আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

ভুল করে অন্যের জমিতে পানি সেচ, চারজনকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বোরো মৌসুমে জমিতে পানি সেচ দেয়া কেন্দ্র করে নারীসহ চারজনকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকেরা।

আশংকাজনক অবস্থায় চারজনকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শনিবার রাতে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন- উপজেলার খলিশাজুরী গ্রামের আব্দুল ছালামের স্ত্রী হাবিবুল বেগম (৫৭), একই গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে আব্দুল শহীদ (৬০), আব্দুল সালামের ছেলে আহাদ নুর (২৪),আছোবানের ছেলে আবুল কালাম (৫৪)।

রোববার দুপুরে উপজেলার খলিশাজুরী গ্রামের আবুল কালাম একই গ্রামের মাইনউদ্দিনসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এর আগে উপজেলার খলিশাজুরী গ্রামের সেতু সংলগ্ন এলাকায় শনিবার বিকেলে ওই ঘটনাটি ঘটে।

রোববার স্থানীয় সুত্রে জানায়, উপজেলার খলিশাজুরী গ্রামের আবুল কালামের নিয়োজিত কৃষিশ্রমিক ভুল করে একই গ্রামের মাইন উদ্দিনের বোরো জমি সেচে ফেলে।  সেচের সময় জমিতে দিনভর নিজেও উপস্থিত ছিলেন মাইন উদ্দিন।

ভুল বশত বিনা পারিশ্রমিকে জমি সেচকালে শ্রমিককে বাঁধা না দেয়া প্রসঙ্গ নিয়ে প্রথমে কালাম ও মাইন উদ্দিনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এরপর বাড়ি ফেরার পথে জমি সেচের বিরোধে একই দিন বিকেলে উপজেলার খলিশাজুরী গ্রামের সামনে সবজি বাগান পরিচর্চা শেষে আবুল কালামের বড় ভাইয়ের বয়োবৃদ্ধা স্ত্রী হাবিবুল বেগমকে গালিগালাজ করেন মাইন উদ্দিন ও তার লোকজন।

বাঁধা দিলে প্রতিপক্ষের লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে ওই নারীর টেনে হিছড়ে মাটিতে আছড়ে ফেলে বেধড়ক পেটাতে থাকেন।

এ সময় পরিবারের অন্যরা এগিয়ে আসলে আব্দুল শহীদ, আহাদ নূর ও আবুল কালামকে কুপিয়ে রক্ষার্থ জখম করে সড়কের পাশে ফেলে রেখে চলে যায় মাইন উদ্দিনসহ প্রতিপক্ষের লোকেরা।

নিউজ ট্যাগ: কুপিয়ে জখম

আরও খবর



বসুন্ধরা বিটুমিন গুণে-মানে নতুন পথ দেখাবে: কেসিসি মেয়র

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, নির্মাণকাজে বিটুমিন গুরুত্বপূর্ণ। এত দিন বিদেশ থেকে আসা বিটুমিনের ওপর এ দেশের সড়ক নির্মাণকাজ নির্ভর করত। এসব বিটুমিনের খারাপ মানের কারণে অনেক সময় নির্মাণকাজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বসুন্ধরা শিল্পগোষ্ঠী এরই মধ্যে তারা বিটুমিন উৎপাদন করেছে। সড়ক বিভাগ এই বিটুমিনকে এরই মধ্যে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে এবং নির্মাণকাজে ব্যবহার করছে। আশা করছি, বসুন্ধরা বিটুমিন গুণে-মানে নতুন পথ দেখাবে।

রবিবার খুলনার একটি হোটেলে বসুন্ধরা বিটুমিনের ইঞ্জিনিয়ার মিট অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ আসলাম আলী বসুন্ধরা বিটুমিনের সাফল্য কামনা করে বলেন, বিটুমিনের জন্য আমাদের সব সময় বিদেশের ওপর নির্ভর করতে হতো। আবার এগুলোর মান ভালো না হওয়ায় নির্মাণ কাজগুলোর মান নষ্ট হয়ে যায়। দেশের বেসরকারি খাতে প্রথম প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা বিটুমিন। গুণ ও মান অক্ষুন্ন রেখে প্রতিষ্ঠানটি দেশের সেবায় এগিয়ে আসবে বলে আমরা প্রত্যাশা করছি।

