আজঃ রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

যেভাবে অনলাইনে কিডনি কেনাবেচা করত প্রতারক চক্রটি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | ৬৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অবৈধভাবে কিডনি কেনাবেচার সংঘবদ্ধ চক্রের অন্যতম হোতা ও সংশ্লিষ্ট ফেসবুক পেইজ অ্যাডমিন মো. শাহরিয়ার ইমরানসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

এ চক্রটি ফেসবুকে অবৈধভাবে কিডনি কেনাবেচা করতো। কিডনি বেচে তারা ১৫-২০ লাখ টাকা পেলেও কিডনি দাতাকে দিত দুই লাখ টাকা। গরিব ও অসহায় মানুষ চিহ্নিত করে তাদের টার্গেট করতো ইমরানরা।

মঙ্গলবার দুপুরে কারওয়ান বাজারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেন র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন। অনলাইনে কিডনি পাচারচক্রের হোতাদের গ্রেফতারের বিস্তারিত তথ্য জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত র‌্যাব-৫, র‌্যাব-২ ও র‌্যাব সদরদপ্তরের গোয়েন্দা শাখার যৌথ অভিযানে জয়পুরহাট ও রাজধানীর নর্দ্দা থেকে কিডনি কেনাবেচা সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতাসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়।

তারা হলেন- মো. শাহরিয়ার ইমরান আহম্মেদ (৩৬), মো. মেহেদী হাসান (২৪), মো. সাইফুল ইসলাম (২৮), মো. আব্দুল মান্নান (৪৫), ও মো. তাজুল ইসলাম ওরফে তাজু (৩৮)।

র‌্যাব বলছে, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের গরিব মানুষ চিহ্নিত করে তাদের অর্থের বিনিময়ে কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশনের জন্য ডোনার হতে প্রলুব্ধ করা হত। এরপর ডোনারকে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে পাঠানো হত।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার ব্যক্তিরা জানান, তাদের চক্রের মোট সদস্য সংখ্যা ১৫-২০ জন। তারা ৩টি ভাগে বিভক্ত হয়ে কিডনি কেনাবেচা করে থাকে।  চক্রের প্রথম গ্রুপ ঢাকায় অবস্থান করে কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশন প্রয়োজন এমন বিত্তশালী রোগীদের সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে যোগাযোগ করে। আর চক্রের দ্বিতীয় দলটি চাহিদা অনুযায়ী দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের গরিব ও অভাবী মানুষ চিহ্নিত করে এবং তাদের অর্থনৈতিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশনের জন্য ডোনার হতে প্রলুব্ধ করে ঢাকায় নিয়ে আসে।

অপরদিকে তৃতীয় গ্রুপটি প্রলোভনের শিকার কিডনি ডোনারদের ঢাকায় বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশন রোগীর সঙ্গে ব্লাড ম্যাচিং ও অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করায়। ব্লাড ম্যাচিং ও অন্যান্য ডায়াগনস্টিক টেস্টে কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশনের উপযুক্ততা নিশ্চিত হওয়ার পর তার পাসপোর্ট, ভিসা প্রসেসিং ও ভুয়া কাগজপত্র তৈরির মাধ্যমে ডোনারকে পার্শ্ববর্তী দেশে পাঠানোর জন্য প্রস্তুত করা হয়।

চক্রের হোতা ইমরান প্রতি কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশন বাবদ ৫-১০ লাখ টাকা, মান্নান ও তাজুল প্রতি কিডনি দাতা সংগ্রহ বাবদ যথাক্রমে ৫ ও ৩ লাখ টাকা নিতেন।

অপরদিকে চক্রের মূলহোতা ও অন্যতম আসামি শাহরিয়ার ইমরান ভারতে অবস্থান করে স্থানীয় দালাল ও অনলাইনের মাধ্যমে কিডনি রোগীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতেন।

