আজঃ শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৫৫

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীতে মাদক বিরোধী অভিযানে বিক্রি ও সেবনের অপরাধে ৫৫ জনকে আটক করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। মঙ্গলবার  (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ছয়টা থেকে বুধবার  (১৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ছয়টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম জানান, অভিযানে  তাদের কাছ থেকে ৬ হাজার ৪৪৯ পিস ইয়াবা, ১৫৫ গ্রাম ২৯৭ পুরিয়া হেরোইন, ৩ কেজি ৬০০ গ্রাম ৫৩ পুরিয়া গাঁজা ও ১০ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

আসামিদের বিরুদ্ধে ডিএমপির থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩৯ টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



সিরাজগঞ্জে যমুনার পানি ২৫ সেন্টিমিটার ওপরে

প্রকাশিত:শনিবার ২৮ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৮ আগস্ট ২০২১ | ৫৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কয়েক দিনের টানা ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি বেড়ে বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা এক দিনের ব্যবধানে বেড়েছে ১১ সেন্টিমিটার। এদিকে এটা অব্যাহত থাকায় অভ্যন্তরীণ নদ-নদী ও চলনবিলের পানিও বাড়ছে। ফলে বিপাকে পড়েছেন নিম্নাঞ্চলের মানুষ।

শনিবার (২৮ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী জাকির হোসেন।

পাউবোর শহর রক্ষা বাঁধ পয়েন্টের পানি পরিমাপক (গেজ মিটার) আবদুল লতিফ বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি শহর রক্ষা বাঁধ পয়েন্টে ১১ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গত ১৪ আগস্ট থেকে শুরু করে শনিবার (২৮ আগস্ট) পর্যন্ত যমুনা নদীর পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলার নদীতীরবর্তী আরও কিছু নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চল বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। এসব এলাকার বসতবাড়ি ও রাস্তাঘাটে পানি উঠে পড়ায় বিপাকে পড়েছেন বন্যাদুর্গতরা। বন্যাকবলিত এলাকার বিস্তীর্ণ ফসলি জমি তলিয়ে যাওয়ায় নষ্ট হচ্ছে রোপা আমন ক্ষেত, বীজতলা, আখ, পাট, তিল ও সবজিবাগানসহ বিভিন্ন ফসল।

সিরাজগঞ্জ জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম জানান, ৫টি উপজেলায় ১০০ মেট্রিক টন চাল ও ১ লাখ করে টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তারা সেটা তাদের চাহিদা অনুযায়ী বিতরণ করবেন। এ ছাড়া জেলায় ৭৬ মেট্রিক টন চাল ও আড়াই লাখ টাকা মজুত রাখা হয়েছে। কোনো এলাকায় ত্রাণের প্রয়োজন আছে কি না, তা নিয়মিত খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

সিরাজগঞ্জ পাউবোর উপসহকারী প্রকৌশলী জাকির হোসেন বলেন, যমুনায় পানিবৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। যমুনা নদীর পানি গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ সেন্টিমিটার বেড়েছে। বন্যা পূর্ভাবাস সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে যমুনা নদীর পানি আরও বাড়তে পারে। তবে পানি বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত বন্যার তেমন কোনো খারাপ পরিস্থিতি তৈরি হয়নি বলেও জানান এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপৎসীমার ওপরে, পানিবন্দী ২৫ হাজার মানুষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট ২০২১ | ৭৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
রাস্তাঘাট ডুবে যাওয়ায় এসব এলাকার অন্তত ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। বন্যার কারণে সাঘাটা, ফুলছড়ি, সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চরাঞ্চলের পাট, পটল, কাঁচামরিচ

কয়েকদিনের প্রবল বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে গাইবান্ধার সবগুলো নদ-নদীর পানি অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্রের পানি ১৩ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া তিস্তায় পানি কমলেও ঘাঘট ও করতোয়া নদীর পানি বিপৎসীমার কাছ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) সকালে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শোখলেছুর রহমান।