মোজাহার এন্টারপ্রাইজের প্রাইভেট লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী কাজী মোজাহারুল হক বলেন, সরকারি বিটুমিন আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান দেশের চাহিদার ২০ শতাংশও মেটাতে পারে না। এ ক্ষেত্রে বসুন্ধরা বিটুমিন বিশেষ চমক। আমরা ৩০টি জেলায় নির্মাণকাজ করছি। এরই মধ্যে এই বিটুমিন ব্যবহার করছি। আশা করি, বসুন্ধরা গ্রুপ দেশের স্বার্থে এই পণ্যের মান বজায় রেখে তাদের উৎপাদন অব্যাহত রাখবে।

অনুষ্ঠানে খুলনা চেম্বারের সহসভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু, বসুন্ধরা বিটুমিনের পরামর্শক ও আইইউটির সহকারী অধ্যাপক ড. নাজমুস সাকিব, বসুন্ধরা বিটুমিনের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) সুকান্ত কুমার সাহা প্রমুখ বক্তব্য দেন। এসময় সড়ক ও জনপথ বিভাগ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, খুলনা সিটি করপোরেশন, ঠিকাদার ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের শতাধিক প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।



আরও খবর



নির্বাচন উপলক্ষে রবিবার যেসব এলাকায় ব্যাংক বন্ধ থাকবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় সংসদের ১৩৬ টাঙ্গাইল-৭ শূন্য আসন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ও বিভিন্ন জেলার ৫টি পৌরসভার নির্বাচন উপলক্ষে আগামী রোববার (১৬ জানুয়ারি) এলাকাগুলোতে সব তফসিলি ব্যাংকের শাখা-উপশাখা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের অফ-সাইট সুপারভিশন থেকে সার্কুলার জারি করে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

নির্দেশনা সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, জাতীয় সংসদের ১৩৬ টাঙ্গাইল-৭ শূন্য আসন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন এবং ৫টি পৌরসভার (চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী, নোয়াখালী জেলার নোয়াখালী, যশোর জেলার ঝিকরগাছা, নাটোর জেলার নাটোর ও বাগাতিপাড়া) নির্বাচন উপলক্ষে ১৬ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটের দিন নির্বাচনী এলাকাধীন যেসব স্থাপনা ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার বা নির্বাচনী কার্যক্রমের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে সেসব স্থাপনায় ব্যাংকের কোন শাখা/উপশাখা থাকলে তা বন্ধ থাকবে।

একইসাথে সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকাধীন আপনাদের ব্যাংকের শাখা-উপশাখাসমূহে কর্মরত ভোটারদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ দানের জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়।


আরও খবর



শিমু হত্যার দায় স্বীকার করেছেন স্বামী : পুলিশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুকে হত্যার ঘটনায় দায় স্বীকার করেছেন তাঁর স্বামী সাখাওয়াত আলীম নোবেল এবং নোবেলের বন্ধু ফরহাদ। সাংবদিক কাছে আজ মঙ্গলবার দুপুরে এ দাবি করেছেন কেরাণীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) চুন্নু মিয়া।

চুন্নু মিয়া বলেন, গত রোববার নিখোঁজ হন অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমু। গতকাল সোমবার দুপুরে কেরাণীগঞ্জের আলিপুর ব্রিজের নিচ থেকে তাঁর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়। গতকাল রাতেই আমরা সাখাওয়াত আলীম নোবেল ও ফরহাদকে আটক করি। আটকের পর তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সাখাওয়াত আলীম নোবেল ও ফরহাদ এ হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছেন। আমরা তাঁদের দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করছি।

চুন্নু মিয়া বলেন,  এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আটক দুজনই জড়িত বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জেনেছি। শিমুর পরিবারের সদস্যেরা থানায় রয়েছেন। তাঁরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এ মামলায় সাখাওয়াত আলীম নোবেল ও গাড়িচালক ফরহাদকে আসামি করা হবে। এ ছাড়া অন্য কেউ আসামি হলে তা দ্রুতই জানা যাবে।