তিনি দুটি পেজের এডমিন। এটির নাম বাংলাদেশ কিডনি ও লিভার পেশেন্ট চিকিৎসা সেবা’ এবং অপরটি কিডনি লিভার চিকিৎসা সেবা’। এ পর্যন্ত তিনি কিডনি বিক্রির জন্য প্রায় শতাধিক মানুষকে ভারতে পাচার করেছেন বলে জানান কমান্ডার খন্দকার আল মঈন। তার বিরুদ্ধে মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন আইনে ৬টির বেশি মামলা রয়েছে।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, গ্রেফতার ব্যক্তিরা এভাবে বিপুল অর্থ অবৈধ উপায়ে হাতিয়ে নিয়েছে। প্রতিটি কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য তারা রোগীর কাছ থেকে ১৫-২০ লাখ টাকা নিত। বিপরীতে তারা কিডনি ডোনারকে ৩-৪ লাখ টাকা দেওয়া হবে বলে আশ্বস্ত করে অগ্রিম দুই লাখ টাকা দিত।

অভিযানে ভুক্তভোগী কিডনি দাতাদের ৪টি পাসপোর্ট, মেডিকেল চিকিৎসার জন্য পাসপোর্ট, ভিসা সম্পর্কিত বেশকিছু কাগজপত্র, ৫টি মোবাইল ও দেশি-বিদেশি মুদ্রা জব্দ করা হয়।


আরও খবর



তিস্তা ব্যারেজের সব গেট খুলে দিয়েছে ভারত, বন্যার আশঙ্কা

প্রকাশিত:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | ৭৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারতের গজলডোবা ব্যারেজের সবগুলো গেট খুলে দেওয়ায় লালমনিরহাটে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ৬০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বুধবার (২০ অক্টোবর) ভোর থেকে তিস্তার পানি বাড়ায় লালমনিরহাটের তিন উপজেলার তিস্তার চর এলাকায় ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাত থেকে তিস্তার পানি বেড়ে ডালিয়া পয়েন্টে ৫২ দশমিক ৭০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে। বুধবার (২০ অক্টোবর) সকাল ৯ টায় ওই পয়েন্টে ৫৩ দশমিক ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা বিপৎসীমার ৬০ সেন্টিমিটার ওপরে। তিস্তার পানি ক্রমেই বাড়ছে।

এদিকে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় হাতীবান্ধার গড্ডিমারী, পাটগ্রামের দহগ্রাম, সিঙ্গামারি, সিন্দুর্না, পাটিকাপাড়া, ডাউয়াবাড়ী, কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী, শৈইলমারী, নোহালী, চর বৈরাতি তিস্তা নদীর তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলে পানি প্রবেশ করে প্রায় ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম এলাকার কামাল হোসেন বলেন, মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাত থেকে হঠাৎ পানি বাড়তে থাকায় ধানক্ষেতসহ রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করে অনেক পরিবার উঁচু স্থানে আশ্রয় নিয়েছেন।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আসফাউ দৌলা বলেন, উজানের ঢলে ও ভারী বৃষ্টিপাতে তিস্তার পানি বেড়ে বিপৎসীমার ৬০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া ভারতের গজলডোবার ৪৪টি গেট খুলে দেয়া হয়েছে। তাই তিস্তাপাড়ের মানুষদের নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নেয়ার জন্য বলা হচ্ছে।

তিস্তা ব্যারেজ কন্ট্রোল রুম ইনচার্জ নুরুল ইসলাম আরটিভি নিউজকে জানান, ভারতে ভয়াবহ বন্যার কারণে বুধবার (২০ অক্টোবর) সকালে হঠাৎ করে ব্যারেজ পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেতে থাকে। সকাল ৬টায় ব্যারেজ পয়েন্টে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ৬০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

তিনি আরও জানান, শুধুমাত্র ব্যারেজের মূল পয়েন্টে পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে। যে কোনো সময় পানি নেমে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, তিস্তার পানি বাড়ার বিষয়টা আমরা জেনেছি। পানিবন্দি পরিবারের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে খাদ্য সহায়তা আছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা পানিবন্দি পরিবারগুলোর জন্য সহায়তার ব্যবস্থা করছেন।


আরও খবর
মুনিয়া-শারুন আলাপ কী প্রমাণ করে?

