আজঃ শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

টিকা নিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী, ভাইরাল ভিডিওটি ভুয়া

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ মার্চ ২০২১ | ২২২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক


গত ১৭ ফেব্রুয়ারি সচিবালয় ক্লিনিকে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। মন্ত্রীর ভ্যাকসিন নেয়ার ভিডিওটি গণমাধ্যমের কাছে সংরক্ষিত আছে। যদিও তার টিকা নেয়ার বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভুয়া ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যা নিয়ে অনলাইনে-অফলাইনে চলছে সমালোচনার ঝড়।

জানা গেছে, ১৭ ফেব্রুয়ারি সাড়ে সকাল ১০টায় ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী। ওই সময় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সচিব, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীরা জানান, প্রথমে মন্ত্রী ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন, সে সময় ছবি ও ভিডিও সংগ্রহ করেন সাংবাদিকরা। পরে একজন গণমাধ্যমকর্মী ফুটেজ পাননি উল্লেখ করে মন্ত্রীর কাছে পুনরায় ভিডিও নেয়ার জন্য আরেকবার ভ্যাকসিন দেয়ার চিত্র ধারণের সুযোগ চেয়ে অনুরোধ করেন। এসময় মন্ত্রী পুনরায় সাংবাদিকের সুবিধার্থে বসে ভ্যাকসিন নেয়ার ফুটেজ নিতে সহায়তা করেন।

সেসময় টিকা নেয়ার পর অনুভূতি জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, খুবই স্বাভাবিক, মনেই হয়নি যে টিকা নিলাম। বুঝতেই পারিনি কখন টিকা পুশ করেছে। কোনো রকম খারাপ কিছু মনে হওয়া বা ব্যথা পাওয়া এমন কিছুই নয়। অত্যন্ত সুন্দরভাবে টিকা দিয়েছে। আমার ভ্যাকসিন নেয়ার তারিখ আগে ছিল, জ্বরের কারণে আমি প্রথমদিন টিকা নিতে পারিনি। পরে আবার রেজিস্ট্রেশন ট্রান্সফার করে আজ টিকা নিয়ে নিলাম।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্ত্রী ভ্যাকসিন নিচ্ছেন না- এমন একটি ভুয়া ভিডিও আজ শনিবার ভাইরাল হয়েছে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি নিয়ে জানতে চাইলে আ ক ম মোজাম্মেল হক গণমাধ্যমকে বলেন, ১৭ তারিখে (১৭ ফেব্রুয়ারি) আমি ভ্যাকসিন নিয়েছি। ভ্যাকসিন নেওয়ার পর সচিবের সঙ্গে আমরা যখন বাইরের দিকে যাচ্ছি, ওই সময় একটি চ্যানেলের সাংবাদিক এসে বলেন, তারা ফুটেজ পাননি। ওই সাংবাদিক অনুরোধ করেন, আমি যেন আবার একটু ভ্যাকসিন নেওয়ার ডেমো করি। মূলত তার অনুরোধেই আবার একটু ভ্যাকসিন নেওয়ার ডেমো করতে হয়েছে।

আ ক ম মোজাম্মেল হক আরও বলেন, আমার ভ্যাকসিন নেওয়ার ফুটেজ বিটিভির কাছে রয়েছে। কেউ যদি চ্যালেঞ্জ করতে চায় যে আমি ভ্যাকসিন নিইনি, আমি ওই ফুটেজ দেখাতে পারব।

এর আগে, গত ১৭ ফেব্রুয়ারি সংসদ সচিবালয় ক্লিনিকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও সচিব তপন কান্তি ঘোষ ভ্যাকসিন নিয়েছেন বলে জানিয়েছিল মন্ত্রণালয়। সব গণমাধ্যমেই সে খবর প্রকাশ পেয়েছিল।

