আজঃ শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

রংপুরে পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ আগস্ট ২০২১ | ৮৬৫জন দেখেছেন
Image

রংপুর প্রতিনিধিঃ

রংপুরের পীরগাছায় পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্বামী সাহেব আলীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পারিবারিক ভাবে দফারফার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে গা ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্ত সাহেব আলী।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) ভোরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত হাজেরা বেগমের মৃত্যু হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) রাতে উপজেলার হাউদারপাড় নামক গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত হাজেরা বেগম তিন সন্তানের জননী।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হাউদারপাড় গ্রামের মোন্নাফ মিয়ার ছেলে সাহেব আলীর সাথে প্রায় ১৫ বছর আগে হাজেরা বেগমের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে তিন কন্যা সন্তান রয়েছে। তবে ছেলে সন্তানের জন্ম না হওয়ায় স্ত্রী হাজেরা বেগমের সাথে প্রায়ই সাহেব আলী ঝগড়া হতো।

একপর্যায়ে সাহেব আলী ছেলে সন্তানের আশায় দ্বিতীয় বিয়ের জন্য স্ত্রীর অনুমতি চান। এতে হাজেরা বেগম সায় না দেয়ায় তার ওপর দিনের পর দিন শরীরিক নির্যাতন বাড়তে থাকে। সম্প্রতি সময় সাহেব আলী একাধিক পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। বিষয়টি জানাজানি  হলে হাজেরা তার স্বামীকে বাধা দেয়ায় দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।

এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী হাজেরা বেগমকে বেধরক মারপিট করেন সাহেব আলী। এতে গুরুত্বর অসুস্থ হলে তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার ভোরে মারা যান ছত্রিশ বছর বয়সী হাজেরা।

পরিবারের দাবি হাজেরা বেগমকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী সাহেব আলী। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে অভিযুক্ত সাহেব আলীর শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

এদিকে রংপুর মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের অধ্যাপক ডা. আসমাউল হুসনা লাশের ময়নাতদন্ত করেন। তিনি জানান, নিহত গৃহবধূর মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত থাকলেও তার মৃত্যুর সঠিক কারণ এখনই বলা যাচ্ছে না। ফরেনসিক প্রতিবেদনের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে পীরগাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গৃহবধূ হাজেরা বেগমের মৃত্যু হয়েছে বলে আমি জেনেছি। এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর
মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১




সাবেক কোচ জালাল আহমেদ আর নেই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর 20২১ | ৩০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক কোচ ও বিশিষ্ট ক্রীড়া সাংবাদিক জালাল আহমেদ চৌধুরী মারা গেছেন। মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয় (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

তার মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের (কোয়াব) সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল। শ্বাসকষ্টের কারণে গত ১ সেপ্টেম্বর আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালে ভর্তি হন জালাল আহমেদ চৌধুরী। পরে চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরেন। স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটায় ১৫ সেপ্টেম্বর আবার একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। গত শুক্রবার তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।

জালাল আহমেদ সাবেক ক্রিকেটার ছিলেন। ষাটের দশকের মাঝামাঝি থেকে সত্তর দশকের মাঝামাঝি পর্যন্ত খেলেছেন ঢাকা ক্রিকেট লিগে। তারপর শুরু করেন কোচিং। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেট প্রশিক্ষক হিসেবে ভারতের পাতিয়ালায় উচ্চতর কোচিংয়ের ওপর ট্রেনিং করেন তিনি। পরে মোহামডান, ধানমণ্ডি, কলাবাগানসহ ঢাকার বেশ কয়েকটি শীর্ষ ক্লাবে কোচিং করান জালাল আহমেদ চৌধুরী। 


আরও খবর
কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নতুনভাবে ভাবতে হবে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




চাঁদপুরে সিমেন্টবোঝাই কার্গোডুবি

প্রকাশিত:সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০21 | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চাঁদপুরে ৪২০০ বস্তা সিমেন্টসহ একটি মালবাহী কার্গো জাহাজডুবির ঘটনা ঘটেছে। চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের বাগড়া বাজার এলাকায় ডাকাতিয়া নদীতে মেট্টো সিমেন্টসহ কার্গোটি ডুবে যায়। এ সময় কার্গো জাহাজে থাকা ৩ জন নদী সাঁতরে পাড়ে উঠে জীবন বাঁচায়। তারা হলেন- সুকানি সুরুজ, শ্রমিক মহিউদ্দিন ও কার্গোর লস্কর আল-আমিন।

কার্গোর লস্কর আল-আমিন বলেন, এমভি নিউ শাহ পরান নামের মালবাহী কার্গো জাহাজটি নারায়ণগঞ্জের মুক্তারপুর থেকে চাঁদপুরের বাগরাবাজার ডাকাতিয়া নদীতে আসলে রাতে বৃষ্টি শুরু হয়। পরে আমরা সেখানে কার্গোটি নোঙর করে রাখি। রাতভর ভারি বর্ষণে কার্গের ভিতরে পানি ঢুকে পড়ে।

