আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

সালমনকে মোটেই পছন্দ হয়নি আমিরের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আন্দাজ আপনা আপনা ছবিতে তাঁদের রসায়নে বুঁদ হয়েছিলেন দর্শক। বলিউড পেয়েছিল নতুন জুটি। আমির খান এবং সলমন খান। কিন্তু জানেন কি, টাইগার-এর সঙ্গে প্রথম বারের কাজের অভিজ্ঞতা খুব একটা সুখকর হয়নি মিস্টার পারফেকশনিস্টের?

এক সাক্ষাৎকারে নিজের অসন্তোষের কথা জানিয়েছিলেন আমির স্বয়ং। ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছিলেন, সলমনের সঙ্গে আন্দাজ আপনা আপনা ছবিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা খুব খারাপ। তখন ওকে আমার একদমই ভাল লাগেনি। আমার ওকে খুবই রূঢ় এবং বিবেচনাহীন বলে মনে হয়েছিল। সলমনের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতার পর ওর থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে চেয়েছিলাম।

সময়ের সঙ্গে সলমনের প্রতি আমিরের এই ধারণা বদলায়। ২০০২ সালে যখন আমিরের বিবাহ বিচ্ছেদ হচ্ছিল, তখন সলমন ছিলেন তাঁর পাশে। জীবনের সেই টালমাটাল পরিস্থিতিতে ভাইজান-এর সঙ্গে বন্ধুত্ব হয় আমিরের। তিনি বলেন, আমার জীবনের খুব খারাপ সময়ে সলমন বন্ধু হয়ে এসেছিল। আমার বিবাহ বিচ্ছেদ চলছিল তখন। আমরা দেখা করতাম, মদ্যপান করতাম। এ ভাবেই আমাদের বন্ধুত্ব শুরু। সময়ের সঙ্গে সেই বন্ধুত্ব আরও দৃঢ় হচ্ছে।

শোনা যাচ্ছে, আমিরের লাল সিং চড্ডা ছবিতে ক্যামিও চরিত্রে দেখা যাবে সলমনকে। পর্দায় ফের দুজনকে একসঙ্গে দেখার অপেক্ষায় অনুরাগীরা।


আরও খবর



টোঙ্গার টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা মেরামতে লাগবে এক মাস

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ২০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টোঙ্গায় আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের ফলে ধ্বংস হয়ে যাওয়া সমুদ্রের নিচের একটি তার মেরামত করতে কমপক্ষে চার সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের কর্মকর্তারা। শনিবার সমুদ্রে বিধ্বংসী অগ্ন্যুৎপাত এবং সুনামির কারণে দেশের একমাত্র ডুবো সমুদ্রের তারের দুটি জায়গা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর পরই পুরো বিশ্ব থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে দেশটি।

বুধবার নিউজিল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, "মার্কিন কেবল কোম্পানি সাবকম পরামর্শ দিয়েছে, "টোঙ্গার তারের সংযোগ মেরামত করতে কমপক্ষে চার সপ্তাহ সময় লাগবে।" এদিকে শুধু বিশ্বের সঙ্গেই নয়, দেশটির অভ্যন্তরীণ টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থাও প্রায় অকার্যকর হয়ে পড়েছে।

কয়েকটি স্যাটেলাইট ফোনের মাধ্যমে কোনোরকমে যোগাযোগ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তবে বুধবার টেলিকমিউনিকেশন ফার্ম ডিজিসেল টু-জি সংযোগ স্থাপন করবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

টোঙ্গার সমুদ্রের তলদেশের তারের ক্ষতি এই প্রথম নয়। এর আগেও খারাপ আবহাওয়ার কারণে তারের অপ্রত্যাশিত ক্ষতি হয়েছে, যার ফলে দ্বীপরাষ্ট্রের এক লাখ বাসিন্দার জন্য মোবাইল এবং ইন্টারনেট পরিষেবা প্রায় সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।

এবারের অগ্ন্যুৎপাতকে "অভূতপূর্ব বিপর্যয়" হিসাবে বর্ণনা করেছে টোঙ্গান সরকার। যার ফলে টোঙ্গার বিস্তীর্ণ অংশ ঘন ছাইয়ে ঢেকে গেছে। এ জন্য ত্রাণবিমানগুলি দেশটিতে নামতে পারছে না এবং প্রয়োজনীয় খাবার ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করতে পারছে না।