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




ইউরোপে মাইক্রোওয়েভ ওভেন রপ্তানি শুরু ওয়ালটনের

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউরোপের বাজারে ওয়ালটন পণ্যের টেকসই ও উচ্চ গুণগতমান, তুলনামূলক সাশ্রয়ী দাম, অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও ডিজাইন ক্রেতাদের কাছে ব্যাপক সমাদৃত হচ্ছে। ফলে ইউরোপে ওয়ালটন পণ্যের রপ্তানি ও বাজার সম্প্রসারণ  হচ্ছে অতি দ্রুত। ইতোমধ্যে ইউরোপের ১২টি দেশে টিভি রপ্তানি করছে ওয়ালটন। এবার ইউরোপে যাচ্ছে ওয়ালটনের মাইক্রোওয়েভ ওভেন। রোমানিয়া ও হাঙ্গেরি ইউরোপের এই দুটি দেশে মাইক্রোওয়েভ ওভেন রপ্তানি শুরু করেছে ওয়ালটন।

এ উপলক্ষ্যে সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর করপোরেট অফিসে ইনাগুরেশন সেরেমনি: এক্সপোর্টিং ওয়ালটন মাইক্রোওয়েভ ওভেন টু রোমানিয়া এন্ড হাঙ্গেরি শীর্ষক এক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। ফিতা ও কেক কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে ইউরোপের বাজারে মাইক্রোওয়েভ ওভেন রপ্তানি কার্যক্রম উদ্বোধন করেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালক তাহমিনা আফরোজ তান্না।

অনুষ্ঠানে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটিডের এডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর আবুল বাশার হাওলাদার, ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, ইভা রিজওয়ানা, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এস এম জাহিদ হাসান ও আমিন খান, ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের চিফ বিজনেস অফিসার আল ইমরান, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ইউনিটের (আইবিইউ) প্রেসিডেন্ট এডওয়ার্ড কিম, ভাইস প্রেসিডেন্ট সাঈদ আল ইমরান ও তাওসীফ আল মাহমুদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে কর্মকর্তারা জানান, রোমানিয়া ও হাঙ্গেরির খ্যাতনামা দুটি ইলেকট্রনিক্স ও হোম অ্যাপ্লায়েন্স পণ্য বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর বাজারে ওয়ালটনের তৈরি মাইক্রোয়েভ ওভেন সরবরাহ করবে।

ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক তাহমিনা আফরোজ তান্না বলেন, ইউরোপিয়ান স্ট্যান্ডার্ড ও ডিজাইনে অনুযায়ী ফ্রিজ, টিভি, এয়ারকন্ডিশনার, মাইক্রোওয়েভ ওভেন ইত্যাদি পণ্য তৈরি করছে ওয়ালটন। এসব পণ্যের ডিজাইন ও ফিচারে প্রতিনিয়ত নতুনত্ব আনছেন ওয়ালটন পণ্যের রিসার্চ ও ইনোভেশন বিভাগের প্রকৌশলীরা। এরই ধারাবাহিকতায় রোমানিয়া ও হাঙ্গেরিতে মাইক্রোওয়েভ রপ্তানি কার্যক্রম শুরু করলো ওয়ালটন। যা মধ্য এবং পূর্ব ইউরোপে ওয়ালটন মাইক্রোওয়েভ ওভেনের বাজার সম্প্রসারণ সহজ করার পাশাপাশি অন্যতম সেরা গ্লোবাল ব্র্যান্ড হয়ে উঠার লক্ষ্যে নেয়া ওয়ালটনের ভিশন গো গ্লোবাল ২০৩০’ অর্জনে মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে।

ওয়ালটন আইবিইউ’র ভাইস-প্রেসিডেন্ট আল ইমরান জানান, নিজস্ব কারখানায় বিশ্বের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও মেশিনারিজের সমন্বয়ে বিভিন্ন ধারণক্ষমতার ২০ মডেলের মাইক্রোওয়েভ ওভেন উৎপাদন ও বাজারজাত করা হচ্ছে। স্থানীয় চাহিদা পূরণের পাশাপাশি নেপাল, ইয়েমেনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মাইক্রোওয়েভ ওভেন রপ্তানি করছে ওয়ালটন। এখন থেকে ইউরোপের উন্নত দেশেগুলোর বাজারেও রপ্তানি হবে ওয়ালটনের মাইক্রোওয়েভ ওভেন। ২০২২ সালের মধ্যে ইউরোপে ওয়ালটন মাইক্রোওয়েভ ওভেনের মার্কেট শেয়ার বৃদ্ধিতে কাজ চলছে।


