আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

সরকারি চাকরি-ভর্তি প্রবেশে ডোপ টেস্ট , দ্রুত আইন হচ্ছে

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ২২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সরকারি চাকরি এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করার জন্য দ্রুত একটি আইন করা হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বুধবার (১২ জানুয়ারি) আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে তিনি এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, যেকোনো সরকারি চাকরিতে নিয়োগের আগে ডোপ টেস্ট হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগেও ডোপ টেস্ট করা হবে। ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করার জন্য দ্রুত একটি আইন করা হবে।

আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, বিদেশে বসে যারা রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণা করে, তাদের পাসপোর্ট বাতিল করার উদ্যোগ নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে এরা বেশি অপপ্রচার চালায়। তাই এসব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অফিস বাংলাদেশে না রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এ সময় রোহিঙ্গাদের অন্যায় কাজ থেকে বিরত রাখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, তারা (রোহিঙ্গা) আমাদের দেশের নাগরিক নন। আমাদের দেশের আইন অনুযায়ী তাদের বিচার হবে না। তাই তাদের অন্যায়ের ব্যাপারে আরও সতর্ক থাকতে হবে। 


আরও খবর



বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের অষ্টম আসর

অধিনায়কের নাম ঘোষণা করলো ঢাকা

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসর শুরুর সময়ে এসে ঢাকা দলের ফ্র্যঞ্চাইজি কিনে নেন মিনিস্টার গ্রুপ। গুছানো দলের মালিক হয়ে শেষ মুহুর্তের কাজগুলো সেরে নিচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। বিপিএল শুরু হতে বাকি আর চার দিন। তার আগে সোমবার সন্ধ্যায় উন্মোচন করা হয় দলের জার্সি।

'মিনিস্টার ঢাকা' নামে দলটির অধিনায়ক করা হয়েছে বাংলাদেশ দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। এদকই দলে রয়েছেন দেশের ইতিহাসের সফল অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা, ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এ ছাড়াও রয়েছে জাতীয় দল, দলের বাইরের এক ঝাঁক ক্রিকেটার।

মিনিস্টার ঢাকা দল:

সরাসরি চুক্তি : মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইসুরু উদানা (শ্রীলঙ্কা), কাইস আহমেদ (আফগানিস্তান), নাজিবুল্লাহ জাদরান (আফগানিস্তান)।

ড্রাফট থেকে দেশি : তামিম ইকবাল, রুবেল হোসেন, মাশরাফী বিন মুর্তজা, শুভাগত হোম চৌধুরী, নাঈম শেখ, আরাফাত সানি, ইমরান উজ জামান, শফিউল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, শামসুর রহমান এবং এবাদত হোসেন।

ড্রাফট থেকে বিদেশি : মোহাম্মদ শাহজাদ (আফগানিস্তান), ফজল হক ফারুকী (আফগানিস্তান)।

 

 

নিউজ ট্যাগ: বিপিএল

আরও খবর



কোটি টাকার জাল নোটসহ আটক-৩

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর পল্লবী থানা এলাকা থেকে এক কোটি ২০ লাখ টাকার জাল নোটসহ চক্রের অন্যতম হোতা ছগির হোসেন (৪৭) এবং তাঁর দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। গতকাল সোমবার রাতে জাল নোট তৈরির সরঞ্জামও উদ্ধার করেছে র‍্যাব।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন। তিনি বলেন, প্রতি এক লাখ জাল নোট চক্রটি ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকার বিনিময়ে বিক্রি করত।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গতকাল সোমবার রাতে র‌্যাব-৪-এর একটি দল ঢাকার মিরপুরের পল্লবীতে অভিযান চালিয়ে সংঘবদ্ধ জাল নোট তৈরি চক্রের মূল হোতা ছগির হোসেন (৪৭), সেলিনা আক্তার পাখি (২০) ও রুহুল আমিনকে (৩৩) গ্রেপ্তার করেছে। তাঁদের কাছ থেকে এক কোটি ২০ লাখ টাকা মূল্যমানের জাল নোট, পাঁচটি মোবাইল ফোন এবং দুটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া জাল নোট তৈরির বিপুল সরঞ্জামাদিও জব্দ করা হয়।