এখন ছাই পরিষ্কারে কাজ করছে উদ্ধারকারী দল এবং স্বেচ্ছাসেবকরা। দেশটির প্রধান বিমানবন্দরের রানওয়ে আজ পরিষ্কার করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ টোঙ্গাহুঙ্গা টোঙ্গা-হুঙ্গা হাআপাই আগ্নেয়গিরিতে শনিবার অগ্নিকাণ্ডের কারণে পাঁচ থেকে দশ মিটার উঁচু সুনামি ঢেউ তৈরি হয়েছিল। এই বিপর্যয়ে এখন পর্যন্ত তিন জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সুনামির কারণে দেশটির ১৬৯টি দ্বীপের ছোট দ্বীপগুলোতে ভয়াবহ ক্ষতি হয়েছে।

নিউজিল্যান্ড ডিফেন্স ফোর্সের তোলা ছবিতে দেখা গেছে ম্যাঙ্গো দ্বীপের একটি পুরো গ্রাম ধ্বংস হয়ে গেছে। পাশের আটাটা দ্বীপের অনেক ভবন ভেঙে গেছে। সেখানে আরও মৃত্যুর খবর পাওয়া যেতে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের কাজ চলছে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নে আওয়ামী লীগ সরকারের যে প্রতিশ্রুতি ছিল সেটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ১৯৯৬ সালে আমরা ক্ষমতায় আসার পর শান্তিচুক্তি করেছিলাম। শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নে আমাদের একটা প্রতিশ্রুতি ছিল, সেটি পূরণের কাজ চলছে। 

বুধবার সকাল ১০টায় রাজধানীর গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে চেঙ্গী নদীর ওপর নির্মিত পার্বত্য চট্টগ্রামের দীর্ঘতম সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

একই সময় তিনি কক্সবাজারের বালুখালী থেকে বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্ত সংযোগ সড়কের উদ্বোধন করেন। এ সময় ভিডিও কনফারেন্সে গণভবন থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সেনাপ্রধান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে যোগাযোগের বাধা দূর করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সড়ক যোগাযোগের ব্যবস্থা নিচ্ছি।  যেমন এশিয়ান হাইওয়ে ও এশিয়ান রেলওয়ের সঙ্গেও আমরা বাংলাদেশকে সংযুক্ত করার চেষ্টা করছি।  এসকাফ প্রকল্পটা এগিয়ে নিচ্ছি। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্প্রসারণের লক্ষ্যে আমরা যে কাজ করে যাচ্ছি এরই অংশ হিসেবে কক্সবাজারের বালুখালী থেকে বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিই।  সড়কটি এশিয়ান হাইওয়ের একটি অংশ।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঘটে। সে কারণে উন্নয়নকাজ কিছুটা ব্যাহত হয়। পরে আমরা সেই কাজ শুরু করি। আমি মনে করি যে নির্ধারিত সময়ে কাজটি সমাপ্ত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, নানিয়ারচরে পার্বত্য চট্টগ্রামের সবচেয়ে দীর্ঘতম এই সেতু নির্মাণের ফলে শান্তিচুক্তির বাস্তবায়ন আরও একধাপ এগোলো। এতে করে স্থানীয়দের জীবনযাত্রার উন্নয়ন ও উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণে ভূমিকা রাখবে।


আরও খবর



আফগান-পাক সীমান্তে পাকিস্তানী সেনা নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগান সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলের আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় জঙ্গি হামলায় এক পাকিস্তানী সেনা নিহত হয়েছেন। জঙ্গিদের সঙ্গে রাতভর গুলিবিনিময়ে ওই সেনা নিহত হন বলে পাকিস্তান সেনাবাহিনী জানিয়েছে। রোববার বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের উত্তর ওয়াজিরিস্তান জেলার শেওয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে বলে পাকিস্তান সেনাবাহিনী শনিবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী এ হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেনি।

সেনাবাহিনী জানায়, ব্যাপক গোলাগুলি চলাকালে ওই সেনা সদস্যের মৃত্যু হয়।  হামলাকারীদের খোঁজে ওই এলাকায় অভিযান চলছে বলেও জানিয়েছে পাক সেনাবাহিনী। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু জানায়নি তারা।

পাকিস্তানের উত্তর ওয়াজিরিস্তান গত কয়েক দশক ধরে জঙ্গিদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে খাইবার পাখতুনখাওয়ার প্রাদেশিক রাজধানী পেশোয়ারে সেনাবাহিনী পরিচালিত একটি স্কুলে হামলার পর সেনাবাহিনী এই অঞ্চলে অভিযান চালায়। স্কুলের ওই হামলায় ১৫০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছিল। নিহতদের অধিকাংশই স্কুলের শিক্ষার্থী ছিলেন।