এক পর্যায় কার্গোটি ৪২০০ বস্তা মেট্টো সিমেন্টসহ নদীতে তলিয়ে যায়। যার মূল্য ১৬ লক্ষ টাকা। প্রাণ রক্ষায় আমরা ঝাঁপিয়ে পাড়ে চলে যাই। সিমেন্ট নিয়ে আমাদের যাওয়ার কথা ছিল লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর এলাকায়।


আরও খবর
সাড়ে ৪ লাখ ইয়াবাসহ আটক ৫

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১




পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে জিয়া গুলি চালায়নি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে কখনো গুলি চালিয়েছে এ রকম নজির নেই বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ছাত্রলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, এখনো যুদ্ধাপরাধী, পরাজিত শক্তি এবং ১৫ আগস্টের খুনি যাদের ফাঁসি হয়েছে তারা তো বটেই; তাদের যেমন ছেলেপেলে যারা এবং যুদ্ধাপরাধী যাদের ফাঁসি হয়েছে তাদেরও ছেলেপেলে বা দোসর যারা তারা কিন্তু এখনো বাংলাদেশের বিরুদ্ধে চক্রান্ত চালিয়ে যাচ্ছে, ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। যেসব আন্তর্জাতিক শক্তি আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বিরোধিতা করেছিল তাদের কিছু কিছু এদেরকে মদত দিয়ে থাকে। কাজেই এই ব্যাপারে জাতিকে সতর্ক থাকতে হবে।

৭৫ পরবর্তী পরিস্থিতি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেই সময় যারা স্থানীয় দালালচক্র, যারা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর দোসর তারা কোনোদিন চায়নি বাংলাদেশ স্বাধীন হোক। তারপরও যখন বাংলাদেশ স্বাধীন হলো, বিজয় অর্জন করল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী পরাজিত হলো। তখন সেই পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতেই ১৫ আগস্ট এই হত্যাকাণ্ড তারা চালিয়েছিল। এরপরে বাংলাদেশের ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নামটা সম্পূর্ণ মুছে ফেলা হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পচাত্তরের পরে যারা সংবিধান লঙ্ঘন করে অবৈধভাবে হত্যা, ক্যু, ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেখানে যেমন আমাদের দলেরও কিছু বেঈমান, মোনাফেক, মীরজাফর ছিল। যেমন খন্দকার মোশতাক গং। আর তার শক্তিটা ছিল জিয়াউর রহমান। জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধে একটা সেক্টর কমান্ডার অর্থাৎ সেখানে খালেদ মোশাররফ আহত হয়ে গেল, জিয়াকে সেক্টর কমান্ডার করা হয়েছিল। কিন্তু সে কখনো বিশেষ করে জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে গুলি চালিয়েছে এ রকম কিন্তু নজির নেই। এ রকম কোনো নজির কেউ দেখাতে পারবে না।

তিনি বলেন, যখন মোশতাক বা রশীদ-ফারুক তারা বিবিসিতে যে ইন্টারভিউ দিয়েছে ১৫ আগস্টের পর, সেই ইন্টারভিউতে তারা স্বীকার করেছে। শুধু তাই না, অনেক পত্রিকায়ও তাদের বক্তব্য এসেছে যে, জিয়াউর রহমান এই খুনিদের সঙ্গে সবসময় ছিল এবং জিয়াউর রহমানই ছিল মূল শক্তির উৎস। সেই বেঈমানিটা করেছিল। অথচ জিয়াউর রহমান ছিল একটা মেজর। স্বাধীনতার পর মাত্র তিন বছরের মধ্যে মেজর থেকে একটা প্রমোশন দিয়ে মেজর জেনারেল করা হয়েছিল। সেটা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব।

শেখ হাসিনা বলেন, মেধাবী ছাত্র, তাদের হাতে একদিকে যেমন মেধার জন্য তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়েছে, অপরদিকে তাদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছে, অর্থ তুলে দিয়েছে, মাদক তুলে দিয়েছে এবং তাদেরকে ব্যবহার করেছে। তাদেরকে বিপথে নিয়ে গেছে। এ রকম বহু মেধাবী ছাত্রকে এই জিয়াউর রহমান বিপথে ঠেলে দিয়েছে। প্রত্যেকটা বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্ত্রের ঝনঝনানি। শিক্ষার কোনো পরিবেশ ছিল না। তার স্ত্রী খালেদা জিয়া যখন ক্ষমতায় আসে তখনও সে হুমকি দিয়েছিল যে আওয়ামী লীগকে মোকাবিলা করতে তার ছাত্রদলই নাকি যথেষ্ট। তার কারণ ছাত্রদলের হাতে তারা অস্ত্র তুলে দিয়েছে। তাদের লেখাপড়া করতে উৎসাহিত করেনি।