খন্দকার আল মঈন বলেন, গত ২৮ নভেম্বর র‌্যাব-৪ মিরপুর মডেল থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২৮ লাখ ৫৩ হাজার টাকা মূল্যমানের জাল নোটসহ জাল নোট তৈরি ও বিক্রেতা চক্রের সক্রিয় চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করে। পরবর্তীতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই চক্রটির মূল হোতা ও অন্যান্য সহযোগীদের সম্পর্কে জানা যায়। পরে র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি বাড়িয়ে গতকাল এ অভিযান চালায়।

গ্রেপ্তার করা ব্যক্তিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, তাঁরা পরস্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা ও বরিশালসহ বিভিন্ন এলাকায় এই জাল নোট তৈরি করে বিভিন্ন লোকদের কাছে কম মূল্যে জাল নোট বিক্রি করে আসছিলেন। এ চক্রটির মূল হোতা ছগির হোসেন। চক্রটি বরিশাল ও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় এ জাল নোটের ব্যবসা চালায়। চক্রে ১৫ থেকে ২০ জন জড়িত রয়েছে।

খন্দকার আল মঈন বলেন, গ্রেপ্তার করা ছগির হোসেন ১৯৮৭ সালে বরগুনা থেকে ঢাকায় এসে প্রথমে একটি হোটেল বয়ের কাজ নেয়। পরবর্তীকালে ভ্যানে ফেরি করে গার্মেন্টস পণ্য বিক্রি করত। পোশাক বিক্রির সময় ছগিরের সঙ্গে ইদ্রিস নামের একজনের পরিচয় হয়। পরিচয়ের সুবাদে তাদের মধ্যে সু-সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ইদ্রিসের মাধ্যমে ছগিরের জাল নোট তৈরির হাতেখড়ি হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রথমে ইদ্রিস জাল নোট বিক্রি ও পরবর্তীকালে জাল নোট তৈরি শেখে। ২০১৭ সালে জাল নোটসহ ইদ্রিস ও ছগির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হয়। এক বছর জেল খেটে পুনরায় ছগির ২০১৮ সাল থেকে জাল নোট তৈরি শুরু করে। এসব জাল নোটগুলো ছগির চক্রে থাকা অন্যান্য সহাযোগীদের মাধ্যমে বিক্রি করত।

খন্দকার আল মঈন বলেন, প্রতি এক লাখ জাল নোট ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকার বিনিময়ে বিক্রি করত চক্রটি। ছগিরের সহযোগীরা মাঠ পর্যায়ে সরবরাহ ও বিক্রি করত। টার্গেট বা চাহিদা অনুযায়ী ছগির প্রতি মাসে তার সহযোগীদের বোনাসও দিত।

করোনাকালীন সময়ে মাঝে মধ্যে ছগির নিজেও এ জাল নোট স্থানীয় বাজারে ব্যবহার করত। কয়েকবার সে সাধারণ জনগণের হাতে ধরাও পড়েছিল বলে জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জানতে পেরেছি। চক্রটি সাধারণত কোনো মেলায়, ঈদে পশুর হাটে ও অধিক জনসমাগম অনুষ্ঠানে জাল নোট বিভিন্ন কৌশলে ব্যবহার করত। বর্তমানে বাণিজ্য মেলা ও শীতকালীন প্রত্যন্ত অঞ্চলের বিভিন্ন উৎসব ও মেলাকে কেন্দ্র করে বিপুল পরিমাণ জাল টাকা তৈরির পরিকল্পনা করছিল তারা।


আরও খবর
রিফাত হত্যা: খালাস চেয়ে মিন্নির জেল আপিল

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22




বিদায়লগ্নে একটি ভালো নির্বাচন দেখতে চাই: ইসি মাহবুব

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ২৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের (ইসি) বিদায়লগ্নে একটি ভালো নির্বাচন দেখার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে নগরীর ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের আদর্শ স্কুল, নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্র পরিদর্শনকালে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

এসময় প্রার্থীদের এজেন্টদের কাছে মাহবুব তালুকদার তাদের কোনো ধরনের অসুবিধা হচ্ছে কি না, সে বিষয়ে জানতে চান। জবাবে এজেন্টরা ইভিএমসহ ভোটের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কোনো অভিযোগ নেই বলে জানান।