আরও খবর



প্রতারণা মামলায় জ্যাকলিনকে জিজ্ঞাসাবাদের ডাক

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রায় ২০০ কোটি টাকার প্রতারণা মামলায় আজ এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) জিজ্ঞাসাবাদ এড়ালেন অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ। এ নিয়ে দ্বিতীয় বার তাঁকে প্রশ্ন করার কথা ছিল তদন্তকারী সংস্থাটির।

র‌্যানব্যাক্সি সংস্থার প্রাক্তন মালিক শিবেন্দ্র সিংহ ও মালবেন্দ্র সিংহের পরিবারকে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণা করার অভিযোগ রয়েছে সুকেশ চন্দ্রশেখরের বিরুদ্ধে। ইডি-র দাবি, এই প্রতারণার মূল পান্ডা সুকেশ। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে এফআইআর রয়েছে। সুকেশ বর্তমানে রোহিনী জেলে বন্দি। তদন্তকারী সংস্থার সূত্রের দাবি, জেলবন্দি অবস্থাতেই জ্যাকলিনের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল সুকেশের। এই নিয়েই তদন্তকারীদের নজরে আসেন অভিনেত্রী।

প্রতারণার মামলাটিতে গত মাসেই জ্যাকলিনকে পাঁচ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলেন ইডি-র তদন্তকারীরা। ৩৬ বছর বয়সি বলিউডের অভিনেত্রীকে আজ দ্বিতীয়বারের জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু ইডির দফতরে উপস্থিত হননি তিনি। তদন্তকারীরা মনে করছেন, স্ত্রী লীনার মাধ্যমেই শ্রীলঙ্কার অভিনেত্রী জ্যাকলিনের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল সুকেশের।

দিল্লি পুলিশের আর্থিক অপরাধ দমন শাখা সুকেশ ও অন্য কয়েক জনের বিরুদ্ধে প্রতারণা, ষড়যন্ত্র ও ২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ এনে এফআইআর করেছে। এই মামলার সূত্রে ২৪ অগস্ট তদন্তকারীরা চেন্নাইয়ে সাড়ে বিরাশি লক্ষ টাকার মূল্যের একটি বাংলো, এক ডজন বিলাসবহুল গাড়ি ও নগদ বাজেয়াপ্ত করেছে। ইডি সূত্রের দাবি, তদন্তে যে সমস্ত তথ্য মিলেছে, তার উপরে ভিত্তি করেই জ্যাকলিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।


আরও খবর
গাছের সঙ্গে বিয়ে হবে নয়নতারার

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




পেরুর বিপক্ষে জিতল আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ অক্টোবর ২০২১ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কোপা আমেরিকা জয়ের পর থেকে আর্জেন্টিনা যেন দেখা দিয়েছে ভিন্ন এক রূপে। দুর্দান্ত ফুটবল খেলে প্রতিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করছে তারা। ফিরে যাচ্ছে নিজেদের ছোট ছোট পাসের পুরোনো ছন্দে। পেরুর বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে আরও একবার দেখা মিলল তেমন দৃশ্য।

অবশ্য তাদের আক্রমণগুলো ভেস্তে গেছে ডি বক্সের ভেতরে এসে। ম্যাচটি আর্জেন্টিনা জিতেছে কেবল ১-০ গোলে। প্রথমার্ধে একমাত্র গোলটি করেছেন লাওতারো মার্টিনেজ। ম্যাচের ৬৮ শতাংশ সময়ই বল নিজেদের পায়ে রেখেছেন লিওনেল স্ক্যালোনি শিষ্যরা।

যদিও এই জয়ের পরও একটা আক্ষেপ থাকতেই পারে আলবিসেলেস্তে সমর্থকদের। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে পেরুর বিপক্ষে ছয় ম্যাচ খেলে কখনো গোলের দেখা পাননি লিওনেল মেসি। পেলেন না এবারও। দলটির বিপক্ষে তার একমাত্র গোল ২০০৭ কোপা আমেরিকার ম্যাচে।

