আজঃ সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

শারুনের বিরুদ্ধে এবার ধর্ষণচেষ্টা মামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ছিনতাই, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, করোনা ভ্যাকসিন জালিয়াতির মতো ভয়ংকর অপরাধে জড়িত চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার নাজমুল করিম চৌধুরী শারুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে। নিজ প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে রাজধানী ঢাকায় এক নারীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এই মামলা করা হয় ( মামলা নাম্বার-১৫৫/২০২১)। ধর্ষণের ঘটনায় গত ১০ নভেম্বর ঢাকার নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৮-এ মামলাটি করেন ভুক্তভোগী এক নারী। মামলার বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে অভিযোগ তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দেন সংশ্লিষ্ট আদালতের বিচারক বেগম মাফরোজা পারভীন। ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগ, শারুন চৌধুরীর সঙ্গে তাঁর পরিচয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। ফেসবুকে যোগাযোগের একপর্যায়ে তাঁকে নিজের কম্পানিতে চাকরির প্রলোভন দেন শারুন। নির্দেশনানুযায়ী গত ২ নভেম্বর শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে শারুনের কার্যালয়ে যান তিনি। অভ্যর্থনা কক্ষে যাওয়ার পর তাঁরে সরাসরি শারুনের কক্ষে পাঠানো হয়। সেখানেই জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, শারুনের কক্ষে গিয়ে কাগজপত্র দেখাতে চাইলে শারুন এ সবের কোনো প্রয়োজন নেই জানিয়ে বলেন, কাগজপত্রের প্রয়োজন নেই, তুমিই যথেষ্ঠ। এ কথা বলে তাঁকে জড়িয়ে ধরে অশালীন অঙ্গভঙ্গি করার চেষ্টা করেন শারুন চৌধুরী। এ সময় তাঁকে কুপ্রস্তাব দেওয়া হয়। পরিস্থিতি বুঝে তিনি শারুনের হাত থেকে ছাড়া পাওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। তাঁকে ওই কক্ষের সোফায় ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন শারুন। এ সময় তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন নাজমুল করিম চৌধুরী শারুন। তাতে ব্যর্থ হয়ে শারীরিক নির্যাতন করা হয়। তবে কোনমতে ওই কক্ষ থেকে প্রাণে বেঁচে ফেরেন তিনি।

বাদীপক্ষের আইনজীবী জানান, এই মামলার আসামী শারুন বাদীনির সঙ্গে প্রতারণা করে ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন, যা নারী ও শিশু নির্যতন দমন আইনের ৯(৪)খ ধারা অনুযায়ী অপরাধ। এ অভিযোগ নিয়ে থানায় গেলে তারা আদালতের দারস্থ হওয়ায় পরামর্শ দেয়। ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দাখিল করা হয়েছে। নাজমুল করিমের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার ঘটনা জানার পরে, তার দারা নির্যাতিত অনেক নারীই এখন মুখ খুলতে চাইছেন। কেউ কেউ মামলারও প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রামের পটিয়ার নাজমুল করিম চৌধুরী এর আগেও নানা বিতর্কিত কর্মকা-ের কারণে সমালোচিত। এর আগে তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজি, বিনামূল্যে দেয়া সরকারি করোনা ভ্যানসিন জালিয়াতি করে বিক্রি, সুদের ব্যবসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলাও আছে।  এলাকাবাসীর অভিযোগ, নাজমুল করিমের বাবা বিচ্ছু সামশু টাইপ রাইটার মেশিন চুরি করে চট্টগ্রাম কারেগারে ছিলেন। এলাকার চুরি-ছিনতাইসহ বিভিন্ন অভিযোগে পটিয়ার মানুষ ছিলো অতিষ্ট। সেই বিচ্ছু সামশুর ছেলে বাবার চেয়ে ভয়ংকর হয়ে উঠেছে। ব্যাংকার মোর্শেদ হত্যার নেপথ্যের কারিগর নাজমুল করিম এখন ছিনতাই, চাঁদাবাজি আর মাদক ব্যবসার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। চাকরি দেয়ার নামে নারীদের ধর্ষণ করতেও ছাড়ে না। এই কুলাংগারের বিচার না হলে সে সাধারণ মানুষের আরামের ঘুম হারাম করে ফেলবে। 