জানা গেছে, জেলার সাঘাটা, ফুলছড়ি, সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার মধ্যদিয়ে প্রবাহিত ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও যমুনা নদী বেষ্টিত ফুলছড়ি উপজেলার ফুলছড়ি, গজারিয়া, খাটিয়ামারী ইউনিয়নের চরাঞ্চল, যমুনা নদী বেষ্টিত সাঘাটা উপজেলার হলদিয়া, চিনিরপটল, পালপাড়া, পবনতাইড়, থৈকরপাড়া, বাঁশহাটা, চকপাড়া, মুন্সিরহাট, গোবিন্দ, নলছিয়া ও তিস্তা নদী বেষ্টিত এছাড়া সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর, তারাপুর, কাপাসিয়া, বেলকা, হরিপুর ও শ্রীপুর এবং সদর উপজেলার কামারজানি ও মোল্লারচর ইউনিয়নের বেশিরভাগ এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

এদিকে রাস্তাঘাট ডুবে যাওয়ায় এসব এলাকার অন্তত ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। বন্যার কারণে সাঘাটা, ফুলছড়ি, সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চরাঞ্চলের পাট, পটল, কাঁচামরিচ ও শাক-সবজির ক্ষেতসহ সদ্য রোপণকৃত আমন ক্ষেত তলিয়ে গেছে।

গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শোখলেছুর রহমান জানান, ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধ অব্যাহত থাকলে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ভেতরে নদ-নদী বেষ্টিত গাইবান্ধার ফুলছড়ি, সাঘাটা ও সদর উপজেলার চরগুলোর বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।


আরও খবর



দেশব্যাপী বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের “সার্ভিস ক্যাম্প” শুরু

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশব্যাপী গ্রাহকসেবা উন্নয়নের লক্ষ্যে, এলপি গ্যাস ব্যবহারকারীদের ফ্রি সিলিন্ডার সার্ভিসিং দিতে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস শুরু করেছে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস সার্ভিস ক্যাম্প নামে একটি বিশেষ ক্যাম্পেইন।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বসুন্ধরা হেডকোয়ার্টার-২ এ সার্ভিস ক্যাম্পের উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার মাহবুব আলম, বসুন্ধরা গ্রুপের সেক্টর-এ (সিওও, ব্র্যান্ড অ্যান্ড মার্কেটিং) এম এম জসীম উদ্দীন, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের হেড অব এইচ আর সাদ তানভীর, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের হেড অব সেলস জাকারিয়া জালাল, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের জি এম (সাপ্লাই চেইন) সরওয়ার হোসেন সোহাগ।

এ ক্যাম্পেইনের পরীক্ষামূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছিল ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে নারায়ণগঞ্জ শহরে। করোনা পরিস্থিতির কারণে পরবর্তীতে এ কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। সেই পাইলট প্রকল্পের ব্যাপক সাফল্য এবং ভোক্তাদের অনুরোধে সারাদেশে ফ্রি সার্ভিস ক্যাম্পেইন আনুষ্ঠানিকভাবে এবার শুরু করতে যাচ্ছে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেড।

বসুন্ধরা এলপি গ্যাস কর্তৃপক্ষ জানায়, এলপিজি নিরাপদ ব্যবহার সম্পর্কে সচেতনতা অযাচিত দুর্ঘটনা কমাতে পারে। বাংলাদেশের এক নম্বর এলপিজি ব্র্যান্ড হিসেবে আমরা মনে করি আমাদের দায়িত্ব এলজিপি সিলিন্ডার নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করা, রান্নাঘরকে নিরাপদ এবং স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ কীভাবে করা যায় তার সঠিক নির্দেশনা দেওয়া। তাই আমরা এলপিজি যে কোনো ব্র্যান্ডের সিলিন্ডার ব্যবহারকারীদের সিলিন্ডারের বিভিন্ন এক্সেসোরিজ, যেমন: সংযুক্ত পাইপ, রেগুলেটর এবং বার্নারের সঙ্গে অন্য সংযোগ বিনামূল্যে পরীক্ষা করার ক্যাম্পেইন শুরু করছি। রান্নাঘরকে কি করে নিরাপদ এবং স্বাস্থ্যকর রাখা যাবে সেই বিষয়ে খুব অল্প সময়ে গ্রাহকের নিজ বাসায় প্রশিক্ষণ দেবে আমাদের নিজস্ব সেবাকর্মী। এছাড়াও এলপিজি সিলিন্ডারের জন্য যে বিস্ফোরণ সংঘঠিত হয় না, বরং পাইপ লিকেজ, রেগুলেটর ইন্সটল্যাশন, ব্যবহারকারীর অবহেলা এবং অসচতনতার দরুন দুর্ঘটনা ঘটে থাকে, এবিষয়ে গ্রাহকদের সচেতন করার লক্ষ্যেই এ কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়েছে।

