আজঃ সোমবার ২৩ মে ২০২২
শিরোনাম

ভারতের হাসপাতালে বাংলাদেশের সরকারি ওষুধ

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ এপ্রিল ২০২২ | ১২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশে যে ওষুধ ক্রয় ও বিক্রয় আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ, সেই ওষুধ দেওয়ার অভিযোগ উঠলো ভারতের পশ্চিমবঙ্গের এক সরকারি হাসপাতালে।

হাসপাতালের বহিঃবিভাগ থেকে রোগীদের এমন ওষুধ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রাজ্যটির পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি মহকুমা হাসপাতালের বিরুদ্ধে।

হাসপাতালের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারাই নাকি দিনের পর দিন, মাসের পর মাস ধরে এভাবেই বাংলাদেশের ওষুধ রোগীদের প্রেসক্রাইব করে দিচ্ছেন। ডক্সিসাইক্লিন নামে ওই ক্যাপসুলের পাতার ওপরই লেখা রয়েছে-গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সম্পদ, ক্রয়-বিক্রয় আইনত দণ্ডনীয়। ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থাটি হল বগুড়ার এসেনসিয়াল ড্রাগস কোং লি.। এই ওষুধটি মূলত ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের চিকিৎসা করতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

গতকাল মঙ্গলবার বিষয়টি সামনে আসতেই শোরগোল পরে গেছে পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে। কিভাবে বাংলাদেশ সরকারি ওষুধ অন্য রাষ্ট্রের একটি অঙ্গরাজ্যের হাসপাতাল থেকে দেওয়া হচ্ছে। তা অবিলম্বে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে প্রায়শই বলতে শোনা যায় যে পশ্চিমবঙ্গের প্রতিবেশী রাজ্য ত্রিপুরা, ওড়িষ্যা, ঝাড়খন্ড থেকে সেখানকার বাসিন্দারা এ রাজ্যের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসেন। এমনকি বাংলাদেশ থেকেও রোগীরা কলকাতায় এসে সরকারি চিকিৎসা গ্রহণ করেন বলেও জানিয়েছিলেন মমতা। সেখানে কিভাবে বাংলাদেশ সরকারের অবিক্রয় যোগ্য ওষুধ পশ্চিমবঙ্গের সরকারি হাসপাতালে বিতরণ করা হচ্ছে? সেই প্রশ্নটিই এখন বড় হয়ে উঠেছে।

অভিযোগ সামনে আসার পরই নড়েচড়ে বসেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য ভবন। এ ব্যাপারে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলা প্রশাসক পূর্ণেন্দু মাঝি জানান, বিষয়টি সামনে এসেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর এবং জেলা প্রশাসনের তরফে একটি যৌথ তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কিভাবে ওই ওষুধ এখানকার হাসপাতালের স্টোরে এসে পৌঁছালো তা দেখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

যদিও সূত্রে খবর, সরকারিভাবেই কলকাতার স্টোর থেকে নাকি ওই ওষুধ জেলা হাসপাতালের পাঠানো হয়েছে। এদিকে, বিষয়টি সামনে আসতেই রাজনৈতিক ভাবেও একে কাজে লাগাতে মরিয়া ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রধান বিরোধী দল বিজেপি।

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী জানান, এ ঘটনা অতীতে কখনও ঘটেনি। ভারত যেখানে সারা বিশ্বে ওষুধ রপ্তানি করে, সেখানে কী ভাবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সরকারি স্টোরে বাংলাদেশি ওষুধ আসলো, তার প্রকৃত কারণ জানতে উচ্চ পর্যায়ের তদন্তেরও দাবি করেছেন তিনি। ওই ওষুধ বাংলাদেশ থেকে বৈধভাবে এসেছে নাকি অবৈধভাবে তা জানা প্রয়োজন বলে মনে করেন শুভেন্দু।

যদিও একটি সূত্র বলছে, ভারতে করোনার দ্বিতীয় আছড়ে পড়ার সময় বাংলাদেশ সরকারের তরফে একটা বিশাল পরিমাণ ওষুধ সরবরাহ করা হয়েছিল। সেই ওষুধের একটা বড় অংশ ছিল রাজ্যের মেডিসিন স্টোরে। ভুলক্রমে সেই ওষুধও পাঠানো হতে পারে ওই হাসপাতালে।