পটিয়ার কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা ক্ষুদ্ধ কণ্ঠে বলেন, শুধু ঢাকাতেই নয়-চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে চট্টগ্রাম এবং পটিয়াসহ বিভিন্ন স্থানে শারুন চৌধুরী ফাঁদে ফেলে অনেক নারীর সর্বনাশ করেছেন। অনেকেই শারুন ও তার ক্যাডার বাহিনীর হুমকিতে মুখ খুলতেও ভয় পান। তবে ঢাকার নির্যাতিত নারীকে স্যালুট জানাই অন্তত সাহস করে শারুনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। শারুনের মতো ছিচকে সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি দাবী করেন তারা।


আরও খবর



ফেনীতে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
পরিবারিক কলহের জের ধরে ২০১৯ সালের ৫ মার্চ রাতে শিরীনকে হত্যা করা হয়। ঘটনার দুইদিন পর খুনের অভিযোগ এনে শিরিনের মা রেজিয়া বেগম বাদী হয়ে

স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামী ইয়াছিনকে মৃত্যুদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছে ফেনীর জেলা ও দায়রা জজ আদালত।  জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুননেছা আজ এ রায় দেন।

এ মামলার রায়ে বলা হয়, ফাজিলপুরে আলোচিত গৃহবধূ শিরিন আক্তারকে বৈদ্যুতিক শক দিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে।

এর আগে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।

আদালত সূত্র জানায়, পরিবারিক কলহের জের ধরে ২০১৯ সালের ৫ মার্চ রাতে শিরীনকে হত্যা করা হয়। ঘটনার দুইদিন পর খুনের অভিযোগ এনে শিরিনের মা রেজিয়া বেগম বাদী হয়ে ইয়াছিনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। গ্রেফতারের পর একই বছরের ৮ মার্চ অভিযুক্ত ইয়াছিন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আবু তাহের চলতি বছরের ১৮ জানুয়ারি ইয়াছিনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। পরে ১০ নভেম্বর মামলার চার্জ গঠন হয়। এ মামলায় মোট ২১ জন সাক্ষী এবং ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি হাফেজ আহম্মদ বলেন, এ রায়ে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

বাদী পক্ষে আইনজীবী আবদুর সাত্তার বলেন, রায়ে খুশি বাদী পক্ষ। তবে আসামী পক্ষের আইনজীবী বলেন, রায়ে ন্যায় বিচার পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর সদর উপজেলার ফাজিলপুর এলাকার মো. ইয়াছিনের সঙ্গে শিরীন আক্তারের বিয়ে হয়।

নিউজ ট্যাগ: ফেনী

আরও খবর
ফেনীতে ৫০ কেজি গাঁজাসহ আটক ৪

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ীদের হত্যার পরিকল্পনা

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ নভেম্বর ২০২১ | ৫৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী-শিল্পপতিদের হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলার পর এবার তাদের পরিকল্পিতভাবে হত্যাচেষ্টা শুরু হয়েছে। কিলিং মিশন সফল করতে বিভিন্ন কৌশলে ভাড়াটে খুনিরা ব্যবসায়ীদের আশপাশে থাকার চেষ্টা করছে। এতে দেশের ব্যবসায়ী সমাজের মধ্যে গভীর উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা তৈরি হয়েছে। ব্যবসায়ী নেতারা বলেছেন, বেসরকারি খাত ধ্বংস করতে রাষ্ট্রবিরোধী একটি চক্র তাদের নীলনকশা বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে।