এ সেবা পেতে আগ্রহীরা বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের হটলাইনে- ১৬৩৩৯ অথবা ০১৩১৩৪৪ ৫৫৫৫, ফেসবুক পেজ অথবা নিকটস্থ ডিস্ট্রিবিউটর বা রিটেইল পয়েন্টে যোগাযোগ করে কিউআর কোড স্ক্যাননিং এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করলে, বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের সার্ভিস টিম স্বাস্থ্যবিধি মেনে পৌঁছে যাবে গ্রাহকের কাছে। সার্ভিস টিম গ্রাহকের রান্নাঘরটি পর্যবেক্ষণ করে সিলিন্ডারের এক্সেসরিজ এবং এর সঙ্গে চুলার সংযোগ ঠিকঠাক আছে কিনা তা কীভাবে নির্ধারণ করা যায় এ বিষয়ে খুব স্বল্প সময়ে গ্রাহককে সিলিন্ডারের নিরাপদ ব্যবহারের প্রশিক্ষণ দিয়ে আসবে।

আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে শুরু হচ্ছে এ ক্যাম্পেইন এর কার্যক্রম। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে বিভিন্ন ধাপে এ কার্যক্রম চলমান থাকবে। গ্রাহকরা বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের ফেসবুক পেজে এবং পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানতে পারবেন সার্ভিস ক্যাম্পেইনের এলাকাগুলো।


আরও খবর
সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে সবজির

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




দানি কারভাহালের গোলে জয় পেল রিয়াল মাদ্রিদ

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ আগস্ট ২০২১ | ৬৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লা লিগায় নতুন মৌসুমে দারুণ শুরু করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে হোঁচট খেয়ে বসে রিয়াল মাদ্রিদ। গতকাল শনিবার তৃতীয় ম্যাচেও বিপদের মুখে পড়ে যায় স্প্যানিশ জায়ান্টরা। তবে শেষ পর্যন্ত কোনো অঘটন হয়নি। শেষ মুহূর্তে দানি কারভাহালের গোলে প্রতিপক্ষের মাঠে কষ্ট করে জিতল কার্লো আনচেলত্তির দল।

লা লিগায় গতকাল রাতে রিয়াল বেটিচকে ১-০ গোলে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। নিজেদের শুরুর ম্যাচে আলাভেসকে ৪-১ গোলে হারানোর পর গত ম্যাচে লেভান্তের সঙ্গে ৩-৩ গোলে ড্র করে বসে রিয়াল।

গতকাল কিছুটা সময় বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও আক্রমণে এগিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। তবে ১৩টি শট নিয়ে মাত্র তিনটি অনটার্গেটে ফেলতে পেরেছে রিয়াল। আক্রমণে ধার ছিল বেটিচেরও। ১১টি শট নিয়ে ছয়টিই অনটার্গেটে ফেলতে পারে বেটিচ।

আক্রমণ-প্রতিআক্রমণে জমে ওঠা ম্যাচে ব্যবধান গড়েন দানি কারভাহাল। ৬০তম মিনিটে বাইলাইন থেকে ভিনিসিউসের কাটব্যাক পেয়ে ডান দিকে ক্রস বাড়ান বেনজেমা। এরপর দুর্দান্ত সাইড ভলিতে দূরের পোস্ট দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন কারভাহাল।

শেষ দিকে কয়েকটি সুযোগ তৈরি করলেও আর সফল হয়নি রিয়াল মাদ্রিদ। রক্ষণ ধরে রেখে শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা।

চলতি তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে সাত পয়েন্ট নিয়ে এক নম্বরে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। সমান পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে পরের তিনটি স্থানে আছে সেভিয়া, ভালেন্সিয়া ও মায়োর্কা। দুই ম্যাচে ছয় পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে চ্যাম্পিয়ন অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। সমান দুই ম্যাচে বার্সেলোনার পয়েন্ট চার। বার্সা আছে আট নম্বরে।

নিউজ ট্যাগ: রিয়াল মাদ্রিদ

আরও খবর
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

মেসিকে পেছনে ফেললেন সিআর সেভেন

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




পেটের ব্যথা নিরাময়ে প্রকৃতিক সমাধাণ

প্রকাশিত:সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০21 | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কমবেশি সবারই খুব পরিচিত ও সাধারণ সমস্যা হচ্ছে পেটের ব্যথা। এটি হওয়ার বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে।

