অপমান করেনি। ওই ফেষ্টুনে জাতীর জনকের,আমাদের নেত্রীর (শেখ হাসিনার) কেন্দ্রীয় যুবলীগের সভাপতি সাধারন সম্পাদকের ছবিও ছিলো। এরা যারাই হোক দলের মঙ্গল চায় না। তাই এদেরকে আইনের মাধ্যমে শাস্তির আওতায় আনা উচিত।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির নেতা পল্লব রায়ের উপর অতর্কিত হামলা করে কুপিয়ে ও পিটানোর ঘটনা ঘটেছে। জানাগেছে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নজিরপুর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল কান্তির সাথে মটর সাইকেল যোগে পিরোজপুর আসে পল্লব।

এসময় শহরের সিও অফিস সংলগ্ন  বৈদ্যপাড়া মোরের কাছে মটর সাইকেলের গতি আগলে পল্লবকে একটি গলির মধ্যে নিয়ে বেধরক মারধোর করে সন্ত্রাসী গ্রুপ। এ ব্যাপারে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শি নাজিরপুর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক চঞ্চল কান্তি বিশ্বাস বলেন, পৌরছাত্রলীগ নেতা আসিফের নেতৃত্বে ত্রিশ থেকে পঁয়ত্রিশ জন মিলে পল্লবকে কুপিয়ে মেরে ফেলে রেখে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  

 


আরও খবর



১৪ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৪ অক্টোবর ২০২১ | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
১৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার, গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ২৮৭তম (অধিবর্ষে ২৮৮তম) দিন। বছর শেষ হতে আরো ৭৮ দিন বাকি রয়েছে। একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনাবলি

    ১৮০৬ - ফ্রান্স ও রাশিয়ার মধ্যে ইয়েনার যুদ্ধ সংঘটিত হয়।

    ১৮৮২ - পাকিস্তানের লাহোরে ভারতীয় উপমহাদেশের চতুর্থ পুরাতন সর্ব্বোচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (পাকিস্তানে প্রথম) পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়।

    ১৯২৬ - অ্যালেন আলেকজান্ডার মিলনী রচিত জনপ্রিয় শিশুতোষ বই উইননি-দি-পু প্রথম প্রকাশিত হয়।

    ১৯৩৩ - নাজি জার্মানি কর্তৃক লীগ অব নেশনস ত্যাগ।

    ১৯৪৪ - জার্মানির নাৎসি বাহিনীর বিখ্যাত সেনাকমান্ডার এরউইন রোমেল হিটলারের আদেশে আত্মহত্যা করে। মার্শাল রোমেল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে উত্তর আফ্রিকায় জার্মান বাহিনীর কমান্ডার ছিল এবং ব্রিটিশ সেনাদেরকে মিশরের উত্তরাঞ্চল পর্যন্ত বিতাড়িত করতে সক্ষম হয়েছিল।

    ১৯৪৬ - লন্ডনে বিশ্বের ২৫টি দেশের প্রতিনিধিরা বিশ্বব্যাপী পণ্যসেবার মান বজায় রাখতে মান নির্ধারক সংস্থা গঠনের বিষয়ে একমত হন। সংস্থাটি পরের বছর কার্যক্রম শুরু করে এবং সে হিসাবে ১৪ অক্টোবর বিশ্ব মান দিবস পালিত হয়।

    ১৯৫৩ - জর্দান নদীর পশ্চিম উপকূলীয় কাবিহ গ্রামে সশস্ত্র ইহুদিবাদীরা নির্যাতনের নতুন অধ্যায়ের সূচনা করে। এই গ্রামে ইহুদিবাদীরা টানা দুই দিন আগ্রাসী হামলার মাধ্যমে নিরীহ ফিলিস্তিনীদের ওপর নির্বিচার গণহত্যা চালায় এবং তাদের ঘরবাড়ি ধ্বংস করে।

    ১৯৫৫ - পূর্ববাংলার নাম পরিবর্তন করে পূর্ব পাকিস্তান রাখা হয়।

    ১৯৫৬ - বাবাসাহেব আম্বেদকর তার ৩,৮৫,০০০ অনুসারীসহ সনাতন ধর্ম ত্যাগ করে বৌদ্ধ ধর্ম গ্রহণ করেন।

    ১৯৬৪ - তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের কমিউনিস্ট পার্টির মহাসচিব নিকিতা ক্রুশচেভ বহিস্কৃত হন।

    ১৯৭১ - মার্কিন নভোযান মেরিনার-৯ প্রথম খুব কাছে থেকে নেওয়া মঙ্গলের ছবি পৃথিবীতে পাঠায়।