তারই অংশ হিসেবে হয়রানিমূলক মামলার পাশাপাশি হত্যাচেষ্টা শুরু হয়েছে। সর্বশেষ দেশের শীর্ষ শিল্পোদ্যোক্তা পরিবার বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরকে একাধিকবার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

জানা গেছে, দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী গ্রুপ বসুন্ধরা দেশের অর্থনীতির বিকাশ এবং বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানে অসামান্য অবদান রাখছে। বসুন্ধরা গ্রুপ এক এক করে ৪০টির বেশি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেছে।

এসব শিল্পকারখানা ও প্রতিষ্ঠানে ৭০ হাজারের বেশি মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে।

এর কয়েক মাস আগে ঢাকার বোট ক্লাবের সাবেক সভাপতি ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদকে নানাভাবে হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে জেলে ঢোকানো হয়। পরে তিনি জামিন পেলেও নায়িকা পরীমণির দায়ের করা হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা থেকে এখনো অব্যাহতি পাননি। সে সময় নাসির ইউ মাহমুদকে সামাজিকভাবেও হেয় প্রতিপন্ন করা হয়।

এমনকি তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করা হয়। এর পেছনেও কোনো এক কুচক্রী মহল রয়েছে যাদের ক্ষমতার হাত অনেক লম্বা। রাষ্ট্রের সুযোগ-সুবিধার অপব্যবহার  করে এ চক্রটি পরিকল্পিতভাবে ব্যবসায়ীদের ফাঁদে ফেলে ফায়দা লোটার ধান্দা করছে বলে অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

ব্যবসায়ীদের নানাভাবে হয়রানি নতুন বিষয় নয়। স্বাধীনতার পর থেকে এমনকি ২০০৭ সালে ১/১১-এর সময়ও ব্যবসায়ীদের নানাভাবে হয়রানি করা হয়েছিল।

সে সময় তাদের কাছ থেকে জোরপূর্বক বিপুল পরিমাণ টাকাও আদায় করা হয়েছিল। অন্যায়ভাবে জেলে নেওয়া হয়েছিল স্বনামখ্যাত অনেক ব্যবসায়ীকে। ফলে সে সময় স্থবির হয়ে পড়ে ছিল দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও সামগ্রিক অর্থনীতি। তবে এখন তারা আর শুধু হয়রানিতেই থেমে নেই।

কুচক্রীরা সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে রাষ্ট্রেরই বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার আড়ালে ভাড়াটে খুনি নিয়োগ করে ব্যবসায়ীদের হত্যার পরিকল্পনা করে আসছে। এমন পরিস্থিতিতে দেশের শিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্য আবারও হুমকির সম্মুখীন বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। করোনা মহামারীর আঘাতে এমনিতেই সারা বিশ্বের অর্র্থনীতি বিপর্যস্ত। করোনা অচলাবস্থার পর বাংলাদেশের অর্থনীতি যখন ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে ঠিক সেই মুহূর্তে শুরু হয়েছে দেশবিরোধী কুচক্রী মহলের গভীর ষড়যন্ত্র। তারা ব্যবসায়ীদের হত্যার নীলনকশা এঁকেছে। যার মাধ্যমে মূলত দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিকেই বাধাগ্রস্ত করতে চায় এ কুচক্রী মহল।

কুচক্রীদের পরিকল্পনা ছিল গত শুক্রবার জুমার নামাজের সময় আনভীরকে গুলি করে হত্যার। ওই দিনই বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সাউতুল কোরআন মাদরাসা ও এতিমখানা থেকে সন্দেহভাজন হিসেবে সাইফুল ইসলাম সাদ (২৩) নামে চট্টগ্রামের পটিয়ার এক যুবককে আটক করে রাজধানীর ভাটারা থানা পুলিশ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাদ জানান, শুক্রবার (৫ নভেম্বর) পবিত্র জুমার নামাজ চলাকালে সায়েম সোবহান আনভীরকে গুলি করে হত্যার প্রস্তুতি ছিল তার। পটিয়ার সংসদ সদস্য হুইপ সামশুল হক চৌধুরী এবং তার ছেলে নাজমুল করিম ওরফে শারুন চৌধুরীর নির্দেশে হত্যার এ পরিকল্পনার কথা স্বীকার করেন তিনি। তার আগে দুধের মধ্যে বিষ মিশিয়ে এবং ছুরিকাঘাতে হত্যার ষড়যন্ত্র করে ব্যর্থ হয়েছে চক্রটি।