তবে শনিবার ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ ও স্বাস্থ্য সচিব মো. আব্দুল মান্নানের সঙ্গে সংসদ সচিবালয় ক্লিনিকের কোভিড ভ্যাকসিন প্রয়োগ কেন্দ্রের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন আ ক ম মোজাম্মেল হক। কিছুক্ষণ পর তারা একটি রুমে প্রবেশ করেন। এসময় মন্ত্রী চেয়ারে বসলে একজন নার্স একটি সিরিঞ্জ নিয়ে তার বাম হাতে ভ্যাকসিন প্রয়োগের অভিনয় করেন। এসময় হাসিমুখে চেয়ারে বসেছিলেন মন্ত্রী। পরে বের হয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গ কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলছেন, এই অভিনয়টুকু করলেও এর আগেই ভ্যাকসিন নিয়েছেন তিনি। গণমাধ্যমের অনুরোধ ফেলতে না পেরেই তিনি এই অভিনয় করেছেন।

যোগাযোগ করলে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষও জানান, মন্ত্রী ভ্যাকসিন নিয়েছেন। তিনি বলেন, সেদিন আমরা দুজনেই ভ্যাকসিন নিয়েছি। মন্ত্রী আমার আগেই ভ্যাকসিন নিয়েছেন। উনি নেওয়ার পর আমি নিয়েছি।


আরও খবর
পরনে কেবল শাড়ি, মেহেদি দিয়েই ব্লাউজ!

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




মির্জা ফখরুলের পরিবারের সবাই করোনায় আক্রান্ত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা আক্রান্ত বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শারীরিকভাবে ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন দলের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় মহাসচিবের উত্তরার বাসায় গিয়ে তার শারীরিক খোঁজ-খবর নেওয়ার পর এ কথা জানান তিনি। এ সময় ডা. রফিকের সঙ্গে ছিলেন ডা. জাহিদুল কবির, ডা. তৌহিদুর রহমান আউয়াল, ডা. সাইফুল আলম বাদশা, ডা. সাখাওয়াত রাজিব, মেডিকেল শিক্ষার্থী মুনতাসীর হাসান।

ডা. রফিক জানান, মহাসচিব ও তার স্ত্রী রাহাত আরা বেগম ছাড়াও বাসায় অবস্থানরত কন্যা, ছোট ভাই, ভাবিসহ বাসার সবাই করোনা আক্রান্ত। এ অবস্থায় মির্জা ফখরুল দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

ডা. রফিক জানান, মহাসচিব মানসিকভাবে বেশ শক্ত আছেন। তিনি আক্রান্ত হলেও মহাসচিব দলের সিনিয়র নেতাদেরও খোঁজ খবর নেন।

তিনি আরও জানান, আক্রান্ত সবাই বাসায় থেকেই নিয়মিত চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। মহাসচিবের করোনা আক্রান্ত হওয়ার দ্বিতীয় সপ্তাহে চলছে। এই সময়টা আমরা ঝুঁকিপূর্ণ সময় বলে থাকি। তবে, এখন পর্যন্ত মহাসচিবের অক্সিজেন স্যাচুরেশনসহ সব কিছু ঠিক আছে। তার হালকা খুশখুশে কাশি আছে। অন্যদেরও তেমন কোনো জটিলতা নেই। আগামী বুধবার ফখরুল আবারো করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা হবে বলে জানান ডা. রফিক।

চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান জানান, করোনা আক্রান্ত মহাসচিবের নিয়মিত খোঁজ নিচ্ছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানসহ দলের সিনিয়র নেতারা। বৃহস্পতিবার মির্জা ফখরুলের শারীরিক সুস্থতা কামনা করে দলের পক্ষ থেকে দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়। কাল শনিবার কেরানীগঞ্জ দক্ষিণ বিএনপিও মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে।

নিউজ ট্যাগ: মির্জা ফখরুল

আরও খবর



খুন করে আত্মগোপনে তাবলিগের চিল্লায়

প্রকাশিত:বুধবার ২২ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কিশোরগঞ্জের চাঞ্চল্যকর ব্যবসায়ী হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে লক্ষ্মীপুরের একটি মসজিদে তাবলিগের চিল্লারত অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। হাতুড়ির আঘাতে ওই ব্যবসায়ীকে হত্যার পর তাবলিগ জামাতের চিল্লায় যোগ দিয়ে গা ঢাকা দিতে চেয়েছিলেন জাকির হোসেন।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গত পাঁচ বছর ধরে নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার একটি গ্রামের মসজিদে মুয়াজ্জিন হিসেবে কাজ করে আসছেন জাকির।

