আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

‘শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়’ পাচ্ছে শরীয়তপুরবাসী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শরীয়তপুরে "শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়" স্থাপন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সংক্রান্ত ফাইলে সই করেছেন।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনকে চিঠি দেওয়া হয়েছে এ বিষয়ে খড়সা আইন প্রণয়ন করার জন্য। দুপুরে পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম তার ভেরিফাইড ফেজবুক পেইজে এ বিষয়ে তথ্য দেওয়ার পর শরীয়তপুরের বিভিন্ন স্থানে মিষ্টি বিতরণ হয়েছে।

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, শরীয়তপুরে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নেই। জেলায় একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবী ছিল দীর্ঘদিনের। শরীয়তপুর ২ আসনের সাংসদ ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম গত বছর জাতীয় সংসদের অধিবেশনে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যাল স্থাপনের দাবী জানান।

শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য তিনি গত ১০ জুন শিক্ষা মন্ত্রী দীপু মনির কাছে একটি আধাসরকারি পত্র (ডিও লেটার) দেন। এর পরই শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের কার্যক্রম শুরু করেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে একটি সারসংক্ষেপ পাঠানো হলে ৬ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন।

মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনে চিঠি দিয়ে যুগোপযোগী খসড়া আইন প্রণয়নের অনুরোধ করে। ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয় শেখ হাসিন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সরকারি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উপসচিব মাহমুদুল আলম এ সংক্রান্ত চিঠিটিতে মঙ্গলবার সই করেন।

এ সকল বিষয় পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেন, আমাদের  দক্ষিণাঞ্চল কৃষি ও নদী প্রধান এলাকা। এ অঞ্চলের পিছিয়ে পরা মানুষকে আরো সমৃদ্ধ করতে, নতুন প্রজন্মের কাছে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করার চেষ্টা ছিল আমাদের। একটি উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করার প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিল। আমাদের সেই স্বপ্নকে ধারণ করে প্রধামন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় করার। আমরা তার কাছে কৃতজ্ঞ। প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদন দেয়ার পর ইতোমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় হতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।


আরও খবর



সড়কে ব্যর্থ হলে উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাবে : কাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১ | ২৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে কাজের মান ও গতি দুটোই ঠিক রাখতে হবে। এখানে শৃঙ্খলা আনা আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। এখন সংকট শৃঙ্খলা, পরিবহন ও সড়কের। এখানে ব্যর্থ হলে আমাদের উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাবে।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) তেজগাঁওয়ে সড়ক ভবনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের আলোচনায় মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে তিনি একথা বলেন।

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে ‌এবারের প্রতিপাদ্য গতিসীমা মেনে চলি, সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করি। সেতুমন্ত্রীর বক্তব্যের আগে হাইওয়ে পুলিশের আইজিপি মল্লিক ফখরুল ইসলাম গত ৯ মাসের জরিমানার পরিসংখ্যান তুলে ধরেন।

এ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, কতটাকা জরিমানা তুলেছেন, এটার হিসাব দিয়ে কোনো লাভ নেই। এটা কোনো বিষয় নয়। আমার কাছে বিষয় সড়ক নিরাপদ আছে-কী না। গাড়িগুলো নিয়ম অনুযায়ী চলছে কী না, গাড়ির ফিটনেস আছে কী না, চালকের গাড়ি চালানোর যোগ্যতা কী না, ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে কী না এগুলো আমার কাছে বিবেচনার বিষয়। আমি এটাই দেখবো। আমার কাছে বিষয় দুর্ঘটনা কমেছে কী না।

দুর্ঘটনা দুর্ভাবনার কারণ হয়ে আছে উল্লেখ করে কাদের বলেন, প্রতিদিনই দুর্ঘটনা ঘটছে। পাখির মতো মানুষ মরে, মাছির মতো মানুষ মরে। এ মর্মান্তিক দৃশ্যপট মানুষ হিসেবে সইতে পারি না। অনেক কষ্ট হয়। সুন্দর সুন্দর ব্যানার পোস্টার করলেই আমাদের দায়িত্ব শেষ হয় না। নিরাপদ সড়ক দিবস করতে হবে প্রতিদিন।

সড়কে মৃত্যু কষ্ট দেয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সবার দিন শুরু হয় একভাবে, আর আমার দিনটি শুরু হয় অন্যভাবে। কাগজের পাতায় অপ্রত্যাশিত মর্মান্তিক দুর্ঘটনা খবর পড়ে আমার দিন শুরু হয়। মন্ত্রী হলেও আমি তো মানুষ। আমারও কষ্ট হয়। আমিও দগ্ধ হই অদেখা দহনে। মনে হয় আমিও সেই অসহায় পরিবারের একজন। যে পরিবারের কয়েকজনও একসঙ্গে পথের বলি হয়। কখনও দুই পরিবহনের সংঘর্ষে। কখনও তিন চাকার গাড়ি ইজিবাইকে, নসিমন, করিমনে।

মন্ত্রী বলেন, অবকাঠামোগতভাবে পরিবর্তন দৃশ্যমান। আগামী বছর সড়কে বৈপ্লবিক পরিবর্তন পুরোপুরি দৃশ্যমান হবে। পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে, মেগা প্রকল্পগুলো আগামী বছর উদ্বোধন হবে। সেগুলো হলো- পদ্মা সেতু, এমআরটি লাইন ৬, মেট্রোরেল, বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ও চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু কর্ণফুলী টানেল। আগামীতে চট্টগ্রামের মিরসরাই থেকে আরেকটি মেরিনড্রাইভ উদ্বোধন করা হবে বলেও জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী ২৪ অক্টোবর পায়রা সেতুর উদ্বোধন হবে। আর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা ঢাকা-সিলেট ও সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তার মন্ত্রণালয়ে রাজনৈতিক তদবির বন্ধ করেছেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমার মন্ত্রণালয়ে রাজনৈতিক তদবির বন্ধ করে দিয়েছি। ইঞ্জিনিয়ার ট্রান্সফার, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটির (বিআরটিএ) অফিসার ট্রান্সফার এসব তদবির শুরুতে আমার জন্য ছিল চ্যালেঞ্জিং। কিন্তু আমি কঠোর হয়েছি, প্রধানমন্ত্রী আমাকে সাপোর্ট দিয়েছেন, সচিবরা আমার সঙ্গে ছিল, যে কারণে আমি এসব প্র্যাকটিস বন্ধ করতে পেরেছি। মন্ত্রীকে কিছু দিয়ে চিফ ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার একটা প্র্যাকটিস মন্ত্রণালয়ে আগে ছিল, কিন্তু আমি আসার পর তা বন্ধ করেছি। সেই প্র্যাকটিস এখন আর নেই। আমাকে টাকা দিয়ে যদি চিফ ইঞ্জিনিয়ার হতে হয় ওই টাকা সে উঠাবে যখন দায়িত্ব পাবে। এটাই তো স্বাভাবিক।

এ সময় উপস্থিত ইঞ্জিনিয়ারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অনেক ইঞ্জিনিয়ার ভালো কাজ করেন। কিন্তু কেউ কেউ যে কাজ করেন, এক পশলা বৃষ্টি হলেই সেই রাস্তা ভেসে যায়। এরকম রাস্তা করার কোনো দরকার নেই। কাজের মান ঠিক রাখুন। যারা ভালো কাজ করেন আমি তাদের প্রশংসা করবো।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের ইলিয়াস কাঞ্চন, সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুস সবুর, হাইওয়ে পুলিশের আইজিপি মল্লিক ফখরুল ইসলাম।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




এবার নজরদারিতে থাকবে পুরো দেশের আকাশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১ | ৪৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বসানো হচ্ছে সিএনএস-এটিএম সিস্টেমসহ অত্যাধুনিক রাডার।এতে নজরদারির আওতায় আসবে দেশের সমগ্র আকাশসীমা।ফলে দেশের আকাশ ব্যবহার করে আন্তর্জাতিক রুটে কোনো বিদেশি বিমান যাতায়াত করলেই ধরা পড়বে এবং তাদের থেকে ফ্লাইংওভার চার্জ আদায় করা যাবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই রাডার বসানোর জন্য বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) ও ফ্রান্সের রাডার প্রস্তুতকারী কোম্পানি থ্যালাস এলএএসর মধ্যে আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

বেবিচকের পক্ষে চুক্তি সই করেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান, আর থ্যালাসের পক্ষে সই করেন প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান মি. নিকোলাস।

স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যাঁ ম্যাঁরি উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিমান প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, নতুন এই অত্যাধুনিক রাডার স্থাপনের ফলে দেশের সমগ্র আকাশসীমা নজরদারির আওতায় আসবে। ফলে বাংলাদেশের আকাশ ব্যবহার করে আন্তর্জাতিক রুটে যাতায়াত করা সব বিদেশি উড়োজাহাজ শনাক্ত করা সম্ভব হবে এবং তাদের থেকে ফ্লাইংওভার চার্জ আদায় করা যাবে। 

নিউজ ট্যাগ: রাডার

আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪৯ লাখ ছাড়ালো

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত ২৪ ঘণ্টা তিন লাখ ৯৯ হাজার ২৫৭ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। মোট সুস্থ হলেন ২১ কোটি ৮০ লাখ ৭৬ হাজার ৮২৬ জন

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও সাত হাজার ৪২৩ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হলো ৪৯ লাখ চার হাজার ৬৫০ জনে। এছাড়া নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন চার লাখ ৪৭ হাজার ৬৩০ জন। এতে বিশ্বব্যাপী করোনা শনাক্ত ছাড়িয়েছে ২৪ কোটি আট লাখ ২৩ হাজার ৫৭৭ জনে।

অন্যদিকে, গত ২৪ ঘণ্টা তিন লাখ ৯৯ হাজার ২৫৭ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। মোট সুস্থ হলেন ২১ কোটি ৮০ লাখ ৭৬ হাজার ৮২৬ জন।

শনিবার (১৫ অক্টোবর) সকাল ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এসময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯২ হাজার ৯৬৬ জন। মারা গেছেন এক হাজার ৭০৫ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে চার কোটি ৫৭ লাখ ৩৮ হাজার ৫৮৫ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন সাত লাখ ৪৩ হাজার ৮৮০ জন মারা গেছেন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৪০ লাখ ৫২ হাজার ৬৮৭ জন। এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে চার লাখ ৫২ হাজার ৮৪৭ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৬৩ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। দেশটিতে করোনা শনাক্ত হয়েছে দুই কোটি ১৬ লাখ ২৭ হাজার ৪৭৬ জনের। এরমধ্যে ছয় লাখ দুই হাজার ৭২৭ জন মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ২৩৯ জন এবং মারা গেছেন ৫২৬ জন।

এ তালিকায় পরের স্থানগুলোতে রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, আর্জেন্টিনা ও স্পেন।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৯ নম্বরে। দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২৭ হাজার ৭৪৬ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৪ হাজার ৮৮১ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লাখ ২৬ হাজার ৮৯১ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। এরপর দ্রুত দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ে ভাইরাসটি। গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ ঘোষণা করে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



হিলি সীমান্তে দুই বাংলার মানুষের মিলনমেলা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | ৫৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কাঁটাতারের বেড়া ভুখণ্ডকে আলাদা করলেও একই ভাষাভাষি দুই বাংলার মানুষের আত্মিক বন্ধন আলাদা করতে পারেনি। শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে দিনাজপুরের হিলি ইমিগ্রশন চেকপোস্টের সীমান্তের শূন্যরেখায় বাংলাদেশ ও ভারতের মানুষের মিলনমেলা সেটাই বলেছে। নির্দিষ্ট দূরত্ব মেনে দুই বাংলার মানুষ একে-অপরের সঙ্গে মনের ভাব বিনিময় করেছেন।

শারদীয় দুর্গোৎসবের মহাঅষ্টমী থেকে শুরু করে শুক্রবার দশমী পর্যন্ত সকাল থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত শূন্যরেখার দুইপ্রান্তের মানুষ ভিড় করেন। শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে দুই দেশে অবস্থান করা স্বজনরা সাক্ষাৎ ও কুশল বিনিময় করেন।

দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাসে করে হিলি সীমান্তের জিরো পয়েন্টে আসেন পরিবার-পরিজন নিয়ে। অপরদিকে ভারতের অভ্যন্তরেও বিভিন্ন স্থান থেকে মানুষজন আসেন ভারতের জিরোপয়েন্ট এলাকায়।

সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া, বিজিবি ও বিএসএফের কঠোর মনোভাবের কারণে এপার থেকে ওপারে যেতে না পারলেও শূন্যরেখার দুই পাশে দাঁড়িয়ে ভারত ও বাংলাদেশের স্বজনরা একে অপরের সঙ্গে ভাব বিনিময়, ছবি তোলেন, সুঃখ-দুঃখ ভাগাভাগি করেন।

হিলি সীমান্তের জিরোপয়েন্টে আসা দিনাজপুর সদর উপজেলার সলিল বসাক জানান, পশ্চিমবঙ্গের গঙ্গারামপুর এলাকায় তার মামার বাড়ি। প্রতিবছর দুর্গাপূজায় হয় তারা ভারতে যান অথবা তার মামার বাড়ির লোকজন বাংলাদেশে আসেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জন্য গত বছর থেকে যাওয়া-আসা বন্ধ। তাই এবার দুর্গাপূজায় মোবাইলে যোগাযোগ করেই হিলি সীমান্তের জিরোপয়েন্টে এসেছেন একনজর মামার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে ও কুশল বিনিময় করতে। সীমান্তে আসা অনেকেই একই রকম কথা জানান।

হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের ওসি সেকেন্দার আলী বলেন, স্থলবন্দর ও ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে দুই দেশের মানুষ স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন নির্দিষ্ট দূরত্ব মেনেই। কিন্তু দুর্গাপূজা উপলক্ষে সীমান্তের দুই পাশে অনেকেই এসেছেন কুশল বিনিময় করতে।

কর্তব্যরত সীমান্তরক্ষী বাহিনীর আরেক সদস্য জানান, দূর থেকে হলেও আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে একটু দেখা করার জন্য লোকজন এসেছেন। তবে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে সে ব্যাপারে সতর্ক রয়েছেন তারা।


আরও খবর
মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১




সিরাজগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় মা-ছেলেসহ নিহত ৩

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ ও তাড়াশ উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় মা ছেলেসহ তিন জন নিহত হয়েছেন। রবিবার রাতে ঘটা ওই সব দুর্ঘটনায় অন্তত ১১ জন আহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন-সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার মাসমপুর মহল্লার নাসির উদ্দিনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৪৫) ও ছেলে নয়ন (২২)। নিহত অপর জনের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসাদ্দেক হোসেন জানান, বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম পাড় সংযোগ মহাসড়কের জেলার কামারখন্দ উপজেলার নলকা সেতু সন্নিকটে রবিবার রাত ৮টার দিকে ব্যাটারিচালিত একটি অটোভ্যান মহাসড়ক পার হওয়ার সময় দ্রুতগামী একটি ট্রাক অটোভ্যানটিকে চাপা দেয়। এতে অটোভ্যানে থাকা মা ও ছেলে নিহত ও মেয়ে ইসরাত জাহানসহ অটোভ্যান চালক গুরুতর আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি ও নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ওই হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এদিকে, হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আব্দুল্লাহেল বাকী জানান, রবিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার খালকুলা ৫নং ব্রিজের কাছে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী দেশ ট্রাভেলসের একটি বাসের সাথে একটি ট্রাক্টরের সংঘর্ষ হয়। এতে ট্রাক্টরে থাকা অজ্ঞাত এক ব্যক্তি নিহত হন। এ ঘটনায় বাসের অন্তত ৯ যাত্রী আহত হয়েছেন।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে রাখে এবং আহতদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

দুর্ঘটনার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানায় পৃথক মামলা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।


আরও খবর
মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ভাতার টাকা আত্মসাৎ

বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১