এ ঘটনার পর সারা দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। এমন ন্যক্কারজনক ঘটনায় শিল্পপতিরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। একের পর এক মামলার পর হত্যাচেষ্টার মতো ঘটনা রুখতে না পারলে দেশের অর্থনীতি আবার গভীরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বাধাগ্রস্ত হবে রপ্তানি ও শিল্পায়ন। ছন্দপতন ঘটবে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে। ব্যাহত হবে সরকারের প্রত্যাশিত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন।

কৃষির পর ব্যবসা-বাণিজ্যই দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি। অথচ ব্যবসায়ীদেরই নানাভাবে হয়রানি ও হত্যার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। আবার এ হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারীরা নির্বিঘ্নে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এমনকি রাষ্ট্রের নানা সুযোগ-সুবিধা নিয়ে তারা দেশের উন্নয়নে যাঁরা ভূমিকা রাখছেন তাঁদেরই নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। এতে শুধু ব্যবসায়ীদেরই ক্ষতি হচ্ছে না, বরং দেশ ও দেশের অর্থনীতি আজ হুমকির মুখে এসে দাঁড়িয়েছে। কেননা শীর্ষ ব্যবসায়ীরাই বেসরকারি খাতের অর্থনীতি সচল রেখেছেন।

এমনকি যে কোনো ধরনের মহামারী, খরা, বন্যা বা সংকট উত্তরণে সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চেষ্টা করে যাচ্ছে বেসরকারি খাতই। আবার এ বেসরকারি খাতেই সবচেয়ে বেশিসংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থান। পাশাপাশি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে বেসরকারি খাতের অবদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এভাবে ব্যবসায়ীদের খুনের পরিকল্পনা করা হলে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য, কর্মসংস্থান ও বিনিয়োগ চরমভাবে বাধাগ্রস্ত হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

উদ্যোক্তাদের জানমালের নিরাপত্তা দিতে হবে : আইবিএফবি সভাপতি হুমায়ুন রশীদ

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশের (আইবিএফবি) সভাপতি হুমায়ুন রশীদ এ প্রসঙ্গে বলেছেন, আমরা চাই ব্যবসায়ীরা যেন সুষ্ঠু পরিবেশে ব্যবসা করেন। তা হলেই দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট হতে পারে। নীতিগত সহায়তার মাধ্যমে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে এবং একই সঙ্গে রাষ্ট্রকে ব্যবসায়ী ও শিল্পোদ্যোক্তাদের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। বসুন্ধরা দেশে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। সুতরাং সরকারের কর্তব্য তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাতে তারা বর্তমান এবং ভবিষ্যতের বিনিয়োগে আতঙ্কিত না হন। যে কোনো বিনিয়োগকারীর কোনো সমস্যা হলে তা যথাযথভাবে খতিয়ে দেখা উচিত বলে জানান এই ব্যবসায়ী।

তিনি বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে হত্যার এ ধরনের জঘন্য প্রচেষ্টার নিন্দা জানান। তিনি বলেন, ১/১১-এর জরুরি সময়ে কোনো গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ছিল না, কিন্তু এখন আইনের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থা সে অনুযায়ী সঠিকভাবে কাজ করছে। তাই আমরা চাই প্রকৃত ঘটনায় অপরাধীর শাস্তি হোক।