গত রোববার সকাল থেকে নিখোঁজ ছিলেন রাইমা ইসলাম শিমু। ওইদিন রাতেই কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন শিমুর স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল। কলাবাগান থানার এসআই এবং জিডির তদন্ত কর্মকর্তা মো. বিপ্লব হোসেন বলেন, ‘‘জিডিতে নোবেল দাবি করেন, গত রোববার অনুমানিক সকাল ১০টার দিকে কাউকে কিছু না জানিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে যান। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত (জিডি করার সময় পর্যন্ত) বাসায় ফেরেনি। তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।


আরও খবর



মুজিব উদ্যানে চিরনিদ্রায় শায়িত জয়নাল হাজারী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং ফেনী-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন হাজারীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ফেনী পাইলট হাইস্কুল মাঠে জানাজা শেষে তাকে শহরের মাস্টারপাড়ার মুজিব উদ্যানে দাফন করা হয়।

এর আগে দুপুর ২টা ৩০ মিনিটের দিকে জয়নাল আবেদীন হাজারীর মরদেহবাহী ফ্রিজার অ্যাম্বুলেন্স ফেনীতে এসে পৌঁছায়। এ সময় শেষবারের মতো তাকে দেখতে ফেনীর মাস্টারপাড়ার হাজী আবদুল গনি হাজারী বাড়ির সামনে ভিড় করেন তার অনুসারী ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এরপর তাকে নেওয়া হয় তার বাড়ি শৈল কুটিরের মুজিব উদ্যানে। সেখানে সর্বসাধারণ তাকে শেষবারের মতো দেখতে যান।

ফেনী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল হাজারীকে  রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। এরপর ফেনী পাইলট হাইস্কুল মাঠে নেওয়া হয় হাজারীর মরদেহ। সেখানে বিকেল সাড়ে ৪টায় তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে মুজিব উদ্যানে তাকে দাফন করা হয়।

গতকাল সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) বিকেল ৫টার দিকে রাজধানী ঢাকার ল্যাব এইড হাসপাতালে বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন হাজারী ইন্তেকাল করেন। একাধিক শারীরিক জটিলতা নিয়ে তিনি ২ সপ্তাহ ধরে ওই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।


আরও খবর



পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের কাজ চলছে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নে আওয়ামী লীগ সরকারের যে প্রতিশ্রুতি ছিল সেটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ১৯৯৬ সালে আমরা ক্ষমতায় আসার পর শান্তিচুক্তি করেছিলাম। শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নে আমাদের একটা প্রতিশ্রুতি ছিল, সেটি পূরণের কাজ চলছে। 

বুধবার সকাল ১০টায় রাজধানীর গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে চেঙ্গী নদীর ওপর নির্মিত পার্বত্য চট্টগ্রামের দীর্ঘতম সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

একই সময় তিনি কক্সবাজারের বালুখালী থেকে বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্ত সংযোগ সড়কের উদ্বোধন করেন। এ সময় ভিডিও কনফারেন্সে গণভবন থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সেনাপ্রধান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে যোগাযোগের বাধা দূর করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সড়ক যোগাযোগের ব্যবস্থা নিচ্ছি।  যেমন এশিয়ান হাইওয়ে ও এশিয়ান রেলওয়ের সঙ্গেও আমরা বাংলাদেশকে সংযুক্ত করার চেষ্টা করছি।  এসকাফ প্রকল্পটা এগিয়ে নিচ্ছি। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্প্রসারণের লক্ষ্যে আমরা যে কাজ করে যাচ্ছি এরই অংশ হিসেবে কক্সবাজারের বালুখালী থেকে বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিই।  সড়কটি এশিয়ান হাইওয়ের একটি অংশ।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঘটে। সে কারণে উন্নয়নকাজ কিছুটা ব্যাহত হয়। পরে আমরা সেই কাজ শুরু করি। আমি মনে করি যে নির্ধারিত সময়ে কাজটি সমাপ্ত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, নানিয়ারচরে পার্বত্য চট্টগ্রামের সবচেয়ে দীর্ঘতম এই সেতু নির্মাণের ফলে শান্তিচুক্তির বাস্তবায়ন আরও একধাপ এগোলো। এতে করে স্থানীয়দের জীবনযাত্রার উন্নয়ন ও উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণে ভূমিকা রাখবে।


আরও খবর