আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে যায়নি বিএনপি

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে রাষ্ট্রপতির সংলাপে যায়নি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। আজ বিকেল চারটায় বঙ্গভবনে আমন্ত্রণ থাকলেও দলটির কেউ যায়নি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দলটির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং শাখার সদস্য শায়রুল কবির খান।

গত ২০ ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত ৩২টি দল আমন্ত্রণ পেয়েছে। নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে এ সংলাপে মো. আবদুল হামিদের আহ্বানে ১৮টি দল সাড়া দিয়ে বঙ্গভবনে গিয়েছে। চারটি দল আগেই আনুষ্ঠানিক চিঠিতে বর্জন করেছে। অনানুষ্ঠানিকভাবে আরও তিন দল বঙ্গভবনে যাবে না বলে জানান দিয়েছে। ২০১২ ও ২০১৪ সালে যে প্রত্যাশায় সংলাপ হয়েছিল তা পূরণ হয়নি বলেই দলগুলো এবার বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তাদের ভাষ্য, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে চলমান এই সংলাপ পুরোটাই অর্থহীন। সরকার তথা ক্ষমতাসীন দল যা চাইবে ইসি গঠনে তারই প্রতিফলন ঘটবে। এমনটা ধারণা থেকেই সংলাপে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকছে বর্জনকারী দলগুলো।

এদিকে একের পর এক না বলায় চলমান এই সংলাপ গুরুত্বহীন হয়ে উঠছে বলেও মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। আবার যে ১৮টি দল এখন পর্যন্ত রাষ্ট্রপতির সংলাপে অংশ নিয়েছে তাদের বেশির ভাগই কেউ ক্ষমতাসীনদের জোটের কিংবা সরকারঘেঁষা।

যে সাতটি দল সংলাপে যাচ্ছে না তারা হলো-বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), এলডিপি, বিএনপি, জেএসডি ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি।

আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারি বর্তমান দায়িত্বে থাকা কেএম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। সাংবিধানিকভাবে এই কমিশনের বিদায়ের পরই নতুন কমিশন দায়িত্ব নেবে ইসির। তারই অংশ হিসেবে রাষ্ট্রপতি কমিশন গঠনের জন্য বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন। আগামী ১৭ জানুয়ারি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সঙ্গে সংলাপে বসবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

নিউজ ট্যাগ: বিএনপি

আরও খবর



টঙ্গীতে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ গেল ২ নারীর

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাজীপুরের টঙ্গীতে পৃথক স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত দুই নারী নিহত হয়েছেন। রোববার মধ্যরাতে টঙ্গী পূর্ব আরিচপুর টঙ্গী রেল ব্রিজসংলগ্ন এলাকা ও আরিচপুর গাজীবাড়ির রেললাইনে এ দুটি দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি, তবে তাদের মধ্যে একজনের বয়স আনুমানিক ২৫ ও অপরজনের ৬৫।

পুলিশ জানায়, রোববার রাত সোয়া ১২টায় অজ্ঞাত এক নারী টঙ্গী পূর্ব আরিচপুর টঙ্গী রেল ব্রিজসংলগ্ন এলাকা দিয়ে রেললাইন পার হচ্ছিলেন। এ সময় চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর তূর্ণা নিশিতা ট্রেনে কাটা পরে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে একই রাত সাড়ে ১০টায় টঙ্গী আরিচপুর গাজীবাড়ি এলাকার রেললাইনের ওপর দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক নারী। এ সময় সিলেট থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর পারাবত এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিনে ধাক্কা লেগে মাথায় আঘাত পেয়ে হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে টঙ্গী রেলওয়ে পুলিশ উভয়ের লাশ উদ্ধার করে।

টঙ্গী রেলওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই নূর মোহাম্মদ খান জানান, নিহতদের লাশ পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। লাশ দুটির সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এসব ঘটনায় ঢাকা রেলওয়ে থানায় মামলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



টোঙ্গার টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা মেরামতে লাগবে এক মাস

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ২০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টোঙ্গায় আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের ফলে ধ্বংস হয়ে যাওয়া সমুদ্রের নিচের একটি তার মেরামত করতে কমপক্ষে চার সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের কর্মকর্তারা। শনিবার সমুদ্রে বিধ্বংসী অগ্ন্যুৎপাত এবং সুনামির কারণে দেশের একমাত্র ডুবো সমুদ্রের তারের দুটি জায়গা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর পরই পুরো বিশ্ব থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে দেশটি।

বুধবার নিউজিল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, "মার্কিন কেবল কোম্পানি সাবকম পরামর্শ দিয়েছে, "টোঙ্গার তারের সংযোগ মেরামত করতে কমপক্ষে চার সপ্তাহ সময় লাগবে।" এদিকে শুধু বিশ্বের সঙ্গেই নয়, দেশটির অভ্যন্তরীণ টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থাও প্রায় অকার্যকর হয়ে পড়েছে।