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




জেনে নিন কেমন হবে আপনার নতুন বছর

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নতুন বছর মানে নতুন স্বপ্ন, নতুন আশা। কেমন হতে যাচ্ছে নতুন বছর, তা ভেবে টেনশন হচ্ছে খুব? হওয়ারই কথা। আপনার অর্জন ঠিক ততটুকুই হবে, যতটুকু আপনার কর্ম। ফলে সাফল্য, ব্যর্থতা, রোজগার, সম্পর্কপুরোটাই আপনার হাতের মুঠোয়।

২০২২ সাল বাংলাদেশের জন্য একটি অপার সম্ভাবনার বছর হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকতে পারে। নানারকম প্রাকৃতিক দুর্যোগ থাকা সত্ত্বেও কৃষিতে আমাদের সাফল্য প্রতিবেশী দেশগুলোর কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। পাশাপাশি আর্থিক উন্নতির ক্ষেত্রেও চাকা সামনের দিকেই এগোবে; তবে কিছুটা মন্থর গতিতে! রাহুর অবস্থানগত কারণে দেশের রাজনৈতিক মঞ্চ কখনো কখনো অস্থির হয়ে উঠবে ঠিকই তবে তা কোনো বড় ধরনের পরিবর্তন ঘটাবে বলে মনে হয় না। রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে পারস্পরিক দোষারোপের সংস্কৃতির আগের মতোই বজায় থাকবে। পরাশক্তির সঙ্গে কৌশলগত আচরণ বিশ্ব রাজনীতিতে বাংলাদেশের অবস্থানকে আরও সুসংহত করবে। দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় কিছু বড় ধরনের চমক থাকলেও সার্বিক পরিস্থিতির তেমন একটা পরিবর্তন দেখা যাবে না। প্রায় দুই বছর শিক্ষা ক্ষেত্রে চরম অস্থিরতা বিরাজ করলেও এ বছর পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে। অনেক ছাত্র-ছাত্রীই এ বছর বিদেশে পড়ালেখার সুযোগ পাবেন। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে খুব একটা আশাবাদ ব্যক্ত করা যাচ্ছে না। সরকারের নিরলস প্রচেষ্টা থাকা সত্ত্বেও চুরি-ডাকাতি, ছিনতাই, অপহরণ ইত্যাদি কখনো কখনো জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলতে পারে। পরকীয়া, ডিভোর্স, একাধিক বিয়ের প্রবণতা ইত্যাদি আশঙ্কাজনকভাবে বাড়তে পারে। এ বছর খেলাধুলায় বাংলাদেশ অনেকটাই এগিয়ে যাবে। একাধিক আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে তরুণ প্রতিযোগীরা। বর্তমানে ক্রিকেট নিয়ে যে সমালোচনা চলছে, তার উপযুক্ত জবাব দিতে সক্ষম হবে আমাদের ক্রিকেটারেরা। এ বছর আমাদের দেশের চলচ্চিত্র বিদেশের মাটিতে পুরস্কার জিততে পারে। নৃত্যকলা ও সংগীতেও এ দেশের শিল্পীরা বিদেশে সুনাম কুড়াতে সক্ষম হবেন। পোশাক শিল্প গত দুই বছরে যে পরিমাণ ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছিল, আর অনেকটাই এ বছর কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবে। এ ছাড়া সার্বিক রপ্তানি বাণিজ্যে নতুন করে সুবাতাস বইতে শুরু করবে। দেশ একাধিকবার প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে পড়তে পারে। বন্যা, সাইক্লোন, ভূমিকম্পএগুলোর আশঙ্কাকে একদম উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। তবে সরকারের ত্বরিত ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে ক্ষয়ক্ষতি ঘটবে একদম ন্যূনতম পর্যায়ে। করোনা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব না হলেও নতুন করে মারাত্মক আকার ধারণ করবে বলে মনে হয় না। সবকিছু মিলিয়েই এ বছর আমাদের সকলের জীবনে সম্ভাবনার নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হতে পারে। এটাই হোক আমাদের সবার প্রত্যাশা।