    ১৯৮৬ - আফগানিস্তান থেকে সোভিয়েত সৈন্য প্রত্যাহার শুরু হয়।

    ১৯৯৩ - হাইতির বিরুদ্ধে পুনর্বার যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

    ১৯৯৭ - বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও যুক্তরাষ্ট্রের মেসার্স স্মিথ কো-জেনারেল (বাংলাদেশ) লিমিটেডের মধ্যে বেসরকারি খাতে বার্জ মাউন্টেড বিদ্যুৎ প্লান্ট স্থাপনের চূড়ান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত।

    ২০২০ - পৃথিবীকে অতিক্রম করে 2020 TB-9 ও 2020 ST-1 নামের দুটি গ্ৰহাণু।

 

জন্ম

    ১৫৪২ - মুঘল সম্রাট জালাল উদ্দিন মোহাম্মদ আকবর।

    ১৬৪৪ - পেনসিলভানিয়ার প্রতিষ্ঠাতা উইলিয়াম পেন।

    ১৮৪০ - বস্তুবাদী রুশ দার্শনিক ও সাহিত্য সমালোচক দমিত্রি পিসারিয়েভ।

    ১৮৮২ - আয়ারল্যান্ডের স্বাধীনতা সংগ্রামী নেতা ডি ভ্যালেরা।

    ১৮৮৮ - ইংরেজ লেখক ক্যাথারিন ম্যাসফিল্ড।

    ১৮৯০ - বিংশ শতকের বিশিষ্ট বাঙালি কবি বসন্তকুমার চট্টোপাধ্যায়।

    ১৮৯০ - ডোয়াইট ডি. আইজেনহাওয়ার, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩৪তম রাষ্ট্রপতি।

    ১৮৯৩ - লিলিয়ান গিশ, মার্কিন অভিনেত্রী, পরিচালক ও লেখিকা।

    ১৮৯৪ - মার্কিন কবি ই ই কামিংস ।

    ১৯২৭ - রজার মুর, ব্রিটিশ, জেমস বন্ড (চরিত্র) খ্যাত মডেল এবং অভিনেতা।

    ১৯৩০ - অশোকতরু বন্দ্যোপাধ্যায় প্রখ্যাত রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী।

    ১৯৩০ - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ ভারতীয় বাঙালি লেখক।

    ১৯৩১ - পণ্ডিত নিখিল রঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায় মাইহার ঘরানার ভারতীয় ধ্রুপদী সেতার বাদক।

    ১৯৪১ - রমা চৌধুরী, বাংলাদের মুক্তিযুদ্ধের একজন বীরাঙ্গনা।

    ১৯৭১ - অ্যান্ডি কোল, ইংরেজ ফুটবলার।

    ১৯৮১ - গৌতম গম্ভীর, ভারতীয় ক্রিকেটার, আই সি সি বর্ষসেরা ক্রিকেটার শিরোপাধারী।

    ১৯৮৮ - গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অস্ট্রেলীয় অল-রাউন্ডার।

    ১৯৯১ - জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া, বাংলাদেশী মডেল এবং অভিনেত্রী, মিস বাংলাদেশ শিরোপাধারী।

 

মৃত্যু

    ১৫১৪ - পণ্ডিত কবি এবং সম্রাট আকবরের সভাশিক্ষক ফয়েজি।

    ১৯৪৩ - জিমি ম্যাথুজ, অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার।

    ১৯৫৬ - বাঙালি লেখক ও স্বামী বিবেকানন্দর অনুজ মহেন্দ্রনাথ দত্ত।

    ১৯৮৩ - অজিতেশ বন্দোপাধ্যায়, ভারতীয় বাঙালি নাট্যকার, নাট্য পরিচালক এবং অভিনেতা।

    ১৯৮৪ - রবীন্দ্রবিশারদ পুলিনবিহারী সেন ।

    ১৯৮৯ - বিশিষ্ট কার্টুনিস্ট ও চিত্রশিল্পী শৈল চক্রবর্তী।

    ১৯৯৯ - তাঞ্জানিয়ার জাতির জনক জুলিয়াস নায়ার।

 

ছুটি ও অন্যান্য

    বিশ্ব মান দিবস


আরও খবর
২৩ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১

২১ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১




ব্যাক পেইন থেকে মুক্তি দেবে যে ব্যায়াম

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বিভিন্ন কারণেই ব্যাক পেইন হতে পারে। মূলত মেরুদণ্ড বা স্পাইন-সম্পর্কিত ব্যথাকেই আমরা ব্যাক পেইন বলা বলে থাকি

কমবেশি সবার ব্যাক পেইন অর্থাৎ কোমরের বা মাজার ব্যথা হতে পারে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বার্ধক্যে এই সমস্যা প্রবল আকার ধারণ করতে পারে।একটানা চেয়ারে বসে থাকলে বা দূরে কোথাও ঘুরতে গেলে, এটি হতে পারে। শুধু ওষুধ খেলেই যে এই সমস্যার সমাধান মেলে, তা নয়।

ব্যাক পেইন কেন হয়?