গত ৩ অক্টোবর কিশোরগঞ্জের কাটবাড়িয়া ডাউকিয়া মসজিদের পাশে নরসিংদীর গরু ব্যবসায়ী রমিজ উদ্দিন (৬৫) খুন হওয়ার পর জাকির লাপাত্ত হয়ে গিয়েছিলেন।

র‌্যাব জানায়, গত ৩ অক্টোবর সকালে কিশোরগঞ্জ মডেল থানাধীন কাটবাড়িয়া ডাউকিয়া মসজিদের দক্ষিণ পাশে অচেতন অবস্থায় গুরুতর জখম অজ্ঞাত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এসময় নিহতের পাঞ্জাবির পকেটে থাকা কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে পুলিশ তার নাম জানতে পারে।

ঘটনার পর নিহতের ছেলে বাদী হয়ে কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। ক্লুলেস এ হত্যার ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযুক্তদের গ্রেফতারে তৎপরতা শুরু করে। পরে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১৪ এর একটি দল হত্যার ঘটনায় অভিযুক্তকে শনাক্ত করে। গতকাল রাতে তাকে একটি মসজিদে চিল্লারত অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার মঈন বলেন, রমিজ উদ্দিন ছিলেন একজন বিত্তশালী উঠতি ব্যবসায়ী। মূলত তার টাকা আত্মসাৎ করতেই এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়।

ব্যবসায়ী রমিজকে হত্যার পর তার কাছে থাকা ছয় লাখ টাকা হাতিয়ে নেন জাকির। এরপর বিভিন্ন জায়গায় তিনি আত্মগোপন করেন। হাতিয়ে নেওয়া টাকার মধ্যে এক লাখ টাকা তিনি (রমিজ) বিভিন্ন জায়গায় খরচ করেন।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১৪ এর অভিযানে গতকাল রাতে লক্ষ্মীপুর জেলার একটি মসজিদে চিল্লারত অবস্থায় নৃশংস হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। ।


আরও খবর



ঘরে ঢুকে পড়লো ট্রাক, ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জামালপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সারবোঝাই ট্রাক রাস্তার পাশের এক বসতবাড়িতে ঢুকে উল্টে যাওয়ায় ঘুমন্ত অবস্থায় স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) ভোরে জামালপুর দেওয়ানগঞ্জের ডাংধরা ইউনিয়নের গারোহাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সানন্দবাড়ী থানা ইনচার্জ যোহায়ের হোসেন খান বিষয়টি জানিয়েছেন। নিহতরা হলেন ওই এলাকার মৃত আমজাদ হোসেনের ছেলে কৃষক জয়নাল (৪৩) ও তার স্ত্রী হাসিনা বেগম (৩৯)।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে থানা ইনচার্জ জানান, জয়নাল কৃষি কাজ করে ঘরে তার স্ত্রীকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। রৌমারী রাস্তার পাশেই তার ঘর। শেষ রাতের দিকে একটি সারবোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে জয়নালের ঘরে উল্টে যায়। এসময় ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় জয়নাল ও তার স্ত্রী ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন। পাশের খাটে ঘুমন্ত অবস্থায় তাদের দুই সন্তান থাকলেও তারা বেঁচে যায়। টিনের দেওয়ালে ধাক্কা এবং ট্রাক পড়ে যাওয়ার শব্দে আশেপাশের লোকজন জড়ো হলে ট্রাক ড্রাইভার পালিয়ে যায়।

যোহায়ের হোসেন খান আরও  জানান, আনুমানিক শেষ রাত ৩টার দিকে ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঘরে ধাক্কা দেয় এবং সঙ্গে সঙ্গে ট্রাকটি উল্টে যায়। এবিষয়ে একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি জানান।


আরও খবর



অং সান সু চির ৪ বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির আরও চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত।

অবৈধ ওয়াকিটকি রাখাসহ আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগে সোমবার (১০ জানুয়ারি) জান্তাশাসিত দেশটির একটি আদালত এই রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ৬ ডিসেম্বর গণঅসন্তোষে উসকানি ও করোনার আইন ভাঙার দায়ে প্রাকৃতিক দুর্যোগ আইনে সু চিকে ৪ বছরের কারাদণ্ড দেয় দেশটির জান্তা সরকার নিয়ন্ত্রণাধীন আদালত।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক বাহিনী যখন অভ্যুত্থান ঘটিয়ে তার বাড়িতে তল্লাশি চালায় তখন অবৈধ ওয়াকি-টকি পাওয়ার অভিযোগ ওঠে। তবে যারা সু চির বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে তারা কোনো ওয়ারেন্ট ছাড়াই প্রবেশ করে বলে জানা যায়।

এ ছাড়াও সু চির বিরুদ্ধে আরও কয়েকটি বিচারকাজ চলমান। এর মধ্যে সরকারি গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ গুরুতর। সূত্র: রয়টার্স, আলজাজিরা


আরও খবর
লাইবেরিয়ায় পদদলিত হয়ে ২৯ জনের মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22




অভিনয়ে ফিরতে চান নায়িকা সুমনা জনা

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সুমনা জনা। বর্তমান সময়ের অনেকেরই এই নাম জানার কথা নয়। তবে ২০০২ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত যাঁরা ঢাকাই সিনেমা দেখেছেন, তাঁরা জানেন, এক সময়ের ব্যস্ত নায়িকা তিনি। কতটা ব্যস্ত? ২০০৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হওয়ার সময় এই নায়িকার হাতে ছিল ১৩ সিনেমা। সেই থেকে আমেরিকায় স্বামী-সন্তান নিয়ে বসবাস করছেন। দীর্ঘদিন পর বিএফডিসিতে দেখা মিলেছে এই নায়িকার।

এক আলাপচারিতায় সুমনা জনা জানিয়েছেন, ১৭ ফেব্রুয়ারি আবার দেশ আসছেন তিনি। এর পর আসবেন জুলাইয়ে; থাকবেন দীর্ঘ দিন। তখন তেমন গল্পের সিনেমা পেলে আবার কাজ করতে চান জনা।

২০০৭ সালে এত ব্যস্ত নায়িকা আপনি, তবুও দেশ ছাড়লেন কেন? এমন প্রশ্নে জনার উত্তর, সেদিন আমি আমেরিকায় ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। সেখানকার পরিবেশ ভালো লেগে গেল। এ ছাড়া ওই সময় চলচ্চিত্রে অস্থিরতা শুরু হয়, মান্না ভাই মারা গেলেন। অভিভাবক হারিয়ে ধাক্কা খেলাম। বলতে পারেন এসব কারণে দেশ ছাড়া।

নায়িকা তথ্যমতে, ২০০২ সালে হৃদয়ের বাঁশি সিনেমার মাধ্যমে ঢাকাই সিনেমায় নাম লেখান সুমনা জনা। শাকিল খান, মান্না, শাকিব খান, রিয়াজ, রুবেলের বিপরীতে সমানতালে অভিনয় করেছেন জনা। ক্যারিয়ারে ৪০টি সিনেমা উপহার দিয়েছেন এই চিত্রনায়িকা।

আবার কাজে ফিরতে চান কি না, এমন প্রশ্নে নায়িকার উত্তর, আমি এখন বেশির ভাগ সময় বাংলাদেশে থাকব। ভালো সিনেমা মনে হলে, আমার মতো করে গল্প কেউ বানাবে, তখন আমি অভিনয় করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করব। ভালো গল্প পেলে অবশ্যই কাজ করব।

এই নায়িকা আরও যুক্ত করেছেন, এই ক্যারিয়ারে একটা আফসোস হচ্ছে এতগুলো সিনেমা করেও ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড পাইনি।

ব্যক্তিজীবনে চিত্রনায়ক শাকিল খানের সঙ্গে প্রথমে বিয়ে করেন সুমনা জনা। তবে তা বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। ২০০৯ সালে জুবায়ের হোসেইনকে ফের বিয়ে করেন তিনি।


আরও খবর
প্রতি রাতে ৬ কোটি আয় অ্যাডেলের!

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22

ভালোবাসা দিবসে প্রেমে পড়বেন প্রভাস-পূজা

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22