ব্যক্তিগত বর্ষফল-২০২২

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

সম্ভাবনার বছর।

কাজকর্ম, অর্থ, সম্পর্ক সবকিছুতেই ইতিবাচক শুভ ফলের যোগ আছে।

চাকরি প্রত্যাশীদের অনেকেরই এ বছর দুশ্চিন্তার অবসান হবে। ব্যবসায়িক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি এ দুই মাস অত্যন্ত শুভ। শিক্ষা ক্ষেত্রে কারও কারও বৈদেশিক বৃত্তি পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। প্রেমের ব্যাপারে আগ বাড়িয়ে কিছু করার দরকার নেই। বিদেশ যাত্রার ব্যাপারে একাধিক নতুন সুযোগ আসতে পারে কারও কারও। অর্থনৈতিক দিক স্থিতিশীল থাকার সম্ভাবনা বেশি।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২১ মে)

অপ্রত্যাশিত সৌভাগ্যের বছর।

হঠাৎ কোনো সম্পত্তির মালিকানা আপনার কাছে চলে আসতে পারে। ব্যবসায় বছরের প্রথম তিন মাসে চমক থাকবে। পেশা পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে আপনার আর্থিক সমৃদ্ধি ঘটতে পারে। বছরের পুরোটাই পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকবে। সন্তানের কৃতিত্বে অনেকের সামাজিক মর্যাদা বাড়ার সম্ভাবনা আছে। বন্ধু-বান্ধব কিংবা আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে পুরোনো বিরোধের নিষ্পত্তি হতে পারে অনেকের। আইনি বিষয়ে সতর্ক থাকবেন।

মিথুন (২২ মে-২১ জুন)

মিশ্রফলের বছর।

বছরের শুরু থেকেই একটু একটু করে হলেও পাওনা আদায় হবে। অংশীদারের খপ্পর থেকে বেরিয়ে এসে নিজেই ব্যবসা শুরু করুন। বছরের মাঝামাঝি চাকরিজীবীদের জন্য শুভ সময়। এ বছর পড়ালেখা নিয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে সক্ষম হবেন। কারও কারও বছরের মাঝামাঝি সময়ে বিদেশে অধ্যয়নের বিষয়টি চূড়ান্ত হতে পারে। এ বছর আয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ব্যয় বাড়তে পারে। প্রেমের ব্যাপারে সতর্ক হয়ে এগোন।

কর্কট (২২ জুন-২২ জুলাই)

রহস্যজনক বছর।

বছরের দ্বিতীয় ভাগে একাধিক ব্যবসায়িক পরিকল্পনা সফল হতে পারে। চাকরিতে হঠাৎ পদোন্নতি কিংবা অপ্রত্যাশিত সুবিধা আপনাকে কিছুটা অবাক করতে পারে। এ বছর জমি, অ্যাপার্টমেন্ট কিংবা অন্য কোনো স্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পেতে পারেন। প্রেমের ব্যাপারে প্রতারণার ঘটনা ঘটতে পারে। এ বছর উপার্জনের নতুন উৎসের সন্ধান পাবেন অনেকেই। সৃজনশীল কাজের জন্য প্রশংসিত হবেন কেউ কেউ।

সিংহ (২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট)

শুভ সম্ভাবনাময় বছর।

অতীতের ব্যর্থতা, আর্থিক ও মানসিক বিপর্যয় কাটিয়ে ঝকঝকে একটি বছর আপনার সামনে। নতুন ব্যবসায়ে হাত দিলে সাফল্য পাবেন। চাকরিজনিত দুশ্চিন্তায় বছরের শুরুতে নিষ্পত্তি হতে পারে। এ বছর শিক্ষার্থীদের অনেকেই বিদেশে পড়া লেখার সুযোগ পাবেন। দীর্ঘদিনের ঝুলে থাকা মামলা নিষ্পত্তি হতে পারে। তবে একাধিক প্রেমের আহ্বান আপনাকে কিছুটা বিভ্রান্তিতে ফেলতে পারে। অনেকেই এ বছর একাধিকবার বিদেশে ভ্রমণের সুযোগ পাবেন।

কন্যা (২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)

সার্বিকভাবে সুসংহত হওয়ার বছর।

ব্যবসায়ে অংশীদারের সঙ্গে বিরোধ নিষ্পত্তি হতে পারে। চাকরিতে যারা পরিবর্তন চাইছেন, তাঁদের জন্য বছরটি শুভ। এ বছর জমিসহ অস্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পেতে পারেন। চাকরি প্রত্যাশীদের জন্য বছরের প্রথমার্ধ শুভ। প্রেমের ব্যাপারে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হলেও তা নিষ্পত্তি হতে বেশি সময় লাগবে না। এ বছর আয়ের নতুন উৎসের সন্ধান পেতে পারেন। রাজনৈতিক তৎপরতা শুভ।

তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)

শুভ সম্ভাবনায় বছর।

ব্যবসায়ীদের মুখে হাসি ফুটবে। নতুন ব্যবসার জন্য বছরটি শুভ। চাকরিতে অনেকেরই আটকে থাকা পদোন্নতির বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে। এ বছর অনেকেই জমি কিংবা অন্য কোনো অস্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পাবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার জন্য বছরটি অত্যন্ত শুভ। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিয়ের কথাবার্তা পাকাপাকি হতে পারে। আর্থিক বিষয়ে বছরের আগাগোড়াই সৌভাগ্য আপনার সঙ্গে থাকবে।

বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)

সৌভাগ্যে পরিপূর্ণ বছর।

ব্যবসায়ে নতুন বিনিয়োগ শুভ। নতুন চাকরিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাওয়ার পাশাপাশি আর্থিক দিক দিয়েও লাভবান হবেন। ছাত্র-ছাত্রীদের অনেকেই এ বছর বৈদেশিক বৃত্তি পেতে পারেন। বিভিন্ন পরীক্ষায় কেউ কেউ ভালো ফল অর্জনে সক্ষম হবেন। এ বছর একাধিকবার আইনি জটিলতায় পড়তে হলেও শেষ পর্যন্ত তা থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার জন্য বছরের আগা-গোড়াই সুসময় বিরাজ করবে।

ধনু (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর)

সৌভাগ্যময় বছর।

বছরের প্রথম তিন মাস নতুন ব্যবসা শুরুর জন্য শুভ সময়। এ বছর ছাত্র-ছাত্রীদের অনেকেই ভালো করবেন। চাকরিজনিত ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। পারিবারিক বিরোধের নিষ্পত্তি হতে পারে কারও কারও। এ বছর পাওনা টাকা আদায়ের ক্ষেত্রেও উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হবে। প্রেমের ব্যাপারে অতি উৎসাহী হবেন না। প্রতারণার ঘটনা ঘটতে পারে। সৃজনশীল কাজের জন্য সম্মাননা পেতে পারেন। 

মকর (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি)

স্মরণীয় বছর।

ব্যবসায়ীদের মুখে হাসি ফুটবে এ বছর। পারিবারিক দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করতে পারে। মাথা ঠান্ডা রেখে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনুন। চাকরিজনিত বিভিন্ন বিষয় বছরের প্রথম দিকেই নিষ্পত্তি হতে পারে। চাকরিপ্রত্যাশীদের অনেকেই এ বছর প্রত্যাশার চেয়েও ভালো চাকরি পেতে পারেন। হঠাৎ অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে এ রাশির মানুষদের। এ বছর একাধিক প্রেমের প্রস্তাব পেতে পারেন। বন্ধুবান্ধবের মাধ্যমে উপকৃত হবেন।

কুম্ভ (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

সংগ্রাম ও সফলতার বছর।

আয়ের একাধিক নতুন উৎসের সন্ধান পেতে পারেন। ব্যবসায় উন্নতির জন্য সুযোগ কাজে না লাগালে একাধিক সুযোগ হাতছাড়া হতে পারে। চাকরিতে পরিবর্তন আপনার জন্য সুফল বয়ে আনতে পারে। শিক্ষার্থীদের অনেকেই ভালো ফলাফল অর্জন করবেন। কেউ বিদেশেও পড়ালেখার সুযোগ পাবেন। প্রেমে ভুল বোঝাবুঝি মাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে। সতর্ক থাকবেন। আইনি সমস্যার সমাধান হতে পারে কারও কারও।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

সফলতার বছর।

একক কিংবা অংশীদারী যেকোনো ধরনের ব্যবসায় সাফল্য পাবেন। চাকরিতে পরিবর্তন সার্বিকভাবে সুফল বয়ে আনতে পারে কারও কারও। অনেকেই বছরের প্রথম ২-৩ মাসের মধ্যে নতুন কাজের সন্ধান পেতে পারেন। এ বছর একাধিক প্রেমের প্রস্তাব আপনাকে বিভ্রান্তিতে ফেলতে পারে। তবে সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিয়ের কথাবার্তা পাকাপাকি হতে পারে। শিক্ষার্থীদের কারও কারও জন্য শুভ সময় যাবে। এ বছর সার্বিকভাবে আপনার আয় বৃদ্ধি পাবে।