পেটে ব্যথা হওয়াটা বিরক্তের বিষয় এবং ছোট হলেও এটি একটি সমস্যা। তাই এটি অবহেলা করা যাবে না। বরং বেছে নিতে হবে সমাধানের উপায়।

খুব বেশি জরুরি না হলে ব্যথানাশক ওষুধ খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। এক্ষেত্রে আপনার পেটের ব্যথা নিরাময়ে বেছে নিতে পারেন প্রকৃতিক সমাধাণ। তা হলে তা আপনার শরীরের কোনো ক্ষতি না করে সহজেই দূর করতে পারবেন পেটে ব্যথার সমস্যা।

১. আদা বা আদা চা

প্রচীনকাল থেকেই ব্যথা কমাতে এবং বমি ভাব দূর করতে আদাকে প্রকৃতিক ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি ও প্রদাহ বিরোধী গুণ থাকায় এটি ব্যথা কমাতে সহায়তা করে। তাই প্রকৃতিকভাবে পেটের ব্যথা কমাতে আদা কুঁচি করে অথবা চিবিয়ে খেতে পারেন।

২. কলা ও আপেল

কলা ও আপেলে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। আর এ কারণে এগুলো পেটের ব্যথা কমাতে সহায়তা করতে পারে। এ ছাড়া এটি বমি ভাব ও ডায়রিয়াতেও উপকারী হিসেবে কাজ করে।

৩. ভাত

ভাবে কোনো মশলা বা লবন থাকে না। তাই এটি পেটের ব্যথা থাকলে তা নিরাময়ে সহায়তা করতে পারে। পেটে ব্যথা হলে ভারি ও বেশি মশলা জাতীয় খাবার পরিহার করে একটু নরম করে ভাত খেতে পারেন। আর চেষ্টা করবেন এর সঙ্গে একটু হালকা ও পাতলা জাতীয় কিছু খেতে।

৪. টোস্ট

টোস্ট বিস্কুট বা ওভারকুক করা রুটি পেট ব্যথা কমাতে সহায়তা করতে পারে। এতে তেমন কোনো তেল থাকে না। আর এ ছাড়া একটু পোড়া রুটি বা টোস্ট বমি ভাব কমাতেও সহায়তা করে।

৫. পুদিনা পাতা

পেটের ব্যথা ও বমি ভাব কমাতে এবং পেট খারাপের জন্য অনেক সহায়ক একটি প্রাকৃতিক সমাধাণ হচ্ছে পুদিনা পাতা। এটির প্রকৃতিক ব্যথানাশক বৈশিষ্ট রয়েছে। তাই পেট ব্যথা কমানোর প্রাকৃতিক সমাধাণ হিসেবে চায়ের সঙ্গে বা চিবিয়ে পুদিনা পাতা খেতে পারেন।

৬. অ্যাপেল সিডার ভিনেগার

অ্যাপেল সিডার ভিনেগারে অ্যাসিড স্টার্চ থাকায় তা হজম করতে সাহায্য করে অন্ত্রের ব্যকটেরিয়াকে সুস্থ রাখে। আর এ কারণে এটি পেটের ব্যথা কমাতে সহায়তা করতে পারে।

এর জন্য এক কাপ পানিতে এক চামুচ অ্যাপল সিডার ভিনেগার ও এক চামুচ মধু মিশিয়ে পান করলে উপকার পাবেন।

৭. হিটিং প্যাড

পেটের ব্যথা কমাতে পেটে হালকা গরম করার মতো হিটিং প্যাড ব্যবহার করতে পারেন। এটি যে কোনো ধররনের ক্রাম্পিং বা ব্যথা নিরাময়ে অনেক উপকারী ভূমিকা পালন করে। পাশাপাশি এটি বমিভাব কমাতেও সহায়তা করে।

এর জন্য আপনি গরম পানির ব্যাগ বা বোতলে হালকা গরম পানি নিয়ে পেটে ধরে রাখলেই অনেকটা স্বস্তি পাবেন। তবে এট খুব বেশি সময় ও অতিরিক্ত পরিমাণে ব্যবহার করবেন না। অতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে তা ত্বকের ক্ষতি করতে পারে।

নিউজ ট্যাগ: পেটের ব্যথা

আরও খবর
করোনায় আরও ৩১ জনের মৃত্যু

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১