আজঃ সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১
শিরোনাম

সেরা করদাতা হলেন আইজিপি

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৫২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
২০২০-২০২১ কর বছরে কিশোরগঞ্জ জেলার দীর্ঘ সময় আয়কর প্রদানকারী শ্রেণিতে তাঁকে এ সম্মাননায় ভূষিত করা হয়। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এ সম্মাননা প্রদান করে

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ সেরা করদাতা নির্বাচিত হয়েছেন। পুলিশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০২০-২০২১ কর বছরে কিশোরগঞ্জ জেলার দীর্ঘ সময় আয়কর প্রদানকারী শ্রেণিতে তাঁকে এ সম্মাননায় ভূষিত করা হয়। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এ সম্মাননা প্রদান করে।

আইজিপি কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থাকাকালে অর্থাৎ চাকরি জীবনের শুরুতেই সরকারকে কর প্রদান শুরু করেন। তিনি বিভিন্ন কর্মস্থলে চাকরি করলেও ময়মনসিংহ কর অঞ্চলের করদাতা হিসেবে দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে কিশোরগঞ্জ জেলায় কর প্রদান করে আসছেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এবং কর অঞ্চল ময়মনসিংহের সার্বিক মূল্যায়নের ভিত্তিতে ড. বেনজীর আহমেদকে দীর্ঘমেয়াদী সেরা করদাতা হিসেবে পুরস্কার প্রদান করে। পুরস্কারের মধ্যে রয়েছে ক্রেস্ট, কর কার্ড ও অন্যান্য সামগ্রী।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের উদ্যোগে ময়মনসিংহ কর অঞ্চলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে আজ বুধবার এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। আইজিপি সরকারি সফরে দেশের বাইরে অবস্থান করায় তাঁর পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ।


আরও খবর
আগামীকাল জাতীয় আয়কর দিবস

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ শুক্রবার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বছরের শেষ চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে আগামীকাল ১৯ নভেম্বর শুক্রবার। এই গ্রহণেরও একাধিক গুরুত্ব রয়েছে। শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ এটি। তবে এটা পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ নয়। আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। এই চন্দ্রগ্রহণের ১৫ দিন পর ৪ ডিসেম্বর সূর্যগ্রহণ। জ্যোতির্বিদরা জানিয়েছেন, ১৯ নভেম্বর শুক্রবার সকাল ১১টা বেজে ৩৪ মিনিট থেকে শুরু হবে এই চন্দ্রগ্রহণ । শেষ হবে বিকেল ৫টা বেজে ৩৩ মিনিটে।

উত্তর-পূর্ব ভারত থেকে দেখা যাবে এই চন্দ্রগ্রহণ। ভারতে মূলত অরুণাচল প্রদেশ ও আসাম থেকে দেখা যাবে গ্রহণ। ভারতের পাশাপাশি এই চন্দ্রগ্রহণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, উত্তর ইউরোপ, পূর্ব এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল থেকেও দেখা যাবে। বাংলাদেশে এই গ্রহণ দেখার সম্ভাবনা নেই।

চন্দ্রগ্রহণ কখন হয়? বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা অনুযায়ী, পূর্ণিমার দিনে সূর্য ও চাঁদের মাঝে যখন পৃথিবী চলে আসে, সূর্য-পৃথিবী-চাঁদ যখন এক সরলরেখায় হয়ে যায়, তখনই চন্দ্রগ্রহণ হয়। এক্ষেত্রে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ হয়।

অন্যদিকে পৃথিবী যখন ঘুরতে ঘুরতে সূর্য ও চাঁদের মাঝখানে চলে এলেও পুরোপুরি এক সরলরেখায় থাকে না, তখন হয় আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। এক্ষেত্রে পুরো চাঁদটা নয়, চাঁদের একটা অংশ পৃথিবীর ছায়ায় ঢাকা পড়ে যায়।

৬৪৮ বছর পর দেখা যাবে এই ধরনের চন্দ্রগ্রহণ

জানা গিয়েছে, শেষবার ১৪৪০ সালে এই ধরনের চন্দ্রগ্রহণ দেখা গিয়েছে। ফের দেখা যাবে ২০২১-এর ১৯ নভেম্বর। এরপর ৬৪৮ বছর পর দেখা যাবে এই ধরনের চন্দ্রগ্রহণ। সালটা হবে ২৬৬৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি।