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২

সহজেই বানিয়ে ফেলুন সুস্বাদু মূলার পায়েস

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22




কক্সবাজারে নারী পর্যটককে ‘সংঘবদ্ধ ধর্ষণ’, গ্রেফতার ৫

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ৩৬৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত বুধবার সকালে ঢাকা থেকে স্বামী-সন্তানসহ কক্সবাজার বেড়াতে আসেন ওই নারী। এরপর কক্সবাজার শহরের হলিডে মোড়ের একটি হোটেলে উঠেন

স্বামী-সন্তানের সঙ্গে ঢাকা থেকে কক্সবাজার বেড়াতে আসা এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে কয়েকজন এজাহারনামীয় আসামি ও তাদের সহযোগী রয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে টুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের পুলিশ সুপার জিল্লুর রহমান বলেন, তাদের আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তবে ধর্ষণকাণ্ডের মূল হোতা আশিক এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে। এ বিষয়ে দুপুরে একটি সংবাদ সম্মেলন করবে কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশ। সেখানে তাদের বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার (২২ ডিসেম্বর) স্বামী-সন্তানকে জিম্মি ও হত্যার ভয় দেখিয়ে এক নারী পর্যটককে দলবেঁধে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠে। অভিযোগ পেয়ে রাত দেড়টার দিকে কক্সবাজারের কলাতলীর জিয়া গেস্ট ইন নামে একটি হোটেল থেকে ওই নারীকে উদ্ধার করে র‌্যাব-১৫। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুরে হোটেলের ব্যবস্থাপক রিয়াজ উদ্দিন ছোটনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত তিনজনের মধ্যে দুইজনকে শনাক্তও করা হয়েছে।

ওই নারীর বরাত দিয়ে র‌্যাব জানায়, গত বুধবার সকালে ঢাকা থেকে স্বামী-সন্তানসহ কক্সবাজার বেড়াতে আসেন ওই নারী। এরপর কক্সবাজার শহরের হলিডে মোড়ের একটি হোটেলে উঠেন। সেখান থেকে বিকেলে সৈকতের লাবণী পয়েন্টে ঘুরতে যান। লাবণী পয়েন্টে অপরিচিত এক যুবকের সঙ্গে ওই নারীর স্বামীর ধাক্কা লাগে। পরে কথা কাটাকাটি হয়।

এরই জেরে সন্ধ্যায় স্টেডিয়াম সংলগ্ন পর্যটন গলফ মাঠের সামনে থেকে কয়েকজন যুবক তার স্বামী ও ৮ মাসের সন্তানকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যায়। অপর একটি অটোরিকশায় তিন যুবক গৃহবধূকে তুলে নেয়। পরে তারা পর্যটন গলফ মাঠের পেছনে একটি ঝুপড়ি চায়ের দোকানের পেছনে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।

সেখান থেকে তাকে জিয়া গেস্ট ইন নামে একটি হোটেলে নেওয়া হয়। সেখানেও তাকে আরেক দফা ধর্ষণ করে ওই যুবকরা। ঘটনা কাউকে জানালে সন্তান ও স্বামীকে হত্যা করা হবে জানিয়ে হোটেল কক্ষটি বাইরে থেকে বন্ধ করে পালিয়ে যায় তারা।

ওই নারীর দাবি, তিনি জিয়া গেস্ট ইনের তৃতীয় তলার জানালা দিয়ে এক যুবকের সহায়তায় কক্ষের দরজা খুলে ৯৯৯-এ ফোন দেন। পুলিশ তাকে থানায় এসে সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দেয়। তারপর অপর এক ব্যক্তির সহযোগিতায় কল দেন র‌্যাবকে। পরে র‌্যাব এসে তাকে উদ্ধার করে। পর্যটন গলফ মাঠের এলাকা থেকে তার স্বামী ও সন্তানকেও উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) রাতে ওই নারীর স্বামী বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা করেন। কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া এলাকার আশিকুল ইসলাম আশিকসহ এজাহারে চারজনের নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া তিনজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন- আশিকের দুই সহযোগী ইস্রাফিল খুদা জয়, মেহেদী হাসান বাবু এবং হোটেলের ব্যবস্থাপক রিয়াজ উদ্দিন ছোটন।


আরও খবর