তিনি বলেন, আমি ছাত্রলীগের হাতে খাতা-কলম তুলে দিয়েছিলাম যে লেখাপড়া শিখতে হবে। ছাত্রলীগের মূলমন্ত্র শিক্ষা, শান্তি, প্রগতি। সেই শিক্ষা, শান্তি, প্রগতি এই আদর্শ নিয়ে ছাত্রলীগকে তৈরি হতে হবে। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হতে হবে। মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। কিন্তু জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে, এরপরে এরশাদ, তারপরে খালেদা জিয়া তারা কি করেছে? তারা তো ছাত্র সমাজকে ধ্বংস করতে চেয়েছে। সুশিক্ষায় শিক্ষিত হোক এই জাতি এটা তারা কখনো চায়নি। অবশ্য চাইবেই বা কী করে, নিজেদের কী অবস্থা সেটাও তো দেখতে হবে।


আরও খবর
কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নতুনভাবে ভাবতে হবে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




২০ বছর পর আফগানিস্তান ছাড়লো যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট ২০২১ | ৬০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুই দশকের যুদ্ধ শেষ। অবশেষে আফগানিস্তান ছেড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সর্বশেষ সামরিক বিমানটি নিয়ে বিদায় নিয়েছে বাইডেন বাহিনী। এর মাধ্যমে দেশটিতে আমেরিকার ২০ বছর ধরে অবস্থানের অবসান হলো।

ওই অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সামরিক কমান্ডার জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার মধ্যরাতের পর যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে সঙ্গে করে সর্বশেষ সি-১৭ বিমান কাবুল ছেড়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে যারা এখনো কাবুল ত্যাগ করতে পারেননি, তাদের সহায়তা করার কূটনৈতিক মিশনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এদিকে সর্বশেষ বিমানটি কাবুল ত্যাগ করার পর সেখানে তালেবানের বিজয়সূচক গুলির আওয়াজ শোনা যায়। প্রসঙ্গত, গত ১৪ অগাস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছিল তালেবান। সেই সময় থেকেই মূলত কাবুলের হামিদ কারজাই বিমানবন্দর থেকে উদ্ধার কার্যক্রম চলছিল।

জেনারেল ম্যাকেঞ্জি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের এবং জোট বাহিনীর বিমানগুলোয় করে সব মিলিয়ে এক লাখ ২৩ হাজার বেসামরিক ব্যক্তিকে সরিয়ে আনা হয়েছে। প্রতিদিন সাড়ে সাত হাজারের বেশি বাসিন্দা কাবুল ছাড়ার সুযোগ পেয়েছেন।

এই ঘোষণা দিতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিনকেন ওয়াশিংটনে বলেছেন, এটি ছিল ব্যাপক সামরিক, কূটনৈতিক এবং মানবিক কর্মযজ্ঞ এবং যা যুক্তরাষ্ট্র অনেক চ্যালেঞ্জের সাথে বাস্তবায়ন করেছে।

তবে তিনি এও বলেছেন যে, তালেবানকে বৈধতা অর্জন করতে হবে। সেই সঙ্গে তারা তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে কিনা এবং নাগরিকদের ভ্রমণে স্বাধীনতা দেয়া, নারীদের অধিকার রক্ষা এবং সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোকে দমন করছে কিনা-এসব বিষয় বিশ্ববাসীর নজরে থাকবে।

তিনি জানিয়েছেন, কাবুলে কূটনৈতিক মিশন স্থগিত করে দোহায় নিয়ে যাওয়া হলেও, আমেরিকান নাগরিক এবং যে আফগানদের যুক্তরাষ্ট্রের পাসপোর্ট রয়েছে, তারা চাইলে তাদের আফগানিস্তান ছাড়তে সহায়তা করবে।

অপরদিকে, গত ১৭ দিন ধরে চলা এই উদ্ধার অভিযানে যারা অংশ নিয়েছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিবেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালের সাতই অক্টোবর আফগানিস্তানে অভিযান শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনী। কারণ তখন দেশটিতে ক্ষমতায় থাকা তালেবান নেতারা আল-কায়েদার ওসামা বিন লাদেনকে হস্তান্তর করতে রাজি হয়নি। সেই বছর নভেম্বরে কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয় মার্কিন জোট সমর্থিত তালেবান বিরোধী বাহিনী নর্দার্ন অ্যালায়েন্স।



আরও খবর



রাজশাহী হাসপাতালে করোনা ইউনিটে আরও ৫ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে তিন জন পুরুষ ও দুই জন নারী। আজ শুক্রবার সকালে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, 'পাঁচ জনের মধ্যে দুই জন রাজশাহী, দুই জন চাঁপাইনবাবগঞ্জের ও একজন নওগাঁর বাসিন্দা। এদের মধ্যে তিন জন কোভিড-১৯ পজিটিভ ছিলেন। বাকিরা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন।'

শামীম ইয়াজদানী আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে করোনায় আক্রান্ত ১৭ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৩৬০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪৩ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে রাজশাহীর ২০৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৪ জন ও জয়পুরহাটে ১৫১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় রাজশাহীতে শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ ও জয়পুরহাটে ১২ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২২ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে গেছেন ২৫ জন। এর আগে ২৮৬টি শয্যার বিপরীতে ভর্তি ছিলেন ১৪৫ জন। বর্তমানে মোট ১৪০ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

 


আরও খবর
সাড়ে ৪ লাখ ইয়াবাসহ আটক ৫

শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১