এ কুচক্রী মহলকে আইনের আওতায় আনতে হবে : রিহ্যাব সহসভাপতি কামাল মাহমুদ

রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশনের (বিহ্যাব) প্রথম সহসভাপতি কামাল মাহমুদ এ প্রসঙ্গে বলেন, এ কুচক্রী মহল যে-ই হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। তাদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। এটা অত্যন্ত ন্যক্কারজনক, উদ্বেগজনক ঘটনা। বসুন্ধরা গ্রুপের মতো একটি শীর্ষ ব্যবসায়ী গ্রুপের এমডিকে হত্যার ষড়যন্ত্র করা মানেই দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করা। যাঁরা দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন, দেশের মানুষের কর্মসংস্থান করছেন, দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য টিকিয়ে রাখছেন তাঁদের হত্যার পরিকল্পনা করা খুবই দুঃসাহসিক কাজ।

এটা যারা করেছে তারা নিশ্চই কোনো না কোনো পক্ষের স্বার্থে ব্যবহৃত হচ্ছে। আর এর ফলে হুমকির মুখে পড়বে দেশের আর্থিক খাত। বসুন্ধরা গ্রুপের এমডিকে হত্যার ষড়যন্ত্রের ঘটনায় আমরা ব্যবসায়ী সমাজ বিস্মিত, ক্ষুব্ধ, উদ্বিগ্ন। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। প্রতিবাদ জানাই। একই সঙ্গে এর পেছনে যারা রয়েছে তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি।

স্বার্থান্বেষী মহল অর্থনীতি বাধাগ্রস্ত করতে চায় : বিএলডিএ মহাসচিব মোস্তফা কামাল মহীউদ্দিন

বাংলাদেশ ল্যান্ড ডেভেলপারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিএলডিএ) মহাসচিব মোস্তফা কামাল মহীউদ্দিন বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী মহল দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে চাইছে। দেশের বড় গ্রুপগুলো নিজেদের সবকিছু বিসর্জন দিয়ে চেষ্টা করছে কর্মসংস্থান সৃষ্টির।

কিন্তুক্রমেই তাদের মর্যাদা ও নিরাপত্তা কমে যাচ্ছে। সব পক্ষ ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণ করতে চায়। পদে পদে তাঁদের হয়রানির মুখে পড়তে হচ্ছে। সম্মান নিয়ে চলার জন্য সব জায়গায় আপস করে চলতে হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের মর্যাদা বিবেচনা না করে কখন কে কোন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে একটা মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে দেবে এ নিয়েই উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। সামাজিকভাবে হেয় করা, গ্রেফতার করা, জেলে দেওয়ার ঘটনা অহরহ হচ্ছে।

এই উদ্যোক্তা বলেন, দেশের প্রতি ভালোবাসা ও দায়ববদ্ধতা থেকে ব্যবসায়ীরা সব সময় দেশে বিনিয়োগ করতে চান। অনেক ব্যবসায়ী এমন অপমানের ভয়ে দেশ ছেড়ে যাচ্ছেন। দেশে বিনিয়োগও করছেন না, দেশে থাকতে চাচ্ছেন না। নিরাপত্তাহীন, সম্মানহীন ও মূল্যায়নহীন সমাজে বসবাস করতে চাইলেও মর্যাদা পাবেন না- এমন আশঙ্কা বিরাজ করছে। এ পরিস্থিতির যদি অবসান না হয় তাহলে আমাদের কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে। তিনি বলেন, বিদেশে ব্যবসায়ীদের সর্বোচ্চ মর্যাদা দেওয়া হয়, যেহেতু তারা বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেন। সামাজিকভাবে ব্যবসায়ীদের সম্মানিত করা হয়। কিন্তু দেশে বিশেষভাবে যারা অনুগ্রহপ্রাপ্ত তারা ছাড়া প্রকৃত ও সাধারণ ব্যবসায়ীদের অবদানের যথাযথ স্বীকৃতি নেই। বিএলডিএ মহাসচিব আরও বলেন, কেউ যদি আইন ভঙ্গ করে তার আইনের আওতায় বিচার হবে।