বিভিন্ন কারণেই ব্যাক পেইন হতে পারে। মূলত মেরুদণ্ড বা স্পাইন-সম্পর্কিত ব্যথাকেই আমরা ব্যাক পেইন বলা বলে থাকি। স্নায়ু, পেশি, হারজোড় ইত্যাদি কারণেই ব্যাক পেইন দেখা যায়। মেরুদণ্ডের পেশি, স্নায়ু, হাড়ের জোড়া যদি সঠিক অবস্থানে সঠিক কাজ না করতে পারে, তাহলে ব্যথা সৃষ্টি হয়।

ব্যাক পেইন থেকে মুক্তি পেতে প্রতিদিন সকালে মাত্র কয়েক মিনিট ব্যায়াম করলেই যথেষ্ঠ।

যেভাবে ব্যায়াম করবেন?

১. দরজার পাল্লায় দুই হাত রেখে দাঁড়ান। এপর সামনের দিকে এক পায়ের হাঁটু ভাঁজ করতে থাকুন যতক্ষণ না কাঁধের পেশিতে টান পড়ছে। ৩০ সেকেন্ড থাকুন। অন্য পায়ে রিপিট করুন। এভাবে ৩-৪ বার করুন।

২. দেয়ালে হাত রেখে দাঁড়ান। এক পা পিছিয়ে রাখুন। খেয়াল রাখবেন সামনের পায়ের হাঁটু ভাঙবে কিন্তু পেছনের পা সোজা থাকবে। ৩০ সেকেন্ড থাকুন। অন্য পায়ে করুন। প্রতি পা ৩ বার করে করবেন।

৩. প্রতিটি ব্যায়াম করার সময় ৫-৬ বার গভীর শ্বাস নিয়ে ধীরে ধীরে ছাড়ুন। লক্ষ্য রাখবেন যেন শরীরের কোথাও খুব চাপ না পড়ে। সব থেকে ভালো হয় সকালে ব্যায়াম করলে, তবে যদি করা সম্ভব না হয়, তাহলে দিনের যেকোনো সময় ব্যায়াম করে নিন।

তবে ব্যথার অনেক দিন  থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। 

নিউজ ট্যাগ: ব্যাক পেইন

আরও খবর
আজকের ভালো মন্দ

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




১২-১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা নিতে তথ্য দেওয়ার নির্দেশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | ৬৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর স্কুল-কলেজে অধ্যয়নরত ১২-১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে তথ্য চেয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। আগামী ১৯ অক্টোবরের মধ্যে শিক্ষার্থীদের তথ্য ই-মেইলে পাঠাতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) মাউশির মহাপরিচালক প্রফেসর ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, টিকা দেওয়ার জন্য মাউশির আওতাধীন ঢাকা মহানগরের সব প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত ১২-১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের তথ্য ছক আকারে আগামী ১৯ অক্টোবরের মধ্যে মেইলে (student.vaccination2021@gmail.com) পাঠাতে হবে।

বিষয়টি অতি জরুরি উল্লেখ করে তথ্য ছকে শিক্ষার্থীদের ১৭ ডিজিটের জন্ম-নিবন্ধন নম্বর, নাম, প্রতিষ্ঠানের নাম, প্রতিষ্ঠানের কোড, জন্ম তারিখ ও অভিভাবকের মোবাইল নম্বর দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) দেশে প্রথমবারের মতো পরীক্ষামূলক করোনার টিকা দেওয়া হয় ১২০ শিশু শিক্ষার্থীকে, যাদের বয়স ১২ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে। মানিকগঞ্জের কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেকের উপস্থিতিতে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ফাইজারের এই টিকা দেওয়া হয়।

মানিকগঞ্জ গড়পাড়া জাহিদ মালেক উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসমিয়া আক্তার তোয়া এবং মানিকগঞ্জ সরকারি বালক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী মোবাশ্বির রহমান রাফি প্রথম টিকা নেয়। টিকা নেওয়ার পর সব শিক্ষার্থী ভালো আছে বলে জানিয়েছেন কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ।

গত রাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম জানান, যেসব শিক্ষার্থীকে পরীক্ষামূলক টিকা দেওয়া হয়েছে তাদের ১০ দিন পর্যবেক্ষণ করা হবে।


আরও খবর



পাঁচ মামলায় খালেদার জামিন এক বছর বাড়ল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পৃথক পাঁচ মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ এক বছর করে বাড়িয়েছেন হাইকোর্ট। ঢাকায় হওয়া তিনটি এবং নড়াইল ও কুমিল্লায় হওয়া একটি করে মামলায় এ জামিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ মানহানির অভিযোগে করা ঢাকার তিনটি এবং নড়াইলের মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়িয়েছেন। আর কুমিল্লায় নাশকতার অভিযোগের মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়িয়েছে বিচারপতি এ এফ এম আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ।

খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার কায়সার কামাল মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন ও অ্যাডভোকেট রোকনুজ্জামান সূজা।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন পুরান ঢাকার বকশীবাজারে কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর এ মামলায় আপিলে তাঁর আরো পাঁচ বছরের সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন একই আদালত। রায়ে সাত বছরের কারাদণ্ড ছাড়াও খালেদা জিয়াকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

কারান্তরীণ অবস্থায়ই চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নেওয়া হয় খালেদা জিয়াকে। প্রয়োজনীয় পরীক্ষা শেষে তাঁকে আবারও কারাগারে পাঠানো হয়। এভাবে কয়েক দফায় তাঁকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে এবং হাসপাতাল থেকে কারাগারে নেওয়া হয়। এর মধ্যে বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়ার মুক্তির জোর দাবি তোলেন। পরিবারের পক্ষ থেকেও খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান। সরকারের নির্বাহী আদেশে দণ্ড স্থগিত করে কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে গত বছরের ২৫ মার্চ শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি দেওয়া হয়। এর পর থেকে গুলশানের ভাড়া বাসা ফিরোজায়’ আছেন খালেদা জিয়া।


আরও খবর
ইকবালসহ ৪ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




কিশোর গ্যাং ঠেকাতে বইপড়া ও খেলাধুলা বাড়াতে হবে: র‍্যাব ডিজি

প্রকাশিত:শনিবার ০২ অক্টোবর 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ অক্টোবর 2০২1 | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কিশোর গ্যাং ঠেকাতে বইপড়া ও খেলাধুলা বাড়াতে হবে বলে জানিয়েছেন র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ-আল-মামুন।

শনিবার (২ অক্টোবর) রাজধানীর তেজগাঁওস্থ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে (এফডিসি) অনুষ্ঠিত কিশোর গ্যাং বৃদ্ধির কারণ নিয়ে ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় এ কথা বলেন তিনি। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি এ বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, যেখানেই কিশোর গ্যাং কালচার রয়েছে সেখানে কিন্তু আমাদের কিশোররা বিপথে পা বাড়াচ্ছে। সামাজিক আচার-আচরণের বাইরে গিয়ে তারা বিচ্যুত পথে যাচ্ছে। আমরা নিশ্চয় মাথা ব্যথার জন্য মাথা কাটা নয়, মাথাব্যথার ঔষধ দিবো। বিচ্ছিন্নতাবোধ থেকে বের হতে হবে। এজন্য দেশে বই পড়া ও খেলাধুলা আমাদের বাড়াতে আহ্বান জানান তিনি।

জনসচেতনতার ওপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, যেভাবেই হোক কিশোর গ্যাং কালচারকে নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। এটার জন্য দরকার জনসচেতনতা। তরুণ প্রজন্মকে কোনোভাবে আমরা ব্যর্থ হতে দিতে পারি না।

র‍্যাব মহাপরিচালক বলেন, আমাদের গর্ব পারিবারিক বন্ধন। পারিবারিক বন্ডিং এর কারণে অনেক নেতিবাচক কাজে আমরা জড়াতে পারি না। এরপরও অনেক কিছু ঘটছে। কিশোররা কেন গ্যাং কালচারে জড়াচ্ছে তা খুঁজে বের করতে হবে।

আমাদের সবারই অনেক দায়িত্ব আছে এবং সবার যথাযথ ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলে, আমরা ২৭২ এর অধিক কিশোর গ্যাং সদস্যকে আটক করেছি। এই কিশোর অপরাধীদের এজন্যই গ্রেফতার করতে হয়েছে, যাতে কিশোর গ্যাং কালচার এবং কিশোর অপরাধ নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

তিনি বলেন, আমাদের তরুণরা যেন গর্বিত নাগরিক হয়, কোন অপরাধে না জড়ায়। তবেই সুন্দর, উন্নত বাংলাদেশ গড়া সম্ভব। আমরা যা করতে পারিনি আমাদের আগামী প্রজন্ম যেন তা করতে পারে। সেজন্য সকলের ঐকান্তিক চেষ্টায় সচেতনতার প্রয়োজন রয়েছে।

এতে সভাপতিত্ব ও বক্তব্য রাখেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১