 


আরও খবর



শেরপুরে ব্ল্যাকমেইলের শিকার এক মাদরাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৯০০জন দেখেছেন

Image

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি:

বগুড়ার শেরপুরে ব্ল্যাকমেইলের শিকার হয়ে মাদরাসাছাত্রী আদুরী খাতুন(১৪) কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে। রবিবার (২৪ এপ্রিল) রাতে বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়। সে উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের খামারকান্দি গ্রামের আবু হানিফের মেয়ে। আদুরী স্থানীয় খামারকান্দি বালিকা দাখিল মাদরাসার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী বলে জানায় তার পরিবার।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়ন ও গ্রামের বাসিন্দা এন্তাজ আলীর ছেলে আবু মুছা (২০) পেশায় একজন চা বিক্রেতা। চা বিক্রয়ের কাজ করলেও কি হবে ভিডিও এডিটিংয়ে বেশ পারদর্শী হিসেবে এলাকায় পরিচিত রয়েছে। মুছা মাল্টিমিডিয়া নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) একটি আইডিও চালাচ্ছে। আর সেই আইডি ব্যবহার করে ওই মাদরাসাছাত্রীর অশ্লীল ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে প্রেমের সম্পর্ক গড়তে এবং একপর্যায়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়তে বাধ্য করে মুছা। পরে বিষয়টি উভয় পরিবারে জানাজানি হলে এসব থেকে বিরত থাকতে কঠোরভাবে নিষেধ করা হয় মুছাকে। এরপরও  সে আদুরীকে বিয়ের জন্য গোপনে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে । কিন্তু আদুরীর পরিবার রাজি না থাকায় তাকে ভিন্নপথ বেছে নেওয়ার পরামর্শ দেয় মুছা।

আদুরীর পরিবারের দাবি, আদুরীকে ওই কীটনাশক সংগ্রহ করে দিয়েছিল মুছা। পরবর্তীতে চলতি মাসের ১৭ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে নিজ শয়নকক্ষে কীটনাশক পান করে অসুস্থ হয়ে পড়ে আদুরী। পরিবারে লোকজন জানতে পেরে আদুরীকে উদ্ধার করে দ্রুত স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাতেই বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আদুরী রোববার(২৪ এপ্রিল) রাতেই মারা যায়।

নিহত আদুরীর মামা আব্দুর রহিম অভিযোগ করে বলেন, বেশ কিছুদিন ধরেই মাদরাসায় আসা-যাওয়ার পথে তাকে উত্ত্যক্ত করছিল মুছা। প্রতিবাদ করায় তার ওপর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এমনকি মাদরাসার অনুষ্ঠানের আদুরীর একটি ছবি সংগ্রহ করে সে। পরবর্তীতে সেটি এডিটিং করে অশ্লীল ছবি বানিয়ে আদুরীকে দেখানো হয়। সেই সঙ্গে ওই বখাটের সঙ্গে সম্পর্ক না গড়লে ছবিটি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেল করা হয়। পাশাপাশি আত্মহত্যা করতে আদুরীকে প্ররোচনা দেওয়া হয়েছে বলেও দাবি করেন আব্দুর রহিম।

এ বিষয়ে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, অত্র থানার এক শিক্ষার্থীর অপমৃত্যুর ঘটনায় বগুড়া সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে বলে জেনেছি। তবে এ মৃত্যু নিয়ে এলাকায় খোজখবর নেয়া হচ্ছে। তবে কেউ কোন অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর



মাজিয়াকে হারিয়ে এএফসি কাপ মিশন শুরু বসুন্ধরা কিংসের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এএফসি কাপে মালদ্বীপের ক্লাব মাজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশনের বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানে জয় তুলেছে বসুন্ধরা কিংস। কলকাতার সল্টলেক স্টেডিয়ামে উদ্বোধনি দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে গ্রুপ ডির ম্যাচে বসুন্ধরা কিংস মুখোমুখি হয় মালদ্বীপের ক্লাবটির।