কিন্তু স্পষ্টত ষড়যন্ত্রমূলকভাবে কাউকে ফাঁসালে সেখানে কেন প্রটেকশন পাওয়া যাবে না? সমাজের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী যাঁরা সমাজে অবদান রেখে চলেছেন তাঁদের যদি হয়রানি করা হয় তাহলে অন্য ব্যবসায়ীরাও নেতিবাচক বার্তা পান। এ পরিস্থিতি যদি সরকারের সংশ্লিষ্ট ও সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে গভীরভাবে না দেখা হয় তাহলে দেশের কর্মসংস্থান, অর্থনৈতিক উন্নয়ন কোনো কিছুর পরিণতি শুভ হবে না।

 


আরও খবর
ফেরি চলাচল স্বাভাবিক

বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১




তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপিতে ভোটগ্রহণ চলছে

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ২৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তৃতীয় ধাপে ৯৮৬ ইউনিয়ন পরিষদ ও নয় পৌরসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে। রবিবার সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, একটানা চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।

৩৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) , বাকি ৯৫৩টিতে কাগজের ব্যালটে ভোটগ্রহণ চলছে।

এ ধাপে এক হাজার ইউনিয়ন পরিষদে ভোট হওয়ার কথা ছিল। একশজন চেয়ারম্যানসহ ৫৬৯ জন সাধারণ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পাওয়ায় সংশ্লিষ্ট পদগুলোয় ভোটের প্রয়োজন হচ্ছে না। এর মধ্যে চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার ১৪টিতে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত সদস্যরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা জয় পেয়েছেন।

ইসির তথ্য অনুযায়ী, তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫০ হাজার ১৪৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এর মধ্যে চেয়ারম্যান ৪ হাজার ৪০৯ জন, সংরক্ষিত সদস্য ১১ হাজার ১০৫ ও সাধারণ সদস্য ৩৪ হাজার ৬৩২ জন। এতে ভোটকেন্দ্র ১০ হাজার ১৫৯ ও ভোটকক্ষ ৬১ হাজার ৮৩০টি। ভোটার রয়েছেন ২ কোটি ১ লাখ ৪৯ হাজার ২৭৮ জন। এ ধাপে ভোটের আগেই জয় পেয়েছেন ৫৬৯ জন প্রার্থী। গত চার ধাপের মধ্যে এ ধাপেই সবচেয়ে বেশিসংখ্যক জনপ্রতিনিধি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেলেন। তাদের মধ্যে ১০০ জন চেয়ারম্যান রয়েছেন। এছাড়া সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৩২ এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৩৭ জন রয়েছেন।

ইসি সূত্রে জানা যায়, তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ উপলক্ষ্যে শনিবার পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও কোস্টগার্ড সদস্যরা মাঠে নেমেছেন। প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদের পুলিশের একটি মোবাইল ফোর্স ও প্রতি তিন ইউনিয়ন পরিষদের জন্য একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স রয়েছে।

সূত্র জানায়, তৃতীয় ধাপে ৬২ জেলার ১২২ উপজেলায় আজ ভোট হচ্ছে। ইতোমধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের চাহিদা অনুযায়ী ২১ জেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নির্ধারিত হারের অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে মুন্সীগঞ্জে ২৪ প্লাটুন, কক্সবাজারে ১২ প্লাটুন, চাঁদপুরে ১০ প্লাটুন অতিরিক্ত বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এরপরও অনেক জেলায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতার আশঙ্কা রয়েছে ভোটারদের মধ্যে।