পরে প্রিসাইডিং অফিসারের কাছেও ইভিএমে সমস্যা আছে কি না, কারো কোনো অভিযোগ আছে কি না এবং ভোট কেমন হচ্ছে, এসব বিষয়ে জানতে চান এ নির্বাচন কমিশনার।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভোট কেমন হচ্ছে এ ব্যাপারে কোনো কথা আমি এখন বলবো না। সময়টা শেষ না হওয়া পর্যন্ত ভোটের কোনো কিছু আমি বলতে পারি না, বলবো ভোটের সময়েটা পার হওয়ার পরে। ভোট যত বেশি কাস্ট হবে আমি তত খুশি। আমাদের বিদায়লগ্নে একটি ভালো নির্বাচন দেখতে চাই। যার জন্য আমি আজ এখানে এসেছি।

মাহবুব তালুকদার বলেন, নির্বাচন সম্পর্কে আমার চেয়ে সাংবাদিকরা ভালো জানেন। আমি তো একদিন এসেছি, গণমাধ্যমকর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে এটা দেখছেন, পর্যবেক্ষণ করছেন। কোনো ধরনের সমস্যা থাকলে আপনারা (মিডিয়া) জানান। আমি এখন যদি কিছু বলি সেটা খণ্ডচিত্র হবে।


আরও খবর



ওমিক্রনে আক্রান্তদের চিকিৎসায় আরও ২ ওষুধ অনুমোদন ডব্লিউএইচওর

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের সবচেয়ে সংক্রামক ধরন হিসেবে স্বীকৃত ওমিক্রনে আক্রান্তদের চিকিৎসায় আরও দুটি ওষুধের অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এই ওষুধগুলো হলো বারিটিসিনিব এবং অপরটির নাম সট্রোভিম্যাব।

বারটিসিনিব ওষুধটি এতদিন ব্যবহার হতো বাত বা বাতজ্বরে আক্রান্তদের চিকিৎসায় ব্যবহার করা হতো। ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ প্যানেলের মতে, যদি কোভিডে গুরুতর অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসায় কর্টিকসটারয়েডস নামের ওষুধের সঙ্গে বাত ও বাতজ্বরের ওষুধ ব্যবহার করা হয়, সেক্ষেত্রে রোগীদের ভেন্টিলেশনের ঝুঁকি কমার পাশাপাশি মৃত্যুর শঙ্কাও হ্রাস পায়।

অন্যদিকে সট্রোভিম্যাব একপ্রাকার সিনথেটিক অ্যান্টিবডি। তীব্র শ্বাসকষ্ট কমানোর জন্য এই অ্যান্টিবডি এতদিন রোগীদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করে আসছিলেন চিকিৎসকরা।

শুক্রবার এ সম্পর্কিত এক বিবৃতিতে ডব্লিউএইচওর পক্ষ থেকে বলা হয়, যারা বয়স্ক, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম কিংবা ডায়াবেটিসের মতো কোনো রোগে ভুগছেন, তাদের করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে যাওয়ার ঝুঁকি কমাতে বিশেষজ্ঞরা সিনথেটিক অ্যান্টিবডি চিকিৎসাপদ্ধতি সট্রোভিম্যাবের সুপারিশ করেছেন।

তবে করোনা সংক্রমিত যাদের হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার ঝুঁকি কম, তাদের ক্ষেত্রে সট্রোভিম্যাব প্রয়োগের খুব বেশি প্রয়োজন আছে বলে মনে করছে না বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞ প্যানেল। পাশাপাশি, ওমিক্রনের মতো করোনার নতুন ধরনের বিরুদ্ধে এটি কতটা কার্যকর হবে, সে বিষয়ে এখনও পুরোপুরি নিশ্চিত নয় ডব্লিউএইচও।

২০২১ সালে করোনাভাইরাসের তিনটি চিকিৎসাপদ্ধতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেয়েছে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে করোনাভাইরাস সংক্রমিত গুরুতর অসুস্থ ব্যক্তিদের চিকিৎসায় কর্টিকসটারয়েডস ওষুধের অনুমোদন দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কর্টিকসটারয়েডের দাম কম এবং করোনাজনিত গুরুতর অসুস্থতার ক্ষেত্রে এটি বেশ কার্যকর।