আরও খবর



৮ দফা দাবি দিয়ে সড়ক ছাড়ল শিক্ষার্থীর

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | ৩০০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হাফ ভাড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে ঠিকানা পরিবহনের একটি বাসে ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি দিয়েছে চালকের সহকারী। এই হুমকির প্রতিবাদে বকশীবাজারে সড়ক অবরোধ করে বদরুন্নেসা কলেজের শিক্ষার্থীরা। ঘণ্টা দুই অবস্থানের পর ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে সড়ক ছেড়ে দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। এসময়ের মধ্যে বাসের সহকারীকে আইনের আওতায় আনাসহ ৮ দফা দাবি ঘোষণা করেছেন তাঁরা।

শিক্ষার্থীদের উত্থাপিত দাবিগুলো-

শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া নিশ্চিত করা, ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে হয়রানিমূলক আচরণ না করা, শিক্ষার্থীদের বাস থেকে নামানোর সময়ে বাস থামাতে হবে, শিক্ষার্থীদের বাসে উঠতে দেওয়া, বাসে নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, ধর্ষণের হুমকি প্রদানকারীকে আইনের আওতায় আনা, রায়েরবাগ, শনিআখড়া, কাজলা, সাইনবোর্ড এলাকায় সব ধরনের বাস থামাতে হবে এবং শিক্ষার্থীদের উঠতে বাধা দেওয়া যাবে না।

দাবি আদায় না হলে আগামীকাল আবারও রাস্তায় নামার ঘোষণা দিয়ে আজকের বিক্ষোভ শেষ করেন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে, আজ রোববার সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর বকশীবাজার মোড়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন বদরুন্নেসা কলেজের কয়েকশ শিক্ষার্থী।

হুমকির শিকার ওই ছাত্রী জানান, রাজধানীর শনিরআখড়া থেকে কলেজে আসার জন্য ঠিকানা পরিবহনের বাসে উঠেন তিনি। শনিরাখড়া থেকে কলেজের ভাড়া ১০ টাকা। কিন্তু ওই ছাত্রীর কাছ থেকে ১৫ টাকা ভাড়া রাখা হলে তিনি নিজেকে স্টুডেন্ট বলে ১০ টাকা ফেরত চাইলে চালকের সহকারী তাঁর সঙ্গে খারাপ ভাষায় কথা বলেন। পরে কলেজের সামনে বাস থেকে নেমে যাওয়ার সময়ে তাঁকে ৫ টাকা দিয়ে ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতনের হুমকি দেন।

ওই ছাত্রী আরো বলেন, বাসটি চলন্ত অবস্থায় থাকায় বাসটির নম্বর মনে রাখতে পারিনি। তাঁদের এই ভোগান্তি প্রতিদিনের জানিয়ে বলেন, বাসগুলো তাঁদের তুলতেও চায় না।


আরও খবর
মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৬

সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১




সংসদে করোনা টিকা কেনার হিসাব প্রকাশ সমীচীন নয়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে করোনার টিকা কেনার খরচ প্রকাশ করা হলেও জাতীয় সংসদে এ খাতে ব্যয়ের হিসাব প্রকাশ করতে চাননি স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেছেন, নন-ক্লোজার এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে ভ্যাকসিন কেনার কারণে সংসদে অর্থ খরচের হিসাব প্রকাশ করা সমীচীন হবে না। সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে সততা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে টিকা কেনা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তরে জামালপুর-১ আসনে সরকারি দলের সাংসদ আবুল কালাম আজাদের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ দাবি করেন। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে প্রশ্নটি উত্থাপিত হয়।

আবুল কালাম আজাদ তাঁর প্রশ্নে কতসংখ্যক টিকা সংগ্রহ করা হয়েছে, সেটার পাশাপাশি এর জন্য কত টাকা খরচ হয়েছে তা জানতে চান।

জবাবে মন্ত্রী জানান, ২১ কোটি ১৭ লাখ ৩০ হাজার ডোজ টিকা কেনা হয়েছে। এর মধ্যে চীন থেকে নেওয়া হয়েছে ৭ কোটি ৭০ লাখ ডোজ সিনোফার্মা, ৭ কোটি ৫১ লাখ ডোজ সিনোভ্যাক, ভারত থেকে ৩ কোটি কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সের আওতায় এসেছে ২ কোটি ৯৭ লাখ ২০ হাজার সিনোফার্মা।

মন্ত্রী বলেন, চীন, ভারত ও কোভ্যাক্স থেকে সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে সততা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে ভ্যাকসিন কেনা হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, সিসিজিপি ও প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন সাপেক্ষে টিকা কেনা হয়েছে। নন-ক্লোজার এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে ভ্যাকসিন কেনার কারণে সংসদে অর্থ খরচের হিসাব প্রকাশ করা সমীচীন হবে না।

এর আগে গত ৯ জুলাই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে করোনা চিকিৎসার ব্যয় জানানো হয়। ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়, ১ কোটি ১ লাখ ৫০ হাজার ডোজ টিকা কেনা হয়েছে (ওই সময় পর্যন্ত)। প্রতি ডোজ ৩ হাজার টাকা হিসাবে এতে মোট ৩ হাজার ৪৫ কোটি টাকা খরচ হয়েছে।



আরও খবর



সিএনজি চালিত গাড়িতে ভাড়া বাড়বে না

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ নভেম্বর ২০২১ | ৭৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে বাসের ভাড়া বাড়ানো হলেও সিএনজিচালিত গাড়ির ভাড়া বাড়বে না। বিষয়টি জানিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার।

রোববার রাজধানীর বনানীতে বিআরটিএ কার্যালয়ে গণপরিবহনে ভাড়া পুনর্নির্ধারণে পরিবহন মালিক সমিতির নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পর এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।

নুর মোহাম্মদ মজুমদার জানান, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে পরিবহন মালিকদের দাবির মুখে বাসের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। তবে যেসব গাড়ি সিএনজিতে চলে সেসবের ভাড়া বাড়বে না।

এদিকে ডিজেলের দাম বাড়ার প্রতিবাদে ডাকা ধর্মঘটের মুখে সরকার বাস ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আগামীকাল (সোমবার) থেকে বাস ভাড়া বেশি দিতে হবে। দূরপাল্লার বাস ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকা ৪২ পয়সার পরিবর্তে এখন ১ টাকা ৮০ পয়সা বাড়ানো হয়েছে। আর মহানগরে ১ টাকা ৭০ পয়সার পরিবর্তে এখন ২ টাকা ১৫ পয়সা বেশি ভাড়া দিতে হবে।

বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদারের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন- বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহসাধারণ সম্পাদক রাকেশ ঘোষ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনসহ সরকারি-বেসরকারি সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

সর্বশেষ ২০১৫ সালে নগর পরিবহণে বাসের ভাড়া প্রতি কিলেমিটারে ১ টাকা ৭০ পয়সা এবং মিনিবাসের জন্য ১ টাকা ৬০ পয়সা নির্ধারণ করে দেয় সরকার। আর ২০১৬ সালে দূরপাল্লায় ডিজেলচালিত বাস ও মিনিবাসের ভাড়া নির্ধারণ করা হয় ১ টাকা ৪২ পয়সা।

গত ৩ নভেম্বর ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ১৫ টাকা বাড়িয়ে ৬৫ থেকে ৮০ টাকা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। ওইদিন রাত ১২টা থেকেই কার্যকরের নির্দেশনা দেওয়া হয় প্রজ্ঞাপনে। পরদিন থেকেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন দেশের মানুষ। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ থেকে শুরু করে শিক্ষার্থী, রাজনৈতিক দলসহ সামাজিক সংগঠনগুলোও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখাতে শুরু করেছে।

ডিজেলের দাম বৃদ্ধি প্রতিবাদে শুক্রবার (৫ নভেম্বর) সকাল থেকে সারা দেশে ধর্মঘট শুরু পরিবহণ মালিক-শ্রমিকরা। এই পরিবহণ ধর্মঘটে সারা দেশ অচল হয়ে পড়েছে। তিন দিন ধরে পরিবহণে ধর্মঘটে জিম্মি রয়েছেন সাধারণ মানুষ। শিকার হচ্ছেন সীমাহীন দুর্ভোগের।

তিন দিন পরে সরকারের সঙ্গে আজ (রোববার) বৈঠকে এ বিষয়ে সমাধান এলো। পরিবহণ মালিক সমিতি ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন।

নিউজ ট্যাগ: বিআরটিএ সিএনজি

আরও খবর



ভেবে হতাশ হচ্ছি মালালা পাকিস্তানিকে বিয়ে করেছেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | ৬৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাইয়ের এক পাকিস্তানি নাগরিককে বিয়ে করা তিনি কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারছেন না! টুইট করে সেই হতাশা প্রকাশও করে ফেললেন তসলিমা নাসরিন। ৯ নভেম্বর ব্রিটেনের বার্মিংহামে ঘরোয়া অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের উদ্যোগপতি অসর মালিকের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন মালালা। সেই খবরটি তিনি নিজেই নেটমাধ্যমে জানান।

মালালার বিয়ের খবরে যখন সকলে উচ্ছ্বসিত, তার ঠিক বিপরীত মেরুতে হাঁটতে দেখা গেল তসলিমাকে। জানালেন, মালালার বিয়েতে মোটেই তিনি খুশি হননি। বরং মর্মাহতই হয়েছেন। কেন?

মামালা কাকে বিয়ে করলেন? এক জন পাকিস্তানিকে। এখানেই আপত্তি লেখিকার। টুইটে তিনি লেখেন, এটা জেনে খুবই হতাশ হচ্ছি যে, মালালা এক জন পাকিস্তানিকে বিয়ে করেছেন। ওঁর বয়স মাত্র ২৪। মালালা অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছেন। আশা করেছিলাম এক জন সুদর্শন এবং প্রগতিশীল ইংরেজের প্রেমে পড়বেন তিনি। ৩০ বছরের আগে বিয়ের কথা ভাববেন না।

১৯৯৭ সালের ১২ জুলাই উত্তর-পশ্চিম পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের সোয়াট জেলায় এক সুন্নি মুসলিম পরিবারে জন্ম মালালার। ২০১২ সালে স্কুলে যাওয়ার পথে জঙ্গি হামলার শিকার হন তিনি। পরে ওই হামলার দায় স্বীকার করে তেহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তান। হাজারো বাধা ও প্রতিকূলতার মধ্যেও নারীশিক্ষা বিস্তারে তাঁর সক্রিয় ভূমিকার জন্য ২০১৪ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কার পান মালালা। হামলার পর তাঁকে চিকিৎসার জন্য ইংল্যান্ডে নিয়ে আসা হয়। তখন থেকেই পাকাপাকি ভাবেই ইংল্যান্ডের বাসিন্দা মালালা। এবং সেখান থেকেই নারীশিক্ষা বিস্তারের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

পাকিস্তানের সুদূর পাখতুনখোয়ার রক্ষণশীল সমাজ থেকে উঠে আসা মেয়েটি ভাগ্যচক্রে ইংল্যান্ডের মতো প্রগতিশীল সমাজে গিয়ে পড়েছিলেন। সেই মেয়ে সেই প্রগতিশীল সমাজের কাউকে নিজের জীবনসঙ্গী না বানিয়ে পাকিস্তানিকেই বিয়ে করলেন এটা মানতে পারছেন না তসলিমা। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, যারা ওঁকে হত্যার চেষ্টা করছিল, তারা কারা ছিল? পাকিস্তানি। কেন নিজের দেশ ছাড়তে হল? সেই পাকিস্তানের জন্যই। কিন্তু যারা তাঁকে আশ্রয় দিয়েছেন, ওঁর চিকিৎসা করেছেন, জীবন বাঁচিয়েছেন, তাঁরা তো সাদা চামড়ার মানুষ। যাঁর সঙ্গে উনি বই লিখেছেন, যাঁরা ওঁকে তহবিল সংগ্রহে সাহায্য করেছেন, নোবেল দিয়েছেন, তাঁরাও তো সেই একই শ্রেণির মানুষ। কিন্তু এর পরেও মালালা বিয়ে করলেন কাকে? সেই পাকিস্তানিকেই! বিষয়টি সত্যিই হতাশাজনক, বলেছেন তসলিমা।

তবে মালালার বিয়ে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় কটাক্ষের শিকার হয়েছেন বাংলাদেশের লেখিকা। বলা হয়েছে, মালালা কাকে নিজের জীবনসঙ্গী বাছবেন, তা ঠিক করার উনি কে? তসলিমার ওই টুইটকে অত্যন্ত নীচ বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে বলা হয়েছে, সব পাকিস্তানি তো এক নয়!

 


আরও খবর