তৃতীয় ধাপের ভোট সুষ্ঠু হবে-এমন প্রত্যাশা করলেও সহিংসতার আশঙ্কা উড়িয়ে দেননি নির্বাচন কমিশন সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন প্রত্যাশা করে ভোট ভালো হবে। এই মুহূর্তে কোনো আশঙ্কা নেই। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ডোর টু ডোর, বাড়ি-বাড়ি ও পাড়ায়-পাড়ায় প্রতিযোগিতা হয়। যে কোনো মুহূর্তে যে কোনো ঘটনা ঘটতে পারে। এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও জেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দেওয়া আছে। আশা করি গ্রহণযোগ্য ভোট হবে।


আরও খবর



খুব শিগগিরই সালমান টকিজ খুলতে চলেছি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এবার নিজেই সিনেমা হলের মালিক হতে যাচ্ছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান।নিজের নামের সঙ্গে মিলিয়ে সিনেমা হলটির নাম দিচ্ছেন সালমান টকিজ

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এমন খবরটি সালমান খানই জানিয়েছেন। তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, অনেক দিন ধরেই এটা নিয়ে পরিকল্পনা করছিলাম। যদি এই মহামারি করোনা পরিস্থিতি না থাকতো, তাহলে এতোদিনে আমার পরিকল্পনা বাস্তবে পরিণত হতো। তবে খুব শিগগিরই সালমান টকিজ খুলতে চলেছি।

করোনার আবহে সিনেমা হল বিমুখ দর্শক! জনপ্রিয়তা পেয়েছে ওটিটি প্ল্যাটফর্মগুলো। আর এমন পরিস্থিতিতে একরকম ঝুঁকি নিয়েই সিনেমা হলের মালিক হচ্ছেন ভাইজান

তবে এইসব সিনেমা হল মুম্বাইয়ের মতো উন্নত শহরে তৈরি হবে না। মফঃস্বল কিংবা বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলে যেখানের মানুষদের বহু দূরে শহরের সিনেমা হলে যাওয়াটা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য, সেরকম অঞ্চলে ও প্রধানত সেই ধরণের দর্শকদের জন্যই তৈরি হবে সালমান টকিজ।

চলতি বছরের ঈদে সালমান খানের রাধে: দ্য মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই সিনেমা হলের পাশাপাশি একই সঙ্গে মুক্তি পায় ওটিটি প্ল্যাটফর্মে। তবে হলে খুব একটা ব্যবসা করতে পারেনি সিনেমাটি।

সালমানের আসন্ন সিনেমা অন্তিম মুক্তি পেতে যাচ্ছে শিগগিরই। এতে শিখ পুলিশ অফিসারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি, যার নাম রাজবীর সিং। রাহুলিয়া নামে মাস্তানের ভূমিকায় রয়েছেন তার ভগ্নীপতি আয়ুষ শর্মা। ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া মারাঠি ক্রাইম ড্রামা মুলশি প্যাটার্ন-এর অনুপ্রেরণায় নির্মিত অন্তিম।  এটি শুধুমাত্র সিনেমা হলেই মুক্তি পাবে বলে জানা যায়।

 


আরও খবর
শাকিব খানের ব্যাংক হিসাব তলব

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




আজ আপনার জন্মদিন হলে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ আপনার জন্মদিন হলে পাশ্চাত্য জ্যোতিষে আপনি বৃশ্চিক রাশির জাতক/জাতিকা। আপনার জন্মসংখ্যা : ৩। আপনার ওপর প্রভাবকারী গ্রহ : মঙ্গল ও বৃহস্পতি। আপনার শুভ সংখ্যা : ৩ ও ৯। শুভ বার : মঙ্গল ও বৃহস্পতি। শুভ রত্ন : রক্তপ্রবাল ও পোখরাজ।

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

রাজনীতিবিদদের জন্য দিনটি শুভ। সাংগঠনিক কাজে সুফল পাবেন। ভবিষ্যতের জন্য কোনো পরিকল্পনা গ্রহণ করতে পারেন। আর্থিক দিক ভালো যাবে। বন্ধুদের কারো সহযোগিতা পেতে পারেন।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২০ মে)

পিতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। কোনো উচ্চাশা পূরণ হতে পারে। কর্ম পরিবেশ অনুকূল থাকবে। বেকারদের কারো কারো সহযোগিতা পেতে পারেন। বেকারদের কারো কারো চাকরি হতে পারে। পাবলিক ইমেজ বৃদ্ধি পাবে।

মিথুন (২১ মে-২০ জুন)

সামাজিক অগ্রগতি অব্যাহত থাকতে পারে। উচ্চ শিক্ষার্থীদের জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। পেশাগত দিক ভালো যাবে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিদেশযাত্রা হতে পারে। কাজকর্মে ভাগ্যের আনুকূল্য পেতে পারনে।

কর্কট (২১ জুন-২০ জুলাই)

অতীন্দ্রিয় শাস্ত্রাদির প্রতি আগ্রহবোধ করতে পারেন। বিমা কর্মীদের জন্য সমান অনুকূল থাকতে পারে। শারীরিক অসুস্থ তাকে অবহেলা করবেন না। সামাজিক সংকট এড়িয়ে চলুন। অন্যথায় বদনাম হতে পারে।

সিংহ (২১ জুলাই-২১ আগস্ট)

ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে। যৌথ ব্যবসায় নিজের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে পারবেন। নতুন বিনিয়োগ ফলপ্রসূ হতে পারে। কোনো ঘনিষ্ঠ বন্ধুর সহযোগিতা পেতে পারেন। রোমান্স ও বিনোদন শুভ।

কন্যা (২২ আগস্ট-২২ সেপ্টেম্বর)

ব্যক্তিগত দায় দায়িত্ব বৃদ্ধি পেতে পারে। কর্মস্থলে সহকর্মীদের সহযোগিতা পেতে পারেন। সীমালংঘন করা থেকে বিরত থাকুন। শত্রু সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। শরীর অসুস্থ বোধ করতে পারেন।

তুলা (২৩ সেপ্টেম্বর-২২ অক্টোবর)

বিদ্যার্থীদের জন্য দিনটি শুভ। পড়াশোনায় মন বসাতে পারবেন। কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারে। ধর্মীয় কাজে আনন্দ পাবেন। সন্তানের কোনো সাফল্য আনন্দদায়ক হতে পারে।

বৃশ্চিক (২৩ অক্টোবর-২১ নভেম্বর)

কোনো প্রত্যাশা পূরণ হতে পারে। মন ভালো থাকবে। বিলাস দ্রব্য কেনাকাটা হতে পারে। মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

ধনু (২২ নভেম্বর-২০ ডিসেম্বর)

ছোট ভাইবোনদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। কাজকর্মে উৎসাহ বোধ করতে পারেন। আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। ব্যক্তিগত কোনো যোগাযোগে সুফল পাবেন।

মকর (২১ ডিসেম্বর-১৯ জানুয়ারি)

অধীনদের কাজে লাগাতে পারবেন। মূল্যবোধ সমুন্নত থাকতে পারে। পড়াশোনা আনন্দ পাবেন। কোনো প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারবেন। আর্থিক দিক ভালো যাবে।

কুম্ভ (২০ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

আত্মপ্রতিষ্ঠা চেষ্টা জোরদার করুন। সেক্ষেত্রে সাফল্য পেতে পারেন। শরীর ভালো থাকবে। ভালো ব্যবহার দিয়ে কাজ আদায় করা সহজ হতে পারে। ব্যক্তিত্ব দিয়ে অন্যকে প্রভাবিত করতে পারবেন।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

আইনগত ঝামেলা এড়িয়ে চলুন। ব্যয় কমানোর চেষ্টা করুন। ভ্রমণের সুযোগ পেতে পারেন। কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজ শেষ করতে পারবেন। শারীরিক অসুস্থ তাকে অবহেলা করবেন না।

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর