আজঃ শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২
শিরোনাম

যেখানে তদবির দরকার সেখানেই চালাব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের স্বার্থে যেখানে তদবির চালানো দরকার সেখানেই সরকার তদবির করবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সে (বিলিয়া) এক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান।

র‌্যাব ও এর সাত কর্মকর্তার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে লবিস্ট নিয়োগ করবে কিনা, জানতে চাইলে আবদুল মোমেন বলেন, আমি এসব বলতে পারব না। লবিস্ট নিয়োগ যুক্তরাষ্ট্রের চর্চা। এটা বোধ হয় ২০১৩-১৪ সালে করেছিল এবং ওরা কাজ করে। প্রত্যেক দেশই লবিস্ট নিয়োগ দেয়।  আমাদের দেশে বলা হয় তদবির। তবে যেখানে তদবির দরকার, সেখানে আমরা চালাব। দেশেও তো কাজ করতে গেলে অনেক সময় তদবির লাগে।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সময়-সময় আমাদের অনেক ধরনের দুর্যোগ আসে। আমরা সেগুলো সমাধান করি। এখনো একটা হয়তো অসুবিধা আসছে। আমেরিকানরা পরিপক্ব জাতি। তারা দেখবে। যদিও র‌্যাবের ওপর যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে গত কয়েক বছরে সন্ত্রাস কমেছে। এটা তাদের নিরপেক্ষ সমীক্ষা। সেগুলো নিয়ে তারা চিন্তাভাবনা করবে নিশ্চয়ই।

গণতন্ত্রে বাংলাদেশ দিন দিন পরিকপক্কতা অর্জন করছে জানিয়ে আবদুল মোমেন বলেন, গণতন্ত্রে অনেক ধাক্কা আসে। সব গণতন্ত্রেই অপরিপূর্ণতা আছে। এটা একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। আমরা দিনে দিনে পরিপক্বতা অর্জন করেছি।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র পরিপক্বতা অর্জন করার মধ্যেও ধাক্কা খায়। এ ধরনের ধাক্কাটাক্কা সব দেশে আসে। কোথাও দুর্বলতা থাকলে আমরা অবশ্যই তা দূর করার চেষ্টা করব।


আরও খবর



দেশে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুহার বাড়ছে

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার ২ শতাংশের নিচে ছিল। কখনও কখনও তা ছিল ১ শতাংশের কাছাকাছি। কিন্তু ২১ ডিসেম্বর থেকে ক্রমেই সংক্রমণের হার বেড়ে বর্তমানে দুই দশমিক ৭৮ পর্যন্ত বেড়েছে

দেশে বেড়েছে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুহার। গত এক সপ্তাহে আগের সপ্তাহের তুলনায় নতুন রোগী শনাক্ত বেড়েছে ৬০ শতাংশ এবং মৃত্যু ১৫০ শতাংশ।

রোববার (২ জানুয়ারি) দুপুরে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভার্চুয়াল বুলেটিনে এ কথা জানানো হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইন ডিরেক্টর (অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাপক ডা. মো. রোবেদ আমিন বলেন, গত এক সপ্তাহে এক লাখ ৩০ হাজার ৭৪৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়, যা আগের সপ্তাহের তুলনায় ২০ শতাংশ বেশি। এছাড়া গত এক সপ্তাহে নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে দুই হাজার ৯২৪ জন। এর আগের সপ্তাহের তুলনায় শনাক্ত রোগী ৬০ শতাংশ বেড়েছে।

গত সপ্তাহের তুলনায় সর্বশেষ সপ্তাহে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১২ জন বেশি মারা গেছেন। অর্থাৎ মৃত্যুহার ১৫০ শতাংশ বেশি। ২৬ ডিসেম্বর করোনায় আক্রান্তের হার ছিল ২ শতাংশের কম। ৩১ ডিসেম্বর এ হার বেড়ে দুই দশমিক ৭৪ শতাংশ হয়েছে।

ডা. মো. রোবেদ আমিন বলেন, ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার ২ শতাংশের নিচে ছিল। কখনও কখনও তা ছিল ১ শতাংশের কাছাকাছি। কিন্তু ২১ ডিসেম্বর থেকে ক্রমেই সংক্রমণের হার বেড়ে বর্তমানে দুই দশমিক ৭৮ পর্যন্ত বেড়েছে।

বলা যায়, বেশ কিছুদিন করোনা সংক্রমণ স্থিতিশীল থেকে তা আবার বাড়ছে। নভেম্বর মাসে শনাক্ত হওয়া করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ছয় হাজার ৭৪৫ জন। ডিসেম্বর মাসে তা নয় হাজার ২৫৫ জনে বেড়েছে।

করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বিশেষ করে মাস্ক ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই বলে অভিমত অধ্যাপক ডা. মো. রোবেদ আমিনের।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



কক্সবাজারে হোটেলে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ : গ্রেপ্তার ১

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে হোটেলে নিয়ে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মোহাম্মদ আশিক (২৭) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহাকরী পরিচালক মো. আবু সালাম চৌধুরী এ তথ‌্য নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি মোহাম্মদ আশিক। আজ ভোরে চট্টগ্রামের আনোয়ারা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আশিকের বাড়ি কক্সবাজার সদরের উত্তর নুনিয়াছড়া এলাকায়। তার বাবার নাম নজরুল ইসলাম।

এছাড়া, দুপুরে কক্সবাজার র‌্যাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব ১৫-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. খায়রুল ইসলাম সরকার বলেন, গত ১৩ ডিসেম্বর ৬টার দিকে ওই স্কুলছাত্রী এক প্রতিবেশীর বাড়িতে যাচ্ছিলো। এ সময় তাকে জোর করে আশিক তার সহযোগীরা তুলে নিয়ে যায়। এরপর কক্সবাজারের কলাতলীর মমস নামক হোটেলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়। পরে ১৫ ডিসেম্বর ওই ছাত্রীকে তার বাড়ির সামনে রেখে পালিয়ে যায়। এরপর অভিভাবকরা তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা অপরাধীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিলে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এ সংক্রান্তে একটি মামলা রুজু হয়। এরপর তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হয়।

র‌্যাব জানায়, মোহাম্মদ আশিক প্রায়ই এভাবে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েদের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণ করে। সে কিশোর গ্যাং অপরাধী চক্রের সঙ্গে জড়িত। তার বিরুদ্ধে ছিনতাই, চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে।


আরও খবর



কোভিড উদ্বেগে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভরসা থাকুক রসুনে

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কোভিড উদ্বেগে নিজে সুস্থ থাকতে ও পরিজনদের সুস্থ রাখতে অনেকেই জোর দিচ্ছেন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির উপর। আর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে একটি কার্যকর উপাদান হয়ে উঠতে পারে রসুন। শুধু আধুনিক পুষ্টিবিদরাই নন, প্রাচীন আয়ুর্বেদের মধ্যেও রয়েছে রসুনের গুণাগুণ সংক্রান্ত নানা তথ্য। এক ঝলকে দেখে নিন এই কঠিন সময়ে কী ভাবে রসুনই হয়ে উঠতে পারে আপনার বন্ধু।

১। রসুনে থাকে ভিটামিন বি, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, সোডিয়াম, আয়রন ও জিঙ্কের মতো নানা খনিজ। পাশাপাশি এতে থাকে অ্যালিসিন নামক একটু উপাদান যা বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

২। রসুনে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে যা পক্স, শ্বসনতন্ত্রের নানা রোগ ও সাধারণ সর্দি জ্বর নিরাময়ে চমকপ্রদ কাজ করে। তাই করোনা-স্ফীতির বহু আগে থেকেই শ্বাস যন্ত্রের নানা রোগের পথ্য হিসেবে রসুনের প্রচলন রয়েছে।

৩। বিশেষজ্ঞদের মতে হার্ট ভাল রাখতেও বেশ উপযোগী রসুন। রসুনে উপস্থিত অ্যালিসিন রক্তে ট্রাইগ্লিসারাইড এর পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে ফলে ভালো থাকে সংবহনতন্ত্র।

৪। বিভিন্ন জীবাণুর আক্রমণ প্রতিরোধ করতেও রসুন বেশ কার্যকর। পাশাপাশি রক্তে শর্করার পরিমাণ হ্রাস করতে সাহায্য করে রসুন। প্রাকৃতিক উপায়ে প্রদাহ নির্মূল করতেও রসুন সহায়তা করে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

নিউজ ট্যাগ: রসুন

আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২

সহজেই বানিয়ে ফেলুন সুস্বাদু মূলার পায়েস

বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22




বিপিএলের এবারের আসরে দল পেলেন না মাশরাফি-তামিম-রিয়াদ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অনিশ্চয়তার মেঘ কাটিয়ে ২১ জানুয়ারিতে মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসর। টুর্নামেন্ট সামনে রেখে ২৭ ডিসেম্বর ঢাকার র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে প্লেয়ার্স ড্রাফট।

তার আগেই অটো চয়েজ সুবিধায় বিপিএলে দল পেয়ে গেলেন জাতীয় দলের তিন তারকা - অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান, কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান ও অন্যতম বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ।

অথচ এই অটো চয়েজে দল পাননি জাতীয় দলের পঞ্চপাণ্ডবের অন্যতম তিন তারকা মাশরাফি বিন মর্তুজা, তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

জানা গিয়েছিল, এবারের বিপিএলে প্লেয়ার্স ড্রাফটের আগে প্রতিদল তিনজন করে বিদেশি আর একজন করে স্থানীয় ক্রিকেটার দলে নিয়ে রাখতে পারবে। যারা থাকবেন ক্যাটাগরিতে।

সেই সুবিধায় সবার আগেই উঠে আসে সাকিবের নাম। ফরচুন বরিশালের হয়ে খেলবেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছিল, এর পর একে একে তামিম, রিয়াদ, মুশফিক ও মাশরাফিকে নেবে বাকি ৫ দল।

কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে অটো চয়েজ হিসেবে নাসুম আহমেদকে নেয় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ফ্র্যাঞ্চাইজি। মোস্তাফিজকে দলে নিয়েছে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স।

এর বাইরে বাকি তিন দল ঢাকা, খুলনা ও সিলেটও পছন্দের ক্রিকেটার বেছে নিয়েছে। সে তালিকায় মুশফিকুর রহিমের নাম থাকলেও নেই ক্যাটাগরির তিন শীর্ষ তারকা মাশরাফি বিন মর্তুজা, তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ঢাকার অটো চয়েজ সৌম্য সরকার। সিলেটের অটো চয়েজ তাসকিন আহমেদ। আর খুলনার অটো চয়েজ মুশফিকুর রহিম। মাশরাফি, তামিম ও রিয়াদকে কোনো দল অটো চয়েজে রাখেনি।

অর্থাৎ এ তিন শীর্ষ তারকার ভাগ্য ঝুলে আছে ২৭ তারিখে। সেদিন প্লেয়ার্স ড্রাফটে ক্যাটাগরিতে রাখা এই তিন শীর্ষ তারকাকে যে কোনো দল তাদের কিনতেও পারে আবার নাও কিনতে পারে। সে হিসেবে এ তিন তারকার বিপিএল খেলা এখনো অনিশ্চয়তার দোলাচলে।


আরও খবর



আমাদের র‌্যাব কাজকর্মে অত্যন্ত দক্ষ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমাদের র‍্যাব কাজে-কর্মে দক্ষ। তারা খুব ইফেক্টিভ, ভ্যারি ইফিসিয়েন্ট এবং তাদের দুর্নীতি নেই। এজন্যই তারা জনগণের আস্তা অর্জন করেছে। আমাদের দেশের সন্ত্রাসী তাদের কারণেই কমে গেছে।

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার নগদীপুর ছয়হারা ইসলামিয়া আরবিয়া মাদরাসা, সৈয়দ মনোহর আলী অষ্টগ্রাম মহাবিদ্যালয়, শিরিলব চৌধুরী চাইল্ড কিন্ডারগার্টেন পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, গত কয়েক বছরে হলি আর্টিজানের পর আর কোনো সন্ত্রাসী তৎপরতা হয়নি। এটা সম্ভব হয়েছে র‍্যাবের কারণে। কিছু লোক যারা আইনশৃঙ্খলা পছন্দ করে না তারাই র‍্যাবের বিরুদ্ধে কাজ করছে; এটা খুবই দুঃখজনক। আবার যারা সন্ত্রাস পছন্দ করে কিংবা অন্য ধরনের ড্রাগ পছন্দ করে তারাই র‍্যাবকে পছন্দ করে না।

তিনি আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রকে আমরা জানাবো, হয়তো ঠিক মতো তাদের জানাতে পারিনি। কারণ, অনেকেই তাদরকে একতরফা তথ্য দিয়েছে। যারা ওদেরকে পছন্দ করে না। সব দেশেই ল-অ্যান্ড ফোস বিং এজেন্সিতে কিছু মৃত্যু হয়। বাংলাদেশেরও কিছু হয়েছে। আগে বেশি ছিল এখন কম হয়েছে। যখনই একটা মৃত্যু হয় তখন জুডিশিয়ালভাবে সেটির তদন্ত হয়।

তিনি বলেন, ওরা বলেছে যে গত ১০ বছরে ৬০০ জন মিসিং হয়েছে। আমেরিকাতে প্রতিবছর এক লাখ মিসিং হয়। তো এর দায়দায়িত্ব কে নেবে? আর আমাদের দেশে মিসিং যারা হয় পরবর্তীতে দেখা যায় আবার সে বের হয়ে আসছে।

তিনি বলেন, আর এসব তথ্য যাচাই-বাছাই না করে বড় বড় বিদেশি লোক অভিযোগ করেন। যারা অভিযোগ করেছে আমি তাদের আহ্বান করি। বলি আসেন, দেখেন, লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন, সত্য ঘটনা জানা যাবে। তারপর আপনারা সিদ্ধান্ত নেবেন।


আরও খবর
ট্রলি-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২

রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2