কয়েকটি স্যাটেলাইট ফোনের মাধ্যমে কোনোরকমে যোগাযোগ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তবে বুধবার টেলিকমিউনিকেশন ফার্ম ডিজিসেল টু-জি সংযোগ স্থাপন করবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

টোঙ্গার সমুদ্রের তলদেশের তারের ক্ষতি এই প্রথম নয়। এর আগেও খারাপ আবহাওয়ার কারণে তারের অপ্রত্যাশিত ক্ষতি হয়েছে, যার ফলে দ্বীপরাষ্ট্রের এক লাখ বাসিন্দার জন্য মোবাইল এবং ইন্টারনেট পরিষেবা প্রায় সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।

এবারের অগ্ন্যুৎপাতকে "অভূতপূর্ব বিপর্যয়" হিসাবে বর্ণনা করেছে টোঙ্গান সরকার। যার ফলে টোঙ্গার বিস্তীর্ণ অংশ ঘন ছাইয়ে ঢেকে গেছে। এ জন্য ত্রাণবিমানগুলি দেশটিতে নামতে পারছে না এবং প্রয়োজনীয় খাবার ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করতে পারছে না।

এখন ছাই পরিষ্কারে কাজ করছে উদ্ধারকারী দল এবং স্বেচ্ছাসেবকরা। দেশটির প্রধান বিমানবন্দরের রানওয়ে আজ পরিষ্কার করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ টোঙ্গাহুঙ্গা টোঙ্গা-হুঙ্গা হাআপাই আগ্নেয়গিরিতে শনিবার অগ্নিকাণ্ডের কারণে পাঁচ থেকে দশ মিটার উঁচু সুনামি ঢেউ তৈরি হয়েছিল। এই বিপর্যয়ে এখন পর্যন্ত তিন জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সুনামির কারণে দেশটির ১৬৯টি দ্বীপের ছোট দ্বীপগুলোতে ভয়াবহ ক্ষতি হয়েছে।

নিউজিল্যান্ড ডিফেন্স ফোর্সের তোলা ছবিতে দেখা গেছে ম্যাঙ্গো দ্বীপের একটি পুরো গ্রাম ধ্বংস হয়ে গেছে। পাশের আটাটা দ্বীপের অনেক ভবন ভেঙে গেছে। সেখানে আরও মৃত্যুর খবর পাওয়া যেতে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




মৎস্যসম্পদ ধ্বংসকারী অবৈধ জাল অপসারণে বিশেষ কম্বিং অপারেশন শুরু

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের মৎস্যসম্পদ ধ্বংসকারী অবৈধ জাল অপসারণে বিশেষ কম্বিং অপারেশন শুরু করেছে সরকার। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় চলতি বছর ১৭টি জেলায় বেহুন্দী জাল, কারেন্টজালসহ মৎস্য সম্পদ ধ্বংসকারী সকল প্রকার অবৈধ জাল অপসারণে ৩০ দিনব্যাপী বিশেষ এ অভিযান পরিচালনা করছে। জাটকা ও সামুদ্রিক মাছের ডিম, লার্ভী ও পোনা রক্ষায় গত ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ থেকে থেকে শুরু হওয়া এ অভিযান চার ধাপে চলবে ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২২ পর্যন্ত।

বিশেষ কম্বিং অপারেশনের আওতাভুক্ত ১৭টি জেলা হচ্ছে পিরোজপুর, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, বরগুনা, ভোলা, বরিশাল, নোয়াখালী, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, মুন্সিগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, শরিয়তপুর, মাদারীপুর ও চাঁদপুর।

উল্লেখ্য, দি প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ রুলস্, ১৯৮৫ অনুযায়ী সরকার ২০১৩ সালে মৎস্য সম্পদ ধ্বংসকারী বেহুন্দি জাল, মশারি জাল, চরঘেরা জাল, বেড়/জগৎবেড় জাল, কারেন্ট জাল প্রভৃতি ক্ষতিকারক জালের ব্যবহার নিষিদ্ধ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে এবং ইলিশ আহরণের জালের ফাঁস ৬ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার বা ২ দশমিক ৬ ইঞ্চি নির্ধারণ করেছে। মৎস্যসম্পদের জন্য ক্ষতিকর এসব জালের ব্যবহার বৃদ্ধি পেলে জাটকাসহ সামুদ্রিক ও উপকূলীয় বিভিন্ন প্রজাতির মাছের ডিম, রেণু ও পোনা বিনষ্ট হবে এবং উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছের উৎপাদনে বিরূপ প্রভাব পড়ার পাশাপাশি জলজ জীববৈচিত্র্য নষ্ট হবে। সরকার কর্তৃক নিষিদ্ধঘোষিত এসব জাল ব্যবহারকারীকে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা জরিমানা অথবা ১ বছর থেকে সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দন্ডিত করার বিধান রয়েছে।