আগের ম্যাচে উরুগুয়েকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দেওয়া আর্জেন্টিনা এদিনও শুরু থেকে চেপে ধরে প্রতিপক্ষকে। একের পর এক আক্রমণে ব্যস্ত হয়ে পড়ে পেরুর রক্ষণ। ৯ম মিনিটেই বল জালেও জড়ায়। যদিও ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো অফসাইডে থেকে গোল করায় বাতিল হয় সেটি।

এরপর আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক মার্টিনেেজের পরীক্ষা নেন জানলুকা লাপাদুলা। প্রথমে তার ফ্রি কিক শট থামান তিনি। এরপর ২১তম মিনিটে সময় মতো এগিয়ে এসে দলকে রক্ষা করেন অ্যাস্টন ভিলা গোলরক্ষক।

৪৩তম মিনিটে এসে গোলের অপেক্ষা শেষ হয় আর্জেন্টিনার। নাহুয়েল মলিনার ক্রস বাড়ান মার্টিনেজের উদ্দেশ্যে। প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারকে কোনো সুযোগই দেননি তিনি। লাফিয়ে উঠে হেডে জাল খুঁজে নেন ইন্টার মিলান স্ট্রাইকার।

বিরতির পর ৬৫ মিনিটে ম্যাচে সমতা আনার দারুণ সুযোগ পায় পেরু। ডিফেন্ডারকে পেছনে ফেলে দেওয়া জেফারসন ফারফানকে বক্সে ফাউল করেন গোলরক্ষক মার্টিনেজ। পেনাল্টি পেয়ে যায় পেরু। ইয়োশিমার ইয়োতুন পেনাল্টি মারেন ক্রসবারে।

এর চার মিনিট পর মেসির ফ্রি কিক ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকান পেরু গোলরক্ষক। কিছুক্ষণ পর জালে বল জড়িয়েছিলেন গুইদো রদ্রিগেজ। কিন্তু এর আগেই তিনি প্রতিপক্ষের ফুটবলারকে ফাউল করলে গোলটি বাতিল হয়। এক গোলের জয় নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় আর্জেন্টিনাকে।

১১ ম্যাচে সাত জয় ও চার ড্রয়ে ২৫ পয়েন্ট নিয়ে লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে তালিকার দুইয়ে আছে আর্জেন্টিনা। ১২ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে ৯ নম্বরে আছে পেরু। তাদের বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন ক্ষীণ হচ্ছে ধীরে ধীরে।

নিউজ ট্যাগ: আর্জেন্টিনা

আরও খবর
অজিদের কষ্টার্জিত জয়

শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১




পিরোজপুরে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছে জেলা পরিষদ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পিরোজপুর:

পিরোজপুর জেলা পরিষদের উদ্যোগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে জেলা পরিষদের সভা কক্ষে এ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজ।

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষার জন্য উপজেলায় ৪ টি ইউনিয়ন জনপ্রতিনিধিদের কাছে ৭৮ টি সুরক্ষা প্যাকেট হস্তান্তর করা হয়। প্রতিটি প্যাকেটে রয়েছে মাস্ক, হ্যান্ডওয়াস, সাবান, স্যানেটাইজার। এছাড়াও  উপজেলায় ৩ টি ও প্রতিটি ইউনিয়নে ১ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করা হয়।

সুরক্ষা সামগ্রী বিতরনের আগে আলোচনা সভায় জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেবেকার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান,জেলা পরিষদের সদস্য, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান, ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য বৃন্দ।

পর্যায়ক্রমে জেলার সকল উপজেলায় ও ইউনিয়নে ৪৫ হাজার মাক্স, ১৫ হাজার হ্যান্ডওয়াস, ১৫ হাজার স্যানিটাইজার,১৫ হাজার সাবান, ৮৫ টি অক্সিজেন  সিলিন্ডার বিতরণের ঘোষণা দেন প্রধান অতিথি মহিউদ্দিন মহারাজ।

নিউজ ট্যাগ: পিরোজপুর

আরও খবর