তার আগে ২০২১ সালের জুলাইয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পায় আর্থ্রাইটিসের আরও দুটি ওষুধ টসিলিজুম্যাব ও সেরিলোম্যাব। তবে এসব ওষুধ থেকে নতুন অনুমোদন পাওয়া বারিসিটিনিব কিছুটা আলাদা।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে সিনথেটিক অ্যান্টিবডি চিকিৎসাপদ্ধতি রেজেনিরন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেয়েছে। বলা হচ্ছে, একই ধরনের রোগীদের ক্ষেত্রে একইভাবে কার্যকর হবে সট্রোভিম্যাব।

এদিকে, ২০২১ সালের ২৪ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয় ওমিক্রন। তার পর থেকে অকল্পনীয় দ্রুতগতিতে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়তে থাকে এই ভাইরাসটি। ডব্লিউএইচওর তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৩০টিরও বেশি দেশে শনাক্ত হয়েছে ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগী।

আন্তর্জাতিক জীবাণুবিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সার্স-কোভ-২ বা মূল করোনাভাইরাসের তুলনায় ওমিক্রনের সংক্রমণ ক্ষমতা ৭০ গুণ বেশি। বর্তমানে করোনাভাইরাসের রূপান্তরিত ধরণগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সংক্রামক ধরনের স্বীকৃতি পেয়েছে এই ভাইরাসটি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উদ্বেগজনক ধরনের’ তালিকায় স্থান পাওয়া ওমিক্রনের প্রভাবে পৃথিবীজুড়েই বাড়ছে করোনার দৈনিক সংক্রমণ। ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ও যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন লক্ষাধিক রোগী শনাক্ত হচ্ছেন করোনা পজিটিভ হিসেবে।

আন্তর্জাতিক জীবাণুবিশেষজ্ঞরা অবশ্য বলেছেন, অতি উচ্চ মাত্রার সংক্রামক ভাইরাস হলেও করোনার অতি সংক্রামক ধরন ডেল্টাসহ অন্যান্য রূপান্তরিত ধরন এবং মূল করোনাভাইরাসের তুলনায় কম প্রাণঘাতী।


আরও খবর
হাসপাতালে ভর্তি মাহাথির মোহাম্মদ

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২




তীব্র শৈত্যপ্রবাহ দিয়ে শুরু হতে পারে নতুন বছর

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলতি বছরের বাকি দিনগুলোতে আবহাওয়ার তেমন কোনো পরিবর্তনের পূর্বাভাস নেই। তবে নতুন বছর শুরু হতে পারে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ দিয়ে। যা শেষ পর্যন্ত তীব্র শৈত্যপ্রবাহে বিস্তার লাভ করতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

রোববার (২৬ ডিসেম্বর) আবহাওয়া অধিদফতর থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ বলেন, বছরের শেষ দিকে তাপমাত্রা পরিবর্তনের তেমন কোনো পূর্বাভাস নেই। এছাড়া শৈত্যপ্রবাহ বিস্তার লাভের কোনো ধরনের আশঙ্কা নেই বছরের শেষ দিনগুলোতে। তেঁতুলিয়া ছাড়া দেশের সব অঞ্চলে আগামী কয়েকদিন ১০-১৬ ডিগ্রির মধ্যে তাপমাত্রা ওঠা-নামা করতে পারে। আর তেঁতুলিয়াতে আগামী কয়েকদিনে তাপমাত্রা ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামতে পারে।

এছাড়া আগামী ২৮, ২৯ ও ৩০ ডিসেম্বর রাজশাহী এবং রংপুর বিভাগে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে।

নতুন বছরের শুরুতে শৈত্যপ্রবাহ বিস্তার লাভের সম্ভাবনা আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু জানুয়ারি মাস সবচেয়ে শীতলতম মাস। সেহেতু ওই মাসে একাধিক শৈত্যপ্রবাহ বিস্তার লাভের সম্ভাবনা রয়েছে। মৃদু শৈত্যপ্রবাহ দিয়ে শুরু হয়ে তা মাঝারি আকার ধারণ করে শেষ পর্যন্ত তীব্র শৈত্যপ্রবাহে বিস্তার লাভ করতে পারে।


আরও খবর
যেসব জায়গায় বৃষ্টি হতে পারে

শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২

চার জেলায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22