এই ম্যাচে দাপট দেখিয়ে ম্যাচটি জিতে নেয় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়নরা। যুব ভারতী ক্রীড়াঙ্গনে নুহা মারংয়ের গোলে ৩৩ মিনিটে এগিয়ে যায় বসুন্ধরা। মাঝ মাঠ থেকে সোহেলে রানার লম্বা পাসে হেডের মাধ্যমে গোল আদায় করেন গাম্বিয়ান এই ফরোয়ার্ড।

প্রথমার্ধের গোলে এগিয়ে থেকেই মাঠ ছাড়ে কিংস। বিরতির পর ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠে মাজিয়া। যদিও শেষ পর্যন্ত মালদ্বীপের চ্যাম্পিয়নদের পাত্তা না দিয়েই জয় তুলে নেয় অস্কার ব্রুজনের শিষ্যরা।

ম্যাচে মাজিয়া স্পোর্টসসের নেয়া ১৬ শটের বিপরিতে কিংস নেয় ১২টি শট। টার্গেট শট দুদলের ছিল সমান ৫টি। আগামী ২১ মে একই ভেন্যুতে গ্রুপের বাকি ম্যাচে ২১ মে মোহন বাগান ও ২৪ মে গোকুলম কেরালার বিপক্ষে লড়বে বসুন্ধরা কিংস।

 

নিউজ ট্যাগ: এএফসি কাপ

আরও খবর



ম্যানিলায় বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় আনোয়ার হোসেন (৬৩) নামে এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৫ মে) স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৪০ মিনিটে মেট্রো ম্যানিলা টাফট অ্যাভিনিউয়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আনোয়ার হোসেন মুন্সীগঞ্জের টংগিবাড়ী উপজেলার কাইচাইল গ্রামের বাসিন্দা।

আনোয়ার হোসেন ১৯৯৬ সালে ফিলিপাইনে যান। পরে তিনি ওই দেশে গার্মেন্টস ব্যবসা শুরু করেন। ফিলিপাইনে গার্মেন্টস ব্যবসার একটা অ্যাসোসিয়েশন আছে। আনোয়ার সেই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছিলেন। তিনি ব্যবসায় সার্বিক সহযোগিতা করতেন। তিনি ফিলিপাইনের পাসপোর্টধারী ছিলেন। তার মরদেহ দেশে আনার প্রক্রিয়া চলছে।

নিহতের চাচাতো ভাই আনোয়ার হোসেন বলেন, ৪/৫  মাস আগেও তিনি দেশে এসেছিলেন। তিনি দীর্ঘ ২৬ বছর যাবৎ ফিলিপাইনে বসবাস করে ওখানে ব্যবসা‌ করে আসছিল। সেখানে বিয়েও করেন। আনোয়াররা ৭ ভাই। বাকি ৬ ভাই সবাই দেশে থাকেন। দেশের অন্য ভাইদের সঙ্গে তার সবসময় যোগাযোগ ছিল।

হত্যাকাণ্ডের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, রাস্তার পাশে ফুটপাত ধরে হাঁটার সময় সাদা টিশার্ট পরিহিত আনোয়ারকে পেছন থেকে মাথায় গুলি করেন একজন অস্ত্রধারী। ঘটনার পরপরই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে দৌড়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন ঘাতক।


আরও খবর



নিষেধাজ্ঞা উঠলেও টুইটার ব্যবহার করবেন না ট্রাম্প

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টুইটারের মালিকানা পরিবর্তন হচ্ছে। এই অবস্থায় যদি নতুন কার্য নির্বাহি পরিষদ ট্রাম্পের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেন তবু আর টুইটার ব্যবহারের ইচ্ছে নেই বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প। সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজকে এমনটি জানিয়েছে ট্রাম্প।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী সাত দিনের মধ্যে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে তার নিজের মালিকানাধীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে যোগ দেবেন।  আমি টুইটারে যাচ্ছি না। আমি আশা করি ইলন টুইটার কিনেছেন কারণ তিনি এটির উন্নতি করবেন। তিনি একজন ভালো মানুষ।

সোমবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে টেক জায়ান্ট টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্কের কাছে টুইটার বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ।

প্রসঙ্গত, ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলা হয়। এ ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে ট্রাম্পের টুইটার ও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করা হয়। এরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম চালুর ঘোষণা দেন ট্রাম্প।


আরও খবর



দুর্দশাগ্রস্ত শ্রীলঙ্কার জনগণের আস্থা অর্জন করতে চায় ভারত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ২৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত শ্রীলঙ্কার জনগণের আস্থা অর্জন করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ভারত। বিভিন্ন জরুরি পণ্যের অভাব মোচন করতে দেশটিকে অর্থ দিচ্ছে নয়া দিল্লি। এছাড়া শ্রীলঙ্কায় জ্বালানি তেল, ওষুধ ও সার সরবরাহ করছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। এভাবে দেশটির জনগণের মন জয় করতে চাচ্ছে ভারত।  ভারত মহাসাগরে কৌশলগত অবস্থানের জন্য শ্রীলঙ্কার সাথে অনুকূল কূটনৈতিক ও বাণিজ্য সম্পর্কের জন্য গত ১৫ বছর ধরে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ভারত ও চীন। যদিও দেশটির জনগণের মন জয়ের ক্ষেত্রে অনেক আগেই ভারতকে ছাড়িয়ে গেছে চীন। তবে, শ্রীলঙ্কার সাম্প্রতিক অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে দেশটিতে ভারতের পররাষ্ট্র নীতি নতুন জীবন পেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

১৯৪৮ সালে ব্রিটেন থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর শ্রীলঙ্কা বর্তমানের মতো এমন চরম অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে পড়েনি। দেশটি খাদ্য ও জ্বালানির ঘাটতির কারণে জনমনে চরম ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। নিত্যপণ্যের অভাব ও দামবৃদ্ধির কারণে জনগণ রাস্তায় নেমে আন্দোলন করছে। এমন সংকটের মধ্যেই মাহিন্দা রাজাপাকসে প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। এরপর ৯ মে রাতে রাজাপাকসের সমর্থক ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘাত বাধে। এরপর থেকে দেশটিতে একটি ভীতিকর অবস্থা বিরাজ করছে।

এখন রনিল বিক্রমাসিংহে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়েছেন। কিন্তু তিনি বলেছেন, শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক সমস্যা আগের চেয়েও প্রকট হবে। এখন তিনি ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে আর্থিক সাহায্যের জন্য আবেদন করেছেন।

শ্রীলঙ্কায় ভারত কখনই চীনের মতো বড় ঋণদাতা ছিল না। কিন্তু এখন, ভারত দেশটির অন্যতম বড় সহায়তা প্রদানকারী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। কলম্বো এখন ৫১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বৈদেশিক ঋণে আবদ্ধ। এই ঋণগুলোর পরিষেবার জন্য বর্তমানে তাদের ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করতে হবে। আগামী বছরও একই পরিমাণ টাকা তাদের পরিশোধ করতে হবে। দেশটি এখন জ্বালানির মতো প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানির জন্য তিন বিলিয়ন মার্কিন ডলারের জরুরি ঋণও চাইছে। দেশটির এমন সহায়তা দাবির প্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাংক ছয় শ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ দিতে সম্মত হয়েছে। অপরদিকে ভারত ১.৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এবং জরুরি পণ্য আমদানির জন্য আরো ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ দিতে পারে।

বর্তমানে শ্রীলঙ্কাকে ভারত ৬৫ হাজার টন সার ও চার লাখ টন জ্বালানি পাঠিয়েছে। মে মাসের পরে আরও জ্বালানি পাঠানো হবে বলে আশা করা হচ্ছে৷ এছাড়া দেশটিতে চিকিৎসা সামগ্রী পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারত। এসব সহায়তার বিনিময়ে ভারত একটি চুক্তি করেছে, যার মাধ্যমে ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশনকে ব্রিটিশ-নির্মিত শ্রীলঙ্কার ত্রিনকোমালি তেল ট্যাঙ্ক খামারে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে। এছাড়া ভারতীয় কর্তৃপক্ষ ত্রিনকোমালির কাছে এক শ মেগাওয়াট পাওয়ারের প্ল্যান্ট নির্মাণ করতে চায়।

নিউজ ট্যাগ: শ্রীলঙ্কা

আরও খবর