আরও খবর



ঢাবির অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপককে ‘অপহরণের পর’ হত্যা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাভারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা খালেকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিন দিন আগে নিখোঁজ হয়েছিলেন তিনি। বিরোধের জেরে অপহরণের পর তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা ঢাবির প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের আবাসন প্রকল্প এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা খালেক ঢাকার সাভারে বসবাস করতেন। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের আটক করে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ঘটনার দায় স্বীকার করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূইয়া বলেন, সাভারে তিনি একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। সেখানে নতুন বাড়ি নির্মাণের কাজ চলছিল। শ্রমিকরা বাড়ি নির্মাণের জন্য কিছু দাবি করছিল তার কাছে। তাদের সঙ্গে হয়তো সাইদা খালেকের মনোমানিল্য হয়েছিল। তিনদিন আগে তিনি নিখোঁজ হন। আজ সকালে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে। সন্দেহজনক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হলে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করেন।


আরও খবর



করোনা: একদিনে মৃত্যু কমেছে ২ হাজার

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রাণঘাতী করোনায় একদিনের ব্যবধানে নতুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে ৩ লাখ ৩৩ হাজারেরও বেশি, সেই সঙ্গে এ রোগে মৃত্যু কমেছে প্রায় ২ হাজার। বিশ্বজুড়ে মহামারি শুরুর পর থেকে এ রোগে প্রতিদিন আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার্স জানিয়েছে এ তথ্য।

ওয়ার্ল্ডোমিটার্সের হিসেব অনুযায়ী, শনিবার বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৮১ হাজার ৮৪১ জন এবং এ রোগে মারা গেছেন ৩ হাজার ৯০৭ জন।আগের দিন শুক্রবার বিশ্বে করোনায় নতুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ৮ লাখ ১৫ হাজার ৫৬৪ জন এবং এই রোগে মারা গিয়েছিলেন ৫ হাজার ৮৬০ জন।

হিসেব করে দেখা যাচ্ছে, ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে করোনায় নতুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৭২৩ জন এবং মৃতের সংখ্যা কমেছে ১ হাজার ৯৫৩ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটার্স বলছে, শনিবার সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ হয়েছে ফ্রান্সে, আর এ রোগে এই দিন সর্বোচ্চসংখ্যক মৃত্যু দেখেছে রাশিয়া।

শনিবার ফ্রান্সে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৪ হাজার ৬১১ জন এবং এ রোগে মারা গেছেন ৮৪ জন। একই দিন রাশিয়ায় করোনায় মারা গেছেন ৯৮১ জন এবং এ রোগে নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৯৪৬ জন।

ফ্রান্স ও রাশিয়া ব্যতীত বিশ্বের অন্যান্য যেসব দেশে শনিবার করোনায় আক্রান্ত-মৃত্যুর উচ্চহার দেখা গেছে, সে দেশগুলো হলো- ইতালি (নতুন আক্রান্ত ৫৪ হাজার ৭৬২, মৃত্যু ১৪৪), যুক্তরাষ্ট্র (নতুন আক্রান্ত ৪০ হাজার ৪৫৮, মৃত্যু ১০৮), তুরস্ক (নতুন আক্রান্ত ২০ হাজার ৪৭০, মৃত্যু ১৪৫) এবং জার্মানি (নতুন আক্রান্ত ১৭ হাজার ২৪৮, মৃত্যু ১১৭)।

এছাড়া, এইদিন বিশ্বজুড়ে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লাখ ৫৫ হাজার ৮০৩ জন। এই সংখ্যা অবশ্য আগের দিন শুক্রবারের চেয়ে কম। শুক্রবার বিশ্বে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন ৪ লাখ ৪৬ হাজার ৩৮৪ জন। বিশ্বে বর্তমানে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ৪৩ লাখ ৮৮ হাজার ৬৬২ জন। এই রোগীদের মধ্যে করোনার মৃদু উপসর্গ বহন করছেন ২ কোটি ৪৩ লাখ ৬১ জন এবং গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় আছেন ৮৮ হাজার ৬০১ জন।

২০২০ সালে মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ২৭ কোটি ৯৮ লাখ ১২ হাজার ৬৫৯ জন এবং এ রোগে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫৪ লাখ ১৩ হাজার ৯০ জনের। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ২৫ কোটি ১০ হাজার ৯৭৩ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে বিশ্বের প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। করোনায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনাটিও ঘটেছিল চীনে।

তারপর অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি। পরিস্থিতি সামাল দিতে ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

কিন্তু তাতেও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় অবশেষে ওই বছরের ১১ মার্চ করোনাকে মহামারি হিসেবে ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর